Soumya Kanti Pramanik RSS feed

Soumya Kanti Pramanikএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • অরফ্যানগঞ্জ
    পায়ের নিচে মাটি তোলপাড় হচ্ছিল প্রফুল্লর— ভূমিকম্পর মত। পৃথিবীর অভ্যন্তরে যেন কেউ আছাড়ি পিছাড়ি খাচ্ছে— সেই প্রচণ্ড কাঁপুনিতে ফাটল ধরছে পথঘাট, দোকানবাজার, বহুতলে। পাতাল থেকে গোঙানির আওয়াজ আসছিল। ঝোড়ো বাতাস বইছিল রেলব্রিজের দিক থেকে। প্রফুল্ল দোকান থেকে ...
  • থিম পুজো
    অনেকদিন পরে পুরনো পাড়ায় গেছিলাম। মাঝে মাঝে যাই। পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হয়, আড্ডা হয়। বন্ধুদের মা-বাবা-পরিবারের সঙ্গে কথা হয়। ভাল লাগে। বেশ রিজুভিনেটিং। এবার অনেকদিন পরে গেলাম। এবার গিয়ে শুনলাম তপেস নাকি ব্যবসা করে ফুলে ফেঁপে উঠেছে। একটু পরে তপেসও এল ...
  • কাঁসাইয়ের সুতি খেলা
    সেকালে কাঁসাই নদীতে 'সুতি' নামের একটা খেলা প্রচলিত ছিল। মাছ ধরার অভিনব এক পদ্ধতি, বহু কাল ধরে যা চলে আসছে। আমাদের পাড়ার একাধিক লোক সুতি খেলাতে অংশ নিত। এই মৎস্যশিকার সার্বজনীন, হিন্দু ও মুসলিম উভয় সম্প্রদায়ে জনপ্রিয়। মনে আছে ক্লাস সেভেনে পড়ার সময় একদিন ...
  • শুভ বিজয়া
    আমার যে ঠাকুর-দেবতায় খুব একটা বিশ্বাস আছে, এমন নয়। শাশ্বত অবিনশ্বর আত্মাতেও নয়। এদিকে, আমার এই জীবন, এই বেঁচে থাকা, সবকিছু নিছকই জৈবরাসায়নিক ক্রিয়া, এমনটা সবসময় বিশ্বাস করতে ইচ্ছে করে না - জীবনের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য-পরিণ...
  • আবরার ফাহাদ হত্যার বিচার চাই...
    দেশের সবচেয়ে মেধাবীরা বুয়েটে পড়ার সুযোগ পায়। দেশের সবচেয়ে ভাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিঃসন্দেহে বুয়েট। সেই প্রতিষ্ঠানের একজন ছাত্রকে শিবির সন্দেহে পিটিয়ে মেরে ফেলল কিছু বরাহ নন্দন! কাওকে পিটিয়ে মেরে ফেলা কি খুব সহজ কাজ? কতটুকু জোরে মারতে হয়? একজন মানুষ পারে ...
  • ইন্দুবালা ভাতের হোটেল-৭
    চন্দ্রপুলিধনঞ্জয় বাজার থেকে এনেছে গোটা দশেক নারকেল। কিলোটাক খোয়া ক্ষীর। চিনি। ছোট এলাচ আনতে ভুলে গেছে। যত বয়েস বাড়ছে ধনঞ্জয়ের ভুল হচ্ছে ততো। এই নিয়ে সকালে ইন্দুবালার সাথে কথা কাটাকাটি হয়েছে। ছোট খাটো ঝগড়াও। পুজো এলেই ইন্দুবালার মন ভালো থাকে না। কেমন যেন ...
  • গুমনামিজোচ্চরফেরেব্বাজ
    #গুমনামিজোচ্চরফেরেব্...
  • হাসিমারার হাটে
    অনেকদিন আগে একবার দিন সাতেকের জন্যে ভূটান বেড়াতে যাব ঠিক করেছিলাম। কলেজ থেকে বেরিয়ে তদ্দিনে বছরখানেক চাকরি করা হয়ে গেছে। পুজোর সপ্তমীর দিন আমি, অভিজিৎ আর শুভায়ু দার্জিলিং মেল ধরলাম। শিলিগুড়ি অব্দি ট্রেন, সেখান থেকে বাসে ফুন্টসলিং। ফুন্টসলিঙে এক রাত্তির ...
  • দ্বিষো জহি
    বোধন হয়ে গেছে গতকাল। আজ ষষ্ঠ্যাদি কল্পারম্ভ, সন্ধ্যাবেলায় আমন্ত্রণ ও অধিবাস। তবে আমবাঙালির মতো, আমারও এসব স্পেশিয়ালাইজড শিডিউল নিয়ে মাথা ব্যাথা নেই তেমন - ছেলেবেলা থেকে আমি বুঝি দুগ্গা এসে গেছে, খুব আনন্দ হবে - এটুকুই।তা এখানে সেই আকাশ আজ। গভীর নীল - ...
  • গান্ধিজির স্বরাজ
    আমার চোখে আধুনিক ভারতের যত সমস্যা তার সবকটির মূলেই দায়ী আছে ব্রিটিশ শাসন। উদাহরণ, হাতে গরম এন আর সি নিন, প্রাক ব্রিটিশ ভারতে এরকম কোনও ইস্যুই ভাবা যেতো না। কিম্বা হিন্দু-মুসলমান, জাতিভেদ, আর্থিক বৈষম্য, জনস্ফীতি, গণস্বাস্থ্য ব্যবস্থার অভাব, শিক্ষার অভাব ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

মহাকাল

Soumya Kanti Pramanik

স্টেশনের নাম নিশ্চিত পুর...

ট্রেন টা রওনা দিয়েছে কিছুক্ষণ আগে...

যারা এইমাত্র নামল, তারা সবাই ব্যস্ত-সমস্ত হয়ে বাড়ির দিকে পা বাড়িয়েছে...
অমলীন কৈশোরের ভাঁজে ভাঁজে যে কুয়াশার ওম জড়ানো থাকে, সেই ওমে ভিজে আছে এই কনে দেখা আলোর মাঝে একা দুটি সমান্তরাল ট্রেন লাইন...
এর ফাঁকে ফাঁকে এক ঝাঁক পায়রা উড়ে উড়ে বসছে, আবহমান কাল জুড়ে তারা খেলা করছে ওই ইস্পাতের লাইনজুড়ে...

খুঁটে খুঁটে কি যেন খায় ওরা...

পথচারীদের পায়ের শব্দে একবার উড়ে গেল, আবার এসে বসবে...

যুবকটি এক দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে সেদিকে-কোন চিত্রকল্প নয়, শুধু দুচোখে তার উদ্ভাসিত শীতলতা...
এই মাত্র একটা সিগারেট শেষ হয়েছে তার, কাঁধে একটা ঝোলা ব্যাগ...

দূরে কিছু অমলতাস-কলার বাগান, একটা মাছ রাঙা সেসবের মাঝে এক দৃষ্টি তে তাকিয়ে আছে কোন অনতিদূরের পুকুরের দিকে...

কলা গাছের ফাঁকে দুটি লাল পিঁপড়ে...

জর্জ বুশ বা হিটলার কখনো ওই পায়রাদের ওড়াউড়ি দেখেনি...

১৮২ মিটার উঁচু মূর্তির ওপরে ওরা কখনো উড়ে এসে বসবে না...

যখন যুদ্ধ লেগেছিল পৃথিবীতে, ওরা তখন কোথায় উড়ে গিয়েছিল ?
হয়তো এরপরেও গর্জে উঠবে ওয়াল স্ট্রিট, হয়তো কোন নভেম্বরে... কিন্তু সেদিনও এই পায়রাদের ওড়াউড়ি বন্ধ হবে না...

সেদিন হটাৎ থেমে যাবে ওই ট্রেন, মাঝপথে, তখন গভীর রাত্রি...নিঃশব্দে এসে দাঁড়াবে মহাকাল...
সবাই হয়তো বলবে, এইতো গন্তব্য আর মিনিট পাঁচেক, জোরে পা চালাও,জোরে, আরো-আরো জোরে...

অথবা, সকল যাত্রীরা তখন ঘুমে নির্বাক..
রাত-জাগা পাখির ফিচেল হাসিতে আরো ধারালো হবে বাতাস...
কিন্তু সে রাত এখনও আসেনি...
ফিকে নীল রঙের অভিমান চোখে এখন মাছরাঙা তাকিয়ে আছে ডোবাটার দিকে...
একটা রুপোলি মাছ মিষ্টি হেসে তাকে দেখে বলে উঠলো, "তুমি তো সাঁতার জানো না, তাই জলে নেমো না, লক্ষ্মী টি...
তারচেয়ে, একা বাঁচো, অথবা দেশান্তরী হও- একটা সোনালী নতুন দেশে তোমায় দারুন মানাবে ! "...

বলা হয়নি, যুবক টি কিছুক্ষণ আগে তার কবিতার খাতা আর কলমটা বেঁচে দিয়ে এসেছে, এখন তার ঝুলিতে বারুদের ঠাসবুননের দুটো তাজা বোমা...

আসলে, নিশ্চিন্তপুরে কেউ জেগে নেই, তাদের সকলের স্বপ্নের মাঝে একা ওই যুবকের আজ বন্দিদশা !!

536 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন



আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন