বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

এই সুতোর পাতাগুলি [1]     এই পাতায় আছে1--2


           বিষয় : বুকালোচনাঃ খেরোবাসনা সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায়
          বিভাগ : বই
          শুরু করেছেন : santanu chakraborty
          IP Address : 52.110.143.44 (*)          Date:21 Apr 2018 -- 08:47 PM




Name:   santanu chakraborty           

IP Address : 52.110.143.44 (*)          Date:21 Apr 2018 -- 08:52 PM

খেরোবাসনা
সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায়

রিভিউ লিখব না পাঠ প্রতিক্রিয়া এটা ভাবার জন্য আমাকে বনলতা সেনের নাম্বার ডায়াল করতে হল। কারণ সে দুদণ্ড শান্তি দেয়, জীবনান্দকেও দিয়েছেন। নমস্কার আমার নাম শান্তনু চক্রবর্তী, আমি একটি রিভিউ থুড়ি পাঠ প্রতিক্রিয়া বলব। বন্ধুগন এই ইনভোকেশনের সাথেই শুরু করা যাক তবে।

আমার ভাল লেগেছে। আমার খারাপ লেগেছে। আমার হেব্বি লেগেছে। আমার হেব্বি লাগেনি। আমি এভাবেই পড়ছি 'খেরোবাসনা'। মেক না রিমেক? রিয়্যালিটি না স্যুরিয়্যালিটি কোনটা? তাল না আম? থিওরি না উপদেশ? জীবিত না মৃত? এই যা কেস হয়ে গেল, গুরুদেব চলে এলেন। কি আর করব বলুন, আমার রাজ্যে একবার দুবার নয় সাত সাতটি বার এসেছেন তাই একটু পোভাব টোভাব এখনো আমাদের মধ্যে রয়ে গেছে আরকি। যাহা বলিব সত্য বলিব সত্য বই মিথ্যা বলিব না। না প্রলম্বিত করব না বাংলা সিরিয়ালের ন্যায়। আপনাদের সিট বেল্ট বাঁধুন নয়তো পড়ে যাবেন এই ন্যারেটিভ অধ্যয়ন করতে করতে।

তা আপনি কি বিশুদ্ধ এরিস্টটলিয়ান ন্যারেটিভ টেকনিকে বিশ্বাস করেন? আপনি কি মনে করেন প্রতিটি লেখার একটি উদ্দেশ্য এবং লেজ হিসেবে বিধেয় থাকা প্রয়োজন? আপনার কি বাজারে সব্জি কিনতে গেলে দুটো লঙ্কা আর একটা আলু বেশি ওঠানোর অভ্যেস? তবে এই গল্প আপনার জন্য নয়। কবি বলেছেন, কম্ম ঠুসে যাও ফলের কিংবা ফুলের আশা বা লতাও করতে নেই। একটা নিরাট শূন্যতা চাই। একটা বিশাল ব্ল্যাক হোল যদি ধারণ করতে পারেন তবে এই খেরোবাসনা আপনার। ট্রাজেডি আর কমেডি'র শ্রেণীবিভাজন থেকে বেরিয়ে এসে যদি একটা টেক্সট পড়তে পারেন তবে এই খেরোবাসনা আপনার।

যেখানে দেখিবে ছাই উড়াইয়া দেখিও তাই পাইলেও পাইতে পারো খেরোবাসনা। একটু বাজার বাজার ফ্লেভার রেখে শেষে বলব, আমি পড়েছি আপনারাও পড়ুন কিংবা আহা কি পড়িলাম জন্ম জন্মান্তরেও ভুলিব না। এখান থেকে পঞ্চাশ কিলোমিটার দূরে যখন আমাকে কেও জিজ্ঞেস করে কি পড়ব বুঝতে পারছি না, আমি বলি সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায়ের 'খেরোবাসনা' পড়।



Name:   santanu chakraborty           

IP Address : 52.110.164.192 (*)          Date:22 Apr 2018 -- 02:26 PM

বুকালোচনা
দিনগুলি রাতগুলি - সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায়

আমার চোখগুলিতেও কি অলফ্যাক্টরি নার্ভ আছে নাকি?মনে হয় আছে, যদি লেখকের নাম সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায় হয় তবেই। সামার অন ৬৯ আমার দেখা হয়নি, ১৯৯৫ এ আমি দুধভাত কিন্তু 'দিনগুলি রাতগুলি' যখন এল তখন আমার কোয়াটার সেঞ্চুরি বয়েস। এর মাঝেই পরিচিত অপরিচিত বেশ কিছু মৃত্যু আমিও দেখেছি। এখন আর ওদের নাম ছাড়া আর কিছুই তেমন মনে আসেনা। নিজের চেহারাইতো ঠিকঠাক মনে করে উঠতে পারিনি কোনোদিন। অথচ নিয়ম করে আয়না দেখা হয়। বইটা পড়ছি আর এসব ভাবছি।

জানিনা কি করে সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায় মূর্তকে বিমূর্ত আর বিমূর্তকে মূর্ত করে তোলেন। আর সেজন্যই বোধহয় তার লেখা আমাদের টানে বারবার। রোশফুকোর ম্যক্সিমের মত উঠে আসে তার লাইনগুলো,'পুড়িয়ে না দিলে সব লাশই কঙ্কাল হবে'। অথবা হাসির আড়ালে লুকিয়ে থাকা বাস্তব,'মৌসুমী বা নুরজাহান, অন্ধকারে সব সমান।'

একটা মৃত্যু, কিছু ছেলেমেয়ে, হোস্টেল লাইফ, গাঁজা, প্রেম-বিরহ, সস্তা নেশা, এক মায়াবন বিহারীনির খোঁজ আখ্যানটা এভাবেই এগোয়। আইডিন্টি নিয়ে কথা আসে। কথা সে এলোক সেলোক নিয়েও। নৈরাজ্যের মাঝেও এক চরম আশবাদ। ইউটোপিয়া ইন ডিস্টোপিয়া। সব মিলেমিশে যা একটা তৈরী হবে সেটা প্রচন্ড ব্যক্তিগত। আমার আপনার সবার। তাই সেই ব্যক্তি ও স্বত্বার খোঁজে আসুন নেমে পড়ি 'দিনগুলি রাতগুলিতে'।

এই সুতোর পাতাগুলি [1]     এই পাতায় আছে1--2