Sarit Chatterjee RSS feed

নিজের পাতা

Sarit Chatterjeeএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • আমার ব্যথার পূজা
    ব্যর্থতাকে গ্রহন করতে শেখা জীবনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ন শিক্ষা। অনুভব হয় সেই শিক্ষা আমার অসম্পুর্ন রয়ে গেছে। নিজের শারীরিক সীমাবদ্ধতাকে অতিক্রম না করতে পারার মানসিক যন্ত্রনা ছাপিয়ে গেছে শারীরিক যন্ত্রনাকেও.. এই কি সেই " মাঝবয়েসী সংকট"? নাকি, ছোট্টবেলা থেকে ...
  • বইমেলা নোটবই
    উপক্রমনিকাঃ গুরু এবং শুরুষাট সত্তরের দশকের হিন্দি ছবিতে কুম্ভ মেলা অর্থাৎ “কুম কে মেলে”-এর একটা গুরুত্বপূর্ণ অংশ থাকত। ওই ভাইয়ো অর বহেনোরা (মিত্রো নয় কিন্তু) কুম-কে মেলে’তে হারিয়ে যেত আর সিনেমার শেষে ফের দেখা হয়ে যেত, হ্যাপ্পি এন্ডিং আর কি। আর এই আলাদা আর ...
  • ভাসাইলি রে
    মুম্বাই থেকে ট্রেনে কলকাতা ফিরছি,সাল আমার মনে নেই। এক পুণে প্রবাসী বাঙালী পরিবারের সাথে আলাপ। তারা আত্মীয়র বিয়ে উপলক্ষে কলকাতা আসছেন। এনারা নিজেদের বাবার আমল থেকেই প্রবাসী। বহুদিন, বোধহয় প্রায় দশ-পনেরো বছর বাদে কলকাতায় আসছেন। খুবই আগ্রহী, যদি সময় করে ...
  • সংস্কৃত বাংলা ভাষার জননী নয়, সাঁওতালী ভাষার কাঠামোতেই বাংলা ভাষার বিকাশ
    বাংলা ভাষা একটি মিশ্র ভাষা। তার মধ্যে বৈদিক বা সংস্কৃত ভাষার অবদান যেমন আছে, তেমনি আছে খেরওয়াল বা সাঁওতালী সহ বেশ কিছু মুণ্ডা ভাষার অতি গুরূত্বপূর্ণ অবদান। বাংলা ভাষার জননী হিসেবে কেবল সংস্কৃত আর্য ভাষার দাবি সম্বলিত যে মিথটি গড়ে উঠেছিল – সেই দাবিকে ...
  • রক্তকরবী, অল্প কথায়
    মানুষের স্বতস্ফুর্ততা যখন মরে যায় তখন যন্ত্রে আর মানুষে তফাত থাকে কই! একটা ঘোর মেক্যানিক্যাল সিস্টেমের মধ্যে আবর্তিত হয় তার দৈনিক যাপন, বাকি সমাজের সাথে সম্পর্ক হয় অ্যালগোরিদিমিক্যাল। কাজের সূত্রে সে কথা বলে আবার ঢুকে যায় নিজের মৃত চামড়ার খোলসে।ঠিক যেন এই ...
  • একাত্তরের দিন গুলি
    কোন এক পড়ন্ত বিকেলে আমরা ঢাকার রাস্তায় কণিকা নামের একটা বাড়ি খুঁজে বেড়াচ্ছিলাম। অনেকক্ষণ ধরে। আসলে আমরা খুঁজছিলাম একটা ফেলে আসা সময়কে। একটা পরিবারকে। যে বাড়িটা আসলে ব্লাইন্ড লেনের এক্কেবারে শেষ সীমায়। যে বাড়ির গলি আঁধার রাতে ভারী হয়েছিল পাকিস্তানী ...
  • #পুরোন_দিনের_লেখক-ফিরে_দেখা
    #পুরোন_দিনের_লেখক-ফি...
  • হিমুর মনস্তত্ত্ব
    সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের সবচেয়ে জনপ্রিয় ক্যারিশমাটিক চরিত্র হিমু। হিমু একজন যুবক, যার ভালো নাম হিমালয়। তার বাবা, যিনি একজন মানসিক রোগী ছিলেন; তিনি ছেলেকে মহামানব বানাতে চেয়েছিলেন। হিমুর গল্পগুলিতে হিমু কিছু অদ্ভুত কাজ করে, অতিপ্রাকৃতিক কিছু শক্তি তার আছে ...
  • এক অজানা অচেনা কলকাতা
    ১৬৮৫ সালের মাদ্রাজ বন্দর,অধুনা চেন্নাই,সেখান থেকে এক ব্রিটিশ রণতরী ৪০০ জন মাদ্রাজ ডিভিশনের ব্রিটিশ সৈন্য নিয়ে রওনা দিলো চট্টগ্রাম অভিমুখে।ভারতবর্ষের মসনদে তখন আসীন দোর্দন্ডপ্রতাপ সম্রাট ঔরঙ্গজেব।কিন্তু চট্টগ্রাম তখন আরাকানদের অধীনে যাদের সাথে আবার মোগলদের ...
  • ভারতবর্ষ
    গতকাল বাড়িতে শিবরাত্রির ভোগ দিয়ে গেছে।একটা বড় মালসায় খিচুড়ি লাবড়া আর তার সাথে চাটনি আর পায়েস।রাতে আমাদের সবার ডিনার ছিল ওই খিচুড়িভোগ।পার্ক সার্কাস বাজারের ভেতর বাজার কমিটির তৈরি করা বেশ পুরনো একটা শিবমন্দির আছে।ভোগটা ওই শিবমন্দিরেরই।ছোটবেলা...

বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

Sarit Chatterjee প্রদত্ত সর্বশেষ দু পয়সা

<< লেখকের আরও নতুন লেখা      লেখকের আরও পুরোনো লেখা >> RSS feed

ঠাণ্ডা গোস্ত্

ঠান্ডা গোস্ত*
(সাদাত হাসান মান্টো)
সরিৎ চট্টোপাধ্যায় / অণুঅনুবাদ

কলবন্ত্ কৌরকে একঝলক দেখলেই আগে শরীরটা নজরে পড়ে। গুরুনিতম্বিনী। পীনোন্নত পয়োধর। ওপরের ঠোঁটে হালকা লোমশ রেখা। আগুনে চোখদুটোয় দৃঢ়তার ছাপ।

ঈশ্বর সিংএর দীঘল শরীরটা ঘরে ঢুকতেই কলবন্ত্ দরজার আগলটা তুলে দেয়। স্বামীর চোখে চোখ রেখে সে গরজে ওঠে, ঈশ্বর সাঁই? কোথায় ছিলে এই আট দিন? আবার শহরে গেছিলে, না?

- না!, থমথমে মুখে কৃপণটা খুলে রাখতে রাখতে জানায় ঈশ্বর।

- লুঠের মাল আমায় দেখাতে চাও না, না

অপদার্থ

অপদার্থ
সরিত চট্টোপাধ্যায় / অণুগল্প

: এখনও মাকে বলতে পার নি? আমি যে আর আটকাতে পারব না ওদের!!
তিন্নীর দুচোখের হতাশাই হওয়া উচিত ছিল এই গল্পের ড্রপ সিন্। দি এন্ড্।

তিন্নীর বাড়িতে বিয়ের কথা বার্তা চলছে - তবু সৌম পারেনি। মায়ের সামনে বলার হিম্মত হয়নি। উনি যে স্বয়ং লেডি হিটলার।

ছোটমাসির দেওরের মেয়ে। সাউথ সিঁথি আর কাঁটাকল - একটা স্টপ; ছোটবেলায় পঞ্চাণনতলার পুজো, শীতের সন্ধ্যায় দেখা ওরিয়েন্টাল সার্কাস, কচি মনের কচকচানি। বড় হওয়ার অস্বস্তি থেকে বড় হওয়ার আনন্দ

দাগ ও লক্ষ্য

দাগ ও লক্ষ্য
সরিৎ চট্টোপাধ্যায় / অণুগল্প

দুঃস্বপ্নটা তাড়িয়ে বেড়ায় গৌতমকে। পিঠটা জ্বলতে থাকে। মাঝরাতে উঠে বসে গলদঘর্ম হয়ে। পিঠে হাত দিয়ে অনুভব করে দাগটাকে।

জলখাবারের টেবিলে বসে গৌতম ফোনটা পেল। অতসী ওর ভাবলেশহীন মুখের দিকে তাকিয়ে ভাবছিল, কী অসম্ভব শাসনে রাখে ও নিজের অভিব্যক্তিগুলো। আমি এতদিন পরও কিছু বুঝতে পারি না।
বাধ্য হয়েই সে প্রশ্ন করল, কে?
: বাবার ওল্ড হোম থেকে, ডাঃ মিশ্র। বললেন, প্রস্টেট ক্যানসার ধরা পড়েছে। শিরদাঁড়ায় ছড়িয়ে গেছে।
: সে কী! তুমি যাবে, আজ?

উড়োজাহাজ

উড়োজাহাজ
সরিৎ চট্টোপাধ্যায় / অণুগল্প

যশমতি কাঁদিতেছিল। নন্দ কাঁদিতেছিল। লক্ষকোটি সখি কাঁদিতেছিল। কৃষ্ণা আগামী সপ্তাহে বিদেশ যাইতেছে।
কেবল কাঁদিতেছিল না রাধা।

রাধা কলেজ হইতে ফিরিবার সময় গৃহের সম্মুখে দুই দণ্ড দাঁড়াইয়া ভাবিল, আমারও কাঁদিবার অধিকার আছে। কৃষ্ণা যে আর ফিরিবে না তাহা সকলেই জানিত। কিন্তু দেবরের জন্য কাঁদা যে সমীচিন নহে।
বোস্টন ম্যাসাচুসেট্স্ বহু দূরে। রাধার নাগাল হইতে বহু, বহু দূরে।
হরিয়ানার প্রত্যন্ত এই গ্রামে এইরূপ ঘটনা পূর্বে ঘটে নাই। সুদূর আমের

সম্পর্ক ও সংজ্ঞা

সম্পর্ক ও সংজ্ঞা
সরিৎ চট্টোপাধ্যায় / অণুগল্প

ছাদটা ছিল, যেন লক্ষ আলোর রোশনাইয়ে মোড়া শহরটার মাঝে এক অন্ধকার দ্বীপের মতো।
লক্ষ তারার ভিড়ে না-দেখা এক অন্ধকূপের মতো।
সূর্যজায়া সংজ্ঞার নিঃসাড় ভয়ের মতো।

রিমি হাতটা খুব সন্তর্পণে সরিয়ে নিতেই ফানুসটা সেখানেই ভেসে রইল কিছুক্ষণ। তারপর খুব ধীরে ধীরে ওপরে উঠতে শুরু করল। আর বাচ্চার মতো হাততালি দিয়ে উঠল রিমি।
ছাদের ওপর সতরঞ্চি পেতে উপুড় হয়ে শুয়ে কনুইয়ে ভর দিয়ে রিমিকে দেখছিল গোগোল। ওর বয়েস কত হবে? কুড়ি? একুশ? আচ্ছা, ও আমার

হৃৎপিণ্ড

হৃৎপিণ্ড
সরিৎ চট্টোপাধ্যায় / ভৌতিক অণুগল্প

ডাঃ সিদ্ধেশ্বর মুখোপাধ্যায়, চিফ সাইকিয়াট্রিস্ট, প্যারাসাইকোলজিস্ট ও অ্যাসাইলাম সুপার। যেমন কাজ পাগল লোক তেমনি দোর্দণ্ড প্রতাপ।
আজ যদিও নিউ ইয়ার, তাও দোতলার রাউন্ডে ঢুকছেন রাত এগারোটায়। ফ্লোর ইনচার্জ রাখাল ছুটে আসে।
- কাকে দেখবেন স্যার?
- চার আর সাত নম্বর। ওদের কন্ডিশন কদিন হল ডিটোরিয়েট করছে। আজ থেকে দুবার করে কাউন্সেলিং করব।

চার নম্বর ঘরে, অরুণিমা সেন, ৫৫। এককালে নামকরা অভিনেত্রী ছিলেন। ঘরে ঢুকতেই ফ্যাসফ্যাসে গলায় বল

এস-আই রাবণ

এস-আই রাবণ
সরিৎ চট্টোপাধ্যায় / ছোটগল্প

সাব-ইনস্পেকটর রাবণ।
কড়েয়া থানার এই সদা হাস্যময় বেঁটেখাটো টাকমাথা ভুঁড়িওলা লোকটার নাম যে বেটাই রাবণ রেখে থাকুক তার রসবোধের বাহবা দেওয়া ছাড়া উপায় নেই। পোশাকি নাম ঘনশ্যাম মোদক, যদিও আইজি সাহেব থেকে কনস্টেবল সুমন্ত্র আর ওঁর শালাবাবু থেকে বটগাছের নিচে ভোলেবাবার পেসাদ বেচে যে নিধিকান্ত, সবার কাছেই তিনি ওই রাবণ নামেই যারপরনাই উৎসাহের সঙ্গে তৎক্ষণাৎ সাড়া দেন।

তবে, একটা মিল ছিল। ত্রেতাযুগের রাক্ষসরাজের হাসি যদিও স্বকর্ণে আজকের কেউ শোনে নি

অ্যান এপিকিউরিয়ান ট্র্যাজেডি

অ্যান এপিকিউরিয়ান ট্র্যাজেডি
সরিৎ চট্টোপাধ্যায় / অণুগল্প

- আপনি যা ঠিক করার তা তো করেই ফেলেছেন; তবু বলতে বলেছেন যখন তখন দু'কথা বলেই ফেলি, কী বলেন স্যর? কিন্তু নিখাদ সত্য সহ্য করার মতো বুকের পাটা আপনার আছে তো, ধর্মাবতার?
মৃত্যুকে আমি ভয় করি না। মৃত্যু মানেই তো - সব কিছুর ইতি, শেষ। আর সত্যি বলতে কী, জীবনকে আমি খুবই ভালোবাসি।
ভালো লাগার কত কী আছে এই পৃথিবীতে, তাকিয়ে দেখুন একবার। যেমন ধরুন, ফুল।
কুঁড়ি থেকে ফুল ফোটার সময়

ঢেঁকি

ঢেঁকি
সরিৎ চট্টোপাধ্যায় / অণুগল্প

সামনের বাড়িটার জানলা দিয়ে টিভিটা দেখা যাওয়ায় ওর খুব সুবিধা হয়েছে। সাড়ে সাতটা বাজলেই 'গোয়েন্দা গিন্নি'র জন্য ছটফট করে ওঠে ওর মনটা। আহা! রবার্ট ব্লেক বা ফেলু মিত্তির কোথায় লাগে এই পরমা মিত্তিরের কাছে!

আজও সবে ও বেশ আয়েশ করে জাঁতি আর সুপুরিক'টা নিয়ে বসেছিল; হঠাৎ নাকে অগুরু সেন্ট-এর গন্ধটা ধক করে এসে লাগল। ভুরুজোড়া অনিচ্ছা সত্তেও কুঁচকে উঠল ওর।
যা সন্দেহ করেছিল ঠিক তাই! গায়ে আদ্দিরের গিলে করা ফিনফিনে পাঞ্জাবি, কোঁচানো ধুতির কোঁচার ফুল হ

মৃত্যুভয়, পাপক্ষয়

মৃত্যুভয়, পাপক্ষয়
সরিৎ চট্টোপাধ্যায়

কাপালিকের তন্ত্রে মেশে রক্তের নেশা, তার খড়্গ আর ভাল
মহাডামরির জিভের মতো লাল; অপেক্ষায়
হাড়িকাঠে পিছমোড়া করে বাঁধা মানব-শিশু। শিশু হত্যা, হালাল।

অষ্টমীর অঞ্জলি দিচ্ছে পেট-মোটা ডাক্তার
সেই সুগারটা দিলি তো মা, দেখিস হার্ট কিডনি দুটো যেন ভালো থাকে
মাইরি বলছি, পুষিয়ে দেব, এই ডেঙ্গুর সিজনটুকু যাক।

আমলা মন্ত্রী শিল্পপতি মরিয়া হয়ে এক সারিতে খাড়া
তদন্তের হাত থেকে জাস্ট এবারটা বাঁচিয়ে দাও, ট্রিনিটি বাপেরা!
নিখাদ
<< লেখকের আরও নতুন লেখা <<     >> লেখকের আরও পুরোনো লেখা >>

এদিক সেদিক যা বলছেনঃ

16 May 2017 -- 05:43 PM:মন্তব্য করেছেন
pi লক্ষ্য করুন আমি কী লিখেছি। 'তারা যে মায়ের জাত!' ওই বিস্ময়বোধক চিহ্নে এই ব্যাপারে আম ...
29 Oct 2016 -- 02:24 PM:মন্তব্য করেছেন
হা হা হা। এটা কৌতুকরসের গপ্প। আর জিনিয়াসরা প্রায়সই দু'পায়ে দুটি ভিন্ন পাটির মোজা পরিয়া আপিস-কাছারি য ...
20 Oct 2016 -- 09:02 PM:মন্তব্য করেছেন
সৌমদীপ আততায়ী বাইরে কয়েক মিনিট অপেক্ষা করেছিল নিজের চোখ অন্ধকারে অ্যাডাপ্ট করার জন্য। দ্বিত ...
26 Sep 2016 -- 09:09 PM:মন্তব্য করেছেন
ধন্যবাদ মনোজবাবু।
31 Aug 2016 -- 09:17 PM:মন্তব্য করেছেন
সবাইকে ধন্যবাদ। মনোজবাবু ও তিতির, আপনাদের কমেন্ট পড়ে খুব ভাল লাগল। হ্যাঁ, সবটাই স্বাভাবিক। পলাশ ...
06 Aug 2016 -- 07:03 PM:মন্তব্য করেছেন
ধন্যবাদ। 😊
22 Jul 2016 -- 12:15 PM:মন্তব্য করেছেন
অনেক ধন্যবাদ
19 Jul 2016 -- 12:16 PM:মন্তব্য করেছেন
ধন্যবাদ। 😊