কথোপকথন -- এক

কবে থেকে আপনি জানতে পারলেন যে আপনার সেক্সুয়াল ওরিয়েন্টেশন  অন্যদের থেকে আলাদা? (যেমন ধরুন ছোটবেলায় কি ধরণের খেলনা আপনার পছন্দ ছিলো সেখান থেকেই শুরু করতে পারেন।) উত্তর -- আমি ছোটবেলায় বার্বিডল নিয়ে খেলা করতে ভালোবাসতাম। ঠিক কবে যে বুঝতে পারলাম যে আমি একজন 'গে' তা অবশ্য মনে করতে পারবোনা। মানে, অনেক ছোট থেকেই আমি ছেলেদের প্রতি আকর্ষণ বোধ করতাম, কিন্তু 'গে' শব্দটা তো শিখলাম আমার চৌদ্দ বছর বয়েসে।
......

আরও পড়ুন...

যৌনতা ও রাজনীতিঃ এ পথেই পৃথিবীর ক্রমমুক্তি হবে?

শৌভ চট্টোপাধ্যায়

যৌনতার সঙ্গে রাষ্ট্রের (বা, বলা ভালো, ক্ষমতার) সম্পর্কটা সবসময়েই জটিল এবং, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই, এরা একে অপরকে নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করে ও নিজেও ব্যবহৃত হয়, বুঝে বা না-বুঝে। আবার সেই যৌনতা যদি প্রথাবিরুদ্ধ হয়, যদি তা হয় সমকামিতার মতো একদা-অপরাধ, তাহলে রাষ্ট্রের সঙ্গে প্রত্যক্ষ সংঘাত অনিবার্য হয়ে ওঠে। কিন্তু শুধুই কি সংঘাত? আর সেই সংঘাতও কি কেবল দক্ষিণপন্থী প্রতিক্রিয়াশীল ক্ষমতার সঙ্গেই? তথাকথিত বামপন্থী উদারতাও কি বেমালুম হজম করে নিতে পারে যৌনতার ব্যতিক্রম বা ব্যতিক্রমী যৌনতা? না কি তাকেও ঢোঁক গিলতে হয়, যুঝতে হয় নিজের অন্তর্গত স্ববিরোধগুলির সঙ্গে?

আরও পড়ুন...

চিহ্নিতকরণ অথবা চিত্রগুপ্ত প্রকল্পঃ অর্থনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গী থেকে

সৌরভ ভট্টাচার্য

ধনতন্ত্র বনাম সমাজতন্ত্রের কূটকচালি পেরিয়ে যদি সহজ চোখে গত শতাব্দীর দিকে তাকানো যায়, তাহলে উন্নত এবং অনুন্নত দেশগুলোর মধ্যে একটা বড় ফারাক দেখা যাবে। প্রাক্তন সোভিয়েত রাশিয়াই বলুন আর আমেরিকা-ইংল্যান্ডই বলুন, অর্থনীতির পরিসরে রাষ্ট্রের ভূমিকার প্রভূত পার্থক্য সঙ্কেÄও প্রায় সব উন্নত দেশেই সামাজিক বা ভৌগোলিক পরিসরে রাষ্ট্রের উপস্থিতি সর্বব্যাপী এবং সুদৃঢ়। সোজা কথায়, উন্নত দেশের সরকারের হাত অনেক লম্বা - পরিষেবার বরাভয় আর প্রশাসনের খড়্‌গহস্ত দুটোই।আমেরিকা-রাশিয়াতে গভর্নমেন্টের খাতায় সক্কলের নাম আছে। আমাদের দেশেও কেন্দ্রীয় সরকার সম্প্রতি একটি প্রকল্প নিয়েছেন প্রত্যেক নাগরিককে (এবং বাসরত অনাগরিককে) আলাদা করে চেনবার, প্রত্যেককে একটি জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়ার। সরকারি কম্পিউটারে ধরা থাকবে প্রত্যেকের নাম, ধাম, বৃত্তি, মায় আঙুলের ছাপ পর্যন্ত। প্রকল্পের আনুমানিক খরচ চল্লিশ হাজার কোটি। গত মাসে এই প্রকল্পের কর্ণধার নিযুক্ত হলেন ইনফোসিসের প্রাক্তন সিইও নন্দন নিলেকানি। সার্থক নির্বাচন, নি:সন্দেহ। এই নিয়োগের সাথে সাথে বিষয়টি সংবাদের শিরোনামে এসেছে, এবং স্বাভাবিকভাবেই, প্রতিবাদের ঝড় না উঠুক, বিতর্কের হাওয়া বইতে শুরু করেছে।

আরও পড়ুন...

সবিতাভাবী

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

ধুধু গ্রীষ্মের দুপুর। সুস্তনী, নিবিড়নিতম্বিনী, মদালসা সবিতাভাবী সোফায় এলিয়ে বসে আছেন। তাঁর আঁচল খসে পড়েছে (বাহ্যতই প্রতিভাত হচ্ছে), শরীরটা কেমন যেন পাগল পাগল লাগছে। এমন সময় দরোজায় টক্‌ টক ্‌। কে? ম্যাডাম, আমি। আমি মহিলাদের অন্তর্বাস বিক্রি করি ম্যাডাম , একবার পরখ করেই দেখুন না আমার জিনিস। সবিতাভাবীর চোখে বিদ্যুৎ, গায়ে রোমাঞ্চ। স্বামী বাড়ি নেই, এই সুযোগ।

আরও পড়ুন...

সোয়াইন ফ্লুয়ের এপিসেন্টার থেকে

দময়ন্তী

পুণেতে সোয়াইন ফ্লু "আসছে-আসছে' , "এই এসে গেল' চলছে সেই মে' মাস থেকে। ৫ই মে সকালের কাগজ খুলে আমরা জানলাম যে এয়ারপোর্টে অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছে, বিদেশ থেকে আগত যাত্রীদের সম্পর্কে। আন্তর্জাতিক বিমানের যাত্রীদের নেমে একটা বড়সড় প্রশ্নপত্রের সব প্রশ্নের উত্তর দিতে হচ্ছে, তারপর মেডিক্যাল অফিসাররা সেই উত্তর খতিয়ে দেখে যাত্রীদের ছাড়ছেন এয়ারপোর্ট থেকে। সাথে ছবি ছিল, সমস্ত পুলিশকর্মী ও স্বাস্থ্যকর্মীদের নাকে মুখে রুমাল বাঁধা তিনকোণা করে। একই খবরের নীচের দিকে ছিল ভোপালের কাছে জলনাতে একসাথে ২০টি শুয়োর মারা গেছে, কিছু বাচ্চা শুয়োর খুব অসুস্থ। স্বাস্থ্যদপ্তর তাদের ওপর কড়া নজর রাখছেন। খবরটা অধিকাংশ লোক খেয়াল করে পড়েনই নি। যাঁরা পড়েছিলেন, তাঁরাও কেউ তেমন গুরুত্ব দেন নি। গোটা মে মাসটা এরকমই চলে গেল তা-না-না-না করে। জুনও প্রায় যাই যাই, তখনই হ্‌ঠাৎ প্রথম সোয়াইন ফ্লু আক্রান্তের খোঁজ পাওয়া গেল।

আরও পড়ুন...

ধূম

নিয়ামৎ খান

হালের বারটেন্ডারদের কাছে নতুন জানলা খুলতে এসে গেছে,হ্যাঁ, আপনি যা ভাবছেন অথচ বিশ্বাস করতে পারছেন না সেই ধোঁয়া। একেবারে নিয্যস ধোঁয়া। আপনি আজীবন লেবু দিয়ে জিন্‌ এর কথা জেনে এসেছেন, কিম্বা টনিক ওয়াটার দিয়ে। কিন্তু ভাবুন তো ল্যাপস্যাং সাউচং এ ইনফিউস করা জিন্‌? বেশ ডিজাইনার পানা শোনাচ্ছে কিনা? আসলে এ হলো চেরিকাঠের ধোঁয়ায় কোকাকোলা সিরাপ নেড়েচেড়ে নিয়ে সেই দিয়ে আপনার চির চেনা জিন্‌ এর পরিবেশন।

আরও পড়ুন...

হরিদাস পালের ডায়রি -- ছাড়া পেলেন বিনায়ক সেন

রঞ্জন রায়

একদিকে সুপ্রীম কোর্টের রায়ে বিনায়ক সেন সোজাসুজি পার্সোনাল বন্ড দিয়ে বেল পেলেন ,( যদিও বন্ডের টাকার রকম ও অন্যান্য শর্ত ছত্তিশগড় হাইকোর্টের হিসেবে হয়েছে), আর এক দিকে বিজেপি শাসিত রাজ্যে ওদের ফ্রন্ট সংগঠন ও পোষা খবরের কাগজ প্রচার শুরু করেছে যে উনি শুধু মেডিক্যাল গ্রাউন্ডে বেল পেয়েছেন, ওনার বেল পাওয়ার খবরে উল্লসিত নকসালরা নাকি হ্যান্ডবিল ছড়িয়েছে; অথবা এই বেল দেয়া ""দুর্ভাগ্যজনক'', বিচারব্যবস্থার ওপর প্রশ্নচিহ্ন-- ইত্যাদি। যেটা চেপে যাওয়া হচ্ছে তা হল বিজেপির এককালীন ভাইস প্রেসিডেন্ট সিনিয়র অ্যাড্‌ভোকেট রাম জেঠমালানি সুপ্রীম কোর্টে বলেছিলেন---- সমস্ত সরকারী সাক্ষী(শতাধিক)র আদালতে বয়ান হয়েগেছে। কেউ ড: সেনের ওপর অভিযোগের আঙুল তোলেনি।

আরও পড়ুন...

ছত্তিসগড়ের টুকরোটাকরা

ঈপ্সিতা পালভৌমিক

ছত্তিসগড় বিশেষ জনসুরক্ষা অধিনিয়ম ২০০৫ এর অধীÝন শুধু ¢বনায়ক সেন নন গত দ¥বছরে ব¢¸দ হয়েছেন বহু মানুষ। ¢ব¢ভন্ন চেহারার ¢ব¢ভন্ন জী¢বকার মান¥ষ। তাদের মধ্যে ১৮০ জনের নাম প¥¢লশের খাতায় পাওয়া যায়। বা¢ক আরো ৫০ ¢ট ক্র¢মক সংখ্যা ¢কছু মানুষকে ¢ন¢র্দষ্ট করে যাদের নাম নেই, ধাম নেই, জী¢বকা নেই। মজার ব্যাপার হলো প¥¢লশের খাতায় ডাক্তার ¢বনায়ক সেনের জী¢বকা কু¢রয়ার। কারন উ¢ন না¢ক জেল থেকে নারায়ণ সান্যালের ¢চ¢ঠ ¢পযূষ …হর কাছে ¢নয়ে যেতেন। কিন্তু জেলার সাহেবের বয়ান অনুসারে ¢ত¢ন সর্বদা খাড়া হয়ে দাঁ¢ড়য়ে থাকতেন দুজনের কথোপকথনের সময়। য¢দ কোনো কারনে অন্যত্র যেতে হতো তো ওঁর অধعন কর্মচারীকে দাঁড় ক¢রয়ে তবেই যেতেন। সেখানে কোনো ¢চ¢ঠ আদান পÊদান ঘটত না।

আরও পড়ুন...

খবর্নয়? (৯ই আগস্ট) -- রাজনৈতিক বন্দী দেশে বিদেশে

খবরোলার প্রতিবেদন

সাত বছর একটানা বন্দী থাকার পর অবশেষে এতদিনে গুয়ান্তানামো থেকে ছাড়া পেতে চলেছেন আব্দুল রহিম রজ্জাক। ত্রিশ বছর বয়সী আব্দুলকে গুয়ান্তানামো তে নিয়ে যাওয়া হয় ২০০২ তে। তার পর সাত সাতটা বছর তাঁর কেটে গেছে অন্ধকারে। বিচারের নামে চলেছে প্রহসন আর অত্যাচার। অবশ্য আব্দুলের বন্দী জীবনের শুরু কিন্তু এখানে নয়। এর আগে ২০০০ সালে প্রথম বার বন্দী হন আব্দুল। তখন অবশ্য পশ্চিমী দেশগুলোর গুপ্তচর সন্দেহে তাকে তুলে নিয়ে গিয়েছিল আল-কায়দা বাহিনী। অকথ্য অত্যাচারের পর আব্দুলকে বন্দী রাখে তারা জেলে। সেখানে কেটে যায় দুটো বছর। তারপর মঞ্চে আবির্ভাব আমেরিকার। গণতন্ত্র 'রক্ষার' খাতিরে তারা আল-কায়দার জেল থেকে তুলে আনে আব্দুলকে। আর শুরু হয় তার গুয়ান্তানামোর জীবন। অভিযোগ যে আব্দুল আল-কায়দার সাথে যুক্ত ছিল বহুদিন।

আরও পড়ুন...