Prativa Sarker RSS feed

নিজের পাতা

Prativa Sarkerএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • ফেকু পাঁড়ের দুঃখনামা
    নমন মিত্রোঁ – অনেকদিন পর আবার আপনাদের কাছে ফিরে এলাম। আসলে আপনারা তো জানেন যে আমাকে দেশের কাজে বেশীরভাগ সময়েই দেশের বাইরে থাকতে হয় – তাছাড়া আসামের বাঙালি এই ইয়ে মানে থুড়ি – বিদেশী অবৈধ ডি-ভোটার খেদানো, সাত মাসের কাশ্মিরী বাচ্চাগুলোর চোখে পেলেট ঠোসা – কত ...
  • একটি পুরুষের পুরুষ হয়ে ওঠার গল্প
    পুরুষ আর পুরুষতন্ত্র আমরা হামেশাই গুলিয়ে ফেলি । নারীবাদী আন্দোলন পুরুষতন্ত্রের বিরুদ্ধে, ব্যক্তি পুরুষের বিরুদ্ধে নয় । অনেক পুরুষ আছে যারা নারীবাদ বলতে বোঝেন পুরুষের বিরুদ্ধাচরণ । অনেক নারী আছেন যারা নারীবাদের দোহাই পেড়ে ব্যক্তিপুরুষকে আক্রমন করে বসেন । ...
  • বসন্তকাল
    (ছোটদের জন্য, বড়রাও পড়তে পারেন) 'Nay!' answered the child; 'but these are the wounds of Love' একটা দানো, হিংসুটে খুব, স্বার্থপরও:তার বাগানের তিন সীমানায় ক'রলো জড়ো,ইঁট, বালি, আর, গাঁথলো পাঁচিল,ঢাকলো আকাশ,সেই থেকে তার বাগান থেকে উধাও সবুজ, সবটুকু নীল।রঙ ...
  • ভুখা বাংলাঃ '৪৩-এর মন্বন্তর (পর্ব ৫)
    (সতর্কীকরণঃ এই পর্বে দুর্ভিক্ষের বীভৎসতার গ্রাফিক বিবরণ রয়েছে।)----------১৯৪...
  • শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস
    ১৩ ডিসেম্বর শহিদুল্লাহ কায়সার সবার সাথে আলোচনা করে ঠিক করে বাড়ি থেকে সরে পড়া উচিত। সোভিয়েত সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের প্রধান নবিকভ শহিদুল্লাহ কায়সারের খুব ভাল বন্ধু ছিলেন।তিনি সোভিয়েত দূতাবাসে আশ্রয় নেওয়ার জন্য বলেছিলেন। আল বদর রাজাকাররা যে গুপ্তহত্যা শুরু করে ...
  • কালচক্রের ছবি
    বৃষ্টিটা নামছি নামছি করছিল অনেকক্ষন ধরে। শেষমেশ নেমেই পড়ল ঝাঁপিয়ে। ক্লাশের শেষ ঘন্টা। পি এল টি ওয়ানের বিশালাকৃতির জানলার বাইরে ধোঁয়াটে সব কিছু। মেন বিল্ডিং এর মাথার ওপরের ঘড়িটা আবছা হয়ে গেছে। সব্যসাচী কনুই দিয়ে ঠেলা মারল। মুখে উদবেগ। আমারও যে চিন্তা ...
  • এয়ারপোর্টে
    ১।আর একটু পর উড়ে যাবভয় করেকথা ছিল কফি খাবফেরার গল্প নিয়েকত সহজেই না-ফিরেফুল হয়ে থাকা যায়যারা ফেরে নি উড়ার শেষেতাদের পাশ দিয়ে যাইভয় আসেকথা আছে কফি নেব দুজন টেবিলে ফেরার পর ২।সময় কাটানো যায়শুধু তাকিয়ে থেকেতোমার না বলা কথাওরা বলে দেয়তোমার না ছুঁতে পারাওরা ...
  • ভগবতী
    একদিন কিঞ্চিৎ সকাল-সকাল আপিস হইতে বাড়ি ফিরিতেছি, দেখিলাম রাস্তার মোড়ের মিষ্টান্নর দোকানের সম্মুখে একটি জটলা। পাড়ার মাতব্বর দু-চারজনকে দেখিয়া আগাইয়া যাইলাম। বাইশ-চব্বিশের একটি যুবক মিষ্টির দোকানের সামনের চাতালে বসিয়া মা-মা বলিয়া হাপুস নয়নে কাঁদিতেছে আর ...
  • শীতের কবিতাগুচ্ছ
    ফাটাও বিষ্টুএবার ফাটাও বিষ্টু, সামনে ট্রেকার,পেছনে হাঁ হাঁ করে তেড়ে আসছে দিঘাগামী সুপার ডিলাক্স।আমাদের গন্তব্য অন্য কোথাও,নন্দকুমারে গিয়ে এক কাপ চা,বিড়িতে দুটান দিয়ে অসমাপ্ত গল্প শোনাব সেই মেয়েটার, সেই যারজয়া প্রদার মত ফেস কাটিং, রাখীর মত চোখ।বাঁয়ে রাখো, ...
  • তঞ্চক প্রবঞ্চক - একটি নাটক দেখার অভিজ্ঞতা
    ন্যায় কী? মর‍্যালিটিই বা কী?বিশুদ্ধবাদীদের মতে, কিছু শাশ্বত সত্যি তো থাকবেই, এবং কিছু শাশ্বত মানবিক নীতিবোধ। যেমন, চুরি কোরো না, লোক ঠকিয়ো না বা মানুষ মেরো না।কিন্তু, একজন মানুষ যদি লোক ঠকায়, মানুষকে শোষণ করে, অত্যাচার করে - তাকে পাল্টা ঠকানো, বা তাকে ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

Prativa Sarker প্রদত্ত সর্বশেষ দু পয়সা

লেখকের আরও পুরোনো লেখা >> RSS feed

ভ্রমণ কাহিনী নয় -১

আমাদের দেশের রাজনীতি পাঁচ হাজার বছরের হারাপ্পান কঙ্কালকেও রেহাই দেয় না। কবর থেকে তুলে নানা পরীক্ষানিরীক্ষার পর যেই দেখে পালে বাতাস লাগছে না, অমনি সব রিপোর্ট চেপে দেয়।
ধর্মীয় প্রাধান্য প্রতিষ্ঠার মরীয়া চেষ্টা অথবা দুর্বলের ওপর চূড়ান্ত অত্যাচার যে কোন ধর্মকে মৌলবাদী করে তোলে। সে দুর্বল সংখ্যালঘু অথবা দলিত হতে পারে, মেয়েরাও হতে পারে। আবার কোন সম্প্রদায়ের ওপর রাষ্ট্রীয় মদতে নামিয়ে আনা অত্যাচারও হতে পারে।

পাঞ্জাবে বীরের জাত সুদর্শন শিখ নারীপুরুষের সান্নিধ্যে এবার ধর্মীয় ভারত দেখবো

ভ্রমণ কাহিনী নয় -১

আমাদের দেশের রাজনীতি পাঁচ হাজার বছরের হারাপ্পান কঙ্কালকেও রেহাই দেয় না। কবর থেকে তুলে নানা পরীক্ষানিরীক্ষার পর যেই দেখে পালে বাতাস লাগছে না, অমনি সব রিপোর্ট চেপে দেয়।
ধর্মীয় প্রাধান্য প্রতিষ্ঠার মরীয়া চেষ্টা অথবা দুর্বলের ওপর চূড়ান্ত অত্যাচার যে কোন ধর্মকে মৌলবাদী করে তোলে। সে দুর্বল সংখ্যালঘু অথবা দলিত হতে পারে, মেয়েরাও হতে পারে। আবার কোন সম্প্রদায়ের ওপর রাষ্ট্রীয় মদতে নামিয়ে আনা অত্যাচারও হতে পারে।

পাঞ্জাবে বীরের জাত সুদর্শন শিখ নারীপুরুষের সান্নিধ্যে এবার ধর্মীয় ভারত দেখবো

ভাষা

এত্তো ভুলভাল শব্দ ব্যবহার করি আমরা যে তা আর বলার নয়।

সর্বস্ব হারিয়ে বা যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে যে প্রাণপণ চিৎকার করছে, তাকে সপাটে বলে বসি - নাটক করবেন না তো মশাই।
বর্ধমান স্টেশনের ঘটনায় হাহাকার করি - উফ একেবারে পাশবিক।
ভুলে যাই পশুদের মধ্যে মা বোনের বাছাবাছি আছে। মা বলে ডেকে ভুলিয়েভালিয়ে অন্ধকার কোণে ফুসলে নিয়ে যাওয়া নেই।

বাগড়ি মার্কেটের সবহারা ব্যবসায়ীর কান্না দেখে আমাদের নিজস্ব মন্ত্রীমশাইয়ের প্রতিক্রিয়া শুধু নয়, উত্তর প্রদেশের সবার বড় মুখিয়াও একই কথা বলেছিলে

এই মিছিল

এখানে বৃষ্টি থামলেও, ওখানে চলছেই। দিল্লীতে, রামলীলা ময়দানে, সংসদ ভবনের সাজানো গাছগুলোর ওপর সর্বত্র। সেই বৃষ্টিতেই পথ হাঁটছে লাখো জনতা। বৃষ্টি অগ্রাহ্য করেই বর্শামুখের মতো আকাশ ফুঁড়ে দেওয়া লাখো লাল নিশান।

কারো ব্যানারে লেখা কৃষক শ্রমিক সংঘর্ষ সমিতি, কারো বা শুধুই সি আই টি ইউ। কিন্তু এমন জোর গলায় , যে শাসকের মুর্দাবাদ ধ্বনিতে ভেজা আকাশেই পাখি উড়ে যাচ্ছে কাতারে। নাসিক থেকে আসা বালু শঙ্কর, বেতিয়া জেলার গরহন রাম, রাজস্থানী কৃষক মডু রাম, বরদি রাম সবাই হাঁক দিচ্ছেন, খবরদার / মোদি সরকার। অ

আবার কাঠুয়া

ধর্ষণের মামলায় ফরেন্সিক ডিপার্টমেন্টের মুখ বন্ধ খাম পেশ করা হল আদালতে। একটা বেশ বড় খাম। তাতে থাকার কথা চারটে ছোট ছোট খামে খুন হয়ে যাওয়া মেয়েটির চুলের নমুনা। ঘটনাস্থল থেকে সিট ওই নমুনাগুলো সংগ্রহ করেছিল। সেগুলোর ডি এন এ পরীক্ষাও করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু কোর্টে পেশ করার পর খাম খুলে দেখা গেল সব ফক্কা। কোন নমুনাই নেই তাতে।
কাঠুয়া মামলা সত্যিই খুব রহস্যময় হয়ে উঠছে দিন দিন।
শুধু এইই নয়। যথেচ্ছ ভয় দেখানো চলছে ধর্ষিতার আইনজীবীদের। দীপিকাকে তো বটেই, তার সহকর্মী পুরুষ আইনজীবীটিকে ডোমেস্টিক ভায়

দুখী মানুষ, খড়ের মানুষ

দুটো গল্প। একটা আজকেই ব্যাংকে পাওয়া, আর একটা বইয়ে। একদম উল্টো গল্প, দিন আর রাতের মতো উলটো। তবু শেষে মিলেমিশে কি করে যেন একটাই গল্প।

ব্যাংকের কেজো আবহাওয়া চুরমার করে দিয়ে চিৎকার করছিল নীচের ছবির লোকটা। কখনো দাঁত দিয়ে নিজের হাত কামড়ে ধরছিল, নাহলে মেঝেয় ঢাঁই ঢাঁই করে কপাল ঠুকছিল, সে কি আওয়াজ! রক্তপাত হবার সমূহ সম্ভাবনা। এক কাস্টমার মহিলা হঠাৎ বলে উঠলেন, ও তো বাইরে গেছিল।
মানে কাউন্টার থেকে টাকা নিয়ে বাইরে গেছিল। এখন কম পড়লে ব্যাংক দেবে কেন!

লোকটি পাগলের মতো নিজের জুতো খুলে গাল

পুরীযাত্রা

কাল রথের মেলা। তাই নিয়ে আনন্দ করার বয়স পেরিয়ে গেছে এটা মনে করাবার দরকার নেই। তবু লিখছি কারণ আজকের সংবাদপত্রের একটি খবর।

আমি তাজ্জব কাগজে উকিলবাবুদের কান্ডকারখানা পড়ে। আলিপুর জাজেস কোর্ট ও পুলিশ কোর্টে প্রায় কোন উকিলবাবু নেই, দু চারজন জুনিয়র ছাড়া। কি ব্যাপার, না সবাই রথে পুরী গেছেন। গত বছর তাদের কোন সহকর্মী রথের রশি ধরে টানাটানি করবার পর নাকি হঠাৎ তার পশার চতুর্গুণ বেড়ে যায়। ফোকটে পয়সা করবার এই উপায় ভারী মন টেনেছে যুক্তি নির্ভর উকিলবাবুদের। তাই একবছরেই সংখ্যাটা বেড়ে হয়েছে তিনশ। দূর দূরা

তারার আলোর আগুন

তারার আলো নাকি স্নিগ্ধ হয়, কাল তাহলে কেন জ্বলে মরল বারো, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে আরো সত্তর জন! তবু মৃত্যু মিছিল অব্যাহত। আজও রাস্তায় পড়ে এক স্বাস্থ্যবান শ্যামলা যুবক, শেষবারের মতো ডানহাতটা একটু নড়ল। কিছু বলতে চাইল কি ? চারপাশ ঘিরে দাঁড়িয়ে থাকা সশস্ত্র পুলিশের মধ্য থেকে কেউ বলে উঠল, যা ওঠ। আর নাটক করিস না।

এই ভিডিও ভাইরাল। ভাইরাল ওটাও, যেখানে মস্ত গাড়ির ছাদের ওপর শুয়ে পুলিশ এসল্ট রাইফেল তাক করছে নিরস্ত্র জনতার ওপর। পেছন থেকে নির্দেশ ভেসে এল, অন্তত একটাকে মারতে হবেই।

কল্যাণকাম

অপরাধী ও নিরপরাধ

বাসে স্বমেহনের দায়ে অভিযুক্ত ব্যক্তিটিকে অত্যন্ত তৎপরতার সঙ্গে কলকাতা পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। ওর কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ফুটপাথে হকারি করা স্ত্রী ওই ভিডিও দেখে অজ্ঞান হয়ে যান এবং জ্ঞান ফিরলে ঐ অসভ্য লোকটিকে চিরতরে ত্যাগ করবেন বলে দ্বিধাহীন ভাষায় জানান। Arka Bhaduriর রিপোর্টিং থেকে এটা জেনে ভদ্রমহিলাকে নিয়ে Rimi N একটি অসাধারণ পোস্ট দিয়েছেন। তার লিংক রইল। পড়বেন প্লিজ।
সত্যি, এতোখানি দৃঢ়চেতা মহিলা পয়সাওয়ালা ও তথাকথিত শিক্ষিতদের মধ্যেও বিরল। অন্যায় আমরা অনেকেই সয়ে নিই, সত্যিকারের প্রতিবাদীর সামনে তাই

ভামাবতী ও পঁচিশে বৈশাখ

ভামাবতী ছোট হতেই জ্যাটার শিরোমণি ছিলেন, বড় হতে জ্যাটামি ভাতের ফ্যানের মতো উতলে উঠলো। একেবারে প্রলয় জ্যাটা। তাই স্ত্রীলিঙ্গবাচক জেটি ডাক তার ছোটকাল হতেই কান-সওয়া। সহজপাঠ, সঞ্চয়িতা ও গল্পগুচ্ছ পড়ে জ্যাটামো এবং ভার্টিগো রোগ এমন বৃদ্ধি পেল যে টেগোরকুঠির সবচেয়ে নামী মানুষটি লালনের গানের খাতাচোর, দাদামশায়ের পোষা পতিতালয়ের পয়সাখোর, বৌদিদিবাজিতে এক নম্বর, এইসব শুনতে পেলেই তক্ক কর্তে যান, কাগজে প্রস্তাব লেখেন ও অন্যের লেখা থেকে প্রস্তাব চুরি করে আপনার বলে অহঙ্কার করেন।

সেই পাপ ও ঘোর কলির মিলিত
>> লেখকের আরও পুরোনো লেখা >>

এদিক সেদিক যা বলছেনঃ

14 Nov 2018 -- 07:02 PM:মন্তব্য করেছেন
অসাধারণ ছবি আঁকে রুকু। লেখাগুলোও খুব ইন্টারেস্টিং।
14 Nov 2018 -- 10:36 AM:মন্তব্য করেছেন
হাতিশাক বোধহয় ঢেঁকি শাক। শাককুলের মহারাণী। হাতির শুঁড়ের মতো বাঁকানো ডগাটুকু নিয়ে রাঁধতে হয়। কাসুন্দি ...
13 Nov 2018 -- 09:25 PM:মন্তব্য করেছেন
স্বচ্ছ সুন্দর মানসিকতার ফসল এই লেখা। সহজ কথা এতো সহজ করে বলা যায় !
12 Nov 2018 -- 10:26 AM:মন্তব্য করেছেন
মনে-করানিয়া লেখা। ভারী সুন্দর লেখা। আমাকে বাবা মা কখখনো ভাসানে যেতে দেয়নি এই নালিশ এখন করার লোক নেই ...
05 Nov 2018 -- 12:02 PM:মন্তব্য করেছেন
ধন্যবাদ স্বর্ণেন্দু যুক্তিপূর্ণ মন্তব্যের জন্য। ঠিকই, এতো তাড়াতাড়ি সঠিক সিদ্ধান্তে পৌছন যাবে না। কিন ...
03 Nov 2018 -- 08:29 PM:মন্তব্য করেছেন
https://i.postimg.cc/8kygb4ZV/P-20181015-154708-v-HDR-Auto.jpg
03 Nov 2018 -- 08:24 PM:মন্তব্য করেছেন
https://i.postimg.cc/8kZtY08t/P-20181015-155221-v-HDR-Auto.jpg
03 Nov 2018 -- 08:21 PM:মন্তব্য করেছেন
https://i.postimg.cc/SQPxDmKd/P-20181015-153727-v-HDR-Auto.jpg
03 Nov 2018 -- 08:18 PM:মন্তব্য করেছেন
https://i.postimg.cc/bJY7jSmn/P-20181015-144722-v-HDR-Auto.jpg
03 Nov 2018 -- 08:14 PM:মন্তব্য করেছেন
https://i.postimg.cc/0QZcP6hT/P-20181015-151053-v-HDR-Auto.jpg
03 Nov 2018 -- 08:09 PM:মন্তব্য করেছেন
https://i.postimg.cc/QCy9qsW9/P-20181015-150800-v-HDR-Auto.jpg
03 Nov 2018 -- 03:08 PM:মন্তব্য করেছেন
ধন্যবাদ শিবাংশু। আপনার মন্তব্য সবসময় উৎসাহিত করে।
02 Nov 2018 -- 01:57 PM:মন্তব্য করেছেন
অর্জুন, বিস্তারিত লেখার সুযোগ নেই, কিন্তু তার মধ্যেই কোন ডায়ারকে কি ভাবে উধম সিং মেরেছিলেন, তা ছুঁয়ে ...
02 Nov 2018 -- 11:53 AM:মন্তব্য করেছেন
আসন্ন এই দিনের কথা ভেবে আমার কিন্তু সত্যিই ভয় করছে। একা হয়ে যাবার ভয়, বর্জনের ভয়, হারাবার ভয়।
01 Nov 2018 -- 11:38 PM:মন্তব্য করেছেন
https://i.postimg.cc/Wb29x19F/IMG-20181026-WA0004.jpg
01 Nov 2018 -- 11:24 PM:মন্তব্য করেছেন
https://i.postimg.cc/Hx9DmPbT/P-20181017-110737-v-HDR-Auto.jpg
01 Nov 2018 -- 11:20 PM:মন্তব্য করেছেন
https://i.postimg.cc/HW2k2JGr/P-20181017-142058-v-HDR-Auto.jpg
01 Nov 2018 -- 11:16 PM:মন্তব্য করেছেন
https://i.postimg.cc/5tLxFyqN/P-20181017-134417-v-HDR-Auto.jpg
01 Nov 2018 -- 11:14 PM:মন্তব্য করেছেন
https://i.postimg.cc/bwGYp3Zn/P-20181017-142616-001.jpg
01 Nov 2018 -- 11:08 PM:মন্তব্য করেছেন
https://i.postimg.cc/ncrpG0YW/P-20181017-141857-v-HDR-Auto.jpg