Punyabrata Goon RSS feed

[email protected]
Punyabrata Goonএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • বার্সিলোনা - পর্ব ১
    ঠিক করেছিলাম আট-নয়দিন স্পেন বেড়াতে গেলে, বার্সিলোনাতেই থাকব। বেড়ানোর সময়টুকুর মধ্যে খুব দৌড় ঝাঁপ, এক দিনে একটা শহর দেখে বা একটা গন্তব্যের দেখার জায়গা ফর্দ মিলিয়ে শেষ করে আবার মাল পত্তর নিয়ে পরবর্তী গন্তব্যের দিকে ভোর রাতে রওনা হওয়া, আর এই করে ১০ দিনে ৮ ...
  • লাল ঝুঁটি কাকাতুয়া
    -'একটা ছিল লাল ঝুঁটি কাকাতুয়া।আর ছিল একটা নীল ঝুঁটি মামাতুয়া।'-'এরা কারা?' মেয়েটা সঙ্গে সঙ্গে চোখ বড়ো করে অদ্ভুত লোকটাকে জিজ্ঞেস করে।-'আসলে কাকাতুয়া আর মামাতুয়া এক জনই। ওর আসল নাম তুয়া। কাকা-ও তুয়া বলে ডাকে, মামা-ও ডাকে তুয়া।'শুনেই মেয়েটা ফিক করে হেসে ...
  • স্টার্ট-আপ সম্বন্ধে দুচার কথা যা আমি জানি
    স্টার্ট-আপ সম্বন্ধে দুচার কথা যা আমি জানি। আমি স্টার্ট-আপ কোম্পানিতে কাজ করছি ১৯৯৮ সাল থেকে। সিলিকন ভ্যালিতে। সময়ের একটা আন্দাজ দিতে বলি - গুগুল তখনও শুধু সিলিকন ভ্যালির আনাচে-কানাচে, ফেসবুকের নামগন্ধ নেই, ইয়াহুর বয়েস বছর চারেক, অ্যামাজনেরও বেশি দিন হয়নি। ...
  • মৃণাল সেন : এক উপেক্ষিত চলচ্চিত্রকার
    [আজ বের্টোল্ট ব্রেশট-এর মৃত্যুদিন। ভারতীয় চলচ্চিত্রে যিনি সার্থকভাবে প্রয়োগ করেছিলেন ব্রেশটিয় আঙ্গিক, সেই মৃণাল সেনকে নিয়ে একটি সামান্য লেখা।]ভারতীয় চলচ্চিত্রের ইতিহাসে কীভাবে যেন পরিচালক ত্রয়ী সত্যজিৎ-ঋত্বিক-মৃণাল এক বিন্দুতে এসে মিলিত হন। ১৯৫৫-তে মুক্তি ...
  • দময়ন্তীর সিজনস অব বিট্রেয়াল পড়ে
    পড়লাম সিজনস অব বিট্রেয়াল গুরুচন্ডা৯'র বই দময়ন্তীর সিজনস অব বিট্রেয়াল। বইটার সঙ্গে যেন তীব্র সমানুভবে জড়িয়ে গেলাম। প্রাককথনে প্রথম বাক্যেই লেখক বলেছেন বাঙাল বাড়ির দ্বিতীয় প্রজন্মের মেয়ে হিসেবে পার্টিশন শব্দটির সঙ্গে পরিচিতি জন্মাবধি। দেশভাগ কেতাবি ...
  • দুটি পাড়া, একটি বাড়ি
    পাশাপাশি দুই পাড়া - ভ-পাড়া আর প-পাড়া। জন্মলগ্ন থেকেই তাদের মধ্যে তুমুল টক্কর। দুই পাড়ার সীমানায় একখানি সাতমহলা বাহারী বাড়ি। তাতে ক-পরিবারের বাস। এরা সম্ভ্রান্ত, উচ্চশিক্ষিত। দুই পাড়ার সাথেই এদের মুখ মিষ্টি, কিন্তু নিজেদের এরা কোনো পাড়ারই অংশ মনে করে না। ...
  • পরিচিতির রাজনীতি: সন্তোষ রাণার কাছে যা শিখেছি
    দিলীপ ঘোষযখন স্কুলের গণ্ডি ছাড়াচ্ছি, সন্তোষ রাণা তখন বেশ শিহরণ জাগানাে নাম। গত ষাটের দশকের শেষার্ধ। সংবাদপত্র, সাময়িক পত্রিকা, রেডিও জুড়ে নকশালবাড়ির আন্দোলনের নানা নাম ছড়িয়ে পড়ছে আমাদের মধ্যে। বুঝি না বুঝি, পকেটে রেড বুক নিয়ে ঘােরাঘুরি ফ্যাশন হয়ে ...
  • দক্ষিণের কড়চা
    (টিপ্পনি : দক্ষিণের কথ্যভাষার অনেক শব্দ রয়েছে। না বুঝতে পারলে বলে দেব।)দক্ষিণের কড়চা▶️এখানে মেঘ ও ভূমি সঙ্গমরত ক্রীড়াময়। এখন ভূমি অনাবৃত মহিষের মতো সহস্রবাসনা, জলধারাস্নানে। সামাদভেড়ির এই ভাগে চিরহরিৎ বৃক্ষরাজি নুনের দিকে চুপিসারে এগিয়ে এসেছে যেন ...
  • জোড়াসাঁকো জংশন ও জেনএক্স রকেটপ্যাড-১৪
    তোমার সুরের ধারা ঝরে যেথায়...আসলে যে কোনও শিল্প উপভোগ করতে পারার একটা বিজ্ঞান আছে। কারণ যাবতীয় পারফর্মিং আর্টের প্রাসাদ পদার্থবিদ্যার সশক্ত স্তম্ভের উপর দাঁড়িয়ে থাকে। পদার্থবিদ্যার শর্তগুলি পূরণ হলেই তবে মনন ও অনুভূতির পর্যায় শুরু হয়। যেমন কণ্ঠ বা যন্ত্র ...
  • উপনিবেশের পাঁচালি
    সাহেবের কাঁধে আছে পৃথিবীর দায়ভিন্নগ্রহ থেকে তাই আসেন ধরায়ঐশী শক্তি, অবতার, আয়ুধাদি সহসকলে দখলে নেয় দুরাচারী গ্রহমর্ত্যলোকে মানুষ যে স্বভাবে পীড়িতমূঢ়মতি, ধীরগতি, জীবিত না মৃতঠাহরই হবে না, তার কীসে উপশমসাহেবের দুইগালে দয়ার পশমঘোষণা দিলেন ওই অবোধের ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

স্বাস্থ্য আমাদের অধিকার

Punyabrata Goon

‘২০০০ সালের মধ্যে সবার জন্য স্বাস্থ্য’—১৯৭৮সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এই ঘোষণাপত্রে ভারতবর্ষও স্বাক্ষর করেছিল। কিন্তু পাশের শ্রীলঙ্কাও তার দেশের নাগরিকদের বিনা পয়সায় স্বাস্থ্য-পরিষেবা দিচ্ছে আর আমরা পাচ্ছি লবডঙ্কা। শুধু চিকিৎসা খরচ মেটাতে প্রতি বছর ৬ কোটি ৩০ লক্ষ লোক দারিদ্র্যসীমার নীচে নেমে যাচ্ছেন। হাসপাতালে বেড পাওয়ার সুপারিশের জন্য নেতা মন্ত্রীর পায়ে মাথা খুঁড়তে হয় অথবা দালালকে টাকা দিতে হয়। এই তো হাল!

অথচ সবার জন্য স্বাস্থ্য পরিষেবা যাকে বলে ‘সবর্জনীন স্বাস্থ্য পরিষেবা’ তা লাগু করা গেলে এই অবস্থা বদলানো যায়। অন্তত ৪১টা দেশে এই ব্যবস্থা চালু আছে। ধনী ইংল্যান্ড থেকে গরিব পেরুও আছে এই দলে। কিন্তু আমাদের সরকার ১৫ বছর ধরে শুধু কথার খেলাপই করে যাচ্ছে।

২০১১ সালে ভারত সরকারেরই নিয়োগ করা ডা. শ্রীনাথ রেড্ডির নেতৃত্বে গড়া বিশেষজ্ঞ দলের সুপারিশের সঙ্গে কণ্ঠ মিলিয়ে আমাদের দাবি—
• সরকার তারই নিযুক্ত শ্রীনাথ রেড্ডি কমিশনের সুপারিশ মেনে সব নাগরিকের জন্য বিনামূল্যে স্বাস্থ্যরক্ষার দায়িত্ব নিক.
• রাজ্য সরকার বা তাদের নিযুক্ত সংস্থার সকল চিকিৎসা-কেন্দ্র থেকে প্রতিশ্রুত সবরকমের চিকিৎসা পরিষেবা সকল নাগরিককে বিনামূল্যে দেওয়া হোক।
• বিনামূল্যে অত্যাবশ্যক ওষুধ দিতে হবে।
• স্বাস্থ্য পরিষেবার জন্যে একটি পয়সাও (user’s fee) নেওয়া চলবে না।
• স্বাস্থ্যবিমা কোনো সমাধান নয়। এটা চিকিৎসাকে ব্যবসায়ে পরিণত করে এবং
দুনীর্তিগ্রস্ত করে।
• সরকারের নতুন প্রস্তাবমতো ESI Scheme-কে কারখানার শ্রমিকদের জন্য অপশনাল করে দেওয়া যাবে না, বরং সরকার ও মালিকদের শ্রমিকদের স্বাস্থ্যরক্ষার দায়িত্ব নিতে হবে।.

শ্রীনাথ রেড্ডি কমিশন আরও বলেছিল বড়োলোক থেকে গরিব সকলকে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরিষেবা দিতে হলে ২০১৭ সালের মধ্যে স্বাস্থ্যখাতে খরচ বাড়িয়ে আভ্যন্তরীণ উৎপাদনের ২.৫ শতাংশ করতে হবে। তখন কংগ্রেস সরকার তা মানেনি আর “আচ্ছে দিন আনেওয়ালা” মোদী সরকার এসেই স্বাস্থ্যখাতে বাজেট ৫০০০কোটি টাকা কমিয়েছে। অথচ বড়ো বড়ো কোম্পানিকে বছরে ৫ লক্ষ কোটি টাকা কর ছাড় দিচ্ছে।

অমর্ত্য সেনের মতো বিশেষজ্ঞ অথর্নীতিবিদসহ অনেকেই অঙ্ক কষে দেখিয়ে দিয়েছেন বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরিষেবা সম্ভব। কিন্তু গদিতে বসে কোনো সরকারই সে কথা শুনছে না। তাই কালা সরকারের কানে পৌঁছানোর জন্যে আসুন সকলে মিলে জোর আওয়াজ তুলি—“স্বাস্থ্য কোনো ভিক্ষা নয়। স্বাস্থ্য আমাদের অধিকার।“

অল ওয়েস্ট বেঙ্গল সেলস রিপ্রেসেন্টেটিভ ইউনিয়ন; আই এফ টি ইউ; এ পি ডি আর; এম সি ডি এস এ; ক্যানিং যুক্তিবাদী সাংস্কৃতিক সংস্থা; ক্যালকাটা অ্যাহেড; কাচরাপাড়া বিজ্ঞান দরবার; ক্রান্তিকারী নওজোয়ান সভা; জনসংস্কৃতি; টি ইউ সি আই, তপশিলী উন্নয়ন সমিতি, পাণ্ডবেশ্বর; দিশারি জন সাংস্কৃতিক সংস্থা; নৈহাটি ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স অ্যান্ড কালচার; প্রোগ্রেসিভ ইয়ুথ লিগ; পাণ্ডবেশ্বর ছাত্র সমিতি; পি ডি এস এফ; ফাউন্ডেশন ফর হেলথ অ্যাকশন; ফোরাম এগেনস্ট মোনোপলিস্টিক এগ্রেশন; বারাসাত সিটিজেন্স’ ফোরাম; বাঁশবেড়িয়া সানডে সিটিং; বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক সংস্থা, চাকদহ; বিজ্ঞান মানসিকতা বিকাশ কেন্দ্র; বিবতর্ন বিজ্ঞান সংস্থা, চন্দননগর; ভারতীয় বিজ্ঞান ও যুক্তিবাদী সমিতি; ডা ভাস্কর রাও জনস্বাস্থ্য কমিটি; মদন মুখার্জী স্মৃতি জনস্বাস্থ্য কেন্দ্র, বেলিয়াতোড়; রাগিনী শান্তিপুর; শান্তিপুর মরমী; শিবনাথ শাস্ত্রী কলেজ গণস্বাস্থ্য উদ্যোগ; শ্রমজীবী স্বাস্থ্য উদ্যোগ, সুন্দরবন শ্রমজীবী হাসপাতাল; হালিশহর বিজ্ঞান পরিষদ।
_____________________________________________________________________________________________________
সবার জন্য স্বাস্থ্য প্রচার কমিটির পক্ষে ডা. পুণ্যব্রত গুণ দ্বারা এইচএ ৪৪ সল্টলেক, সেক্টর ৩, কলকাতা ৭০০০৯৭ থেকে প্রকাশিত এবং প্রজ্ঞা প্রকাশনী ৮ নরসিংহ লেন, কলকাতা ৭০০০০৯ থেকে মুদ্রিত। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৫, শ্রমিক নেতা শংকর গুহ নিয়োগীর শহিদ দিবস।



292 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: pi

Re: স্বাস্থ্য আমাদের অধিকার

এটাও তুলে দিলাম।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন