রাণা আলম RSS feed

রাণা আলম এর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • নিকানো উঠোনে ঝরে রোদ
    "তেরশত নদী শুধায় আমাকে, কোথা থেকে তুমি এলে ?আমি তো এসেছি চর্যাপদের অক্ষরগুলো থেকে ..."সেই অক্ষরগুলোকে ধরার আরেকটা অক্ষম চেষ্টা, আমার নতুন লেখায় ... এক বন্ধু অনেকদিন আগে বলেছিলো, 'আঙ্গুলের গভীর বন্দর থেকে যে নৌকোগুলো ছাড়ে সেগুলো ঠিক-ই গন্তব্যে পৌঁছে যায়' ...
  • খানাকুল - ২
    [এর আগে - https://www.guruchan...
  • চন্দ্রযান-উন্মত্ততা এবং আমাদের বিজ্ঞান গবেষণা
    চন্দ্রযান-২ চাঁদের মাটিতে ঠিকঠাক নামতে পারেনি, তার ঠিক কী যে সমস্যা হয়েছে সেটা এখনও পর্যন্ত পরিষ্কার নয় । এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে শুরু হয়েছে তর্কাতর্কি, সরকারের সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে । প্রকল্পটির সাফল্য কামনা করে ইসরো-র শীর্ষস্থানীয় বিজ্ঞানীরা ...
  • দেশত্যাগ...
    আমার এক বন্ধু ওর একটা ভিজিটিং কার্ড আমাকে দিয়েছিল। আমি হাতে নেওয়ার সময় কার্ডটা দেখে বুঝতে পারলাম কার্ডটা গতানুগতিক কোন কার্ড না, বেশ দামি বলা চলে। আমি বাহ! বলে কাজ শেষ করে দিলাম। আমি আমার বন্ধুকে চিনি, ওর কার্ডের প্রতি এরচেয়ে বেশি আগ্রহ দেখালে ও আমার মাথা ...
  • পাঠকের সঙ্গে তাদের হয় না কো দেখা
    মানস চক্রবর্তীকবিতা কি বিনােদনসামগ্রী? তর্ক এ নিয়ে আপাতত নয়। কবিতা কি আদৌ কোনাে সামগ্রী? কোনাে কিছুকে পণ্য হয়ে উঠতে হলেও তার একটা যােগ্যতা দরকার হয়। আজকের দিনে কবিতা সে-অবস্থায় আদৌ আছে কি না সবার আগে স্পষ্ট হওয়া দরকার। কবিতা নামে একটা ব্যাপার আছে, ...
  • হে মোর দেবতা
    তোমারি তুলনা তুমি....আজ তাঁর জন্মদিন। আমার জংলা ডায়রির কয়েকটা ছেঁড়া পাতা উড়িয়ে দিলুম তাঁর ফেলে যাওয়া পথে।দাঁড়াও পথিকবর....জন্ম যদি তব অরণ্যে," সবুজ কাগজেসবুজেরা লেখে কবিতাপৃথিবী এখন তাদের হাতের মুঠোয়"(বীরেন্দ্র চট্টোপাধ্যায়)মহাভারত...
  • বেকার ও সমীকরণ
    'বেকার'-এই শব্দটি আমাকে আজন্ম বিস্মিত করেছে। বাংলায় লেখাপড়া শিখে, এমনকী একাদশ শ্রেণীতে বিজ্ঞান বিভাগে পড়ে, সে কী বাংলায় পদার্থবিদ্যার বিদ্যা বালানীয় চর্চা! যেমন, 'ও বিন্দুর সাপেক্ষে ভ্রামক লইয়া পাই।' ভ্রামক কি রে? ভ্রম না ভ্রমণের কাছাকাছি? না, ভ্রামকের ...
  • ধানবাদের রায়বাবু
    অরূপ বসুবেশ কয়েকমাস আগে লিখেছিলাম, ভাল নেই ধানবাদের রায়বাবু। অরুণকুমার রায়ের স্মিত হাসিমুখ ছবির সঙ্গে সেই খবর পড়ে অনেকেই বিচলিত হয়েছিলেন। এখন লিখতে হচ্ছে, ধানবাদের রায়বাবু আর নেই! যে খবর ইতিমধ্যেই অনেকের হৃদয়, মন বিবশ করেছে। রায়বাবু নেই, কিন্তু ...
  • চন্দ্রকান্ত নাকেশ্বর
    চন্দ্রযান-৩ যখন ফাইনালি টুক করে চাঁদে নেমেই পড়ল তখন 'বিশ্বে সে কী কলরব, সে কী মা ভক্তি, সে কী মা হর্ষ'-র মধ্যে বোম্বে ফিল্ম কোম্পানি ঠিক করল একটা ছবি বানাবে। চন্দ্রযান-১ যখন চাঁদে গেছিল, তখন একটুও ফুটেজ পায়নি। কিন্তু তারপর মঙ্গলযান নিয়ে একটা আস্ত ছবি হয়ে ...
  • পাখিদের পাঠশালা
    'আচ্ছা, সারা দেশে মোট কতজন ক্যান্ডিডেট এই পরীক্ষাটা দেয়?', লোকটা সিগারেটে একটা টান দিয়ে প্রশ্ন করলো।-'জানা নেই। তবে লাখ দশেক তো হবেই।', আমি বললাম।- 'বাব্বা! এতজন! সিট কতো ?'-'বলতে পারব না। ভাল কলেজ পেতে গেলে মেরিট লিস্টে যথেষ্ট ওপরে নাম থাকতে হবে।'-' তার ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

কাফিরনামা...(পর্ব ২)

রাণা আলম

আমার মতন অকিঞ্চিৎকর লোকের সিরিজ লিখতে বসা মানে আদতে সহনশীল পাঠকের সহ্যশক্তিকে অনবরত পরীক্ষা করা ।কোশ্চেনটা হল যে আপনি কাফিরনামা ক্যানো পড়বেন? আপনার এই দুনিয়াতে গুচ্ছের কাজ এবং অকাজ আছে। সব ছেড়ে কাফিরনামা পড়ার মতন বাজে সময় খুদাতলা আপনাকে দিয়েছেন কি? অবশ্যি,এই বিচ্ছিরি গরম, মোহনবাগানের ফেড কাপ ফাইনালে হার আর এত পার্সেন্ট ডিএ বকেয়া রেখেও যদি আপনি বহাল তবিয়তে বেঁচে থাকতে পারেন তাহলে আমার এই কাফিরনামা সেই তুলনায় এক্কেবারে ‘তুশ্চু’।

আমার এক মাস্টারমশাই বলেছিলেন যে খুদাতলা দ্বীন দুনিয়ার আদমজাত কে সারপ্রাইজ দিতে হেব্বি ভালোবাসেন। কদিন আগে সেরমই একটা সারপ্রাইজ আম্মো পেলুম আর কি। বেলুড়ের দর্শনের অধ্যাপক সামিম দা, মানে সামিম আহমেদ কদিন আগে আমার ছোট্ট শহরে এসেছিলেন।তার আগামী বই, বাংলার শেষ নবাব ফেরাদুন জা কে নিয়ে। সেই সংক্রান্ত তত্ত্বতালাস করার ছিল। লালবাগ কলেজের ইতিহাসের অতিথি অধ্যাপক ফারুক আবদুল্লা খোঁজ দিয়েছিলেন ফেরাদুন জা’র বংশধর ‘ছোটে’ নবাব রেজা আলি খান এর। অনেক তথ্যই তার কাছ থেকে পাওয়া সম্ভব। হাজারদুয়ারি’র পাশে ওয়াসিফ মঞ্জিল। মাঝদুপুরের রোদ্দুরে ছাতা মাথায় তিন বঙ্গসন্তান দাঁড়িয়ে আছে ওয়াসিফ মঞ্জিলের সামনে।আদত চাষীবাড়ির সন্তান আমি। নবাব-বাদশা দূরে থাক, নায়েব-গোমস্তাও কোনোদিন চর্মচক্ষে দেখিনি।সেই আমি বাংলার শেষ নবাবের বংশধরকে দেখার সৌভাগ্য লাভের আশায় হাঁ করে দাঁড়াইছিলাম। ডোনাল্ড ট্রাম্প সৌদি’র ছাগসন্তানদের সাথে অস্ত্র বিক্রির তামাশায় পা নাচালে ভারতের গোমাতার অপদার্থ সন্তানদের মুখ য্যামন হাঁ হয় সেরম।

আমার ভাগ্নে রাকিব কালিয়াগঞ্জ গভর্নমেন্ট কলেজে ইতিহাস পড়ায়। আমাদের মধ্যে সেইই ‘ছোটে’ নবাব কে চিনতো। সেই আঙ্গুল তুলে দ্যাখালো যে ওই হিজ হাইনেস নবাব বাহাদুর অফ মুর্শিদাবাদ সৈয়দ মহাম্মদ আব্বাস আলি মির্জা’র কনিষ্ঠ ভ্রাতা ‘ছোটে’ নবাব সৈয়দ মহাম্মদ রেজা আলি মির্জা আসছেন। প্রতীক্ষার অবসান হইল। কাননে কুসুমকলি সকলি ফুটিল।

সাকুল্যে পাঁচফুট হাইটের রোগাভোগা একটা লোক,গায়ে সবুজ স্ট্রাইপ দেওয়া টি-শার্ট আর প্যান্ট, রঙ করা একটা সাইকেল থেকে নেমে বললেন, “আসসালাইমো আলাইকুম। আমিই ছোটে নবাব’।

নবাব-বাদশা বলতে যে রাজসিক ফিগারের আশা করেছিলাম, বাস্তব তার দু মাইলের মধ্যে দিয়েও গেলনা। নবাব সায়েব অতি শান্তশিষ্ট ভদ্রলোক।কথায় কথায় জানালেন যে তিনি পত্নীনিষ্ঠও বটে। অর্থাৎ, কিনা খাঁটি বাঙালি ভদ্রলোক।

কথাপ্রসঙ্গে জানলুম যে সৈয়দ মহাম্মদ নবাব বাহাদুর অফ বেঙ্গল ফেরাদুন জা শতপুত্রের জনক ছিলেন। তার ১০১ টি পুত্র কন্যা ছিল।তারমধ্যে বিলিতি মহিলার গর্ভেও দু-তিনজনের জন্ম হয়।নবাব সায়েব রা এককালে যথেষ্টই ‘ফুটানি’ করে গেছেন। তবে সে কিসসা অন্য পর্বের জন্য তোলা থাক।

অবশ্যি, এই অবাক হওয়াটা এটাই প্রথমবার নয়। প্রত্যন্ত গ্রামের ইস্কুলে মাস্টারি করেছি বছর পাঁচেক।সেখানে রাজবংশী আর মুসলমানেদের বাস। বেশিরভাগের অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপ। তেরো-চৌদ্দতেই মেয়েদের বিয়ে হয় আর বারো-তেরো তেই ছেলেরা লেবার খাটতে যায়।ক্লাস সিক্সের মেয়ে, তার নাম ধরা যাক জেসমিনা, সে স্কুলে আসেনা নিয়মিত। মাস্টার মশাই বকাঝকা করছেন। মেয়েটি দাঁড়িয়ে চুপচাপ কেঁদে যাচ্ছে। তার অভিভাবক কে ডাকা হল। মা এলেন।

জানলাম তিনি পাঁচ সন্তানের জননী।তার স্বামী তাকে তালাক দিয়ে গ্রামেই আরেকটা বিয়ে করে দিব্যি আছেন।আগের স্ত্রী দূরে থাক, সন্তানদের দায়িত্ব অবধি নেন না। এই অসহায় মহিলা স্বামীর বিরুদ্ধে খোরপোষের মামলা লড়ছেন। বিঁড়ি বেঁধে সংসার চালান। সে কাজে তার ক্লাস সিক্সের মেয়েকেও হাত লাগাতে হয়।তাই সে স্কুলে আসতে পারেনা। মামলা লড়ার জন্য প্রাক্তন স্বামীর লোকেরা তাকে রাস্তায় ফেলে পিটিয়েছে।

এই অসহায় মহিলা কে তার ধর্ম, ধর্মের মুরুব্বী আর তার ঈশ্বর-কেউই কোনো সাহায্য করেনি।স্বামী তালাক দিয়ে আরেকটা বিয়ে করে। বাপের বাড়ি সম্পন্ন হলে মেয়েটার তাও একটা সহায় থাকে। বাপের বাড়ি গরিব হলে সেই মেয়ের কি হয় সেই খোঁজ ইসলাম ধর্মের মুরুব্বীরা নেন না। আজ যখন মুসলিম মেয়েরা তিন তালাকের বিরুদ্ধে কোর্টে গিয়েছেন, এ কুপ্রথা রদ করার জন্য আওয়াজ তুলছেন, তখন মুরুব্বীদের মাথায় হাত পড়েছে।

ইসস। মাইয়া মানুষেরা অধিকার চাইছে? অ্যাত্তো বড় ব্লাসফেমি কি সহ্য করা যায়?সুপ্রিম কোর্ট মাঝখানে না থাকলে তারা অ্যাদ্দিনে আরেক খানা ফতোয়াবাজিই করে ফেলতেন। নেহাত ভারত একটি ‘কাফির’ দ্যাশ। তাই জিন্নাসায়েবের কথানুসারে যস্মিন দ্যাশে যস্মিন কদাচার ইত্যাদি ইত্যাদি।

মামলার ফল কি হবে বোঝা যাচ্ছেনা এখনও। তবে মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড নামের যে আজব চিজটি রয়েছেন তার মুরুব্বীরা বিপাকে পড়ে এখন বলছেন যে যে তালাক দেবে তাকে সামাজিক বয়কট করা হবে। কাজিরা তালাক আটকাবেন ইত্যাদি ইত্যাদি। এসব ‘বেহদ বকোয়াস’ শুনলে বীরভূম সীমান্তের সেই প্রান্তিক গ্রামের পাঁচ সন্তানসহ তালাকপ্রাপ্তা সেই অসহায় মহিলার কথা মনে পড়ে আমার।

শিক্ষিত মুসলিমদের মধ্যে থেকেও এখন তিন তালাকের বিরুদ্ধে আওয়াজ উঠছে, এইটাই সবচেয়ে ভালো লক্ষণ।

টিপু সুলতান মসজিদের ইমাম, থুড়ি প্রাক্তন ইমাম, বরকতি সায়েব প্রায় ধোলাই খেয়ে যাচ্ছিলেন কিছু মুসলিম যুবকের কাছে। তাপ্পর তার সাধের লালবাতি আর মসজিদের ইমামত্ব, দুইই আপাতত খোয়া গেছে।নিজেকে মুসলিমদের মসীহা ভেবে শাসকদলের প্রতি আনুগত্য প্র্যাকটিস করা বরকতি সায়েব এর শিক্ষে হল কিনা জানিনা, তবে এখান থেকে আলোর দিশা তো দেখা যাচ্ছে বটেই।

বছরের পর বছর ধরে কতকগুলো ধর্মোন্মাদ নিজেদের যাবতীয় মুসলিম এর মুখপত্র ধরে নিয়ে কাকে ভোট দেওয়া উচিত, কি করা উচিত, কাকে বয়কট করা উচিত তাই নিয়ে ফতোয়াবাজি চালিয়ে গেছে।সময় এসেছে এদের ঘাড়ধাক্কা দিয়ে বোঝানো যে তারা আর যাই হোক ভারতের মুসলিমদের ‘মসীহা’ নয়।

বরকতি’র বিরুদ্ধে প্রথাগতভাবে শিক্ষিত, অশিক্ষিত সব শ্রেণীর মুসলিমরা মুখ খুলেছেন।তাদের প্রতি অভিবাদন থাকুক।তার সাথে থাকছে কিঞ্চিৎ আশংকাও। বরকতি সরেছেন। সেই জায়গায় যেন অন্য ‘বরকতি’ না এসে বসে।

পরের পর্বে তথাকথিত মুসলিম ভোটব্যাঙ্ক নিয়ে লিখবো। আপাতত এইটুকুই। যারা শেষ লাইনটা পড়ছেন, তাদের সহনশক্তিকে ধন্যবাদ।

শাব্বা খয়ের।শুভরাত্রি।সক্কলে ভালো থাকুন।



370 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: boka

Re: কাফিরনামা...(পর্ব ২)

ভালো লাগলো, পরের পর্বের দিকে তাকিয়ে আছি
Avatar: kihobejene

Re: কাফিরনামা...(পর্ব ২)

bhaloi to likhechen ... koshto holo na porte ... Donald Trump er naach ta tahole bhalo legeche?
Avatar: Abhirup

Re: কাফিরনামা...(পর্ব ২)

খুব ভালো
Avatar: সিকি

Re: কাফিরনামা...(পর্ব ২)

রাণাকে শুধু একটা ফেলে চুমু দেবার জন্যেই আরেকবার মনে হচ্ছে বহরমপুর যেতে হবে। বদলে রাণা কি আমাকে চাট্টি মাটন চাপ খাওয়াবে না?
Avatar: d

Re: কাফিরনামা...(পর্ব ২)

রানা, এইটা আরেকটু জলদি লেখা যায় না? যৎকিঞ্চিৎ যেমন নিয়মিত রবিবার করে আসত, ওরকম।
Avatar: pi

Re: কাফিরনামা...(পর্ব ২)

লেখা ভাল লেগেছে, বলা বাহুল্য। কিন্তু কয়েকটা প্রশ্ন আছে। সময় করে দেখিস একটু।

'তার স্বামী তাকে তালাক দিয়ে গ্রামেই আরেকটা বিয়ে করে দিব্যি আছেন।আগের স্ত্রী দূরে থাক, সন্তানদের দায়িত্ব অবধি নেন না। এই অসহায় মহিলা স্বামীর বিরুদ্ধে খোরপোষের মামলা লড়ছেন'

তালাক দিয়ে বলতে এটা তিন তালাক ছিল ?


আর,' মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড নামের যে আজব চিজটি রয়েছেন তার মুরুব্বীরা বিপাকে পড়ে এখন বলছেন যে যে তালাক দেবে তাকে সামাজিক বয়কট করা হবে।' , এটা কি প্রযোজ্য হয়ে গেছে ? তাহলে ঐ মেয়েটির কেসেও হতে পারে ?
এমনিতে তিন তালাকের কেসে সন্তানের ভরণপোষণের দাবি নিয়ে পার্সোনাল ল বোর্ডের কাছে যাওয়া যায় ?

আরেকটা প্রশ্ন, এই তিনতালাকের ফ্রিকোয়েন্সি কেমন ? আর মেয়েদের দিক থেকেও এরকম মুখে বলে তালাক দিয়ে দেওয়া যায় পড়েছিলাম ( প্রথার নাম মনে নেই), সেটারই বা ফ্রিকোয়েন্সি কেমন ?

Avatar: Arindam

Re: কাফিরনামা...(পর্ব ২)

"আদত চাষীবাড়ির সন্তান আমি। নবাব-বাদশা দূরে থাক, নায়েব-গোমস্তাও কোনোদিন চর্মচক্ষে দেখিনি।" - মানে আপনার জমিদার ভালো লোক !
Avatar: de

Re: কাফিরনামা...(পর্ব ২)

খুবই ভালো - রাণা - আরো লিখুন!
Avatar: রম্যানী চক্রবর্তী

Re: কাফিরনামা...(পর্ব ২)

ভাল লাগল
Avatar: Atoz

Re: কাফিরনামা...(পর্ব ২)

নবাব বাহাদুরের ১০১ জন পুত্রকন্যা ছিলেন!!!! কী সাংঘাতিক !
ঃ-)
Avatar: প্রতিভা

Re: কাফিরনামা...(পর্ব ২)

লেখাটা মনে হচ্ছে লম্বা রেসের ঘোড়া। কোথায় গিয়ে থামে দেখা যাক।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন