গুরুচণ্ডা৯র খবরাখবর নিয়মিত ই-মেলে চান? লগিন করুন গুগল অথবা ফেসবুক আইডি দিয়ে।

অন্ধকারে কিছু কণ্ঠস্বর

রঞ্জন রায়

বিগত চারদিনের অভিযান সফল। ঝিটকার জঙ্গল ভেদ করে লালগড় থানা দখল করেছে আমাদের সশস্ত্র বল। বিশেষ প্রশিক্ষিত কোবরা ফোর্স, সিআরপিএফ আর অভিজ্ঞ কোলকাতা পুলিসের সম্মিলিত বাহিনীর সামনে মাওবাদীরা পালিয়েছে। তথাকথিত পুলিশি সন্ত্রাসবিরোধী কমিটি কোন প্রতিরোধ গড়তে পারেনি। জনগণ মাওবাদীদের সাথে নেই। তিনটে জেলার আঠেরোটি থানাকে মাওবাদীদের প্রভাব মুক্ত করা এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। আসলে মাওবাদী কমিউনিস্ট বলে কিছু হয় না। কমিউনিস্ট ম্যানিফেস্টোতে মার্কসের নাম আছে,মাওয়ের নেই। খোদ চীনদেশে মাওয়ের নাম কেউ নেয় না, কয়েকমাস পরে বঙ্গদেশেও নেবে না।

আরও পড়ুন...

চক্রান্ত চক্রান্ত

সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায়

চক্রান্ত একটা আছেই, কারণ, কেস খুবই গোলমেলে। একদিকে ভারত সরকার গোটা দেশে মাওবাদীদের নিষিদ্ধ করার পর সিপিএমের বড়ো কর্তা প্রকাশ কারাত বড়ো গলায় জানালেন, যে, তাঁরা এই নিষিদ্ধকরণের বিরুদ্ধে, অন্যদিকে তাঁর দলের মুখ্যমন্ত্রী সেই আইনে লোককে বাটাম দিয়ে জেলে পুরছেন। একদিকে এক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলছেন, মুখ্যমন্ত্রীর সুপারিশক্রমেই নিষিদ্ধকরণের প্রস্তাব, অন্যদিকে আরেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলছেন, আসলে কেন্দ্র নামক অবোধ শিশুকে সিপিএম ন্যাজে খেলাচ্ছে। একদিকে বুদ্ধিজীবীরা রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের নিন্দায় মুখর, অন্যদিকে প্রখ্যাত বিদ্রোহী গায়ক-সাংসদ কবীর সুমন চুপচাপ ঘরে বসে গান-বাজনা করছেন। একদিকে "মাও-মমতা-মহাজোট' এর অভিযোগ, অন্যদিকে "মাওবাদ-টাওবাদ সব সিপিএমের চক্রান্ত'। একদিকে "অপারেশন লালগড়' নামক যুদ্ধের স্ট্র্যাটেজি নিয়ে আপামর মিডিয়ার সমর-বিশেষজ্ঞ হয়ে ওঠা, অন্যদিকে জঙ্গল মহলে মিলিটারি বুটের পদচারণা। খবরের কাগজে পড়া যাচ্ছে, যে, মাওবাদী দমনে মার্কিন উপগ্রহ প্রযুক্তিরও নাকি সাহায্য নেওয়া হয়েছে, যথারীতি, মার্কিনবিরোধিতার পেটেন্ট নেওয়া আজিজুল হক সে ব্যাপারে নীরব।

আরও পড়ুন...

খবর্নয়? (২৯ শে জুন) -- লালগড়

খবরোলার প্রতিবেদন

গত নভেম্বর মাসে আদিবাসী বিক্ষোভ লালগড়কে আমাদের মিডিয়া মানচিত্রে এনে দিয়েছিল। জে এন ইউ র ছাত্রছাত্রীদের আদিবাসীরা জানালেন, নভেম্বরের ঘটনা কিন্তু আদৌ নতুন কিছু নয়। এরকম ই চলে আসছে গত আট বছর ধরে। নভেম্বরে যা নতুন হয়েছে,তা হলো,তাঁদের প্রতিবাদ। গ্রামের মানুষ জন শুনিয়েছেন, সেই ২০০০ সাল থেকে পুলিশি অত্যাচারের ধারাবিবরণী। কীভাবে 'রেড'এর নামে মাঝরাতে বাড়িতে পুলিশ ঢুকে বেধড়ক মারতে শুরু করতো, সব কিছু ভেঙ্গে তছনছ করে দিত, প্রতিটি পরিবারের অন্তত একজনকে কখনো না কখনো ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল মাওয়িস্ট আখ্যা দিয়ে। তিসাবাঁধের নাইকু মুর্মুকে কিভাবে পিটিয়ে মেরেছিল পুলিশ। নব্বই বছরের বৃদ্ধ নাইকু মুর্মুকে। স্কুলে পড়া মেয়েদের যৌন পীড়ন করা হয়েছে 'তল্লাশি' র নাম দিয়ে। মহিলাদের যৌনাঙ্গ প্রদর্শন করতে হয়েছে মহিলা বলে নিজেকে প্রমাণ করতে, রাত্রিবেলার পুলিশি রেডের সময়। যেকোনো নির্বাচনের আগে অন্তত তিরিশ চল্লিশ জনকে তুলে নিয়ে গেছে পুলিশ, 'মাওয়িস্ট' আখ্যা দিয়ে।

আরও পড়ুন...

লা জবাব দিল্লী - ১১

শমীক মুখোপাধ্যায়

দেখতে দেখতে ছ'বছর পূর্ণ হয়ে গেল গ্যাঁড়ার, দিল্লিবাসের। শুরু হয়েছিল নয়ডা কুড়ি সেক্টরের এক সহৃদয় ব্যক্তির চিলেকোঠার ঘরে, দু হাজার তিন সালের মে মাসের এক মনোরম গ্রীষ্মের দুপুরে। এই ছবছরে আরও ছবার গ্রীষ্ম এল, এল বসন্ত। নতুন চোখে দেখা দিল্লি নয়ডা গুরগাঁও শহর চোখের সামনেই দেখতে দেখতে কত তাড়াতাড়ি পাল্টে গেল। কত হাজারে হাজারে লোক এল। কত নতুন নতুন সিগন্যাল বসল রাস্তার মোড়ে, কত সিগন্যাল চিরতরে হারিয়ে গেল নবনির্মিত ফ্লাইওভারের তলায়! ফেসলিফ্‌ট হচ্ছে রাজধানীর, সাজো সাজো রব পড়েছে দিল্লির এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্তে, তৈরি হতে হবে ২০১০ সালের কমনওয়েল্‌থ গেম্‌সের জন্য। চেনাজানা আনাচকানাচগুলো দেখতে দেখতে নতুন রূপ নিয়ে বেরিয়ে আসছে নীল হলুদ বোর্ডের আড়াল থেকে।

আরও পড়ুন...

ফুলড বাই র‌্যান্ডমনেস

অনামিক

' সম্প্রতি বহু-আলোচিত কৃষ্ণহংস ( Black Swan ) তত্ত্বের উদ্‌গম এই বইয়ের মাধ্যমে। লেখকের বক্তব্য - মানুষ ব্যক্তিজীবনে এবং আর্থিক জগতে ঝুঁকির সঠিক পরিমাপ করতে মানসিকভাবে অক্ষম। এর ফলে অধিকাংশ মডেল বা উপাত্ত নির্মাণে আমরা যে ভিত্তিমূলক অনুমানগুলো করি, সেগুলো অধিকাংশই ভুল, এবং এই কারণেই এইসব তত্ত্ব, বেঁচে থাকা বা নিবেশের ক্ষেত্রে, আমাদের নি : শেষ হওয়ার ( going bust ) হাত থেকে রক্ষা করতে অপারগ। সংগৃহীত বা পরিদৃষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে সিদ্ধান্তগ্রহণের প্রচলিত বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি সম্পর্কে তাঁর প্রশ্ন - যেসব পরিদৃষ্ট প্রমাণের প্রেক্ষিতে আমরা শেষ পর্যন্ত কোন বৈজ্ঞানিক সূত্রসমূহে উপনীত হচ্ছি, সেগুলো ছাড়া যে সে বিষয়ে অন্য কোন বিরুদ্ধ তথ্যবিন্দু নেই, তা আমরা কিকরে নিশ্চিত হব ?

আরও পড়ুন...

আয়লা টুর এবং

সুমন্ত এবং অরিজিৎ

কোথাও গেলে, ফিরে এসে সেটা নিয়ে লিখতে হয়। এটাই নিয়ম। তার ওপর, সেই জায়গাটা যদি হয় "আয়লা'-য় ভেসে যাওয়া সুন্দরবন, তবে তো লেখাটা একটা মাস্ট ডু লিস্টের মধ্যে পড়ে যায়। তাই লিখছি। তথ্য খুব কমই জানি, তাই মূলত: যা দেখেছি সেটাই লিখবো। কোনো থিয়োরী থাকবে না। নিছকই একটা "আয়লা ট্যুর' ভাবতে পারেন। "ট্যুর'-টা শুনতে বা বলতে খুব খারাপ লাগলো, আমাদের সাধ্যমত "ত্রাণ' দিতেই গিয়েছিলাম তো, কিন্তু বিশ্বাস করুন, শেষপর্যন্ত যা দেখলাম, তাতে ঐ "ত্রাণ' নিয়ে যাওয়াটা নিজের কাছে দেওয়ার জন্য একটা অজুহাত ছাড়া আর কিছু মনে হচ্ছে না।

আরও পড়ুন...

অরণ্যের অধিকার, এবার পেরু

সোমনাথ রায়

৫ ই জুন,২০০৯। বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালিত হল পৃথিবী জুড়ে আর ঐ দিনই আমাজন অরণ্য সাক্ষী হলো এক নারকীয় ঘটনার। পেরুতে বিক্ষোভরত পরিবেশপুত্র আদিবাসীদের তীর-ধনুকের সঙ্গে পুলিশের তুমুল লড়াই হল, এবং দুদিক মিলিয়ে সরকারী হিসেবে মৃত্যু হল ৩২ জনের (১)। অবশ্য সরকারী হিসেবের বাইরে আন্দোলনকারীরা বলছেন তাঁদের হতাহতের সংখ্যা অনেকটাই বেশি এবং তাঁদের পক্ষের মোট ৬১ জন নিখোঁজ (২)। আদিবাসী ও পুলিশের লড়াই-এর খবরের সঙ্গে আমরা মোটামুটি ভাবে পরিচিত, তবে সেটা ভারতবর্ষের ক্ষেত্রে, এবং লক্ষ্যণীয়, গোলকের অন্যার্ধেও ঘটনার কার্যকারণ বিশ্লেষণ প্রায় এক-ই রকম[;] লড়াই অরণ্যের অধিকার নিয়ে।

আরও পড়ুন...

সুশীলবাবুর মানেবই (দ্বিতীয় ভাগ)

সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায়

পন্ডিতরা শিল্পায়নের দুই ধরণের সংজ্ঞা দিয়ে থাকেন। একটি বাংলায় অন্যটি ইংরিজিতে। একটি পিপলস ডেমোক্রেসিতে অন্যটি আনন্দবাজারে। ইংরিজি তাত্ত্বিক শ্রী প্রকাশ কারাত,পিপলস ডেমোক্রেসিতে এ বিষয়ে লিখেছেন, "কলকাতার পার্শ্ববর্তী পাঁচটি জেলায় করা একটি সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, যে, বন্ধ কল-কারখানা আর রুগ্ন শিল্পগুলিতে ৪১০০০ একর এমন জমি পড়ে আছে, যা কোনো শিল্প সংক্রান্ত কাজে ব্যবহার করা হচ্ছেনা।অএই সমস্ত জমি পুনরুদ্ধার করলে, তা, অনেকগুলি উদ্দেশ্যকে সিদ্ধ করতে পারে। এই সমস্ত জমিগুলিকে বিক্রি করে সেই অর্থে রুগ্ন শিল্পগুলির পুনুরুজ্জীবন ঘটানো যেতে পারে, বা কর্মচারীদের বকেয়া বেতন মেটানো যেতে পারে। বিভিন্ন ক্ষুদ্র শিল্প, বা অন্যান্য শিল্পসংস্থাকে বাকি জমি দেওয়া যেতে পারে। এইরকম জমিগুলি দশকের পর দশক ধরে আইনী জটিলতায় অব্যবহৃত হয়ে পড়ে আছে।"

আরও পড়ুন...

ক্রোমিয়াম ক্রমে আসিতেছে

অনির্বান বসু

এরিন ব্রকোভিচ ছবিটার কথা মনে আছে নিশ্চয়? অন্তত এটুকু তো সবার মনে আছেই, যে ,এই ছবির নাম-ভূমিকায় অভিনয় করে জুলিয়া রবার্টস অস্কার পেয়েছিলেন। আসুন, এরিন ব্রকোভিচ চরিত্রটির কথাও একটু মনে করে দেখি। এরিন কিন্তু কোনো কাল্পনিক চরিত্র নন, এক্কেবারে রক্তমাংসের মানুষ।

আরও পড়ুন...

খবর্নয়? ( ৭ই জুন) -- পরিবেশ

খবরোলার প্রতিবেদন

জানতাম পুরনো মডেলের গাড়ি, কিম্বা বাতিল মিলিটারি সরঞ্জাম তৃতীয় বিশ্বের আস্তাকুঁড়ে চালানোর চেস্টা করা হয়। যেটা জানতাম না, যে বিশ্বায়নের বাজারে, আজ আক্ষরিক অর্থেই ভারতের বন্দরগুলি সভ্যতার আস্তাকুঁড়ে পরিণত হচ্ছে। বর্জ্য কাগজ আমদানীর ছুতোয় প্রতি বছর প্রথম বিশ্ব থেকে দেশে ঢুকছে লক্ষ লক্ষ টন আবর্জনা। আইন অনুসারে প্রতিটি বর্জ্য কাগজের বাক্সের মধ্যে থাকতে পারে ৮ শতাংশ অন্যান্য আবর্জনা। শুধুমাত্র আইনের এই ফাঁক গলেই ২০০৫-২০০৬ সালে ঢুকে পড়েছে প্রায় ১,৩৪,৪০০ টন আবর্জনা...

আরও পড়ুন...

তোষক আশগুপ্ত বিরচিত অনৃতভাষণ -- সতর্ক আছি

সম্বিৎ বসু

এভাবে হয়না। য¢দ হত, আগেও হত। রাজ্য আক্রান্ত আয়লার দাপটে। গাছ ফেলে, রাع¡ বন্ধ করে, ¢বদ্যুতের তার কেটে, জলে ভা¢সয়ে মানুষকে ¢ব¢চ্ছন্ন করার চক্রান্ত জা¢র আছে। জা¢র আছে প্রবল বর্ষণ ও ঝড় ¢দয়ে মানুষের সম্প¢ত্ত নষ্ট করার প্র¢ক্রয়াও। আর আছে প্রশাসন। সঙ্গে বাংলার অগ¢ণত মু¢ক্তকামী মানুষ। আমরাও আ¢ছ। ¢নজেদের মত করে। লড়াই কর¢ছ চক্রান্তের ¢বরুদ্ধে। প্রশাসনের সঙ্গে কাঁধ ¢ম¢লয়ে।

আরও পড়ুন...