Rouhin Banerjee RSS feed

Rouhin Banerjeeএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • পাহাড়ে শিক্ষার বাতিঘর
    পার্বত্য জেলা রাঙামাটির ঘাগড়ার দেবতাছড়ি গ্রামের কিশোরী সুমি তঞ্চঙ্গ্যা। দরিদ্র জুমচাষি মা-বাবার পঞ্চম সন্তান। অভাবের তাড়নায় অন্য ভাইবোনদের লেখাপড়া হয়নি। কিন্তু ব্যতিক্রম সুমি। লেখাপড়ায় তার প্রবল আগ্রহ। অগত্যা মা-বাবা তাকে বিদ্যালয়ে পাঠিয়েছেন। কোনো রকমে ...
  • বেঁচে আছি, আত্মহারা - জার্নাল, জুন ১৯
    ১এই জল, তুমি তাকে লাবণ্য দিয়েছ বলেবাণিজ্যপোত নিয়ে বেরোতেই হ'লযতক্ষণ না ডাঙা ফিকে হয়ে আসে।শুধু জল, শুধু জলের বিস্তার, ওঠা পড়া ঢেউসূর্যাস্তের পর সূর্যোদয়ের পর সূর্যাস্তমেঘ থেকে মাঝে মাঝে পাখিরা নেমে আসেকুমীরডাঙা খেলে, মাছেরা ঝাঁক বেঁধে চলে।চরাচর বলে কিছু ...
  • আনকথা যানকথা
    *****আনকথা যানকথা*****মোটরবাইক ঃ ইহা একটি দ্বিচক্রী স্থলযান। পেট্রল ডিজেল জাতীয় জীবাশ্ম জ্বালানির সাহায্যে চলে। বিভিন্ন আকারের ও বিভিন্ন ক্ষমতাসম্পন্ন মোটরবাইক আমরা দেখিতে পাই। কোন কোন বাইকের পাশে ক্যারিয়ার থাকে। শোলে বাইক আজকাল সেরকম দেখিতে পাওয়া যায়না। ...
  • সরকারী পরিষেবার উন্নতি না গরীবকে মেডিক্লেম বানিয়ে দেওয়া? কোনটা পথ?
    এন আর এস এর ঘটনাটি যে এতটা স্পর্শকাতর ইস্যু হয়ে উঠতে পারল এবং দেখিয়ে দিল হাসপাতালগুলির তথা স্বাস্থ্য পরিষেবার হতশ্রী দশা, নির্দিষ্ট ঘটনাটির পোস্টমর্টেম পেরিয়ে এবার সে নিয়ে নাগরিক সমাজে আলোচনা দরকার।কিন্তু এই আলোচনা কতটা হবে তাই নিয়ে সংশয় আছে। কারণ ...
  • জুনিয়র ডাক্তারদের ধর্মঘট ও সরকারের ভূমিকা
    হিংসার ঘটনা এই তো প্রথম নয়। ২০১৭ ফেব্রুয়ারীতে টাউনহল খাপ পঞ্চায়েত বসিয়ে বেসরকারি হাসপাতালের ম্যানেজমেন্ট কে তুলোধোনা করার পর রাজ্যে ১ নতুন ক্লিনিক্যাল এস্তব্লিশমেন্ট অ্যাক্ট চালু হয়েছিল। বলা হয়েছিল বেসরকারি হাসপাতাল গুলি র রোগী শোষণ বন্ধ করার জন্য, ...
  • ব্রুনাই দেশের গল্প
    আশেপাশের ভূতেরা – ব্রুনাই --------------------...
  • 'বখাটে'
    তেনারা বলতেই পারেন - কেন, মাও সে তুঙ যখন ঘোষণা করেছিল, শিক্ষিত লোকজনের দরকার নেই, লুম্পেন লোকজন দিয়েই বিপ্লব হবে, তখন দোষ ছিল না, আর 'বখাটে' ছেলেদের নিয়ে 'দলের কাজে' চাকরি দেওয়ার কথা উঠলে দোষ!... কিন্তু, সমস্যা হল লুম্পেনের ভরসায় 'বিপ্লব' সম্পন্ন করার পর ...
  • ডাক্তার...
    সবচেয়ে যে ভাল ছাত্র তাকেই অভিভাবকরা ডাক্তার বানাতে চায়। ছেলে বা মেয়ে মেধাবী বাবা মা স্বপ্ন দেখে বসে থাকল ডাক্তার বানানোর। ছেলে হয়ত প্রবল আগ্রহ নিয়ে বসে আছে ইঞ্জিনিয়ারিঙের কিন্তু বাবা মা জোর করে ডাক্তার বানিয়েছে এমন উদাহরণ খুঁজতে আমাকে বেশি দূর যেতে হবে ...
  • বাতাসে আবারও রেকর্ড সংখ্যক কার্বন-ডাই-অক্সাইড, কোন পথে এগোচ্ছে পৃথিবী?
    সাম্প্রতিক একটি প্রতিবেদন বলছে বায়ুতে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ আবারও বেড়ে গেছে। এই নিয়ে প্রতিবছর মে মাসে পরপর কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বৃদ্ধি পেতে পেতে বর্তমানে বায়ুতে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ রেকর্ড সংখ্যক। গত মাসে (মে-তে) কার্বন ডাই অক্সাইডের ...
  • ফেসবুক রোগী
    অবাক হয়ে আমার সামনে বসা ছেলেটার কান্ড দেখছি। এই সময়ে তার আমার পাশে বসে আমার ঘোমটা তোলার কথা। তার বদলে সে ল্যাপটপের সামনে গিয়ে বসেছে।লজ্জা ভেঙ্গে বলেই ফেললাম, আপনি কি করছেন?সে উৎকণ্ঠার সাথে জবাব দিলো, দাঁড়াও দাঁড়াও! 'ম্যারিড' স্টাটাস‌ই তো এখনো দেইনি। ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

Rouhin Banerjee

সবাই বলছেন বাম ভোট রামে গেছে বলেই নাকি বিজেপির এত বাড়বাড়ন্ত। হবেও বা - আমি পলিটিক্স বুঝিনা একথাটা অন্ততঃ ২৩শে মের পরে বুঝেছি - যদিও এটা বুঝিনি যে যে বাম ভোট বামেদেরই ২ টোর বেশী আসন দিতে পারেনি, তারা "শিফট" করে রামেদের ১৮টা কিভাবে দিল। সে আর বুঝবও না হয়তো কোনদিনই - কারণ আমরা তো উদ্ধত। আমরা ভুল থেকে শিখি না।

হ্যাঁ আমরা উদ্ধত - কিন্তু মোদির মত উদ্ধত হতে পারলে হয়তো আরেকটু বেশী ভোট পেয়ে প্রধানমন্ত্রী হয়ে যেতে পারতাম। মমতার মত উদ্ধত হতে পারলে মুখ্যমন্ত্রী। হ্যাঁ আমরা অত্যাচারী - কিন্তু এন আর সি বা কাকদ্বীপ করাতে পারলে হয়তো আমরাই মেজরিটি ভোট পেতাম। কাজেই উদ্ধত হওয়া বা অত্যাচারী হওয়া আমরা যথেষ্ট শিখতে পারিনি, এতে ভুল নেই।

এবার আসল কথায় আসা যাক। অন্ততঃ আজকের দিনে দাঁড়িয়ে পলিটিকালি কারেক্ট থাকার দায়বোধ করছি না খুব একটা তাই আমার মনের কথা খোলাখুলিই বলি, এই কথার দায় কোন পার্টির নয়, ব্যক্তিগত মত, আমি জানি আমার পার্টির অনেকেই প্রতিবাদে সোচ্চার হবেন এর বিরুদ্ধে। তারা স্বাগত।

রাম বামের গপ্পে পশ্চিমবঙ্গের একটা ব্যখ্যা না হয় পাওয়া গেল - সারা ভারতের গপ্পটা কি? সেখানেও বাম ভোট বিজেপি পায়নি নিশ্চই? তাহলে গল্পটা কী? গল্পটা হল এই যে ভারতের মেজরিটি হিন্দু কমিউনিটি প্যাথেটিক ইসলামোফোব - সাভারকারবাবুর মতই মেজরিটি মনে করে ইসলামই আমাদের প্রধাণ শত্রু। মোদী সরকার অর্থনীতির বারোটা বাজিয়েছে, বেকার সমস্যা স্বাধীনতার পরে সর্বোচ্চ, উচ্চশিক্ষাকে প্রায় ধ্বংস করে দিয়েছে, অসংগঠিত ক্ষেত্রের কোমর ভেঙে দিয়েছে, স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে বিক্রী করে দিয়েছে - এগুলো প্রায় কারোই অজানা এমন নয়। কিন্তু এগুলো এই ভোটে ফ্যাক্টরই হয়নি। ফ্যাক্টর কোনগুলো? মোদী মুসলমানদের শায়েস্তা করছে। মোদী সার্জিকাল স্ট্রাইক করে পাকিস্তানকে "জবাব" দিচ্ছে। সত্যিমিথ্যে বিচারের প্রয়োজন নেই [- এগুলো "করছে" বলে লোকে জেনেছে, তাতেই সাতখুন মাফ।

বিজেপিকে দুহাত উপুড় করে ভোট দিয়েছে ভারতের জনতা। নোটবন্দীর পরে, জি এস টি র পরে, রাফালের পরে, শবরিমালার পরে, আখলাকের পরে, আফরাজুলের পরে, গৌরী লঙ্কেশের পরে, দাভোলকারের পরে। এই ভোট হিন্দুত্বের পক্ষে, মুসলিম ঘৃণার পক্ষে ল্পরিষ্কার ম্যান্ডেট। ভারতবাসী বুঝিয়ে দিয়েছে সারা পৃথিবীকে যে তারা ঘৃণার রাজনীতিই চায়। এবং পশ্চিমবঙ্গেও এই ইস্যুতেই ভোট হয়েছে। হিন্দু মুসলমান মেরুকরণ হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গেও সাম্প্রদায়িক ভোট হয়েছে। অভিনন্দন, শাইনিং ইন্ডিয়া, শাইনিং ওয়েস্ট বেঙ্গল। আমি এই মেজরিটির ম্যান্ডেটকে মেনে নিচ্ছি না বলার তো উপায় নেই - কিন্তু আমি এই ম্যান্ডেট থেকে ব্যক্তিগতভাবে বিচ্ছিন্ন বোধ করছি, এটুকু অবশ্যই বলব।

3305 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3] [4] [5] [6] [7] [8] [9]   এই পাতায় আছে 146 -- 165
Avatar: এলেবেলে

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

পিটি, আপনি অন্তত জানেন যে আমি আপনার প্রজ্ঞাকে শ্রদ্ধা করি। সে কথা লিখিতভাবেই আছে গুরুর পাতায়। আলোচনাটা আমি আদৌ এই অ্যাঙ্গেল থেকে দেখছি না, পণ্ডিতমশাই-এর মুকুট পেতেও কদাচ আগ্রহী নই। আলোচনাটাকে এই জায়গায় নিয়ে গিয়েছিলেন অন্য এক বাম সমর্থক যাঁর বাচনভঙ্গী ওই 'বিধিসম্মত সতর্কীকরণ'-এ খানিক দেওয়া আছে। কাজেই কে আগে বললেন আর কে পরে সে নিয়ে কথা অর্থহীন। কিন্তু কথাগুলো একই থাকছে যদিও ২৩ তারিখের আগে কথাগুলো এমন ছিল না, বরং 'সৈকত' নাম্নী কেউ ৭% ভোট বামেরা পাওয়ায় তাদের সমর্থকদের 'ক্যালিবার' নিয়ে যথেষ্ট ঠাট্টাই করেছিলেন। এইভাবে ব্লক ভোটিং তারপরেও কেউ কেউ মেনে নিতে পারেননি। এবং এলেবেলে লিংক দিলে তার পাল্টা লিংক এসেছে 'লেবেলেএ' নিকে। আমিও এখানে মাঝে মাঝে উড়ে এসে জুড়ে বসি, এর বেশি কিছু নয়। তবে এই বসাবসিটা অনেকে ভালোভাবে নেন না, তার প্রভূত প্রমাণ আমার কাছে মজুত আছে। শেষে বলি, যদি কোনও ভাবে আপনাকে আঘাত দিয়ে থাকি তবে আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত ও ক্ষমাপ্রার্থী।
Avatar: S

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

আমি এই টইতেই এই ভোট বদল নিয়ে কিছু লিখেছি। বেশ সংখ্যা টংখ্যা দিয়েই বিশ্লেষণ করেছি। তা সে কারোর খুবেকটা পছন্দ হওয়ার কথা নয়। কারণ লোকে ঐ অর্ণব আর সঙ্গে সুমন টাইপের আলোচনায় এতো বেশি স্বচ্ছন্দ্য যে তথ্য দিয়ে নিজে থেকে কিছু বোঝার থেকে নিজের দলের দিকে ঝোল টানা লিন্ক দিয়ে চেঁচানোকেই আজকাল বিতর্ক ভাবতে শিখে গেছে।

এটা ঘটনা যে বামেদের আগের ইলেকশনে যারা ভোট দিয়েছিলেন, এবারে তাদের বেশ কিছু অংশ রামে ভোট দিয়েছেন। কিন্তু সেই ট্রেন্ড অনেক আগে থেকেই ঘটছিলো। আগেরবার যখন বামেদের ভোট কমলো আর বিজেপির ভোট বাড়লো, তখন কিন্তু তিনোপন্থীরা কোনও আপত্তি করেনি (বামেদের খিল্লি করা ছাড়া) কারণ বিরোধী ভোট ভাগ হওয়ার নিজেদের সুবিধে হচ্ছিলো। এইবারে সেই একই ট্রেন্ডে নিজেদের ঝামেলা হয়েছে। তিনোরা যদি মনে করে যে উনারা প্রচুর কারচুপির পরও ৪০-৪৫% ভোট পাবে, আর তিনো বিরোধী ভোট ভাগের দায়িত্ব বাকি দলগুলো নিয়ে উনাদেরকে সব সীটে জিতিয়ে দেবে, তাইলে উঁটপাখি।

এছাড়া ম্যাসিভ চেন্জ ইন ডেমোগ্রাফিক্সও একটা কারণ। এবং সেইটাই সবথেকে বড় চিন্তার। ৬০-৭০ দশকের কঙ্গ জমানার ভয়াবহতা যারা দেখেছেন এবং বাম জমানার প্রথমদিকের কাজকম্ম যারা দেখেছেন, ভোটের বুথে তাদের সংখ্যা কমছে। তার বদলে তিনোদের কুশাসন যারা দেখেছে, বামেদের শক্তিহীন অবস্থায় যারা দেখেছে, আর মোদিবন্দনা যাদের মোবাইলে ক্রমাগত এসে চলেছে তারাই ভবিষ্যতে ভোটার সংখ্যার একটা বড় অংশ হতে চলেছে।
Avatar: এলেবেলে

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

@S, আপনার তথ্যভিত্তিক বিশ্লেষণ দেখেছি। খুবই যথাযথ। আমার কাছে এই মুহূর্তে ৪২টা সিটের ২০১৪ এবং ২০১৯এর ভোট পার্সেন্টেজের হিসাব আছে। কিন্তু কে ওসব চায় বলুন? তাই দিইনি ইচ্ছে করেই।
Avatar: সৈকত

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

এলেবেলেকে। আপনি লিখেছেনঃ

"বরং 'সৈকত' নাম্নী কেউ ৭% ভোট বামেরা পাওয়ায় তাদের সমর্থকদের 'ক্যালিবার' নিয়ে যথেষ্ট ঠাট্টাই করেছিলেন।"

আপনি বাই এনি চান্স মনে করেননি তো যে এই 'সৈকত' নাম্নী কেউ, আপনাকে নিয়ে ঠাট্টা করেছিল ? বা আমি বাম সমর্থক ? দুটোর কোনটাই হলে খুবই দুঃখ পাব।

আর 'ক্যালিবার' তো লিখিনি, 'তালেবড়' লিখেছিলাম। ঃ-)


Avatar: dc

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

ইয়ে এলেবেলেকে একটা কথা বলতে পারি, এখানে কে আপনার বসাবসি নিয়ে কি ভাবলো সে নিয়ে খুব একটা ভাবিত হবেন না। আপনি আপনার মতো লিখে যান, কেউ ঠাট্টা করলে বা খোঁচালে ইগনোর করুন বা পাল্টা দিন। এক্দম বিন্দাস থাকুন ঃ-)
Avatar: এলেবেলে

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

@সৈকত, না আমি কখনই মনে করিনি যে আপনি আমাকে নিয়ে ঠাট্টা করেছিলেন বা আপনি বাম সমর্থক। অতটা ইমম্যাচিওর আমি নই। বরং এর উত্তরে আমি যখন 'সিপিএমের ২৭% ভোট দেওয়ার ব্যাপারটা যদি আলিমুদ্দিন থেকে কন্ট্রোলড না হয়ে থাকে তবে এতে সবাই এত অবাক হচ্ছেন কেন জানি না' লিখেছিলাম, আপনি যে আর সে নিয়ে কথা বাড়াননি সেটাও নজর করেছি। প্রসঙ্গত, গুরুতে 'সৈকত' নাম্নী লোকেরা যথেষ্ট পোলাইট ও রসিক বলেই আমি জানি। হ্যাঁ, 'তালেবড়' লিখেছিলেন কিন্তু ওই বাক্যে প্রয়োগ করতে গিয়ে একটু এদিক-ওদিক হয়ে গেছে আর কি।

পিটিকেও লিখেছিলাম, "পিটি, পোলারাইজেশন হবে অথচ 'প্রতিশোধস্পৃহা' থাকবে না? 'মুসলমান তোষণ' মাথায় এমন ঢুকে গেছে, সিন্ডিকেট এমন থাবা বসিয়েছে যে সবাই হেস্তনেস্ত চেয়েছেন। ঘোর তিনোরাও চাপা ছিল, বাইরে ভাব দেখিয়েছে তিনোর। দেওয়াল লিখেছে, খেটেছে কিন্তু বিক্ষুব্ধ হিন্দু তিনো ভোট দিয়েছে পদ্মে।" যদিও এর উত্তর উনি দেননি। দিতেই হবে সে দায় যদিও ওঁর নেই।

@dc, আমি বিন্দাসই থাকি। ২০১৭তে লিখেছিলাম, 'এ টই কারও পৈতৃক জমিদারি নয়। এখানে গুরুরা খেলবে, চণ্ডালরাও। তাদের ঘামের গন্ধে আপনাদের গা গোলালে তাদের বয়ে গেছে সে নিয়ে ভাবতে।' কাজেই এ জিনিস নতুন নয়। আমি আজকাল ইগনোর করি এবং এই কারণেই এই টইতে লিখছি অন্য টই ছেড়ে দিয়েছি বলে। এতে একটা উটকো ঝামেলা হয়, কিছু মানুষ হুট করে অন্য নিকে ঢুকে এমন দুমদাম মন্তব্য করে উধাও হয়ে যান যে তখন আর সেই থ্রেডে লিখতে ইচ্ছে করে না। খুব সম্প্রতি এই কারণে আমি আরেকটা ভালো টই থেকে নিজেকে সরিয়ে নিই।
Avatar: PT

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

"দেওয়াল লিখেছে, খেটেছে কিন্তু বিক্ষুব্ধ হিন্দু তিনো ভোট দিয়েছে পদ্মে।"

বেশ কিছুদিন আগে লিখেছিলাম-কোন টইতে মনে নেই। আপনার আগে না পরে তাও মনে নেই। মালদহের এক কলেজে গিয়ে পরিচয় হয় এক তিনো কর্মীর সঙ্গে যার দাদা স্থানীয় তিনো কাউন্সিলার। সন্ধ্যে বেলায় জল খেতে খেতে ছেলেটি জানাল যে তারা নিজের দলের "মুসলিম তোষণে" বীতশ্রদ্ধ। কি করে রাতে বাংলাদেশে গরু পাচার হয় লোড্শেডিং করে BSF-এর সহায়তায় সে সবও বলল।

আমি সেজন্যেই লিখেছিলাম যে সিপিএমের ভোট তিনোতে আর তিনোর ভোট বিজেপিতে যাওয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা আছে।

Avatar: dc

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

" ঘোর তিনোরাও চাপা ছিল, বাইরে ভাব দেখিয়েছে তিনোর। দেওয়াল লিখেছে, খেটেছে কিন্তু বিক্ষুব্ধ হিন্দু তিনো ভোট দিয়েছে পদ্মে"

এলেবেলে, এরকম তো হয়ে থাকতেই পারে। মানে সব ইলেকশানেই কিছু এদলের ভোটার ওদলে ভোট দেয়, কিছু বিক্ষুব্ধ থাকে নানান কারনে, তারা অন্য দলে ভোট দেয়। সেরকম ক্রস ভোটিং এবারও অবশ্যই হয়েছে। খোঁজ নিয়ে দেখুন, একজন দুজন তিনো পেয়ে যাবেন যারা সিপিএমকে ভোট দিয়েছে আর ভাইস ভার্সা, একজন দুজন বিজেপি পেয়ে যাবেন যারা তিনোকে ভোট দিয়েছে আর ভাইস ভার্সা, ইত্যাদি। তবে এবার বাম দলের ভোট কমলো ২৩% আর বিজেপির ভোট বাড়লো ২৩%, এ ভারি মজার ব্যপার। এরকমভাবে বাম সমর্থকেরা বিজেপিকে এন ব্লক ভোট ট্রান্সফার করবে, এরকমটা খুব একটা ভাবা যায়নি।
Avatar: saikat

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

যাক, বাঁচালেন। @এলেবেলে।
Avatar: Amit

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

ইয়ে মানে এই বামের ভোট রামে এই বুজিদের কান্নাকাটি কি ২০২১ অব্দি চলবে ? একটু দম বাঁচিয়ে রাখলে হতো না ? যা হালচাল, ততদিন পিসির সরকার টিকলে হয়। তখন তো আবার ২০২৬ অবধি টানতে হবে।

তবে এটা স্বীকার করি যখন এলেবেলে ভোটের প্রেডিকশন করেছিলেন কয়েক সপ্তাহ আগে, আমার ঠিক বিশ্বাস হয়নি। এখন তো দেখছি উনি এক্সিট পোল দের ঘোল খাওয়াতে পারেন। আপনাকে লাল সেলাম।
Avatar: Amit

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

আজকের কাগজে ফিরহাদ এর বয়ান :

"‘‘বড় জাহাজ যখন একটু টলমল করে, তখন সবার আগে ইঁদুররা সমুদ্রে ঝাঁপ দেয়। তার পর সেই জলেই ডুবে মরে। একটা রাজনৈতিক দল কয়েকটা আসন পেয়েছে। তাতে ঘাবড়ে গিয়ে যাঁরা পালিয়ে যাচ্ছেন বা চাপের মুখে যাঁরা মাথা নত করে পালিয়ে যাচ্ছেন, তাঁরা আদর্শের রাজনীতি করে না। আদর্শের রাজনীতি করলে আদর্শের জন্য জীবন উৎসর্গ করে দেওয়া যায়। আদর্শের রাজনীতি যাঁরা করবেন তাঁরা আন্দোলন করে তার বিরুদ্ধে লড়াই করবেন। "

ওফফ, কোনো কথা হবে না। জাস্ট অসাম। চোখে জল এসে যাচ্ছে পুরো।

দিদির দলবল আদর্শের জন্য লড়াই করেছে , কেমন কঙ্কালের বগলে চুল এর মতো লাগলেও এই জোশ টাকে অস্বীকার করতে পারি না।
Avatar: S

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

ফিরহাদ পড়েছে আসল মুশকিলে।
Avatar: রঞ্জন

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

ইংরিজি কাগজে দেখলাম 'সিংকিং শিপ' বলেছে।
ভাবলাম ফিরহাদও মেনে নিচ্ছে তিনো সিংকিং শিপ?
ব্রেশ, ব্রেশ!
একটা খবর শুনলাম--জ্যোতিপ্রিয় নাকি পদ্মে যাচ্ছে? পুরো সার্কাস। পয়সা উশুল।
Avatar: dc

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

তাও ভালো অমিতবাবু বগলে চুলের কথা ভেবেছেন।
Avatar: Amit

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

হায় হায় ডিসি, এসব বলবেন না। এই কদিন আগে পার্থ চাটুজ্জেকে জাস্ট মোটা বলার জন্য এ পাড়ার এক স্বঘোষিত মুরুব্বি কত কি শুনিয়ে দিলেন। কোনো খারাপ কথা একদম নয়, বাচ্ছারা আছে এখানে, শুনে ফেলবে।

কিন্তু পার্থ চাটুজ্জে সত্যি মোটা মাইরি, ওকে আর কি বলা যেতে পারে ভেবে পাচ্ছি না। :) :)
Avatar: S

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

লোকে পার্থ চ্যাটার্জির নাম দিয়েছিল ব্যর্থ চ্যাটার্জি। আর পাড়ার লোকে নাকি ওকে হুলো বলে ডাকে। ঃ))

দিদি বিজেপিতে কবে জয়েন করছেন, সেই নিয়ে কোনও খবর আছে?
Avatar: S

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

একি? আগে যে শুনেছিলাম দিল্লি যাবেন না। মোদির ক্যাবিনেটে পবর মুখ্যমন্ত্রীর পোস্টও আছে নাকি?
Avatar: @PT

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

সন্ধ্যে বেলায় জল খেতে খেতে ছেলেটি জানাল যে তারা নিজের দলের "মুসলিম তোষণে" বীতশ্রদ্ধ। কি করে রাতে বাংলাদেশে গরু পাচার হয় লোড্শেডিং করে BSF-এর সহায়তায় সে সবও বলল।

১. সনদেহপ্রবণ, তার্কিক পিটি 'তোষনের' (ঘেটোলর্ডদের ইমিউনিটি দেয়া ছাড়া) কোনো স্পেসিফিক উদাহরন জানতে চাইলেন? না সোনামুখ করে স্টেটমেন্টটা ফেসভ্যালুতে মেনে নিলেন?

২. 'গরু পাচার'টা কী জিনিস? বাংলাদেশে গরুর চাহিদা আছে, তো সেখানে যায়। বিনা পয়সায় তো যায় না, ওরা এসে কেড়ে নিয়েও যায় না। ভারতে বৈধভাবে গরু কাটার স্লটারহাউজ চালানো অনেক স্টেটে হয় নিষেধ নয় খুব কঠিন। বৈধভাবে রপ্তানী করতে দিন, ক্রিমিনাল এলিমেন্ট উঠে গিয়ে উইন উইন সিচুয়েশন তৈরি হবে।

এই গরুগুলো রাস্তায় ঘুরে বেড়ায় আর গরিব সব্জিওয়ালাদের আর্থিক সর্বনাশ করে বেড়ায়। তো মোদীর দল যাই বলুক আর ধনী মারওয়ারি-গুজরাতি ব্যবসাদার যত গোশালা বানাক এদের রাখাটা অসম্ভব (মানুষের যেখানে মাথা গোঁজার ঠাই নেই, গরুর জন্য, বানরের জন্য স্যাংচুয়ারি বানানো অকহতব্য অন্যায়)

আর বিএসএফও কী টিএমসি চালায় নাকি? দিদির হাত এত লম্বা?
Avatar: PT

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

গোটা উত্তর বঙ্গ গেরুয়া-গৌরবঙ্গেও গেরুয়ার ঢল নেমেছে। ছেলেটি বানিয়ে বলেনি বলেই তো মনে হচ্ছে।
সবজি খেয়ে বলে গরুপাচারকারীদের পক্ষে দাঁড়াচ্ছে কেউ-এও এক নতুন মতামত জানা গেল।
যতদিন বাঁচি ততদিন শিখি!!!!!

(গরু নিয়ে যাদের এত চিন্তা তারা অবিশ্যি তাপসী মালিকের ইন্সাফ নিয়ে বিশেষ উদ্বেগ দেখায় না।)
Avatar: PT

Re: ঔদ্ধত্যের খতিয়ান

#গরু সবজি খেয়ে ফেলে বলে

দিদির হাত লম্বা কি লোকাল দাদাদের হাত লম্বা তা কেউ জানে না। কিন্তু ধোঁয়া থাকলে যে আগুনও থাকে তা কে না জানে। একটু পড়াশুনো করে তারপরে তো লেখা যায়....

"The Delhi High Court has dismissed the plea of a former Border Security Force (BSF) jawan who was dismissed from service for allowing 15 cattle to be smuggled into the country from Bangladesh."

মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3] [4] [5] [6] [7] [8] [9]   এই পাতায় আছে 146 -- 165


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন