Purandar Bhat RSS feed

Purandar Bhatএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • আমাদের চমৎকার বড়দা প্রসঙ্গে
    ইয়ে, স-অ-অ-অ-ব দেখছে। বড়দা সব দেখছে। বড়দা স্রেফ দেখেনি ওইখানে এক দিন রাম জন্মালেন, তার পর কারা বিদেশ থেকে এসে যেন ভেঙেটেঙে মসজিদ স্থাপন করল, কেন না বড়দা তখন ঘুমোচ্ছিলেন। ঘুম ভাঙল যখন, চোখ কচলেটচলে দেখলেন মস্ত ব্যাপার এ, বড়দা বললেন, ভেঙে ফেলো মসজিদ, জমি ...
  • ধর্ষকের মৃত্যুদন্ড দিলেই সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে ?
    যেকোন নারকীয় ধর্ষণের ঘটনা সংবাদ মাধ্যমে প্রতিফলিত হয়ে সামনে আসার পর নাগরিক হিসাবে আমাদের একটা ঈমানি দায়িত্ব থাকে। দায়িত্বটা হল অভিযুক্ত ধর্ষকের কঠোরতম শাস্তির দাবি করা। কঠোরতম শাস্তি বলতে কারোর কাছে মৃত্যুদন্ড। কেউ একটু এগিয়ে ধর্ষকের পুরুষাঙ্গ কেটে নেওয়ার ...
  • তোমার পূজার ছলে
    বাঙালি মধ্যবিত্তের মার্জিত ও পরিশীলিত হাবভাব দেখতে বেশ লাগে। অপসংস্কৃতি নিয়ে বাঙালি চিরকাল ওয়াকিবহাল ছিল। আজও আছে। বেশ লাগে। কিন্তু, বুকে হাত দিয়ে বলুন, আপনার প্রবল ক্ষোভ ও অপমানে আপনার কি খুব পরিশীলিত, গঙ্গাজলে ধোওয়া আদ্যন্ত সাত্ত্বিক শব্দ মনে পড়ে? না ...
  • The Irishman
    দা আইরিশম্যান। সিনেমা প্রেমীদের জন্য মার্টিন স্করসিসের নতুন বিস্ময়। ট্যাক্সি ড্রাইভার, গুডফেলাস, ক্যাসিনো, গ্যাংস অব নিউইয়র্ক, দা অ্যাভিয়েটর, দ্য ডিপার্টেড, শাটার আইল্যান্ড, দ্য উল্ফ অব ওয়াল স্ট্রিট, সাইলেন্টের পরের জায়গা দা আইরিশম্যান। বর্তমান সময়ের ...
  • তোকে আমরা কী দিইনি?
    পূর্ণেন্দু পত্রী মশাই মার্জনা করবেন -********তোকে আমরা কী দিইনি নরেন?আগুন জ্বালিয়ে হোলি খেলবি বলে আমরা তোকে দিয়েছি এক ট্রেন ভর্তি করসেবক। দেদার মুসলমান মারবি বলে তুলে দিয়েছি পুরো গুজরাট। তোর রাজধর্ম পালন করতে ইচ্ছে করে বলে পাঠিয়ে দিয়েছি স্বয়ং আদবানীজীকে, ...
  • ইশকুল ও আর্কাদি গাইদার
    "জাহাজ আসে, বলে, ধন্যি খোকা !বিমান আসে, বলে, ধন্যি খোকা !এঞ্জিনও যায়, ধন্যি তোরে খোকা !আসে তরুণ পাইওনিয়র,সেলাম তোরে খোকা !"আরজামাস বলে একটা শহর ছিল। ছোট্ট শহর, অনেক দূরের, অন্য মহাদেশে। অনেক ছোটবেলায় চিনে ফেলেছিলাম। ভৌগোলিক দূরত্ব টের পাইনি।টের পেতে দেননি ...
  • ছন্দহীন কবিতা
    একদিন দুঃসাহসের পাখায় ভর করে,ছুঁতে চেয়েছিলাম কবিতার শরীর ।দ্বিখন্ডিত বাংলার মত কবিতা হয়ে উঠলোছন্দহীন ।অর্থহীন যাত্রার “কা কা” চিৎকারে,ছুটে এলোপ্রতিবাদী পাঠক।ছন্দভঙ্গের নায়কডানা ভেঙ্গে পড়িপুঁথি পুস্তকের এক দোকানে।আলোক প্রাপ্তির প্রত্যাশায়,যোগ ধ্যানে কেটে ...
  • হ্যালোউইনের ভূত
    হ্যালোউইন চলে গেল। আমাদের বাড়িতে হ্যালোউইনের রীতি হল মেয়েরা বন্ধুদের সঙ্গে ট্রিক-অর-ট্রিট করতে বেরোয় দল বেঁধে। পেছনে পেছনে চলে মায়েদের দল। আর আমি বাড়িতে থাকি ক্যান্ডি বিতরণ করব বলে। মুহূর্মুহূ কলিং বেল বাজে, আমি হাসি-হাসি মুখে ক্যান্ডির গামলা নিয়ে দরজা ...
  • হয়নি
    তুমি ভালবাসতে চেয়েছিলে।আমিও ।হয়নি।তুমিঅনেক দূর অব্দি চলে এসেছিলে।আমিও ।হয়নি আর পথ চলা।তুমি ফিরে গেলে,জানালে,ভালবাসতে চেয়েছিলেহয়নি। আমি জানলামচেয়ে পাইনি।হয়নি।জলভেজা চোখে ভেসে গেলআমাদের অতীত।স্মিত হেসে সামনে এসে দাঁড়ালোপথদুজনার দু টি পথ।সেপ্টেম্বর ২২, ...
  • তিরাশির শীত
    ১৯৮৩ র শীতে লয়েডের ওয়েস্টইন্ডিজ ভারতে সফর করতে এলো। সেই সময়কার আমাদের মফস্বলের সেই শীতঋতু, তাজা খেজুর রস ও রকমারি টোপা কুলে আয়োজিত, রঙিন কমলালেবু-সুরভিত, কিছু অন্যরকম ছিলো। এত শীত, এত শীত সেই অধুনাবিস্মৃত কালে, কুয়াশাআচ্ছন্ন পুকুরের লেগে থাকা হিমে মাছ ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

বাঙালি একটি গৃহপালিত অবলা পশু

Purandar Bhat

আরবে চাকরি করতে যাওয়া ভারতীয় মজুরদের ওপর শেখদের অত্যাচার সম্পর্কে অনেকেই জানি, এই নিয়ে হই চৈ হয় যথেষ্ট, ইন্টারনেটে বেশ কিছু ভিডিও আছে যেখানে ভারতীয় পরিচারকদের ওপর অত্যাচার করতে দেখা যায় শেখদের। ভারত সরকারকে যদিও এই নিয়ে বিশেষ মাথা ঘামাতে দেখা যায় না। গরিব মজুরদের মারধর করা নিয়ে, তাদের মানবাধিকার ভঙ্গ করা নিয়ে ভারত সরকারের ভাববার খুব বেশি কারণ নেই যেখানে আরব দেশগুলো কথা দিয়েছে হাজার হাজার কোটি টাকা দেবে "স্মার্ট সিটি" তৈরী করতে। স্মার্ট সিটিতে স্মার্ট লোকজন থাকবে, আনস্মার্ট গেঁয়ো মজদুরদের অধিকারের চেয়ে স্মার্ট, দ্যুতিমান ভারতবাসীরা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ, যতই সংখ্যায় তারা দেশের ১০% হোক।

তবে শেখদের অত্যাচার নিয়ে যাও বা হই চৈ হয় সেটুকুও কি কলকাতায় ঘটে যাওয়া এক নাবালিকা পরিচারিকার ওপর যে অত্যাচার হলো তার জন্যে হবে? ক্যানিঙের অত্যন্ত দরিদ্র বাঙালি পরিবারের এই নাবালিকাকে তাঁর বাপ মা দুবেলা খাবার যোগার করে দিতে পারেননা তাই বাধ্য হয়ে কলকাতায় বসবাসকারী এক ব্যবসায়ী পরিবারের কাছে পরিচারিকার কাজে পাঠায়। কথা ছিলো পরিশ্রমের বিনিময়ে মেয়েটিকে থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা কলকাতার পরিবারটি দেবে। শিশু কল্যাণ সমিতি যখন উদ্ধার করে মেয়েটিকে তখন দেখে যে খাওয়া দাওয়া তো যথেষ্ট পরিমান জুটতো নাই উল্টে মারধোর, অকল্পনীয় অত্যাচার চলতো নাবালিকার ওপর। সারা গায়ে কালশিটে, দগদগে ঘায়ের দাগ। বাড়ি যেতে দেওয়া হতো না মেয়েটিকে। যে পরিবারটির বিরুদ্ধে অভিযোগ তাদের পদবি হলো জায়সবাল। অর্থাৎ তারা বাঙালি না। সুদুর দিল্লি বম্বে অবধি আর যেতে হচ্ছে না, কলকাতায় বসেই এক বাঙালি নাবালিকাকে দারিদ্র্যের সুযোগ নিয়ে অকথ্য অত্যাচার করতে পারছে অবাঙালিরা। এই সাহস এদেরকে আমরাই দিয়েছি।

বাঙালি দরিদ্র এবং নিরীহ জাতি তাই এইসব জায়সবাল, অগরবাল, ঝাঁটের বালরা আমাদের মুখে গুটখার পিক ফেলবে আর আমরা চেটেপুটে সেই পিক খাবো। আমি বলছি না যে শহুরে বাঙালি বাবু বিবিরা এরকম ব্যবহার করেনা পরিচারিকাদের সাথে, তাদেরও কঠোর শাস্তি হওয়া উচিত মনে করি। কিন্তু অবাঙালি হয়ে, এই রাজ্যের সর্বস্ব চুষে বড়লোক হয়ে, এই রাজ্যেরই এক দরিদ্র নাবালিকার ওপর অত্যাচার করার আলাদা মাত্রা আছে। যে সব শহুরে ঢ্যামনারা বলে না এতে আলাদা কিছু নেই তাদের কাছে কলকাতা আর ব্যাঙ্গালোর বা গুরগাঁও একই, তারা ওই স্মার্ট সিটির প্রতিভূ, যদি কলকাতায় যথেষ্ট স্মার্ট সিটি তৈরী না হয় এরা দু বার ভাববে না গুরগাঁও-এর স্মার্ট সিটিতে উড়ে যেতে।

তার ওপর এখন তো এই জায়সবাল, অগরবালদের রাজনৈতিক প্রতিনিধিরা এই রাজ্যে এসে গেছে। গো বলয়ের রাজনীতি ঢোকাতে চাইছে বাংলায়, তাদের সম্রাট এই জায়সবাল, অগরবালদের সেবায় সদা নিবেদিত। ভাবুন তো এই অত্যাচারী পরিবারের পদবি যদি জায়সবাল না হয়ে হতো আহমেদ বা কুরেশী এই গোবলয়ের দালালরা ছেড়ে দিতো?

পুনশ্চ: হয়তো অনেকে বলবেন যে একটি ঘটনা দিয়ে একটি জাতিকে দোষ দেওয়া উচিত না। আমি একমত, পদবির সাথে যে জাতির জড়িত তার প্রতি কোনো ব্যাক্তিগত বিদ্বেষ আমার নেই। বন্ধু বান্ধব, আলাপ পরিচয়ও আছে। আমি মনে করি যে একজন মানুষের শ্রেণী পরিচয় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আমি যা লিখেছি তা সম্পূর্ণ রাজনৈতিক প্রতিক্রিয়া, বিদ্বেষ ছড়ানোর জন্য না। দেশের একটি বিশেষ অঞ্চলের কিছু বিশেষ বর্ণের সাংস্কৃতিক এবং রাজনৈতিক আধিপত্য কায়েম করার চেষ্টা চলছে এটাকে এড়াবো কি করে? দেশজুড়ে মানুষ কি খাবে না খাবে ঠিক করে দেওয়া হচ্ছে সেটা কার পছন্দ অপছন্দ অনুসারে? এই বিশেষ অঞ্চলের সংস্কৃতি ও রাজনীতি অর্থনৈতিক অধিপত্যর পিঠে চেপেই ছড়াচ্ছে এটা অস্বীকার করার জায়গা আছে কি? তার বিরুদ্ধে প্রতিক্রিয়াটুকু দেখানোর সৎ সাহস থাকা উচিত।

প্রতিবেদন : http://www.anandabazar.com/calcutta/servant-torched-by-owner-1.216201

271 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: dd

Re: বাঙালি একটি গৃহপালিত অবলা পশু

গুচর পাতায় এরকম হেট স্পীচ আগে দেখি নি। কি জঘন্য লেখা।
Avatar: dd

Re: বাঙালি একটি গৃহপালিত অবলা পশু

ঝট করে মনে আসছে গোটা দু তিনেক ঘটনা।

কলকাতায় - বছর খানেক আগে বাঙালী পরিবার তাদের বাড়ীর ১২/১৩ বছরে কাজের মেয়েকে ঘরে তালাবন্দী করে বেড়াতে চলে গেছিলো। অভুক্ত মেয়েটি শুধু ট্যাপ ওয়াটার খেয়েছিলো। কিছু প্রতিবেশীর সাহায্যে মুক্ত হয় দিন তিনেক অভুক্ত থাকার পর। বেশীদিন আগের ঘটনা নয়।

আর খোদ লুরু শহরে এক বাঙালী দম্পতি তাদের বাড়ীর বাচ্চা মেয়েটিকে ছ্যাঁকা দিয়ে ও আরো নানান অত্যাচার করতো। ধরা পরেছিলো। এখানকার খবরের কাগজেও খুব লিখেছিলো।
Avatar: কল্লোল

Re: বাঙালি একটি গৃহপালিত অবলা পশু

খুবই খারাপ ধরনের লেখা। জাতি বিদ্বেষ ছড়ানোর কেন যে এতো বাসনা কে জানে!!
বাঙ্গালী "ভদ্র"লোকেরা অনেকেই একই দোষে দোষী। কাজের লোকের ওপর অত্যাচার নিঃসন্দেহে প্রতিবাদযোগ্য। কিন্তু তা বলে জাতাপাত বেছে নয়।

Avatar: বানাম

Re: বাঙালি একটি গৃহপালিত অবলা পশু

গরুর লাইনে লিখতে গেলে বানানটা হবে "অবোলা" - যারা কথা বলতে পারে না। অবলা আর অবোলা, দুটো আলাদা শব্দ, আলাদা মানে।
Avatar: নির

Re: বাঙালি একটি গৃহপালিত অবলা পশু

বাঙালি দরিদ্র এবং নিরীহ নয়, অলস, অপদার্থ এবং হিংসুটে।
Avatar: pi

Re: বাঙালি একটি গৃহপালিত অবলা পশু

পুরন্দর, এটা দেখেছিস ?

http://si.wsj.net/public/resources/images/AI-CG629_IRT_BL_G_2014021102
5406.jpg


The figures, published in response to a question tabled in the upper house of Parliament, track reports of violence against domestic helpers between 2010 and 2012.

এবার অন্যদের তুলনায় রিপোর্ট পবতে বেশি কিনা জানিনা। কিন্তু হলেও সেটা সত্যি যা হয়, তার তুলনায় আণ্ডাররিপোর্টিং। আর এই পরিমাণে রিপোর্টেড অ্যাবিউজের পর বাঙালীদের কী বলবি ?
Avatar: Mmu

Re: বাঙালি একটি গৃহপালিত অবলা পশু

কয়েক সপ্তাহ আগেই তো কলকাতার ঘটনা। সম্ভবত উত্তরের মোহন বাগান লেনের। সব কাগজই ছবি সমেত খবর দিয়েছিল। যে ভদ্রলোক পরিচারিকার উপর অত্যাচারে অভিযুক্ত তাকে সবাই চেনে চব্বিশ পরগনা উঃ তে।
পরে কি হল জানি না ।
যাই হোক তিনিও একজন বাঙ্গালী ।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন