এই সুতোর পাতাগুলি [1] [2] [3] [4] [5] [6] [7] [8] [9] [10] [11] [12] [13]     এই পাতায় আছে349--379


           বিষয় : ঐতিহ্যমন্ডিত বাংলা চটি সিরিজ
          বিভাগ : বই
          বিষয়টি শুরু করেছেন : sumeru
          IP Address : 117.99.47.91          Date:29 Jan 2010 -- 01:25 PM




Name:  dd          

IP Address : 116.51.225.156 (*)          Date:14 Aug 2017 -- 10:23 PM

আমি পেইচি।

এবার কোনো উপায়ে ব্যাপারটা শুনতে হবে।


Name:  h          

IP Address : 117.77.76.115 (*)          Date:14 Aug 2017 -- 10:39 PM

আর উপায় নেইঃ-)))))


Name:  h          

IP Address : 117.77.76.115 (*)          Date:14 Aug 2017 -- 10:39 PM

আর উপায় নেইঃ-)))))


Name:  h          

IP Address : 117.77.76.115 (*)          Date:14 Aug 2017 -- 10:39 PM

আর উপায় নেইঃ-)))))


Name:  pi          

IP Address : 57.15.2.133 (*)          Date:14 Aug 2017 -- 11:47 PM

একটু কট দিন ধৈর্য ধরো। জুড়ে টুড়ে ইউটিউবে তোলা হচ্ছে।


Name:  h          

IP Address : 176.137.252.109 (*)          Date:15 Aug 2017 -- 12:10 AM

আমার দিক থেকে শেয়ার করেছি , যাদের নাম ব্যবহার করেছি তাদের অ্যাকনোলেজ করার জন্য। অবশ্য সিরিয়াস ততটা কিছু না, আমি ঠেক হিসেবেই দেখেছি। খুব ব্যস্তো ছিলাম দিনে ১২ ১৪ ঘন্টা খাটছিলাম কাজে তার মধ্যে এটা করেছিলাম, লুটল স্কুল সম্পর্কে পড়ে নেওয়া সহ। এরকম আগে কখনো করিনি বলে আর এক্বার তুই বলা সত্ত্বেও একটা কাফে তে যেতে পারিনি বোলে। তাই একটু ব্যাকুল ছিলাম জানার জন্য যে কাজে লাগলো কিনা, বা এডিট করতে পারলে কিনা। তোকে ইমেল ও করেছিলাম। টুই হয়্তো টাইম পাসনি উত্তোর দিতে। আমার কাছে কিছু চাইলে এই একটু ওয়ানাবি সুলভ উ'ত্কন্ঠ্স মিশ্রিত তাড়া খাবি র্টা ধরেই নেয়। তো কল্লোল দা লিখে দিয়েছে প্রথমে জেটা লক্ষ্য করিনি। আমার কাছে জথারীতি লম্বা লম্বা সন্ক্ষিপ্ত ফাইল আছে কারণ যা মনে হয়েছে সব ই বলে রেখেছি, তোদের স্পেিফি পারপাস এ , জেটা স্পেসিফিক বই সম্পর্কে , সেটা মিনিট পাচ সাতের বেশি হওয়ার কথা না। টাও মেরে কেটে।



Name:  pi          

IP Address : 57.15.2.79 (*)          Date:15 Aug 2017 -- 12:26 AM

আরে আমি নানা জিনিস নিয়ে খুব চাপে ছিলাম, তাছাড়াও নেট আর ফোন ঝাম দিচ্ছিল। অনেক মেইলের উত্তর দেওয়া হয়নি, সরি ঃ(


Name:  h          

IP Address : 176.137.252.109 (*)          Date:15 Aug 2017 -- 12:34 AM

আরে নেভার মাইন্ড। আমি ভাবছিলাম তুই বন্যায় বা প্লেন ক্যানসেলে আটকে গেলি নাকি, আসামে বন্যা শুনে , এবোঙ্গ আত্মীয় রা প্রভূত ঝামেলা হলেও ঠিক আছেন শুনে আর কাউকে না পেয়ে তোর জন্যই দুশ্চিন্তা করছিলাম ঃ-)))))


Name:  ওই মণিময় তার কাহিনী          

IP Address : 52.110.174.94 (*)          Date:15 Aug 2017 -- 01:14 AM

ওই মণিময়, তার কাহিনী
রবিশংকর বল
গুরুচণ্ডালী প্রকাশনা
কলকাতা
২০১৬
**

ওই মণিময় আসলে কোন মণিময় সেটা বুঝতে পারা কঠিন নয়। বিশ্বভুবনের অখণ্ড প্রবাহের শ্বাসাঘাতের সামনে আঙুল ধরলে যে তাপ প্রাকৃতিক নিয়মেই তৈরি হয় তারই কিছুটা ওই মণিময় আর যে প্রাকৃতিক নিয়মে সেই তাপ ফের মিশে যায় অনন্ত সূর্য আর বুড়ো থুত্থুড়ে সমুদ্দুরের নোনা রক্তের সাথে সেটাই হলো তার কাহিনী।
কিনারা আর কেন্দ্রের কাহিনী এ,কাছে আসা আর সরে যাওয়ার কাহিনী এ, মৃতের স্থিরতা আর জীবিতের প্রতিফলনের কাহিনী এ। এ কাহিনী হতে পারে সবার। আবার এ কাহিনী হতে পারে মহাশূণ্যের নিবিড় নিঝুম একাকিত্বের।
মণিময়ের শিল্প ভাস্কর্য নির্মাণ আর অস্তিবাদের ভরকেন্দ্র যখন পেছতে পেছতে খাদের ধারে গিয়ে দাঁড়ায় তখন তার কানে আসে সমগ্র মানবস্বরের আবর্ত।জীবনানন্দের মাল্যবান উৎপলাদের কেন্দ্র করে এক শান্ত, সব মেনে নেওয়া কবিস্বর মণিময়ের স্বপনে জাগরণে তাকে শরীরচ্যুত করে ফেলে।
মণিময় একদম ভিখারি হয়ে পেয়ে যায় জগত সংসারের তাবৎ ধনদৌলত। কামুর স্ট্রেঞ্জার কিম্বা নিৎসের অভিঘাতে ভর করে সে উড়তে চায় মাঝেমাঝে কিন্তু ডানা খোলার আগেই সমস্ত পালক খসে পড়ে। কেন্দ্র থেকে সে দূরে সরে যেতে পারেনা। বৃত্তের চক্রান্তে এক বিকট দেহহীন বিন্দুতে পরিণত হয় মণিময়। দেহহীন সত্ত্বা তার আত্মস্থল নিংড়ে জীবনের কিনারে নিয়ে চলে এক রহস্যময় সিঁড়ি দিয়ে। সে কিনার মৃত্যুরও।
স্বপ্নভঙ্গের পরে স্থিরমতি হতে চায় মণিময় - মাল্যবানের মতই। ব্যাখালোকের হাতছানি তীব্রভাবে সরিয়ে দিয়ে মণিময় অসীম নিরন্তরতার গালে মুখে শরীরে হাত স্পর্শ করতে করতে এগিয়ে চলে। রেজিমেন্টেশনের বিরুদ্ধে মুখ ফিরিয়ে। প্রগতির ছদ্মবেশের কিংখাব উপড়ে দিতে চায় মণিময়। কে বোঝে তাকে? কে বুঝবে মণিময়কে?
প্রাচীন বাস্তবের হাত ধরে আসে সাত দিনের পুত্র সন্তানের শবদেহের বস্তুপুঞ্জ। পার্ক সার্কাসের হিন্দু গোরস্তানে একেই দাফন করে মণিময় বসুমতীর কাছে একটু জমি চেয়েছিলো। ম্যাকবেথের তিন ডাইনির মতন। তিনবার। মণিময় আর সুতপার জীবনে সেই ২২ ফেব্রুয়ারি এসে যায়,আসতে থাকে, গোরের ওপরে জ্বলতে থাকা রুগ্ন মোমবাতিদের আলোর মতন।
মণিময়ের শরীর মনে প্রাচীন নিষিদ্ধ যৌনতার স্মৃতি খেলে যায় সন্তানস্পৃহার সচেতনতার অন্তরালপথ বেয়ে । সুতপার মনে অহৈতুকি এক অপরাধবোধ চারিয়ে যায় সন্তানহীনা এক শরীরের সৌন্দর্যময়তার হাতুড়ি ঘায়ে।
অসম্পূর্ণ অবচেতনের প্রকোপে মণিময়ের জীবন ধীরে ধীরে নিখাদ রূপকলোকে পরিণত হতে থাকে। মণিময় নিস্তার পেতে কিনারের দিকে সরে সরে যায়।বিস্মৃতির কাছে নতজানু হয় মণিময়। অসীম দ্যাখা দিয়ে যায় সাপের রূপকে। নিজেই নিজের ল্যাজ গিলে চলা এক অনন্ত সময়ের দুর্বিষহ দহে মণিময় ঘুরেই চলে।পরতে পরতে চলে যায় জীবন,যৌবন,অস্তিত্ব,মনোলোকের শান্তি এমনকি অশান্তির অনুভূতিও।
কালের ঘূর্ণন দশ বছর পরে মণিময়কে এই বিশেষ যাত্রার মধ্যে নিয়ে আসে সৈকত শহর পুরীতে। সুতপা আজ তিস্তা আর উদ্দালকের জননী। হঠাৎই মণিময়ের মনে পরে আজ ২৩ ফেব্রুয়ারি।
বেলাভূমে তিন বছরের উদ্দালক আর ছয় বছরের তিস্তা তখন বালি খুঁড়ে খুঁড়ে ঘর বানায়,ভাঙে; সুতপা তন্ত্রের রহস্যময় প্রতীকের মতন চিহ্ন গড়ে তোলে বালির ওপরে আঙুল দিয়ে দিয়ে। সুতপার ২২ ফেব্রুয়ারি ভুলে যাওয়ার দু:খ মণিময়কে স্নায়ুকোষ মরে যাওয়ার কথা মনে করিয়ে দেয়।
বেদনার পেষণে বাস্তব অতিক্রান্ত এক মুহূর্তে সুতপা আর মণিময় য্যানো তরঙ্গে নাচতে দেখে এক কৃষ্ণবালককে। গভীরতর বেদনা ভুলে যাওয়ার বেদনা হা হা করে সামুদ্রিক বাতাসে মিশে যায়।
খুঁড়ে চলা বালি উড়তে উড়তে পার্কসার্কাসের গোরের ঝুড়ো মাটির স্মৃতি হয়ে দানা বাঁধে। ঝিকিমিকি সমুদ্রের আলো কিছু রোগা উলঙ্গ অসহায় নিভন্ত মোমবাতির কথা মনে করিয়ে দেয়।
জীবনানন্দের সেই সময়হীনতা আর সমকালীনতার দর্শনমাখা এক অসামান্য উপন্যাস - ওই মণিময় তার কাহিনী। বস্তুত মাল্যবান নিজেও তো এই বেদনাবাস্তবতারই এক অবিচ্ছেদ্য অংশ।
রবিশংকর বলের এই উপন্যাস নিয়ে সন্দীপন চট্টোপাধ্যায় বলেন - ভয়াবহ ভালো লেখা। একমাত্র মেটাফর পেঁজা তুলোর মত উড়ন্ত - ভাসমান - তবু স্বাধীন নয়- নিজে উড়তে পারে না- মনে হয় নিজেই উড়ছে - আসলে নিজে উড়তে পারে না হাওয়ায় ওড়ায়।
প্রচ্ছদও বেশ ভালো লেগেছে।

* পু- সুবীর মণ্ডলের পাউড় উপন্যাসের কথা বারবার মনে পড়েছে এই লেখা পড়তে গিয়ে।অভিযান প্রকাশিত সেই বই নিয়েও একদিন কথা বলা যাবে।


Name:  কল্লোল          

IP Address : 233.227.54.189 (*)          Date:15 Aug 2017 -- 07:22 AM

বোঝো! হনু আবার সরি কয়েচে। ধ্যুর।
কবে এদিক পানে আসবি রে!


Name:  pinaki          

IP Address : 90.254.154.105 (*)          Date:15 Aug 2017 -- 06:16 PM

হনুদা, অডিওগুলো কীভাবে শুনতে পারি? আমার জিমেল pinakimitra74। আমি খুবই ইন্টারেস্টেড।


Name:  h          

IP Address : 117.77.106.24 (*)          Date:15 Aug 2017 -- 08:55 PM

ওকে পিনাকি শেয়ার করে দেবো ভাবছিলাম একবার লেখক রা ছাড়া একবার ইপসিতা শুনে নিক জাক গে চাপ নেই । সব বিভিন্ন কন্ট্রিবিউটর কে একা কত সময় দেবে।
অবিশ্যি যেকোনো ক্লিপ কে সম্ভাব্য কোনো রকম প্রতিক্রিয়া থেকে রক্ষা করার সোজা পদ্ধতি টা জানলাম, সেটা হল কেস টা লম্বা কোরে দেওয়া লোকে বোর হয়ে গিয়ে এইয়াক্ট করবে না, পহলাজ এর সঙ্গে এটা কেউ ট্রাই করলো না, হায়। ফোঙ্গে শেয়ার করা যাচ্ছে না, বাড়ি গিয়ে করছি।


Name:  h          

IP Address : 117.77.106.24 (*)          Date:15 Aug 2017 -- 08:55 PM

ওকে পিনাকি শেয়ার করে দেবো ভাবছিলাম একবার লেখক রা ছাড়া একবার ইপসিতা শুনে নিক জাক গে চাপ নেই । সব বিভিন্ন কন্ট্রিবিউটর কে একা কত সময় দেবে।
অবিশ্যি যেকোনো ক্লিপ কে সম্ভাব্য কোনো রকম প্রতিক্রিয়া থেকে রক্ষা করার সোজা পদ্ধতি টা জানলাম, সেটা হল কেস টা লম্বা কোরে দেওয়া লোকে বোর হয়ে গিয়ে এইয়াক্ট করবে না, পহলাজ এর সঙ্গে এটা কেউ ট্রাই করলো না, হায়। ফোঙ্গে শেয়ার করা যাচ্ছে না, বাড়ি গিয়ে করছি।


Name:  pi          

IP Address : 57.29.246.211 (*)          Date:20 Aug 2017 -- 04:46 PM

আরে আমি তো পুরৌ শুনেছি। ইউটিউবে তোলা চলছে।


Name:  pi          

IP Address : 57.29.246.211 (*)          Date:20 Aug 2017 -- 04:46 PM

ধনঞ্জয়ের ফাঁসি , আদালত , মিডিয়া ও সমাজকে প্রচুর প্রশ্নের মুখে দাঁড় করিয়ে দিয়ে গেছে, যে প্রশ্নগুলো বহুদিনের গবেষণায় তুলে ধরেছেন, দেবাশিস সেনগুপ্ত, প্রবাল চৌধুরী, পরমেশ গোস্বামী। যে প্রশ্ন কিছু কিছু তুলতে শুরু করেছিলেন আরো কেউ কেউ, আরো আগে থেকেই। হালে মুক্তিপ্রাপ্ত ধনঞ্জয় সিনেমাতেও এসবের ভিত্তিতে নানা প্রশ্ন তুলে ধরা হয়েছে।
যে প্রশ্নমালা একগুচ্ছ অসংগতির ুপাখ্যান।
এসব পড়ে দেখে শুনে পাঠক দর্শকদের মধ্যেও মতামত তৈরি হয়েছে, আরো প্রশ্নও জেগেছে কারুর কারুর মনে।
যাঁরা এখনো পড়েননি বা দেখেননি , তাঁদের মনেও অনেক প্রশ্ন।
এরকম নানা প্রশ্ন, তার উত্তর, নানা মতামত, বিবিধ অভিজ্ঞতা ইত্যাদি প্রভৃতি এসব কিছু নিয়েই কাল কথাবার্তা বলতে আসছেন লেখক, অভিনেতা, পরিচালক, চিত্রসমালোচক, আইনজীবীরা।
কাল, ২১ তারিখ বিকেলে ধনঞ্জয় এবং ক্যাপিটাল পানিশমেন্ট শীর্ষক একটা আলোচনাচক্র অনুষ্ঠিত হতে চলেছে, এলগিন রোডের স্টোরিতে। বিকেল ৫ঃ০০ টা থেকে।

আপনাদের শোনার, প্রশ্ন করার থাকলে চলে আসুন।
ফেসবুকে লাইভও করা হবে, যাঁরা যেতে পারবেন না, কাল বিকেল ৫ঃ০০ র সময় এখানে নজর রাখুন।

প্যানেলিস্টঃ
দেবাশিস সেনগুপ্ত, অধ্যাপক ও 'ধনঞ্জয়ের ফাঁসি , আদালত , মিডিয়া ও সমাজ' এর লেখক
অরিন্দম শীল, 'ধনঞ্জয়' এর পরিচালক,
সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়, অধ্যাপক ও চিত্রসমালোচক
সঞ্জয় বসু, আইনজীবী
কৌশিক গুপ্ত, আইনজীবী
অঞ্জন দত্ত, পরিচালক ও অভিনেতা
সুদীপ্তা চক্রবর্তী, অভিনেত্রী





Name:             

IP Address : 116.210.216.119 (*)          Date:29 Aug 2017 -- 08:34 PM

আচ্ছা পাইয়ের ২২শে জুলাই, 4.22 এর পোস্ট -

"এবার বাড়িতে বসেই গুরুর সব বই পেয়ে যান। ডেলিভারি চার্জ ও লাগবে না।
শ্রী তরুণ শ কে ফোন করে বললে উনি আপনার ঘরে পৌঁছে দিতে পারেন। কোলকাতা ও আশেপাশে। ওনার নং টা রইল। একটা ফোন করলেই আপনার চাওয়া বই আপনার হাতে।
তরুণদার নং ঃ ৯৮৩১২ ০১৪০২"

এই ডেলিভারি চার্জ লাগবে না কথাটা ঠিক নয় যা দেখলাম। আমি সম্প্রতি কলকাতায় ধানাঞ্জায় ডেলিভারি করালাম। তরুণ শ ৬০/- টাকা চার্জ করেছেন। ১১০ টাকার বইতে ৬০ টাকা ডেলিভারী চার্জ বেশ বেশী কিন্তু। অথচ তরুণবাবুর সম্পর্কে স্ক্রল ডট ইনে পড়েছিলাম উনি নিজেই নাকি সাইকেল নিয়ে ডেলিভারী করে আসেন, কাজেই চার্জ লাগে না ইত্যাদি। দেখা যাচ্ছে সেসব ঠিক নয়।


Name:             

IP Address : 116.210.216.119 (*)          Date:29 Aug 2017 -- 08:38 PM

হ্যাঁ কোন্নগরে ডেলিভারীতেও বেশ হেফটি চার্জ করেছেন, তবে সেক্ষেত্রে আরো অন্য পাবলিশারদের বইও ছিল। একটি বইয়ের মলাট ছেঁড়া অবস্থায় পৌঁছেছে।

এটা এখানে জানিয়ে রাখলাম কারণ যাঁরা তরণবাবুকে অর্ডার দেবেন তাঁরা যেন এইগুলো খেয়াল রাখেন। বই উনি অর্ডিনারি পোস্টে পোস্ট করে দেন। কাজেই সেসব স্নেল মেলে এক দেরহ সপ্তাহ সময় নিয়ে পৌঁছায়।


Name:             

IP Address : 116.210.216.119 (*)          Date:29 Aug 2017 -- 08:39 PM

*দেড় সপ্তাহ
ড্যমেজ হয়ে পৌঁছয়


Name:  pi          

IP Address : 57.29.203.108 (*)          Date:01 Sep 2017 -- 06:59 AM

হ্যাঁ, উনি ডেলিভারি চার্জ নিচ্ছেন, লোকজনের কাছে শুনলাম, এখানে আপডেট দেওয়া হয়নি।


Name:  pi          

IP Address : 24.139.221.129 (*)          Date:03 Sep 2017 -- 06:10 PM

গুরুর কিছু বই নিয়ে পাঠপ্রতিক্রিয়া। আরো আসছে।

https://www.youtube.com/channel/UCWgrn4gymNDVSMveOoyyF1g


Name:  i          

IP Address : 212.159.161.169 (*)          Date:14 Sep 2017 -- 06:18 PM

h এর বক্তব্যঃ
https://youtu.be/fa4cBB8yx2c


Name:  pinaki          

IP Address : 90.254.154.105 (*)          Date:14 Sep 2017 -- 10:26 PM

দুটো আলাদা ইউটিউব চ্যানেল গুরুচন্ডালি নামে। এরকম কেন? একটা হলেই তো ভালো হত।


Name:  pi          

IP Address : 57.29.206.10 (*)          Date:15 Sep 2017 -- 01:41 AM

বড় ফাইল আপলোড করতে চাপ হয়, নেট স্পিড অনেকেরই ভাল না। এত আর কোঅর্ডিনেট করা যায়না।
এমনিতেও বিস্তর চাপ।
এটা আনতেই কতদিন লেগে গেল।


Name:   π           

IP Address : 57.15.14.96 (*)          Date:30 Sep 2017 -- 10:24 AM

নির্বাচিত গল্পাপাঠ নিয়ে

https://youtu.be/GYN4A1wlCP8


Name:   π           

IP Address : 57.15.14.96 (*)          Date:30 Sep 2017 -- 10:24 AM

নির্বাচিত গল্পাপাঠ নিয়ে

https://youtu.be/GYN4A1wlCP8


Name:   π           

IP Address : 57.15.12.131 (*)          Date:30 Sep 2017 -- 12:40 PM

বন্দরের সান্ধ্যভাষা নিয়ে কুলদা রায়।

https://m.youtube.com/watch?v=KL6Or2AaMt4


Name:   π           

IP Address : 57.15.12.131 (*)          Date:30 Sep 2017 -- 12:43 PM

বিপুল দাসের বই নিয়ে ইন্দ্রাণী ঃ

https://m.youtube.com/watch?v=2MFQaA9kWL0


Name:  পাই          

IP Address : 24.139.221.129 (*)          Date:13 Oct 2017 -- 02:02 AM

'ভ্রমণকাহিনিই, তবে শুধুমাত্র ভ্রমণকাহিনি নয়। এ বই আসলে সাধারণ্যের ঘুম থেকে জেগে ওঠার গপ্পো। নিজের সামনে নিজেরই চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেবার গপ্পো। বেড়ানোটা তো তার সাথে উপরি।
পায়ের তলায় সর্ষে নিয়ে যারা বেঁচে থাকে, সুযোগ পেলেই বেরিয়ে পড়ে, শেষরাতের নির্জন হাইওয়ে যাদের হাতছানি দেয়, তাদেরই একজন লিখে ফেলেছে অতিসাধারণ এই বইটা। সব ঠিকঠাক চললে, নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহেই প্রকাশিত হবে এ বই। আলাদা করে নেমন্তন্ন যাবে আপনাদের কাছে।
আর, সেখানে দেখা না হলে, জানুয়ারি মাসে কলকাতা বইমেলা তো আছেই। দেখা হবেই। পথেই হবে এ পথ চেনা।
আরও আপডেট আসবে ধীরে ধীরে। সঙ্গে থাকুন।'

https://s1.postimg.org/5iaw2cwsrj/motorcycle_lr01_promo.jpg


Name:  পাই          

IP Address : 24.139.221.129 (*)          Date:13 Oct 2017 -- 02:03 AM

প্রচ্ছদ ঃ সায়ন কর ভৌমিক
আলোকচিত্র ঃ লেখক


Name:  pi          

IP Address : 24.139.221.129 (*)          Date:13 Oct 2017 -- 02:06 AM

আগামী ২৩ নভেম্বর প্রকাশিত হতে চলেছে,

স্বাস্থ্য (অ)ব্যবস্থা ঃ সম্পাদনা পুণ্যব্রত গুণ
------------------------------------------------
স্বাস্থ্য ভারতীয়দের মৌলিক অধিকার নয়। তদুপরি '৪৭ পরবর্তী সময়ে স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে যে কল্যাণকর ভূমিকা পালন করার উদ্যোগ ছিল, রাষ্ট্র তার থেকে সরে আসছে গত শতকের নব্বই-এর দশকের শুরু থেকে। স্বাস্থ্য এখন মূলত পণ্য, পুঁজির চারণক্ষেত্র এবং মৃগয়াভূমি।
এই অদ্ভুত ব্যবস্থায় নাগরিকের ক্ষোভ মেটাতে রাষ্ট্রের কোনও কার্যকর উদ্যোগ নেই, পরিবর্তে আছে কেবল একের পর এক ফাঁপা ঘোষণা। আর স্বাস্থ্যকর্মীদের, বিশেষ করে চিকিৎসকদের জনগণের রোষের সামনে দাঁড় করিয়ে দেওয়া। যেন একমাত্র তাঁদের দোষেই মানুষ যথাযথ পরিষেবা পাচ্ছেন না।
এই সংকলনে লিখেছেন চিকিৎসকরা, জনস্বাস্থ্য আন্দোলনের কর্মীরা, নীতিনির্ধারকরা।।।।যাতে বাস্তবটাকে বোঝা যায়, এবং সেই অনুযায়ী চলার পথ ঠিক করা যায়।


https://s1.postimg.org/1z2zoj3f9r/swastho_abyabstha_lr01_promo.jpg

প্রচ্ছদঃ চিরঞ্জিৎ সামন্ত, সায়ন কর ভৌমিক




Name:  পাই          

IP Address : 57.29.220.107 (*)          Date:13 Oct 2017 -- 03:43 PM

বিপুল দাসের কামান বেবির পাঠ-প্রতিক্রিয়াঃ অধ্যাপক রাজদীপ্ত রায়।

কিছু কথা ছোটবেলা থেকে কোনও দিন কারও কাছে বলা হয়নি। যেমন বলা হয়নি যে ওয়ার্ডসওয়ার্থ পড়তে আমার কখনো ভালো লাগেনি। যেমন প্রতিটি বাংলা রোম্যান্টিক কবিতার আড়ালে আমি একটা না-বলা ইংরেজি কবিতা দেখতে পেতাম। যেমন খুব মৃদুভাবে লেখা, নরম, কুয়াশা কুয়াশা গন্ধমাখা পংক্তিগুলোর ফাঁকে নিরন্তর দেখতে পেতাম অভ্যস্ত চর্যার অসতর্ক অথচ অপ্রাণ প্রতিবিম্ব। এইসব লেখাগুলোতেই বড্ডবেশি চেনাবাঁক থাকত/ থাকে, আর তার আড়ালে কবিতাচর্যার কখনওই শেষ না হওয়া, ওই তাতুর ঠাম্মার আশরীর "ধুলোর গন্ধ... নারকোলের ভেতরে শাঁস পচে গেলে যেমন একটা তেল তেল গন্ধ হয় - তেমন" বাসি "মড়ার গন্ধ" বুঝি গমকে গমকে পাক খেতে থাকে। বললাম কবিতা ঠিকই, কিন্তু এই কাব্যদোষে দুষ্ট আমার বাংলা বুলির আপামর গদ্যময়তাও। এ সব ভেবেছি। বলা হয়নি। অস্বস্তি হয়েছে। শুধু গলা ছেড়ে চিৎকার করে উঠতে পারিনি। জানতাম এই ভাবনা, অসৎ ভাবনা, এ কথা কুকথা। বলতে নেই। মনে এলেও গিলে ফেলতে হয়। হঠাৎ অসাবধানে কাশির দমকায় মুখে চলে আশা কফের দলার মত। বেরিয়ে এলেই অপ্রস্তুত। একরাশ অপ্রতিভ বোকা ছেলে মার্কা দাঁতক্যালানো হাসি। ধরা পড়ে যাওয়া বেকুব বেহায়া। এ সবই হ'ত, এ সবই হয়েছে। আজীবন। সংকোচে। গোপনে। বুঝতেও পারিনি, অন্তত অবয়বে এতদূর বড় না হয়ে ওঠা পর্যন্ত, যে এই কুণ্ঠা-শরম মাখামাখি পাঠবোধ, বা আরোও খুলে বললে, এই guilt ridden anxiety of a failed reader আদতে আমার নীরবে বইতে থাকা অভ্যাস-ভূতগ্রস্থ পাঠ নিয়তি। যে উপনিবেশের শিক্ষাসংস্কার আমার পাঠচিত্র তৈরি করে, তার ঈজেলের একদিকে যদি আমি পাঠক সসংকোচ, গুটিসুটি, তবে ওই একই ফ্রেমের মাঝখানে আলো করে আমার রহস্যময়ী মোনালিজা বাঙালি লেখকের দুশোবছরের আভা আভা স্ফটিক স্ফটিক ইতিহাস বিস্তার। যে বিপন্নতার এতক্ষণ কাঁদুনি গাইলাম, এ পটচিত্রে তার পাহাড় পাহাড় কৃষ্ণ-দলনি স্তনপেষন থেকে না আছে মুক্তি লেখকের, না আছে তা পাঠকের। অতএব যে guilt উপনিবেশের genre-specific পাঠাভ্যাসে অমোঘ নিয়তি, তার শ্বাসরোধকারি খারাপ/ভালো মিশ্রিত কিছু একটা লাগা থেকে আমাদের কারোও অচেতন মুক্তি সম্ভব নয়। বড় হলাম। অনেক ভুল ভাঙল। বুঝলাম এ জন্মে লেখালেখি এই বান্দার হবে না। পাঠ নির্ভর প্রতিবন্ধী বোধে তাতুর মত শব্দ আর ভাষা আর অর্থ আর ম্রিয়মান সংশয়ে দগ্ধে দগ্ধে বিপন্ন অভিজ্ঞতায় নিজের অজান্তে খুঁজে মরতে হবে সারাজীবন নিজেকেই। আড়ালে প্রশ্নরা বুড়বুড়ি কাটবেই - কেন হয় আকাশের রঙ লাল? কেন অযথা anticipated ইমেজ লেখেন কবি? কেন ইনিয়েবিনিয়ে প্রেম আসে প্রতিবার? কেন বেড়ে ওঠার গল্পগুলোতে আমার সকাল থাকেনা? কেন বিভূতিবাবুর লেখার আড়ালে ভীড় করে আসে অনেক না-বলা কথা, বাক্য, অনুপস্থিত অভিজ্ঞতা? অথবা, কেনই বা ছোটবেলা থেকে শুনে আসা সমস্ত বাংলার মাস্টারমশাইদের কাছে অপুর বেড়ে ওঠাটাই আদর্শ জেনে বারে বারে শিউরে ওঠা, অপরাধ বোধে ভোগা!
কারণটা, পরে, অনেক পরে, তলিয়ে দেখলাম এই আমাদের স্বাভাবিক, সিদ্ধ এবং/অতএব কাব্যিক বলে চালাতে চাওয়া, ভীষন repressive, ভীষন ঔপনিবেশিক সাহিত্য অভ্যেসের গেঁজে যাওয়া সংস্কৃতিটার হাড়ে মজ্জায় নিহিত। আমাদের সাহিত্য চর্চার একটি দিক খুলে দিয়েছিল ইংরেজি সাহিত্যের স্পর্শ। আমাদের কবি মানসে রোম্যান্টিক বিশুদ্ধতার বোধের বোধনও অনেকটা সেই স্পর্শের কাছে আভারী। কিন্তু গোলমালটা আবার বাঁধলও ওই স্পর্শের কারনেই। ইংরেজের রোম্যান্টিকতা অদ্ভুতুড়ে রকমের জীবনবিমুখ। সেখানে জীবনের কাব্য আছে, ঠিক, কিন্তু একইসঙ্গে আছে জীবনবোধের মধ্যিখানে এক অলম্বুষের মত দন্ডায়মান ক্ষমতা রাজনীতির সুচারু পদচারনা; সেখানে হৃদয় অন্তস্থ বোধের বা অনুভূতিগুলির মাঝে বৈষম্য তৈরি করা হয়; নিক্তিতে মাপা হয় প্রবৃত্তিদের। ঘোষণা হয় এরা এরা ভালো, সুতরাং কাব্যে বিবেচ্য, অথচ এরা এরা, যেমন যৌনতার বোধ, অশৈল, সুতরাং কাব্যে নৈব নৈব চ। অর্থাৎ আমরা শিখলাম যে কবিতায় বা গল্পে বেলাগাম প্রেমের বা যৌবন উন্মেষের ইমেজ নির্ভর সিম্বলিক চারুবর্ণনা থাকবে কিন্তু কখনওই শিউরে-ওঠা যৌনতার প্রথম জ্ঞানের শিরশিরে অপরাধময় এপিফ্যানি থাকবেনা। ফলাফল, আমরা পথের পাঁচালি পেলাম, অপুর বাসা ও ট্রেন গাড়ি খুঁজে পেলাম নিজের ভেতরে, অথচ নিজের বেড়ে ওঠার কূট-ন্যারেটিভে স্কুলের দেওয়ালে লেখা বা আঁকা নারী/পুরুষ অংগের অতিসরলিকৃত ইটের রেখাচিত্র দেখে ফেলার কোন অপরাধ বোধ অপুর ভেতরে কোথাও নেই দেখে একটা সময় নিজেকে অ-বাংগালি, বা নরাধম ভাবতে আরম্ভ করেছিলাম অনেকদিন ধরেই।
বিভূতিবাবুকে সামনে রেখে বাঙালীর শৈশব নির্মাণ একটি একরৈখিক গড়ন, অসামান্য রোম্যান্টিক ও কাব্যিক - সন্দেহাতীত - কিন্তু ততটাই নির্দিষ্ট স্থান-কাল-পাত্র নির্ভর, নিরপেক্ষ নয় এবং, সর্বোপরি, বাংলা নামক বিস্তৃত জনপ্রদেশের সমস্ত বহুজনতা বা বহুরৈখিক অভিজ্ঞতার ধারকপাত্র নয়। কথাটা জোরের সংগে বলব বলেই এই লেখাটার বা বলা ভালো এই আত্মকথনটির প্রাথমিক ভাষ টুকু প্রয়োজন ছিল। এই একরৈখিকতার দায় কোনভাবেই বিভূতিবাবুর নয়। তিনি যেভাবে ইংরেজ পরিপুষ্টি তে দেখতে বা ভাবতে অভ্যস্ত ছিলেন, তাই লিখেছেন। দায়টা আমাদের, পাঠকদের এবং আমাদের এই বাঁধাগতের সংস্কৃতি নির্মানের অভ্যাসের। বাঙালি, অন্তত এই সেদিন পর্যন্ত এতে নিরাপদ বোধ করত। আমি নবারুণকে সেলাম করি তিনি নির্দ্বিধায় এই নিরাপদ repression-এর নিগড় থেকে ভারতীয় সমাজবোধকে মুক্তি দিয়েছেন বলে। নবারুণে, আমি মনে করি, ভারতীয় বামপন্থার চিত্তশুদ্ধি ঘটেছে। তেমনিই, আমি মনে করি, তোমার হাতে, হয়ত আরোও এক-দুজনেরই মতো যদিও সেসব লেখকেরা সংখ্যায় নেহাতই কম, বিভূতিবাবুর মডেল শৈশব নির্মাণের কালশুদ্ধি ঘটেছে। Repression-এর ছুঁতমার্গ কাটিয়ে, সাবলীল শৈশব শৈল্পিক অথচ নির্ভার কথা ফুটিয়েছে আন্তর্গ্রন্থীয় মরমী ন্যারেটিভে। অসামান্য কাজ তোমার এই "কামান বেবি"। আমার ইন্দির ঠাকরুন আমি অবলীলায় পেয়ে যাই তাতুর ঠাম্মির মধ্যে। আমার সুপারিগাছের সারিভরা ডুয়ার্স শৈশব গুনগুন করে বাতাসির পলাশ-শিমুলের চরে। আমার দুর্গাদিদিরা অবৈধ সংসর্গের রাত্রি যাপন করে ভয়ে আশংকায় কাঁটা হয়ে। আর আমি, তাতু বা অপু বা আরোও আরোও অন্য অনেক এই প্রত্যন্ত বাংলাপ্রদেশের কোনে কোনে পাতাকুড়ানির দেহবল্লরীতে চুরি করে দেখে ফেলা অপার বিস্ময় দেখতে দেখতে ক্রমান্বয়ে ডিসপ্লেসড হতে থাকি, হতেই থাকি এ ভব অরণ্যের আনাচে কানাচে। একবার, বার বার, বহুবার। আমার আর guilty-feeling হয়না বিপুলদা। আমি এখন জানি যে অপুর নিটোল পাপগন্ধহীন শৈশব আমার না হলেও তাতুর un-repressed ন্যারেটিভটি অন্তত আমার শৈশবের কথা বলে। আর আমি এও জানি এখন যে, সারল্য শুধুমাত্র কিছুকথাকে ট্যাবু করে না বললেই রক্ষিত হয়না। সব কথা নির্ভার বলেফেলার মধ্যেও একই নিষ্পাপতা, সারল্য থাকে, যা বলতে জানতে হয়।
"আচ্চজ্জ ঘটনা"।

_---------------------------------
বইটি পাওয়া যাবে কলেজ স্ট্রীটে ধ্যানবিন্দু, দেজ, উবুদশ, দে বুক স্টোরে।

অনলাইনে www.collegestreet.net এ

এছাড়াও, এবার বাড়িতে বসেই গুরুর সব বই পেয়ে যান।
শ্রী তরুণ শ কে ফোন করে বললে উনি আপনার ঘরে পৌঁছে দেবেন। ওনার নং টা রইল। একটা ফোন করলেই আপনার চাওয়া বই আপনার হাতে।
তরুণদার নং ঃ ৯৮৩১২ ০১৪০২


এই সুতোর পাতাগুলি [1] [2] [3] [4] [5] [6] [7] [8] [9] [10] [11] [12] [13]     এই পাতায় আছে349--379