Kallol Lahiri RSS feed

Kallol Lahiriএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • ইন্দুবালা ভাতের হোটেল-৬
    চিংড়ির হলুদ গালা ঝোলকোলাপোতা গ্রামটার পাশ দিয়ে বয়ে চলেছে কপোতাক্ষ। এছাড়া চারিদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে খাল বিল পুকুর। সবুজ জংলা ঝোপের পাশে সন্ধ্যামণি ফুল। হেলেঞ্চার লতা। উঠোনের কোন ঘেঁষে কাঠ চাঁপা। পঞ্চমুখী জবা। সদরের মুখটায় শিউলি। সাদা আঁচলের মতো পড়ে থাকে ...
  • যৌন শিক্ষা মহাপাপ...
    কিছুদিন ধরে হুট করেই যেন ধর্ষণের খবর খুব বেশি পাওয়া যাচ্ছে। যেন হুট করে কোন বিষাক্ত পোকার কামড়ে পাগলা কুকুরের মত হয়ে গেছে কিছু মানুষ। নিজের খিদে মিটাতে শিশু বৃদ্ধ বাছ বিচার করারও সময় নাই, হামলে পড়ছে শুধু। যদি বিষাক্ত পোকার কামড়ে হত তাহলে এই সমস্যার সমাধান ...
  • ইতিহাসবিদ সব্যসাচী ভট্টাচার্য
    আধুনিক ভারতের ইতিহাস চর্চায় সব্যসাচী ভট্টাচার্য এক উল্লেখযোগ্য নাম। গবেষক লেখক শিক্ষক এবং শিক্ষা প্রশাসক হিসেবে তাঁর অবদান বিশেষ উল্লেখযোগ্য। সবসাচীবাবুর বিদ্যালয় শিক্ষা বালিগঞ্জ গভর্মেন্ট হাই স্কুলে। তারপর পড়তে আসেন প্রেসিডেন্সি কলেজের ইতিহাস বিভাগে। ...
  • পাগল
    বিয়ের আগে শুনেছিলাম আজহারের রাজপ্রাসাদের মতো বিশাল বড় বাড়ি! তার ফুপু বিয়ে ঠিকঠাক ‌হবার পর আমাকে গর্বের সাথে বলেছিলেন, "কয়েক একর জায়গা নিয়ে আমাদের বিশাল বড় জমিদার বাড়ি আছে। অমুক জমিদারের খাস বাড়ি ছিল সেইটা। আজহারের চাচা কিনে নিয়েছিলেন।"সেইসব ...
  • অশোক দাশগুপ্ত
    তোষক আশগুপ্ত নাম দিয়ে গুরুতেই বছর দশেক আগে একটা ব্যঙ্গাত্মক লেখা লিখেছিলাম। এটা তার দোষস্খালন বলে ধরা যেতে পারে, কিন্তু দোষ কিছু করিনি ধর্মাবতার।ব্যাপারটা এই ২০১৭ সালে বসে বোঝা খুব শক্ত, কিন্ত ১৯৯২ সালে সুমন এসে বাঙলা গানের যে ওলটপালট করেছিলেন, ঠিক সেইরকম ...
  • অধিকার এবং প্রতিহিংসা
    সল্ট লেকে পূর্ত ভবনের পাশের রাস্তাটায় এমনিতেই আলো খুব কম। রাস্তাটাও খুব ছোট। তার মধ্যেই ব্যানার হাতে একটা মিছিল ভরাট আওয়াজে এ মোড় থেকে ও মোড় যাচ্ছে - আমাদের ন্যায্য দাবী মানতে হবে, প্রতিহিংসার ট্রান্সফার মানছি না, মানব না। এই শহরের উপকন্ঠে অভিনীত হয়ে ...
  • লে. জে. হু. মু. এরশাদ
    বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসের একটা অধ্যায় শেষ হল। এমন একটা চরিত্রও যে দেশের রাজনীতিতে এত গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে থাকতে পারে তা না দেখলে বিশ্বাস করা মুশকিল ছিল, এ এক বিরল ঘটনা। মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে যুদ্ধ না করে কোন সামরিক অফিসার বাড়িতে ঘাপটি মেরে বসে ছিলেন ...
  • বেড়ানো দেশের গল্প
    তোমার নাম, আমার নামঃ ভিয়েতনাম, ভিয়েতনাম --------------------...
  • সুভাষ মুখোপাধ্যায় : সৌন্দর্যের নতুন নন্দন ও বামপন্থার দর্শন
    ১৯৪০ সালে প্রকাশিত হয়েছিল সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘পদাতিক’। এর এক বিখ্যাত কবিতার প্রথম পংক্তিটি ছিল – “কমরেড আজ নবযুগ আনবে না ?” তার আগেই গোটা পৃথিবীতে কবিতার এক বাঁকবদল হয়েছে, বদলে গেছে বাংলা কবিতাও।মূলত বিশ্বযুদ্ধের প্রভাবে সভ্যতার ...
  • মৃণাল সেনের চলচ্চিত্র ভুবন
    মৃণাল সেনের জন্ম ১৯২৩ সালের ১৪ মে, পূর্ববঙ্গে। কৈশোর কাটিয়ে চলে আসেন কোলকাতায়। স্কটিশ চার্চ কলেজ ও কোলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থবিদ্যায় স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরে পড়াশুনো করেন। বামপন্থী রাজনীতির সাথে বরাবর জড়িয়ে থেকেছেন, অবশ্য কমিউনিস্ট পার্টির সদস্য ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

আত্মঘাতী আমরা...

Kallol Lahiri

বেশ কিছুদিন আগে একটি খুব জরুরী মিটিং-এ আমার এক সহযোগী একটু দেরী করে আসায় বকেছিলাম। দিনটা ছিল রাম নবমী। সে আমাকে তার দেরী করার কারণে যে ঘটনার কথা বলেছিল আমি স্তম্ভিত হয়ে গিয়েছিলাম শুনে। যাদবপুরের সুলেখার মোড়ে রাম নবমীর বিশাল মিছিল বের করেছিল গেরুয়া শিবির। যাঁরা রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন গাড়ি করে বা বাসে করে, পায়ে হেঁটে তাদের সবাইকে জোর করে সেই মিছিলে হাঁটতে বাধ্য করা হচ্ছিল। সহযোগী বলছিলেন, তাদের চেহারা...হুঙ্কার দেখে বোঝার উপায় নেই এরা পশ্চিমবঙ্গের কোন প্রান্তের বাসিন্দা। সে কোন রকমে চিৎকার করে সেখান থেকে চলে আসতে পেরেছিল। আর এক ছোট্ট বন্ধু সে টোটো করে যাচ্ছিল বালী কিম্বা উত্তর পাড়ায় সংলগ্ন কোন অঞ্চলে তাদের জোর করে জয় শ্রী রাম বলানো হয়। না বললে চড় থাপ্পড়। গতকাল আমার এক বন্ধু তার খুব দামী মোবাইল থেকে দেখাতে শুরু করে রবীন্দ্রনাথ নাকি মুসলুমান সমাজের ওপর কি কি ভাবে বিরক্ত ছিলেন এবং বিষোদগার করেছেন উক্তি দিয়ে তার বইয়ের পেজ নাম্বার দিয়ে তুলে দেওয়া আছে সেই পোষ্টে। পোষ্টটি ভাইরাল হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে গোটা বঙ্গ। রবীন্দ্রনাথ কোন প্রেক্ষিতে কিসের জন্য এই কথা গুলো বলেছিলেন একবারও কেউ ভেবে দেখছে না। গোটা প্রবন্ধটা কি বিষয় নিয়ে সেটাও জানার চেষ্টা করছে না। আমার বন্ধু দেখলাম বেশ বিরক্ত। সে ইতিমধ্যে রবীন্দ্রনাথ এই সব বলে গেছেন বলে চিন্তিত। গেরুয়া শিবিরের আই টি প্রফেশনালরা যে খুবই সাফল্যের সাথে কাজ করে চলেছেন এমন অনেক নিদর্শন চারিদিকে ছড়িয়ে আছে। তারা আমার যুক্তিবাদী বন্ধুটিকেও রবীন্দ্রনাথ এমন বলে থাকতে পারেন বলে ভাবতে বাধ্য করেছে। হয়তো এই মুহূর্তে আপনার হাতের কাছেও এমন অনেক কিছু ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। আমি একজন ঈশ্বর বিশ্বাসী মানুষ। আমার চারপাশে এমন অনেক বন্ধু-বান্ধব লোকজন আছেন যাঁরা ঈশ্বর বিশ্বাস করেন না। তাঁদের সাথে কোনদিন আমার কোনো সংঘাত হয়নি। 'তিনি আমার প্রাণের আরাম...মনের আনন্দ...আত্মার শান্তি'র মধ্যে কোথাও চিৎকৃত জয় শ্রী রাম ধ্বনি নেই। যে ধ্বনির মধ্যে আধিপত্য...হিংসা...আর রক্তক্ষয়ীর আবর্জনা নির্লিপ্ত আছে। রাম এই বঙ্গে বহু বছর ধরে পূজিত হয়ে এসেছেন। প্রত্যেক জুটমিলের সামনে হনুমান মন্দির ছিল। একজন বৃদ্ধ মানুষ সেই মন্দিরের সামনে হনুমান চল্লিশা পড়তেন। কারো কোন ক্ষতি হতো না। কেউ তাকে বারণ করতো না। কিন্তু এই মুহূর্তে আমার চারপাশে...রাস্তায় রাস্তায়...যে পরিমাণ হনুমান মন্দির নির্মিত হয়েছে। তাদের ঘিরে যে ধরণের সমাবেশ চোখে পড়ে সেগুলো মোটেই শুধু ঈশ্বর প্রীতির লক্ষণ নয়। তার চেয়েও মারাত্মক কিছু। তার নমুনাই পশ্চিমবঙ্গের এদিক ওদিক সমানে প্রতিফলিত হতে দেখছি। এইবারের ভোটে যে ধরনের চিত্রকল্প দৃষ্টির যে আনুষাঙ্গিক বহিপ্রকাশ একের পর এক আছড়ে পড়ছে তাতে মনে হচ্ছে আদৌ কোন কালে ভাতবর্ষ নামের একটা সার্বভৌম দেশের শিক্ষিত জনগণ ছিল কী? বেঁচে গেছেন বিদ্যাসাগর ভাগ্যিস তার মূর্তি ভেঙেছেন। বেঁচে গেছেন সুকান্ত তার দেহ থেকে মাথা আলাদা করে দিয়েছেন আপনারা। এমন আত্মঘাতী বাঙালীর ছবি ওনারা দেখতে পারতেন না। যে বাঙালী নিজের ল্যাজে আগুণ দিয়ে নিজের ঘর পোড়ায়। ধর্ম আমার একান্ত ব্যক্তিগত মনন। যা ধারণ করে আছি তাই আমার কাছে ধর্ম। সেই ধর্মের দোহাই দিয়ে যদি কেউ রাষ্ট্র...জনপদ...সভ্যতা দখল করতে যায় তার পরিণতি কি হয় ইতিহাস বারবার চোখে আঙুল তুলে দেখিয়েছে। আমরা মূর্খ। ভুলেছি বারবার। তাই শ্রী চৈতন্যের বঙ্গে...রামকৃষ্ণের বাংলায়...লালনের ভূমিতে...কবীরের দেশে...রামমোহন...বিদ্যাসাগর...মাইকেলের বঙ্গে বাঙালী নিজ গুণে আত্মঘাতী হতে বসেছে। এই পরম আত্মহত্যার বিবরণ ইতিহাস লক্ষ্য রাখছে। প্রজন্ম কিন্তু তার জবাব চাইবে।

303 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: Rouhin Banerjee

Re: আত্মঘাতী আমরা...

ঘৃণার রাজনীতির এতটা রমরমা দেখে বারবারই মনে হয়, এ আজকের হুট করে আমদানির ব্যপার নয়। "শিক্ষিত" আমরা কোনদিন ছিলাম কি না আদৌ, সন্দেহ হয়। আই টি সেলের কৃতিত্ব শুধু এটুকুই, তারা খোঁচা দেবার সঠিক জায়গাটা খুঁজে পেয়েছে।

The poison was there, for long


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন