এই সপ্তাহের খবর্নয় ( নভেম্বর ২)


লিখছেন --- খবরোলা অ্যান্ড কোং


আপনার মতামত         


আবার যখের ধন
-----------------
র‌্যাঙ্কিং আমাদের খুব প্রিয়। সেরা ছাত্র, সেরা গ্রন্থ, সেরা গান ইত্যাদি ইত্যাদি নানারকম তালিকা বানিয়ে চলি বছরজুড়ে। সেই তালিকায় এক অভিনব সংযোজন ঘটলো কদিন আগে। ফোর্বস পত্রিকা সম্প্রতি র‌্যাঙ্কিং করলো ""মৃত সেলিব্রিটিদের রোজগার""এর নিরিখে। সেই তালিকায় প্রথম নাম, এলভিস প্রিসলি। গত একবছরে ৫২ মিলিয়ন ডলার আয় করেছেন তিনি। তালিকায় তিন নম্বর নামটাও বেশ চমকপ্রদ। ""ডার্ক নাইট"" খ্যাত হিথ লেজার আয় করেছেন ২০ মিলিয়ন ডলার।

ফোর্বস পত্রিকার তরফ থেকে জানানো হয়েছে কিভাবে তারা এই তালিকা বানালো। এক্ষেত্রে তাদের প্রধান সহায় হয়েছে ওয়াকিবহাল বিশেষজ্ঞদল ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির ঘনিষ্ঠ ফোর্বস প্রতিনিধি। প্রত্যেকের মোট রোজগার (মূলত রয়্যালটি বাবদ) হিসেব করে, আয়কর বাদ দিয়ে যা পাওয়া গেছে সেই ভিত্তিতেই এই তালিকা। সবটাই ২০০৭ অক্টোবর থেকে ২০০৮ অক্টোবর পর্যন্ত হিসেব মাথায় রেখে।

সবথেকে ধনী মৃত সেলিব্রিটি তালিকার চার নম্বর নাম অ্যালবার্ট আইনস্টাইন। গত একবছরে তাঁর আয় ছিলো ১৮ মিলিয়ন ডলার।

ডাই(ন্যা)নোসর
--------------
সম্প্রতি মঙ্গোলিয়ায় পাওয়া গেল এক ধরণের ক্ষুদে ডাইনোসর প্রজাতির জীবাশ্ম, যারা সম্ভবত জুরাসিক যুগের শেষের দিকে লুপ্ত হয়ে যায়। ডাইনো পরিবারের মান্যগণ্য সদস্য টিরানোসরাস রেক্সের দূরসম্পর্কের আত্মীয় এই ক্ষুদে ডাইনোসর, যার নাম দেওয়া হয়েছে এপিডেক্সিপ্টেরিক্স হুই। গ্রীক নামটির অর্থ, ""পালক প্রদর্শনী""। অনেকটা ময়ূরের মতই ""পেখম"" তুলে নিজেকে নয়নাভিরাম করে
তুলতে চাইতো পুং ডাইনো।

অত্যন্ত ছোটো আকারের ( প্রায় একটা বেড়ালছানার মত ) এই ডাইনোসরের ওজন কোনোমতেই ১৬৪ গ্রামের বেশি হতো না। পাখিদের মত পালক থাকতো এদের, যদিও ওড়ার ক্ষমতা ছিলো না।
প্রাণীজগতের অভিযোজনের তত্ত্বে যাকে ""মিসিং লিংক"" বলে, সেই আর্কিওপ্টেরিক্সের ঠিক আগেই এপিডেক্সিপ্টেরিক্সের আবির্ভাব হয়। আর্কিওপ্টেরিক্সকে পাখী প্রজাতির প্রথম প্রতিনিধি ধরা হয়।

পাখিদের সাথে শারীরবৃত্তীয় মিল, এবং আর্কিপ্টেরিক্সের সাথে যোগসূত্র, এই দুটো কারণে এপিডেক্সিপ্টেরিক্স অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এতদিন পর্যন্ত সরীসৃপ ও পাখিদের মধ্যে যে অভিব্যক্তি সংক্রান্ত¹ ফাঁক ছিলো, এপিডেক্সিটেরিক্স সেই ফাটল বুজিয়ে দেবে, এমনটাই আশা করা হচ্ছে।

অটোবায়োগ্রাফি অফ অ্যান (আন) নোন শিম্পাঞ্জী
-------------------------------------------
চিতা এক বিখ্যাত শিম্পাঞ্জী। টারজান সিনেমায় নায়ক জনি ওয়াইসমুলারের সাকরেদী করে প্রচারের আলোয় এসেছিলো সে। তারপর গঙ্গা থেকে মিসিসিপি, জল বয়ে গেছে বহুদূর। সেদিনের সেই অখ্যাত শিম্পাঞ্জী আজ ছিয়াত্তর বছরের প্রবীণ। অবসর জীবনে তার আত্মকথা প্রকাশিত হলো, নাম ""মি চিতা""।

শিম্পাঞ্জীর দৃষ্টিকোণ থেকে চেনাশোনা এই পৃথিবীকে দেখা যথাযথভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে এই বইতে, সমালোচকরা বলছেন।
বইয়ের শুরুই হয়েছে লাইবেরিয়া থেকে কিভাবে চিতাকে উদ্ধার করে আনা হলো সেই কাহিনী দিয়ে। তারপর একে একে বিভিন্ন ছবি, সংশ্লিষ্ট সহ-অভিনেতা/অভিনেত্রীদের কথা উঠে এসেছে এই বইতে। সৎ আত্মজীবনীতে নিজের অপরাধের কথাও বলতে হয়। দেখা গেল চিতাও জানে সেকথা। কিভাবে সে শ্যুটিঙের প্রথমদিনেই মার্লিন দিয়েত্রিচকে কামড়েছিলো, সেকথাও বাদ পড়েনি।

প্রকাশের সাথে সাথেই সাড়া ফেলে দিয়েছে ""মি চিতা"", কারণ এই ধরণের বই এই প্রথম লেখা হলো।


নভেম্বর ২ , ২০০৮