Animesh Baidya RSS feed

[email protected]
Animesh Baidyaএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • সোনারপুরে সোনার মেলা
    শীত ভাল করে পড়তে না পড়তেই মেলার সীজন শুরু হয়ে গেছে। গুরু এবারে ওমনিপ্রেজেন্ট – গাদাগুচ্ছের মেলাতে অংশ নেবার মনস্থ করেছে। একেবারে সূচনাপর্বেই সোনারপুর মেলা – বোতীনবাবুর দৌলতে তার কথা এখন এখানে অনেকেই জানেন। তো সেই সোনারপুর বইমেলাকেই পদধূলি দিয়ে ধন্য করব ...
  • এন জি রোডের রামলাল-বাংগালি
    রামলাল রাস্তা পার হইতে যাইবেন, কিছু গেরুয়া ফেট্টি বাঁধা চ্যাংড়া যুবক মোড়ে বসিয়া তাস পিটাইতেছিল— অকস্মাৎ একজন তাহার পানে তাকাইল।  রামলাল সতর্ক হইলেন। হাত মুষ্টিবদ্ধ করিলেন, তুলিয়া, ক্ষীণকন্ঠে বলিলেন, 'জ্যায় শ্রীরাম।'পূর্বে ভুল হইত। অকস্মাৎ কেহ না কেহ পথের ...
  • কিউয়ি আর বাঙালী
    পৃথিবীতে ছোট বড় মিলিয়ে ২০০র' কাছাকাছি দেশ, তার প্রায় প্রতিটিতেই বাঙালীর পদধূলি পড়েছে। তবে নিউজিল্যাণ্ড নামে দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরে একটি দ্বীপমালা আছে, সে দেশের সঙ্গে ভারতীয়দের তথা বাঙালীদের আশ্চর্য ও বিশেষ সব সম্পর্ক, অনেকে জানেন নিশ্চয়ই।সে সব সম্পর্কের ...
  • মহামহিম মোদী
    মহামহিম মোদী নিঃসন্দেহে ইতিহাসে নাম তুলে ফেলেছেন। আজ থেকে পাঁচশো বছর পরে, ইশকুল-বইয়ে নিশ্চয়ই লেখা হবে, ভারতবর্ষে এমন একজন মহাসম্রাট এসেছিলেন, যিনি কাশ্মীরে টিভি সম্প্রচার বন্ধ করে কাশ্মীরিদের উদ্দেশে টিভিতে ভাষণ দিতেন। যিনি উত্তর-পূর্ব ভারতে ইন্টারনেট ...
  • পার্টিশানের অজানা গল্প ১
    এই ঘোর অন্ধকার সময়ে আরেকবার ফিরে দেখি ১৯৪৭ এর রক্তমাখা দিনগুলোকে। সেই দিনগুলো পার করে যাঁরা বেঁচে আছেন এখনও তাঁদেরই একজনের গল্প রইল আজকে। পড়ুন, জানুন, নিজের দিকে তাকান...============...
  • কাশ্মীরের ইতিহাস : পালাবদলের ৭৫ বছর
    কাশ্মীরের ইতিহাস : পালাবদলের ৭৫ বছর - সৌভিক ঘোষালভারতভুক্তির আগে কাশ্মীর১ব্রিটিশরা যখন ভারত ছেড়ে চলে যাবে এই ব্যাপারটা নিশ্চিত হয়ে গেল, তখন দুটো প্রধান সমস্যা এসে দাঁড়ালো আমাদের স্বাধীনতার সামনে। একটি অবশ্যই দেশ ভাগ সংক্রান্ত। বহু আলাপ-আলোচনা, ...
  • গাম্বিয়া - মিয়ানমারঃ শুরু হল যুগান্তকারী মামলার শুনানি
    নেদারল্যান্ডের হেগ শহরে অবস্থিত আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিস—আইসিজে) মিয়ানমারের বিরুদ্ধে করা গাম্বিয়ার মামলার শুনানি শুরু হয়েছে আজকে। শান্তি প্রাসাদে শান্তি আসবে কিনা তার আইনই লড়াই শুরু আজকে থেকে। নেদারল্যান্ডের হেগ শহরের পিস ...
  • রাতপরী (গল্প)
    ‘কপাল মানুষের সঙ্গে সঙ্গে যায়। পালানোর কি আর উপায় আছে!’- এই সপ্তাহে শরীর ‘খারাপ’ থাকার কথা। কিন্তু, কিছু টাকার খুবই দরকার। সকালে পেট-না-হওয়ার ওষুধ গিলে, সন্ধেয় লিপস্টিক পাউডার ডলে প্রস্তুত থাকলে কী হবে, খদ্দের এলে তো! রাত প্রায় একটা। এই গলির কার্যত কোনো ...
  • রাতপরী (গল্প)
    ‘কপাল মানুষের সঙ্গে সঙ্গে যায়। পালানোর কি আর উপায় আছে!’- এই সপ্তাহে শরীর ‘খারাপ’ থাকার কথা। কিন্তু, কিছু টাকার খুবই দরকার। সকালে পেট-না-হওয়ার ওষুধ গিলে, সন্ধেয় লিপস্টিক পাউডার ডলে প্রস্তুত থাকলে কী হবে, খদ্দের এলে তো! রাত প্রায় একটা। এই গলির কার্যত কোনো ...
  • বিনম্র শ্রদ্ধা অজয় রায়
    একুশে পদকপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক অজয় রায় (৮৪) আর নেই। সোমবার ( ৯ ডিসেম্বর) দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার একটি হাসপাতালে শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। অধ্যাপক অজয় দীর্ঘদিন বার্ধক্যজনিত নানা অসুখে ভুগছিলেন।২০১৫ ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

Animesh Baidya

(একটা ভিন্ন পরিপ্রেক্ষিতে এই লেখাটা আগে লিখেছিলাম। ছাপা হয়েছিল অন্যত্র। তবে আজকের সময়ে ফের বিষয়টা নতুন করে মনে পড়ল। আজকের বাস্তবতা এবং পরিপ্রেক্ষিত অনুযায়ী লেখাটা পরিমার্জন করে এখানে দিচ্ছি।)

চারিদিকে বিরাট তর্ক-বিতর্ক। ভারত-বাংলাদেশ বিশ্বকাপ ক্রিকেট ম্যাচ নিয়ে। পশ্চিমবঙ্গের বাঙালিদের মধ্যে তৈরি হয়ে গিয়েছে বিভাজন। কেউ কেউ ভাষাগত আত্মপরিচয়ের ভিত্তিতে নির্ধারণ করছেন তাদের অবস্থান এবং সমর্থনের অভিমুখ। আর অন্য বড় অংশের লোকেরা রাষ্ট্রীয় মানচিত্রের নিরিখে নির্ধারণ করছেন তাদের অবস্থান ও সমর্থনের অভিমুখ। কে ঠিক, কে ভুল, কার কোন দলকে সমর্থন করা উচিৎ...এই সব নিয়ে এই লেখা মোটেও নয়। যেটা নিয়ে আলোচনা করতে চাইছি তা হলো, ক্রিকেটে কোন দলকে সমর্থন করা উচিৎ, সেই ভিত্তিতে ‘দেশপ্রেমী’ এবং ‘রাষ্ট্রদ্রোহী’ এই দুই ধারণার নির্মাণ ঘিরে। ফেসবুক জুড়ে দেখতে পাচ্ছি, পশ্চিমবঙ্গে যে সব বাঙালি ভাষাগত আত্মপরিচয়ের উপর ভিত্তি করে ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচে বাংলাদেশকে সমর্থনের কথা জানিয়েছেন তাদের বাকিরা ইতিমধ্যেই রাষ্ট্রদ্রোহী তকমা দিয়ে রেখেছেন। কারণ তারা ম্যাচে নিজের দেশকে সমর্থন করছেন না। বরং বিপক্ষ দলকে সমর্থন করছেন। এই পরিসরে একটা ভিন্ন ঘটনা মনে পড়ছে।

একটু ফিরে দেখা যাক। সালটা ২০০৫। নভেম্বর মাস। ততোদিনে সৌরভ গাঙ্গুলি ভারতীয় দল থেকে বাদ পড়েছেন। গোটা বঙ্গ সমাজ কথায় কথায় তখনকার জাতীয় দলের কোচ গ্রেগ চ্যাপেলের মুন্ডুচ্ছেদ করছে। ঠিক সেই পরিস্থিতিতে ভারতীয় দল রাহুল দ্রাবিড়ের নেতৃত্বে খেলতে এল কলকাতায়। দিনটা ছিল ২৫ নভেম্বর। ইডেন গার্ডেনে ভারতের বিপক্ষে ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। গোটা ম্যাচ জুড়ে ইডেন গার্ডেনে প্রায় সমস্ত জনতা ভারতের বিরোধিতা করল এবং দক্ষিণ আফ্রিকাকে সমর্থন করে গেল। সেই ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকা জয়ী হল এবং গোটা গ্যালারি থেকে আনন্দের হুল্লোড় উঠল। কেউ কিন্তু এক বারের জন্যও ইডেন গার্ডেনের দর্শকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ আনেনি। সে দিন নিজের দেশকে সমর্থন না করে বিপক্ষ দেশকে সমর্থন করা বাঙালির কাছে সে দিন কিন্তু তাদের নিজেদের দেশপ্রেমের কোনও খামতি চোখে পড়েনি।

কিন্তু এই ঘটনার মূলেও ছিল সেই বাঙালি ভাবাবেগে। বাঙালি সৌরভ গাঙ্গুলিকে দল থেকে সরিয়ে দেওয়ার কারণেই আপামর বাঙালি চ্যাপেল এবং ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের বাপবাপান্ত করতে করতে গ্যালারি থেকে ভারতীয় দলের দিকে ছুড়ে দিতে লাগল দু অক্ষর, চার অক্ষর কিংবা ছয় অক্ষর সহযোগে নানান অভিশাপ। গ্যালারি থেকে পাড়ার ক্লাবে, টিভির সামনের জটলায় কিংবা বঙ্গদেশের প্রতিটি বাড়ির টিভির সামনে বসে থাকা প্রায় সব বাঙালি কিন্তু সে দিন ছিল ভারতের বিপক্ষে। তাই সে দিন বাঙালির কাছে ভারতীয়ত্বের থেকেও অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছিল তার বাঙালিত্ব। তখন কিন্তু কেউ এই ঘটনাকে রাষ্ট্রদ্রোহিতার তকমা দেয়নি।

সেই যুক্তির উপরে দাঁড়িয়ে আজ যদি কোনও পশ্চিমবঙ্গের বাঙালি তার ভাষগত আত্মপরিচয়ের উপর ভিত্তি করে ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচে বাংলাদেশকে সমর্থন করে তাহলে তো তাকেও রাষ্ট্রদ্রোহী বলা যায় না। আর যদি তাদেরকে রাষ্ট্রদ্রোহী বলা হয়, তাহলে সেই যুক্তিতে সৌরভ গাঙ্গুলী দল থেকে বাদ পড়ার পরে বহু বাঙালিই ক্রিকেটে দেশকে সমর্থন করার ক্ষেত্রে রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলেন একটা সময় ধরে। তাহলে কোনটা ভুল, কোনটা ঠিক? কোনটা ন্যায্য, কোনটা অন্যায্য? এবং কেন?

একটু ভেবে দেখা যাক।

985 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3]   এই পাতায় আছে 24 -- 43
Avatar: 4z

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

অন্য দেশের নাগরিকত্ব নিয়ে সেই দেশেই বসে সে দেশের বিরুদ্ধে ভারতকে সাপোর্ট করলে ঠিক আছে কিন্তু সেই একই কাজ কেউ ভারতে বসে করলেই সমস্যা? সলিড হ্যায় বস!
Avatar: dc

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

আচ্ছা :d
Avatar: ঊমেশ

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

এই তো 4z আমার কথাটাই বলে দিলো।

Avatar: সোম

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

এটা আবার কী বোকা বোকা যুক্তি ? শুনুন, ক্রিকেট এর সঙ্গে দেশপ্রেম এর কোনো সম্পর্ক নেই। আপনি ক্রিকেট ভালবাসেন , সেইজন্যে ক্রিকেট দেখছেন । খেলার ধর্মই হলো যে কোনো না কোনো টীম কে সাপোর্ট করতেই হবে। ভারত আপনার দেশ, সেইজন্যে আপনি ভারতকে সমর্থন করছেন। আসলে আপনি সমর্থন করছেন ক্রিকেট , আর খেলার। যেটাকে ইংরেজিতে বলে to the glory of sport । এর সঙ্গে দেশপ্রেমের কোনো link নেই।
যখন ফুটবল বিশ্বকাপ হয়, তখন ব্রাজিল সমর্থক আর আর্জেন্টিনা সমর্থক বাঙালি যে জার্সি পরে ঘুরে বেড়ান, তাহলে কী দেশদ্রোহী হয়ে যান? না, হন না। কারণ সমর্থন আপনি আসলে করছেন ফুটবল-এর ।

Avatar: Bhagidaar

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

প্রশ্ন হচ্ছে ভারত আগেও বাংলাদেশের বিপরীতে খেলেছে, বিশ্বকাপে না হলেও। এর আগে তো এরম ঝামেলার কথা শুনিনি?
Avatar: সোম

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

দেখেননি কারণ আঠ বছর আগেও ফেসবুক হেণতেন খুব একটা প্রচলিত ছিল না । নইলে তখনও দেখতেন। বোকা লোকের অভাব এখনো নেই, তখনও ছিল না।
Avatar: সোম

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

#আদর্শলিবারেল #আদর্শভক্ত হতে তো লাগে শুধু বেশ একটা ভালো ব্যান্ডউইডথ ওলা ইন্টারনেট আর আই কীউ এর একটু কমতি । তাই না?
Avatar: dhus

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

ক্রিকেট ফোরাম এ এর চেয়ে বেশি তর্ক চলে ইন্ডিয়া অস্ট্রেলিয়া , ইন্ডিয়া সাউথ আফ্রিকা ম্যাচ হলে - যেখানে সিরিয়াস ক্রিকেট আলোচনা হয় । ক্রিকেট ভালোবাসলে খেলা দেখুন, এনজয় করুন।নইলে দেখবেন না । ভারত বাংলাদেশ খেলা বহুকাল ধরে হচ্ছে, ২০০৭ ও অর্কুটে অনেক পাবলিক ভাট বকেছিল , ২০১১ তে কোহলি সেওযাগের হাতে দুরমুশ হবার আগেও ফেসবুকে অনেক আস্ফালন দেখেছি। কোনো ফ্যান যদি বলতে শুরু করে মাহমুদুল্লা বিরাট কোহলির থেকে বড় ব্যাটসম্যান তাহলে মুচকি হাসুন :-) গাভাস্কার , গাঙ্গুলি , দ্রাবিড় দের এক্সপার্ট'স কমেন্ট্রি শুনুন - খেলা টা এনজয় করুন ।

Avatar: de

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

খুব অদ্ভুত ভাবে আমার আপিসের লোকজন আমাকে আজ জিজ্ঞেস করলো - তুমি নিশ্চয়ই বাংলাদেশকে সাপোর্ট করছো কাল? আমার এতো অবাক লাগলো প্রশ্নটা শুনে যে উত্তরও দিতে পারিনি! তারপরে এই লেখাটা দেখলাম -

খেলাটা এনজয় করাই তো আসল - সাপোর্টে কি আসে যায়!
Avatar: dc

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

ঠিক কথা। ক্রিকেট, হকি, ফুটবল যে খেলা দেখতে ইচ্ছে হয় আনন্দ করে দেখুন, যে টিম বা দেশকে সাপোর্ট করছেন তাকে প্রাণভরে সাপোর্ট করুন, অপোনেন্ট টিম বা দেশকে কঠিন কঠিন গালাগাল করুন। খেলা শেষ হয়ে গেলে রোজকার কাজে লেগে পড়ুন। এনজয় করাই আসল, সাপোর্টে কি এসে যায়?
Avatar: সিকি

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

আচ্ছা এই বিশ্বকাপ খেলাটা কবে শেষ হবে?
Avatar: dc

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

কোন বিশ্বকাপ? :p আমি ক্রিকেট বিশ্বকাপ আদৌ ফলো করিনা। শুধু এবার ভারতের প্রথম খেলাটা পাকিস্তানের সাথে ছিল, আর সেদিন কোয়েম্বাতুর থেকে বাড়ী ফিরছিলাম বলে ট্রেনে মাঝে মাঝে স্কোর দেখছিলাম। এছাড়া ক্রিকেট খেলা দেখা অনেকদিন হলো ছেড়ে দিয়েছি, ফুটবল আর হকি দেখি মাঝে মধ্যে।
Avatar: :-))))

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

হকি ওয়ার্ল্ড লিগে ইন্ডিয়ান টিম চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ,পুরো চক দে ইন্ডিয়া
http://timesofindia.indiatimes.com/sports/hockey/top-stories/Indian-wo
men-beat-Poland-to-win-Hockey-World-League-Round-2/articleshow/4657530
3.cms

Avatar: dc

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

হ্যাঁ দেখেছি, দারুন খবর। খেলাটা চলাকালীন যদি দেখতাম তো পোল্যান্ডকে নিশ্চয়ই খুব খারাপ খারাপ কথা শোনাতাম।
Avatar: cb

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

ডিসি র মেরে ** ভেংগে দিতাম, পোল্যান্ড আমার অন্যতম ফেভারিট দেশ, পোচুর ব্ন্ধু হ্যাজ :)
Avatar: dc

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

এহেহে তাহলে তো খেলাটা আপনার সাথেই বসে দেখা উচিত ছিল :d
Avatar: cb

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

ইয়েস, সে তো ছিলই। তবে সত্যিকারের উত্তেজনা দেখা যেত মোবা ইবের ম্যাচে। দুর্ধর্ষ ব্যাপার, হাতাহাতি হওয়ার মত
Avatar: :-)

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

চ্যাম্পিয়ন্স লীগ দেখতে বসলেও হাতাহাতি হয় । ব্রাজিল আর্জেন্টিনা হলেও। ফোরাম গুলোতে খিস্তি তে ভরে যায় :-))
Avatar: dc

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

উফ এক্কেবারে মনের কথা বলেছেন। ছোটবেলার সেই ইবে-মোবা ম্যাচ, আর ইন্ডিয়া-পাকিস্তান ক্রিকেট ম্যাচ। বড়ো ম্যাচে সবাই মিলে স্টেডিয়ামে যাওয়া আর ক্রিকেট হলে টিভির সামনে বসে দেখা। কতো হাতাহাতি, কতো গালাগাল যে হতো!
Avatar: Rituparna Bhattacharyya

Re: আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

আমাদের বরির ছেলে কে জোদি বাদ দেয়া হয় তখন বাড়ির লোকের প্রতিবাদ কি রাষ্ত্র বিরোধীত হয়

মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3]   এই পাতায় আছে 24 -- 43


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন