Soumit Deb RSS feed

Soumit Debএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • নাদির
    "ইনসাইড আস দেয়ার ইজ সামথিং দ্যাট হ্যাজ নো নেম,দ্যাট সামথিং ইজ হোয়াট উই আর।"― হোসে সারামাগো, ব্লাইন্ডনেস***হেলেন-...
  • জিয়াগঞ্জের ঘটনাঃ সাম্প্রদায়িক রাজনীতি ও ধর্মনিরপেক্ষতা
    আসামে এনার্সি কেসে লাথ খেয়েছে। একমাত্র দালাল ছাড়া গরিষ্ঠ বাঙালী এনার্সি চাই না। এসব বুঝে, জিয়াগঞ্জ নিয়ে উঠেপড়ে লেগেছিল। যাই হোক করে ঘটনাটি থেকে রাজনৈতিক ফায়দা তুলতেই হবে। মেরুকরনের রাজনীতিই এদের ভোট কৌশল। ঐক্যবদ্ধ বাঙালী জাতিকে হিন্দু মুসলমানে ভাগ করা ...
  • অরফ্যানগঞ্জ
    পায়ের নিচে মাটি তোলপাড় হচ্ছিল প্রফুল্লর— ভূমিকম্পর মত। পৃথিবীর অভ্যন্তরে যেন কেউ আছাড়ি পিছাড়ি খাচ্ছে— সেই প্রচণ্ড কাঁপুনিতে ফাটল ধরছে পথঘাট, দোকানবাজার, বহুতলে। পাতাল থেকে গোঙানির আওয়াজ আসছিল। ঝোড়ো বাতাস বইছিল রেলব্রিজের দিক থেকে। প্রফুল্ল দোকান থেকে ...
  • থিম পুজো
    অনেকদিন পরে পুরনো পাড়ায় গেছিলাম। মাঝে মাঝে যাই। পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হয়, আড্ডা হয়। বন্ধুদের মা-বাবা-পরিবারের সঙ্গে কথা হয়। ভাল লাগে। বেশ রিজুভিনেটিং। এবার অনেকদিন পরে গেলাম। এবার গিয়ে শুনলাম তপেস নাকি ব্যবসা করে ফুলে ফেঁপে উঠেছে। একটু পরে তপেসও এল ...
  • কাঁসাইয়ের সুতি খেলা
    সেকালে কাঁসাই নদীতে 'সুতি' নামের একটা খেলা প্রচলিত ছিল। মাছ ধরার অভিনব এক পদ্ধতি, বহু কাল ধরে যা চলে আসছে। আমাদের পাড়ার একাধিক লোক সুতি খেলাতে অংশ নিত। এই মৎস্যশিকার সার্বজনীন, হিন্দু ও মুসলিম উভয় সম্প্রদায়ে জনপ্রিয়। মনে আছে ক্লাস সেভেনে পড়ার সময় একদিন ...
  • শুভ বিজয়া
    আমার যে ঠাকুর-দেবতায় খুব একটা বিশ্বাস আছে, এমন নয়। শাশ্বত অবিনশ্বর আত্মাতেও নয়। এদিকে, আমার এই জীবন, এই বেঁচে থাকা, সবকিছু নিছকই জৈবরাসায়নিক ক্রিয়া, এমনটা সবসময় বিশ্বাস করতে ইচ্ছে করে না - জীবনের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য-পরিণ...
  • আবরার ফাহাদ হত্যার বিচার চাই...
    দেশের সবচেয়ে মেধাবীরা বুয়েটে পড়ার সুযোগ পায়। দেশের সবচেয়ে ভাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিঃসন্দেহে বুয়েট। সেই প্রতিষ্ঠানের একজন ছাত্রকে শিবির সন্দেহে পিটিয়ে মেরে ফেলল কিছু বরাহ নন্দন! কাওকে পিটিয়ে মেরে ফেলা কি খুব সহজ কাজ? কতটুকু জোরে মারতে হয়? একজন মানুষ পারে ...
  • ইন্দুবালা ভাতের হোটেল-৭
    চন্দ্রপুলিধনঞ্জয় বাজার থেকে এনেছে গোটা দশেক নারকেল। কিলোটাক খোয়া ক্ষীর। চিনি। ছোট এলাচ আনতে ভুলে গেছে। যত বয়েস বাড়ছে ধনঞ্জয়ের ভুল হচ্ছে ততো। এই নিয়ে সকালে ইন্দুবালার সাথে কথা কাটাকাটি হয়েছে। ছোট খাটো ঝগড়াও। পুজো এলেই ইন্দুবালার মন ভালো থাকে না। কেমন যেন ...
  • গুমনামিজোচ্চরফেরেব্বাজ
    #গুমনামিজোচ্চরফেরেব্...
  • হাসিমারার হাটে
    অনেকদিন আগে একবার দিন সাতেকের জন্যে ভূটান বেড়াতে যাব ঠিক করেছিলাম। কলেজ থেকে বেরিয়ে তদ্দিনে বছরখানেক চাকরি করা হয়ে গেছে। পুজোর সপ্তমীর দিন আমি, অভিজিৎ আর শুভায়ু দার্জিলিং মেল ধরলাম। শিলিগুড়ি অব্দি ট্রেন, সেখান থেকে বাসে ফুন্টসলিং। ফুন্টসলিঙে এক রাত্তির ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

অপ্রেমপত্র

Soumit Deb

দিনান্তে যেটুকু বাড়ি ফেরা জড়িয়ে ধরে একটা মানুষ বাঁচে তার গায়ে কতটা ‘আমি’ লেগে থাকি আর কতটা ‘আমার’ সেটা কি ঠিক করে কেউ জানে? এই ‘আমার’-টা কিন্তু কাঠবেড়ালী বা পাশবালিশ যা খুশি হতে পারে। অথবা শুধু একটা অবস্থান হতেও বা আটকাচ্ছে কে? মনের শরীর বর্জন, ভীড়ের সামিল গর্জন থেকে নিজের অবস্থান, তারপর?...... হোক না সে আমার থেকে বিদ্যা-বুদ্ধি-পাড়ায়-অবস্থায় একেবারে চন্দ্রবিন্দু-কেটি মেলুয়া আলাদা, হোকনা অন্য, অচেনা, আনকোরা, হোকনা কঠিন, কোন সহজ জিনিসটা রাত জাগার ভালোলাগা এনে দেয় শুনি?

আড়ালে থেকে যাওয়াদের একটা নিজঃস্ব পৃথিবী আছে, সেখানে তাদের কথামত বৃষ্টি নামে, অটোও্য়ালা খুচরো নিয়ে ঝামেলা করেনা, নাকের ডগা দিয়ে এসি মেট্রোটা ক্যাবলা দিয়ে বেরিয়ে যায়না। সেখানে আকাশ তাদের কথামত মেঘলা, ইলশেগুঁড়ি। সেখানে শোনা যায় কেবল তাদের কথা যারা তোর কথা বলে।

সেখানকার ট্রাম-বাস তোর পাড়া শুনলে টিকিট নেয়না, কন্ডাকটর একগাল এসে বলে- "দাদা নেমে পড়ুন”। যেই না নামা, আবহ বেজে ওঠে। চন্দ্রবিন্দু বা কেটি মেলুয়া। জামা-পাঞ্জাবীর হাতায় স্লো-মোশনে কনুই অব্দি রেলা। চশমা খুলে নাকের ডগায় রগড়। একটা সিগারেটের দোকান (বড্ড মেনস্ট্রিম, নিম্নবিত্ত কিনা), দেশলাই জ্বলে ওঠে একবারেই। হাতঘড়ি বলে আমিই পৌঁছে গিয়েছি তাড়াতাড়ি। হঠাৎ গান বদল বলে দেয় এবার রাস্তার ডানদিক দিয়ে হাঁটবার সময় এসেছে। আড়চোখে, যেন দেখতেই পাইনি এই ভাবে দেখতে পাই তুই আসছিস। এবার?

এবার কি তোকে নিয়ে বেড়াবো অকারনে? অন্য কেউ তোর দিকে চাইতে গিয়ে আমার সাথে চোখাচুখি হয়ে আর চাইবেনা। নাকি হাতটা ধরব না ধরবনা, পার করাবো না করাবে ইত্যাদির দো-টানা চলবে আসময় – বাড়ি ফেরা জুড়ে? কথা বলব নাকি শুনবো? শুনবো আদেও নাকি এটা ওটায় মেপে নেব চোখের নিচে কতটা না-বলা লেগে আছে, জিজ্ঞাসার অপেক্ষায়। মাপব নাকি আমাকেই গোটাটা পড়ে ফেলবে। যদি সত্যিই ফেলিস আর আমি বুঝতে পারি -“যাহ বাহাদুরী মাঠে মারা গ্যালো” তখন কি হবে? তুই নাহয় ঢেকে ফেলবি মনভালো দিয়ে, আমার কমন না পড়াদের কি হবে? তুই তো একেবারেই তোর মত আর আমি…কে জানে…

সব্বাই বলে Is all the way down after the first kiss. আড়ালে থেকে যাওয়াদের একটা নিজঃস্ব পৃথিবী আছে, সেটার সাথে শহরের মিল থাকলেও থাকতেও পারে। যদি সেরকম ভাবে বেয়াড়া হোস তুই তবে বুঝে নেওয়া যাবে তামাম বাস্তব। হয়ত আমাদের কয়েক পশলায় অন্যদের বাতি জ্বালাতে হবে দিনের বেলাতেই, কঠিন হবে চারপাশ, কিন্তু কোন সহজ জিনিসটাই বা ভালোবাসতে ইচ্ছে করে। রূপকথারা সত্যি হোক না হোক আজ জন্মদিন, এই অপ্রেমপত্রে। ডাকটিকিট ছাড়াই পাঠানো গ্যালো শেষমেশ কারন

দুরত্ব জানে কতবার আমি বেড়াতে গেছি
- আমাদের মাঝে

210 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন



আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন