পিকু RSS feed

পিকুর ডাইরি

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • বদল
    ছাত্র হয়ে অ্যামেরিকায় পড়তে যারা আসে - আমি মূলতঃ ছেলেদের কথাই বলছি - তাদের জীবনের মোটামুটি একটা নিশ্চিত গতিপথ আছে। মানে ছিল। আজ থেকে কুড়ি-বাইশ বছর বা তার আগে। যেমন ধরুন, পড়তে এল তো - এসে প্রথম প্রথম একেবারে দিশেহারা অবস্থা হত। হবে না-ই বা কেন? এতদিন অব্দি ...
  • নাদির
    "ইনসাইড আস দেয়ার ইজ সামথিং দ্যাট হ্যাজ নো নেম,দ্যাট সামথিং ইজ হোয়াট উই আর।"― হোসে সারামাগো, ব্লাইন্ডনেস***হেলেন-...
  • জিয়াগঞ্জের ঘটনাঃ সাম্প্রদায়িক রাজনীতি ও ধর্মনিরপেক্ষতা
    আসামে এনার্সি কেসে লাথ খেয়েছে। একমাত্র দালাল ছাড়া গরিষ্ঠ বাঙালী এনার্সি চাই না। এসব বুঝে, জিয়াগঞ্জ নিয়ে উঠেপড়ে লেগেছিল। যাই হোক করে ঘটনাটি থেকে রাজনৈতিক ফায়দা তুলতেই হবে। মেরুকরনের রাজনীতিই এদের ভোট কৌশল। ঐক্যবদ্ধ বাঙালী জাতিকে হিন্দু মুসলমানে ভাগ করা ...
  • অরফ্যানগঞ্জ
    পায়ের নিচে মাটি তোলপাড় হচ্ছিল প্রফুল্লর— ভূমিকম্পর মত। পৃথিবীর অভ্যন্তরে যেন কেউ আছাড়ি পিছাড়ি খাচ্ছে— সেই প্রচণ্ড কাঁপুনিতে ফাটল ধরছে পথঘাট, দোকানবাজার, বহুতলে। পাতাল থেকে গোঙানির আওয়াজ আসছিল। ঝোড়ো বাতাস বইছিল রেলব্রিজের দিক থেকে। প্রফুল্ল দোকান থেকে ...
  • থিম পুজো
    অনেকদিন পরে পুরনো পাড়ায় গেছিলাম। মাঝে মাঝে যাই। পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হয়, আড্ডা হয়। বন্ধুদের মা-বাবা-পরিবারের সঙ্গে কথা হয়। ভাল লাগে। বেশ রিজুভিনেটিং। এবার অনেকদিন পরে গেলাম। এবার গিয়ে শুনলাম তপেস নাকি ব্যবসা করে ফুলে ফেঁপে উঠেছে। একটু পরে তপেসও এল ...
  • কাঁসাইয়ের সুতি খেলা
    সেকালে কাঁসাই নদীতে 'সুতি' নামের একটা খেলা প্রচলিত ছিল। মাছ ধরার অভিনব এক পদ্ধতি, বহু কাল ধরে যা চলে আসছে। আমাদের পাড়ার একাধিক লোক সুতি খেলাতে অংশ নিত। এই মৎস্যশিকার সার্বজনীন, হিন্দু ও মুসলিম উভয় সম্প্রদায়ে জনপ্রিয়। মনে আছে ক্লাস সেভেনে পড়ার সময় একদিন ...
  • শুভ বিজয়া
    আমার যে ঠাকুর-দেবতায় খুব একটা বিশ্বাস আছে, এমন নয়। শাশ্বত অবিনশ্বর আত্মাতেও নয়। এদিকে, আমার এই জীবন, এই বেঁচে থাকা, সবকিছু নিছকই জৈবরাসায়নিক ক্রিয়া, এমনটা সবসময় বিশ্বাস করতে ইচ্ছে করে না - জীবনের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য-পরিণ...
  • আবরার ফাহাদ হত্যার বিচার চাই...
    দেশের সবচেয়ে মেধাবীরা বুয়েটে পড়ার সুযোগ পায়। দেশের সবচেয়ে ভাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিঃসন্দেহে বুয়েট। সেই প্রতিষ্ঠানের একজন ছাত্রকে শিবির সন্দেহে পিটিয়ে মেরে ফেলল কিছু বরাহ নন্দন! কাওকে পিটিয়ে মেরে ফেলা কি খুব সহজ কাজ? কতটুকু জোরে মারতে হয়? একজন মানুষ পারে ...
  • ইন্দুবালা ভাতের হোটেল-৭
    চন্দ্রপুলিধনঞ্জয় বাজার থেকে এনেছে গোটা দশেক নারকেল। কিলোটাক খোয়া ক্ষীর। চিনি। ছোট এলাচ আনতে ভুলে গেছে। যত বয়েস বাড়ছে ধনঞ্জয়ের ভুল হচ্ছে ততো। এই নিয়ে সকালে ইন্দুবালার সাথে কথা কাটাকাটি হয়েছে। ছোট খাটো ঝগড়াও। পুজো এলেই ইন্দুবালার মন ভালো থাকে না। কেমন যেন ...
  • গুমনামিজোচ্চরফেরেব্বাজ
    #গুমনামিজোচ্চরফেরেব্...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

'বাঁকা' লেজ 'সোজা' করার ঘরোয়া টোটকা

পিকু

অ্যাদ্দিনে মোক্ষম অস্তরটা সামনা-সামনি চলে এল। 'বাঁকা' ছেলে-মেয়েদের 'সোজা' করতে এর চেয়ে ভাল উপায় আর কীই বা ছিল? তাতে এত হইচই হল্লাগোল্লার কী আছেটা শুনি? সেই কবে থেকেইতো বিভিন্ন 'বিদঘুটে অসুখ' সারাতে মাঝে মাঝে বাড়ির লোকজন 'সংশোধনী ধর্ষণ' করেই আসছে। আজ না হয় খবরের কাগজওয়ালাগুলোর হেব্বি পিনিক জেগেছে, আর তাই নিয়ে পাতা ভরিয়েছে। আর ফেসবুক করনেবালাদের দেখ! জীবনে লোকের পিছনে কাঠি করা ছাড়া বিশেষ কোনও কাজই নেই ,তাই এখন এই আদ্দিকালের খবর শেয়ার করার ধুম পড়েছে। আরে বাপ, ঘরের ছেলে, মেয়ে বিগড়োলে সামলাবেটা কে? পরিবারের লোকজনইতো নাকি? ও পাড়ার পদি পিসিতো শুধু নিন্দেমন্দ করে নাকে সরষের তেল ঠুসে ঘুমাতে যায়। ঝক্কিটা সামলাবেটা কে? দায়ভারটাতো মা-বাপের কাঁধে এসেই পড়ে! তা ছোট বেলায় দুষ্টুমি করলে কিল-চড় ঘুঁষি কি দেওয়া হত না? তা এখন না হয় 'রোগ সারাতে' ধর্ষণই করানো হচ্ছে? তাতে হলটা কী? দেশ দখলে, সাম্রাজ্য বাড়াতে, ধর্মের দাপট বোঝাতে, রাষ্ট্র ক্ষমতা প্রতিষ্ঠা করতে, পেশি শক্তির আস্ফালন প্রকাশে বা সিম্পলি 'আমার ক্ষমতা বেশি' এবং 'তুমি আমার ভোগ্য' প্রমাণে কোন যুগ থেকেই ধর্ষণ মহা 'সমাদৃত'। আর সংশোধনী ধর্ষণও কী নতুন কিছু? কেন ভিন বর্ণ বা জাতের ছেলের সঙ্গে মেয়ে ভাগলে তাকে উচিৎ 'শিক্ষে' দিতে ধর্ষণ করা হয় না বুঝি? লিঙ্গতো উঁচিয়ে থাকারই জন্য, বাড়াবাড়ি করলেই জোর করে মোক্ষম জায়গায় ঢুকিয়ে দিলেই হয়। খানিক ছটফটানি, রক্তপাত, যন্ত্রণা...আর অনেক অনেকটা কষ্ট, মনের কষ্ট...তা বৈতো আর বেশি কিছু নয়। তা সে সব তো বেশ 'স্বীকৃত'। এক্ষেত্রে একই কাজ করা হলে খামোখা আলাদা করে এত লাফালাফি কেন? মহৎ উদ্দেশ্যটার কি কোনও দামই নেই?

আহ্লাদ দেখ! মেয়ে হয়ে মেয়েকে, ছেলে হয়ে ছেলেকে নাকি ভালবাসবে! পেরেম করবে! সেক্স করবে...মানে এক বিছানাতেই শোবে? ইল্লি আর কি! তা এ যদি 'অসুখ' না হয়, তাহলে অসুখ কোনটা? এ রোগ কি আর সাধারণ রোগ? আরে মেয়ে-মেয়ে, ছেলে-ছেলেতো ওই সব করলে বাচ্চাটা পয়দা হবে কী করে শুনি? সারস পাখি এসে চিমনি গলিয়ে দিয়ে যাবে? আর ওই সবার আসলি কারণইতো রিপ্রোডিউস করা। এতে আবার শরীরের সুখ, প্লেজার, ভালবাসা এসব কথা আসে কোথা থেকে শুনি?...এ মানে কিঞ্চিৎ ভাললাগা-টাগা থাকে না তাই নয়...কিন্তু তাই বলে মহান বংশ বৃদ্ধির পথে বাধা, আর তাও মেনে নিতে হবে? নেহি, নেভার! কক্ষনো না। আইনেই বলেছে, এসব 'প্রকৃতি বিরুদ্ধ।' 'অসুখ' 'অসুখ', এসব সেরেফ 'অসুখ'।তা সে রোগ সারাতে আগেতো কম চেষ্টা করা হয়নি। বাবা-বাছা বলে মাথায় হাত বুলিয়ে বোঝানোর চোটে কম ঘণ্টা, মিনিট, সেকেন্ড জলাঞ্জলি গেছে? এমনি বকা-ঝকা, হালকা থেকে ভারী ক্যালানি, কোন কিছুইতো বাকি রাখা হয়নি। ডাক্তার, বদ্যি কিছুরই অভাবও ছিল না। তাতে ভবি ভুললেতো হয়! সেইযে 'বেঁকে' আছে আর 'সোজা' হওয়ার নাম নেয় না। আর মাথার ডাক্তারগুলোকে দেখ। যত্তসব গোমুখ্যুর অতিআধুনিকের দল। কোথায় ছানাপোনাকে ওষুধ পত্তর দিয়ে সারিয়ে তুলবি, তা নয় বলে কিনা সমকামিতা কোনও রোগই নয়! আবার কথায় কথায় 'হু'-এর রেফারেন্স টানে। বেল্লিকগুলোর মুখে নুঁড়ো জ্বেলে দিতে হয়। আরে শ্রীনিবাসনের মত মহামানবরা 'বাঁকা' ছেলেকে ঘরে বন্দী করে 'সিধে' করতে পারল না! অন্যরাতো চুনো-পুঁটি মাত্র। তা, কী এমন করা হয়েছে? না লোক ডেকে অসুখ সারাতে এত্তু ধর্ষণ করানো হয়েছে মাত্র। তাও বাইরের লোক কী? একই পরিবারের মধ্যে দাদা বা তুতোভাইকে নিয়োগ করা হয়েছে। মাঝে মাঝে জ্যাঠা, কাকা, মামারাও কাজটা করে দেন প্রয়োজন হলে। হাজার হোক, বাড়ির ছেলে, বাড়ির মেয়ে। পরিবারের একটা ইজ্জত আছে না? তা সেই ইজ্জত রাখতে না হয় একটু ধর্ষণই করতে হচ্চে, তাচ্চেয়ে বেশি কিছুতো আর না। তাতে যদি সমপ্রেমের মত 'মহামারী' সেরে যায়, তার জন্য এই টুকু আত্মত্যাগ আর এমন কি! এত মানব জাতির কল্যাণে। একি আর মুকেশ সিংয়ের নির্ভয়াকে ধর্ষণ করা? ওসবতো 'ছোটলোকে' করে। ছো ছো! ওসবের বিরোধীতা জোর গলায় চলবে। এ হল 'সংশোধনী ধর্ষণ', ইংজিরিতে যারে কয় 'কারেকটিভ রেপ'। এর সঙ্গে অন্য কিছুর তুলনা চলে? এর একটা লেবেল আছে বাপু। আর পাকা পাকা ছেলে-মেয়েগুলোর অবস্থা দেখ। তাতেও টেঁটিয়াপনা কমছে কই। শালা সমাজ রোজ গাল পাড়ছে, বাড়িতে ক্যাল খাচ্ছিস দু'বেলা, রাস্তা ঘাটে চলতে ফিরতে খোরাক হচ্ছিস, এমনকি তোদের শোধরাতে বাপ-মা লোক ফিট করে ধর্ষণ পর্যন্ত করাচ্ছে, তাতেও তোদের একটুও হুঁশ ফেরে না! বাড়ির লোকের নামে থানায় নালিশ ঠুকতে একদিকে লজ্জা পাচ্ছিস, আবার অন্যদিকে বাড়ি থেকে পালাবার ফিকির খুঁজছিস? লোক ডেকে ডেকে জানাচ্ছিসও? ওরে তোদের সব বোধই কী উচ্ছনে গেছে?

আরে ভাই জন্মাবার পরে এদেশের সব ছানা-পোনাই লিঙ্গ নির্বিশেষে বাপ-মায়ের সম্পতি। এমন ন্যাকামো কচ্চে সব, যেন এই সত্যিটা জানা নেই। সব আঁতলামো মারাচ্ছে। আরে বাপ, আমার ছেলে, আমার মেয়ে। যবে থেকে জন্মেছে সব অধিকার আমার। আদর করব, আহ্লাদ দেব, ভালবাসবো। বেগরবাই করলে বকবো, ঝকবো, দু-ঘা দেব, আর বেগরবাইয়ের মাত্রাটা বেড়ে গেলে না হয় ধর্ষণ করাব অথবা সেরেফ হাওয়া করে দেব। ;অনার কিলিং আরকি! ( আহা নামটাই কেমন সম্মান মাখানো, থ্রিলিং। শুনেই মনে হয় টাটকা রক্তে ভেজা ছুরির গায়ে চাট্টি মাখন লেপা।) তাতে বাপু, তোদের কী র‍্যা? যতসব পিছন পাকার দল। আমার পাঁঠা, আমি কাটবো না গেলাবো সেটা আমিই ঠিক করব। নাকের সাইজের ঠিক নেই, অন্যের ব্যাপারে সেটি গলানোর ইচ্ছা ষোল আনা। খবরদার, এখনি সাবধান করছি...বেশি লিঙ্গ সাম্য, সমপ্রেম, সমঅধিকার নিয়ে নাচানাচি কল্লে না পিছনে এক সঙ্গে আইসিস আর আরএসএস-কে লেলিয়ে দেওয়া হবে। তাপ্পর যখন সবকটা ফেবু বোদ্ধাকে ধরে ধরে ওই একই রকম 'সংশোধনী' চলবে তখন মজাটা টের পাওয়া যাবে...


337 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: Arani

Re: 'বাঁকা' লেজ 'সোজা' করার ঘরোয়া টোটকা

এর কি কোনো কনটেক্সট আছে? ধরা গেলনা ঠিক।
Avatar: সে

Re: 'বাঁকা' লেজ 'সোজা' করার ঘরোয়া টোটকা

সাউথ আফ্রিকায় প্রচুর কারেক্টিভ রেপ হয়। আফ্রিকান মহাদেশের কারেক্টিভ রেপ নিয়ে টিভিতে অনেক প্রোগ্রাম হয়েছে। এটা মনে হয় ভারতের কারেক্টিভ রেপ নিয়ে লেখা।
http://en.wikipedia.org/wiki/Corrective_rape
http://www.independent.co.uk/news/world/asia/gay-teenager-forced-to-ha
ve-sex-with-his-own-mother-in-corrective-rape-in-india-10291949.html

http://www.firstpost.com/india/horrifying-parents-india-using-correcti
ve-rape-cure-homosexual-children-2273030.html

Avatar: সে

Re: 'বাঁকা' লেজ 'সোজা' করার ঘরোয়া টোটকা



আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন