Prativa Sarker RSS feed

Prativa Sarkerএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • আমাদের চমৎকার বড়দা প্রসঙ্গে
    ইয়ে, স-অ-অ-অ-ব দেখছে। বড়দা সব দেখছে। বড়দা স্রেফ দেখেনি ওইখানে এক দিন রাম জন্মালেন, তার পর কারা বিদেশ থেকে এসে যেন ভেঙেটেঙে মসজিদ স্থাপন করল, কেন না বড়দা তখন ঘুমোচ্ছিলেন। ঘুম ভাঙল যখন, চোখ কচলেটচলে দেখলেন মস্ত ব্যাপার এ, বড়দা বললেন, ভেঙে ফেলো মসজিদ, জমি ...
  • ধর্ষকের মৃত্যুদন্ড দিলেই সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে ?
    যেকোন নারকীয় ধর্ষণের ঘটনা সংবাদ মাধ্যমে প্রতিফলিত হয়ে সামনে আসার পর নাগরিক হিসাবে আমাদের একটা ঈমানি দায়িত্ব থাকে। দায়িত্বটা হল অভিযুক্ত ধর্ষকের কঠোরতম শাস্তির দাবি করা। কঠোরতম শাস্তি বলতে কারোর কাছে মৃত্যুদন্ড। কেউ একটু এগিয়ে ধর্ষকের পুরুষাঙ্গ কেটে নেওয়ার ...
  • তোমার পূজার ছলে
    বাঙালি মধ্যবিত্তের মার্জিত ও পরিশীলিত হাবভাব দেখতে বেশ লাগে। অপসংস্কৃতি নিয়ে বাঙালি চিরকাল ওয়াকিবহাল ছিল। আজও আছে। বেশ লাগে। কিন্তু, বুকে হাত দিয়ে বলুন, আপনার প্রবল ক্ষোভ ও অপমানে আপনার কি খুব পরিশীলিত, গঙ্গাজলে ধোওয়া আদ্যন্ত সাত্ত্বিক শব্দ মনে পড়ে? না ...
  • The Irishman
    দা আইরিশম্যান। সিনেমা প্রেমীদের জন্য মার্টিন স্করসিসের নতুন বিস্ময়। ট্যাক্সি ড্রাইভার, গুডফেলাস, ক্যাসিনো, গ্যাংস অব নিউইয়র্ক, দা অ্যাভিয়েটর, দ্য ডিপার্টেড, শাটার আইল্যান্ড, দ্য উল্ফ অব ওয়াল স্ট্রিট, সাইলেন্টের পরের জায়গা দা আইরিশম্যান। বর্তমান সময়ের ...
  • তোকে আমরা কী দিইনি?
    পূর্ণেন্দু পত্রী মশাই মার্জনা করবেন -********তোকে আমরা কী দিইনি নরেন?আগুন জ্বালিয়ে হোলি খেলবি বলে আমরা তোকে দিয়েছি এক ট্রেন ভর্তি করসেবক। দেদার মুসলমান মারবি বলে তুলে দিয়েছি পুরো গুজরাট। তোর রাজধর্ম পালন করতে ইচ্ছে করে বলে পাঠিয়ে দিয়েছি স্বয়ং আদবানীজীকে, ...
  • ইশকুল ও আর্কাদি গাইদার
    "জাহাজ আসে, বলে, ধন্যি খোকা !বিমান আসে, বলে, ধন্যি খোকা !এঞ্জিনও যায়, ধন্যি তোরে খোকা !আসে তরুণ পাইওনিয়র,সেলাম তোরে খোকা !"আরজামাস বলে একটা শহর ছিল। ছোট্ট শহর, অনেক দূরের, অন্য মহাদেশে। অনেক ছোটবেলায় চিনে ফেলেছিলাম। ভৌগোলিক দূরত্ব টের পাইনি।টের পেতে দেননি ...
  • ছন্দহীন কবিতা
    একদিন দুঃসাহসের পাখায় ভর করে,ছুঁতে চেয়েছিলাম কবিতার শরীর ।দ্বিখন্ডিত বাংলার মত কবিতা হয়ে উঠলোছন্দহীন ।অর্থহীন যাত্রার “কা কা” চিৎকারে,ছুটে এলোপ্রতিবাদী পাঠক।ছন্দভঙ্গের নায়কডানা ভেঙ্গে পড়িপুঁথি পুস্তকের এক দোকানে।আলোক প্রাপ্তির প্রত্যাশায়,যোগ ধ্যানে কেটে ...
  • হ্যালোউইনের ভূত
    হ্যালোউইন চলে গেল। আমাদের বাড়িতে হ্যালোউইনের রীতি হল মেয়েরা বন্ধুদের সঙ্গে ট্রিক-অর-ট্রিট করতে বেরোয় দল বেঁধে। পেছনে পেছনে চলে মায়েদের দল। আর আমি বাড়িতে থাকি ক্যান্ডি বিতরণ করব বলে। মুহূর্মুহূ কলিং বেল বাজে, আমি হাসি-হাসি মুখে ক্যান্ডির গামলা নিয়ে দরজা ...
  • হয়নি
    তুমি ভালবাসতে চেয়েছিলে।আমিও ।হয়নি।তুমিঅনেক দূর অব্দি চলে এসেছিলে।আমিও ।হয়নি আর পথ চলা।তুমি ফিরে গেলে,জানালে,ভালবাসতে চেয়েছিলেহয়নি। আমি জানলামচেয়ে পাইনি।হয়নি।জলভেজা চোখে ভেসে গেলআমাদের অতীত।স্মিত হেসে সামনে এসে দাঁড়ালোপথদুজনার দু টি পথ।সেপ্টেম্বর ২২, ...
  • তিরাশির শীত
    ১৯৮৩ র শীতে লয়েডের ওয়েস্টইন্ডিজ ভারতে সফর করতে এলো। সেই সময়কার আমাদের মফস্বলের সেই শীতঋতু, তাজা খেজুর রস ও রকমারি টোপা কুলে আয়োজিত, রঙিন কমলালেবু-সুরভিত, কিছু অন্যরকম ছিলো। এত শীত, এত শীত সেই অধুনাবিস্মৃত কালে, কুয়াশাআচ্ছন্ন পুকুরের লেগে থাকা হিমে মাছ ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

Prativa Sarker

ভারত মহাসাগরের তীরে এক বর্ণময় নারীর জীবনাবসানের সাক্ষী হতে হচ্ছে নেহাত ঘটনাচক্রে। হঠাতই এসে পড়েছি তামিলনাড়ুর পাশে, ইচ্ছে ছিল আজ শ্রীরঙ্গাপত্তনমে টিপুর কাছে যাবার, সব ভন্ডুল করে দিয়ে ঘাড়ের ওপর নিঃশ্বাস ফেলছে এক বৃদ্ধা অভিনেত্রীর, আপাতসফল কিন্তু নিষ্ঠুর একনায়িকার অবশ্যম্ভাবী মৃত্যু। সে আগুনের আঁচের সেঁক নিচ্ছে চেন্নাইতে এপোলো হাসপাতালের সামনে মানুষের কাতার, সন্ত্রস্ত সেবাকর্মীরা,রেলস্টেশন,এয়ারপোর্ট জুড়ে আটকে পড়া অসহায় মুখের ভিড়, বন্ধ দোকান বাজার আর ক্রমশ জনবিরল হতে থাকা রাস্তাঘাট। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে অন্য রাজ্যের লাগোয়া সব সীমান্ত। উড়িয়ে আনা হয়েছে অন্য রাজ্যের সি আর পি এফ, রাজধানীর উৎকৃষ্ট চিকিৎসকদল। চিরসঙ্গিনী শশিকলা যথারীতি ঘাঁটি আগলে, আর মহা চিন্তিত রাজনীতিজ্ঞদের ব্যাকুল আনাগোনা যেন ক্ষমতার অলিন্দে ভাঙ্গা কাঁঠালের ওপর উড়ন্ত মক্ষিকুল। স্বাভাবিক মৃত্যু নয়, এ যেন জৈবিক চক্রকে রুদ্ধ করবার এক মরীয়া প্রয়াস!

একটি অল্পবয়সী তামিল মেয়ে, ভারী নম্রস্বভাবা, আমার বিমুখতা টের পেয়েই যেন বললো, "ক'জন হতে পারে আম্মার মতো ? তামিলনাড়ুতে যত মন্ত্রী সবাই আম্মার সামনে এসে হাত জোড় ক'রে, পিঠ নুইয়ে যেতে বাধ্য হয়। ক'জন মেয়ের এইরকম সৌভাগ্য হয় ? "
তার শোকাকুল মুখের দিকে তাকিয়ে বুঝতে পারি না দু তিনজন "সৌভাগ্যবতী" মহিলার এই বিচ্ছিন্ন অর্জনে অবশিষ্ট নারীকুলের এতো লম্ফঝম্ফ কেন!
যে পুরুষটি ন্যুব্জ শরীর, প্রণামের ভঙ্গী নিয়ে এখুনি সরীসৃপের মতো সমর্পণের মুদ্রা অভ্যাসে ব্যস্ত ছিল মুখ্যমন্ত্রীর সামনে, ঘরে ফিরেই সে হয়তো চড়াও হবে নিজের স্ত্রীর ওপর।
তামিলনাড়ুর মতো সমৃদ্ধ রাজ্যও কিন্তু গার্হস্থ হিংসায় তৃতীয় স্থান অধিকার করে আছে সারা দেশের নিরিখে।নারীলাঞ্ছনাতেও এমন কিছু পিছিয়ে নেই তামিল পুরুষসিংহরা।

জনমনোরঞ্জক রাজনীতিতে জয়ললিতা অনেককে শেখাবার ক্ষমতা রাখতেন। স্বাস্থ্য পরিষেবা,প্রসূতি ও নবজাতকের পরিচর্যায় তামিলনাড়ু অনেক এগিয়ে, ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে সাইকেল, জুতো, খাবার বিলিও মুখ্যমন্ত্রীর মগজাস্ত্রপ্রসূত। যদিও সে কৃতিত্বের ভাগীদার এখন অনেক। পপুলিস্ট রাজনীতিতে তবু আম্মাই এখনো একনম্বর। অন্দরের কোন্দল বা বাইরে তার বিরুদ্ধাচরণকে,সে যতোই গণতান্ত্রিক হোক না কেন, গলা টিপে হত্যা করতে এক মূহুর্ত সময় লাগতো এই নারীর, পর্দায় এবং বাস্তবে যার মেন্টর ছিলেন এম জি রামচন্দ্রন।
কিন্তু গুরুর মৃত্যুর পর তার মৃতদেহের ধারকাছেও ঘেঁষতে দেওয়া হয়নি জয়ললিতাকে। ধর্মপত্নী জানকীর নির্দেশে এমনকি জনতার ভীড়ে মিশে শ্রদ্ধা জানাবার সুযোগও দেয়নি তাকে রামচন্দ্রনের অনুগামীরা। রুপোলি পর্দার এই নটিকে ছেঁটে ফেলার সব বন্দোবস্তই ছিল। সব তুচ্ছ করে তার এই অসম্ভব উড়ান রূপকথার মতই এবং নটি থেকে সর্বাধিনায়িকায় এই রূপান্তর সব অর্থেই পিতৃতন্ত্রের গালে সপাটে একটি থাপ্পড়।

কিন্তু তাতে চিত্রনাট্যের কোন হেরফের হয় না। নিজেকে হিংস্রতায় পুরুষ শাসকের সমকক্ষ প্রমাণ করার দায়ে তিনিও ফাঁসেন এবং অধিকাংশ মহিলা শাসকের মতো পিতৃতন্ত্রনির্দিষ্ট পথেই পদচারণায় ব্যস্ত থাকেন।

চেন্নাইতে গত ভয়াবহ বন্যার সময়, যে বন্যা অনিয়ন্ত্রিত শহরবিস্তারের প্রত্যক্ষ ফল, সারা দেশ থেকে বিভিন্ন সাহায্য আসে। যেখান থেকেই আসুক না কেন অথবা যেইই পাঠাক না কেন, ট্রাকের পর ট্রাক থামিয়ে জয়ললিতার সমর্থকরা সমস্ত সামগ্রীতে নিষ্ঠাভরে "আম্মা"ছাপ লাগাবার পরই তা শরণার্থীদের হাতে পৌঁছানোই ছিল মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ একথা তখনই কাগজে পড়েছি। খুব ছোট ছোট ব্যাপারেও এই "রুথলেসনেস" কেন উপমহাদেশীয় মহিলা শাসকের সাধারণ বৈশিষ্ট্য সেই প্রশ্নও ভাবায়। পিতৃতান্ত্রিক বাহবা কুড়োনো বা সমকক্ষ হয়ে ওঠার তাগিদেই কি ?

যুবতী জয়ললিতার অভিনয়ে বা প্রৌঢ়া জয়ললিতার শাসনক্ষমতায় যারা মুগ্ধ তাদের ভীড়ও আশ্চর্য করে। তবে এপোলো হাসপাতালের সাধারণ কিন্তু মরোমরো রোগীদের কি হলো সেটা ভাববে কে? যাদের জরুরী অপারেশন বন্ধ হয়ে গেল তাদের কথা আর তাদের অসহায় আত্মীয়দের কথা ভাবার দায় কার ? শিলচর এন আই টির যে দুই চেন্নাইমুখী ছাত্র কলকাতা এয়ারপোর্টে শুকনো মুখে বসে আছে তাদের কথা এবং তাদের মতো আরো অনেকের কথা ভাববে কে ? গোটা প্রশাসন হাসপাতালে বিষণ্ণ দাঁড়িয়ে, রাজ্যবাসীর ভালোমন্দের দায়িত্ব তবে কার ? বাজার দোকানের ঝাঁপ পড়ে যাচ্ছে ঝপাঝপ, গরীবের পেটের আগুন নেভাবে তবে কোন গণতন্ত্র ? চেন্নাই, মাদুরাইতে এখনি বিরোধীদের অফিস বাড়িতে ইঁটবৃষ্টি শুরু হয়ে গেছে।

এক একজন মহাপ্রতাপশালী গঙ্গাযাত্রা করবেন আর অপ্রত্যক্ষ সহমরণে যাবে সাধারণের ভালোমন্দ, গণতান্ত্রিক রীতিনীতি আর শুভাশুভ বোধ? শোকের উচ্ছাসবাহুল্যে হারিয়ে যাবে যুক্তির নির্মেদ উপস্থিতি ? দাঙ্গার ভয়ে বন্ধ করে দেওয়া হবে আন্তঃরাজ্য সীমানাগুলি ? বড় গাছ ভেঙে পড়লে মাটি কাঁপে আর ছোট চারাগুলি শুয়ে পড়ে এই দর্শনে ভুলে থাকাই কি তবে ভবিতব্য ?
পাওয়ার অফ কমন ম্যান কি তবে এই বৃহত্তম গণতন্ত্রে কেবল চেন্নাই এক্সপ্রেস ছায়াছবির নায়কের মুখের লব্জ হয়েই থেকে যাবে ?

ঐ জাতটাই অমন ---বাঙালী আত্মসন্তুষ্টির এই উচ্চারণ বহু ব্যাপারেই শুনি। সবিনয়ে মনে করিয়ে দিতে চাই দক্ষিণ থেকে জননেত্রীর বিশাল বিশাল কাট আউট আমরা আমদানি করে ফেলেছি। বদলে অবশ্য গোটা দেশ শিখেছে মৃতদেহ ছিনতাই করার কৌশল। পাওয়ার অফ কমন ম্যানকে ধুলোয় মিশিয়ে দেবার জন্য আর কি আমরা শিখতে পারি এখন সেটিই দেখবার।

1107 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3]   এই পাতায় আছে 37 -- 56
Avatar: cm

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

http://www.thehindu.com/opinion/op-ed/The-AIADMK-after-Amma/article167
69047.ece


"Ryszard Kapuscinski, the great Polish journalist, begins his classic Travels with Herodotus with a story. In a suggestive lesson that he imparts to a fellow Greek dictator, Thrasybulus of Miletus walks him through a field of crops. Without uttering a direct word, every time he sees an ear of grain standing higher than the rest, he lops it off. The best of the crop is thus destroyed leaving behind the mediocre and average.

Jayalalithaa, who passed away on Monday night, was known to be an avid reader. One is not sure if she had read Herodotus. But there is little doubt that she practised Thrasybulus’s lesson perfectly."
Avatar: ranjan roy

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

গুরুর পাতাতেই কেউ দেখিয়েছিলেন যে কেরালার উন্নতিতে মধ্যপ্রাচ্যে যাওয়া আর্টিজানদের ঘরে পাঠানো রেমিটান্সের কন্ট্রিবিউশন!
বঙ্গ/হিমাচল/ তামিলনাড়ুতে সেরকম কিছু ঘটেনি।
আর এখনও গুরুতর অসুখ হলে বঙ্গ থেকেও অনেকেই ছোটেন তামিল রাজ্যে, কেউ কেউ লুরু। আর বঙ্গের হেল্থ পরিকাঠামো?
Avatar: Du

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

১৯৯১-৯৬ ২০০১-৬ ২০১১- তিন ভাগে। শেষ বারে রি ইলেক্টেড।
Avatar: Du

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

বাকীটার কৃতিত্ব আরেক মহান রাজনৈতিক নেতার পোস্ট ৯০।
Avatar: s

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

কতবড় গান্ডু দেশ হলে এরকম হতে পারে।
http://eisamay.indiatimes.com/nation/-77-persons-died-of-grief-shock-o
ver-jayalalithaas-demise-aiadmk/articleshow/55861884.cms

Avatar: PT

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

দেশ না মানুষ....এরাই তো ভোট দেয়....আমি তো শুধু ছাগল বলেছিলাম......
Avatar: sm

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

আবার পিছন পাকা কমেন্ট!গ্রাউন্ড পলিটিক্স বা বৃহত্তর মানুষের সঙ্গে বিন্দু মাত্র যোগাযোগ না থাকলে তবেই নির্দ্বিধায় এসব বলা যায়। একজন গরিব মানুষের টানা টানির সংসারে যদি কেউ চাকরি পায়;তাহলে তার কৃতজ্ঞতা বলে বুঝিয়ে বলা যাবেনা। নয়তো পুরো পরিবার কে হয়তো পথে বসতে হতো।
এক টাকায় ভরপেট খানা টাও অনেক টা সেরকম ।
জয়ার আমলে প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলোর ব্যাপক উন্নতি হয়েছে। আগে হয়তো বিনা চিকিৎস্যায় বহু প্রসূতি ও সাপে কাটা রোগী মারা যেত।এগুলো ডিভিডেন্ট তো দেবেই।
যেমন মালদায় গনি পরিবার বংশানুক্রমে পেয়ে আসছে।
Avatar: PT

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

এদেশে ভিখিরী থাকার একটা দেশজ ও ইউনিক প্রয়োজন আছে। বড়লোকেরা যাতে এতের দান-ধ্যান করে স্বর্গে যাওয়ার রাস্তা মসৃণ ও তেলালো করে রাখতে পারে!!
(বোধহয় মৃণাল সেনের কোন একটা সিনেমায় এইজাতীয় একটা দৃশ্যও আছে.......)
Avatar: sm

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

সিপিএম তথা বামেরা তো এতো জানতো। তবু তাদের রাজত্বকালে পব তে এতো ভিখারির রমরমা ছিল কেন?এনারা তো আবার স্বর্গ ফর্গ মানে না।তো,কোন পথে তেল ঢেলে পিচ্ছিল কচ্চিলো ?আল্টিমেটলি নিজেরাই হড়কে গেলো যে!
Avatar: PT

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

তাতে তো তামিলনাদুর কোন সমস্যার সমাধান হল না।
কিন্তু ঠিক জায়গাটা ধরেছেন। সিঙ্গুর-নন্দীগ্রামে কারখানা করে বামেরা ভিখিরী কমানোর চেষ্টাটাই করেছিল। কিন্তু যারা দান-ধ্যান করে স্বর্গে যেতে চায় তারা ব্যাপারটাকে ভেস্তে দিয়ে ক্লাবে-ক্লাবে মদ-মাংস, ২ টাকা কিলোর ভিক্ষান্ন (ঐ জায়াজীর লাইন ধরেই) ইত্যাদির ব্যবস্থা করল।

আর বামেদের ভিখিরীর সংখ্যা কমানোর প্রচেষ্টা লোকাল বালখিল্য ও ধান্দাবাজদের চোখ এড়িয়ে গেলেও, বিশ্বব্যাঙ্কের নজর এড়ায়নিঃ
Critics of the Left Front in West Bengal may have blamed its 34-year rule for underdevelopment there, but a World Bank report has commended the state for growth and poverty reduction in the Ganga basin.
http://zeenews.india.com/news/west-bengal/wb-report-lauds-bengal-for-d
evt-in-ganga-basin_713703.html



Avatar: cm

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

Avatar: Prativa Sarker

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

যারা আম্মার ফ্যান তাদের বলি আম্মার পপুলিস্ট রাজনীতির খাই মিটতো কেমনে ? এই যে বন্যাখান পুরো চেন্নাইরে ভাসায়ে দিল তার কারণ কি ?

বন্যার কারণ চেন্নাই শহরের অনিয়ন্ত্রিত ও লাগামছাড়া বৃদ্ধি। করলো কারা ? ডেভেলপার কুল। তারা মোটা টাকা আম্মা ফান্ডে দিয়ে আপন সন্তান হয়েছিল একথা চেন্নাই বাসী জানে। পঁচিশ বছরের মধ্যে চেন্নাই, বেঙালুরু এই ধরাধামে থাকবে না জানে তাও। তবু শর্ট টার্ম গোলের মহিমা এমনই অত দূর অব্দি ভাবতে মন চায় না। বলে না ঐ, আপনি বাঁচলে বাপের নাম।
বাপের নাম ভুলে নিজেরা বাঁচছি আর বাঁচাচ্ছেন আম্মার মতো পলিটিশিয়ানরা।

Avatar: Ekak

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

ম্যান মেড বন্যা থিওরি ?? :):) মমতা তো ওনার রাজত্বের আগে সব পবর কটা বন্যাকেই ম্যান মেড বলেছেন , সেই নিয়ে বক্তব্য নেই ?

যাগ্গে যাক , বন্যার ভয়াবহ ফলাফল সর্বত্রই ম্যানমেড হয় । মানুষ রিভার বেড দখল করে , আরবান প্ল্যানিং এর অভাব থাকে এভাবেই চলে । এতো স্মার্ট সিটি নয় যে ডে ওয়ান থেকে প্ল্যানিং করে হবে । এডহক বেসিসে কাজ হয় ভারতের সমস্ত শহরে । যে যখন ঝামেলায় পরে বোঝা যায় । চেন্নাই এল নিনোর খপ্পরে পড়েছিল , তার সঙ্গে আরবান প্ল্যানিং এ ল্যাক আছে তাই ভুগেছে । কলকাতায় যেদিন ভূমিকম্প হবে সেদিন টের পাওয়া যাবে আরবান প্ল্যানিং এর কী হাল করে রেখেছে , সিসমিক লাইনের ওপর আছে জেনেও কদ্দুর প্রিকশন নেওয়া আছে সেদিন টের পাওয়া যাবে ।

ওরকম ধরে বেঁধে কাঁটা কম্পাস মেপে কোনোদিন বাস্তবের অর্বানাইজেশন হয়না । কিছুটা প্ল্যানিং কিছু এড হক এভাবে গ্রোথ হয় । এবার তার মধ্যেই ভাঙবে -ডুববে -জ্বলে যাবে - শহর বিস্তৃত হবে , ছড়িয়ে পর্বে আরেক জায়গায় ।মানুষের মতো সভ্যতাও পরিযায়ী ।

কিন্তু পার্থক্যটা কোথাও হবে জানেন তো ? এক্সপ্লোরার জাতির সঙ্গে উঠোনে ছাগোলচড়ানো জাতির যা পার্থক্য । আজ থেকে পঁচিশ বছর বাদে নয় হয়তো পনেরো বছর বাদেই ব্যাঙ্গালোর আজ যে ভূ প্রাকৃতিক অবস্থানে আছে থাকবে না , ইন্ডাস্ট্রির বিস্তার ঘটবে শহর ছাড়িয়ে আরেকদিকে ..... কোনো আইটি অফিস খুলবেনা কেও ব্যাঙ্গলোরে ....কিন্তু পুঁজি থেকে যাবে -উদ্যোগ থেকে যাবে , তারাই ছড়াবে , সেটাই নতুন ব্যাঙ্গালোর ।

আর যারা , প্ল্যানিং এর পরাকাষ্ঠা হয়ে কিছুই করলোনা তারা ওই উঠোনে ছাগল চড়ানো , ভূমিকম্প এলে রিহ্যাবিলেত করার ফুটো কড়িও থাকবেনা । ইতিহাসের দিকে তাকান , সব আরবানীটি ও পুঁজির শিফট এভাবেই হয়েছে , বাকিরা ধ্বংস হয়েছে , নতুন কিছু বলছি না :)
Avatar: PT

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

চাষের জমিতে কারখানা করতে না দেওয়ায় বোধহয় একধরনের প্ল্যানিং..........!!
Avatar: sm

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

ঠিক যেমন আর এক ধরণের প্ল্যানিং ছিল ,আপনার প্রিয় দলের।রুইয়া কে দ্বায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল যেসব আর ডানলপ আর জেসপের। এখন রুইয়ারে পুলুশ ধরেসে যে।
ওখানে প্রচুর কর্মসংস্থান হয়েছিল কিনা!
Avatar: PT

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

এই যেমন আপনার প্রিয় নেত্রী খোলা মিটিনে রুইয়ার পায়ে ধরছিলেন প্রায় ইন্ভেস্টমেন্টের জন্যে। কাল টিভিতে আবার দেখাল......রুইয়া রেলের বরাত পেয়েছিলেন ২০০৯-এর সময়কাল থেকে। খোঁজ নিয়ে দেখুন তো কে রেলমন্ত্রী ছিলেন ২০০৯ থেকে২০১১ পর্য্ন্ত!!
হোমওয়ার্ক না করে কেন যে পাঁক ঘাঁটতে যান.......
Avatar: sm

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

আপনি হোমওয়ার্ক করে পাঁক ঘাঁটেন বুঝি!বেশ করিত কর্মা লোক তো!আর কে কার পায়ে ধরেছিলআপনি দেখেছেন?
জ্যোতি বাবু তো সারা জীবন ও রকম পায়ে ধরে কাটালো। আর টাটার পায়ে ধরা তো ত্রিমূর্তির বিরাট এচিভমেন্ট।ভুলে গেলে চলবে!সেই বিখ্যাত ট্রেড সিক্রেট।সেই বিখ্যাত মুচকি হাসি।নেমে পড়ুন তো গামছা পরে ভালো করে পাঁক ঘাঁটতে। আজ রোববারের দিন ছুটি আছে।

এখন তো মিস্ত্রি সাহেব দুবেলা গালি পাড়ছেন রতনবাবু কে ।
Avatar: PT

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

কিন্তু ২০০৯-এই রুইয়া রেলের বরাত পেলেন কি করে সেই উত্তর পাওয়া গেল না তো! রেলমন্ত্রক তো জ্যোতিবাবুর অধীনস্থ ছিল না।
Avatar: sm

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

যদ্দুর সম্ভব ২০১২ তে বরাত পেয়েছিলো। তাতে কি অসুবিধে? রেল তো ভারতীয় নামজাদা সংস্থাকেই প্রায়োরিটি দেবে নাকি?
Avatar: PT

Re: জয়ললিতাদের মৃত্যু আর সাধারণ মানুষ।

"materials worth Rs 49.8 crore were supplied to Jessop between 2009 and 2012 to manufacture air-conditioned EMU coaches"
http://www.telegraphindia.com/1161211/jsp/frontpage/story_124149.jsp

According to the letter, issued on January 7, the company has 1130 pending orders of wagons of various types. “Out of these, 765 have been allotted by railway ministry on November 4, 2009 which have contractual delivery period till March 31, 2010. Prototype of these wagons are under manufacturing stage at our workshop. A set of 200 wagons having delivery period till March 31, 2010 is also under manufacturing process,” the letter said.
http://www.skyscrapercity.com/showthread.php?t=1106207&page=4

মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3]   এই পাতায় আছে 37 -- 56


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন