Muhammad Sadequzzaman Sharif RSS feed

Muhammad Sadequzzaman Sharifএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • পাহাড়ে শিক্ষার বাতিঘর
    পার্বত্য জেলা রাঙামাটির ঘাগড়ার দেবতাছড়ি গ্রামের কিশোরী সুমি তঞ্চঙ্গ্যা। দরিদ্র জুমচাষি মা-বাবার পঞ্চম সন্তান। অভাবের তাড়নায় অন্য ভাইবোনদের লেখাপড়া হয়নি। কিন্তু ব্যতিক্রম সুমি। লেখাপড়ায় তার প্রবল আগ্রহ। অগত্যা মা-বাবা তাকে বিদ্যালয়ে পাঠিয়েছেন। কোনো রকমে ...
  • বেঁচে আছি, আত্মহারা - জার্নাল, জুন ১৯
    ১এই জল, তুমি তাকে লাবণ্য দিয়েছ বলেবাণিজ্যপোত নিয়ে বেরোতেই হ'লযতক্ষণ না ডাঙা ফিকে হয়ে আসে।শুধু জল, শুধু জলের বিস্তার, ওঠা পড়া ঢেউসূর্যাস্তের পর সূর্যোদয়ের পর সূর্যাস্তমেঘ থেকে মাঝে মাঝে পাখিরা নেমে আসেকুমীরডাঙা খেলে, মাছেরা ঝাঁক বেঁধে চলে।চরাচর বলে কিছু ...
  • আনকথা যানকথা
    *****আনকথা যানকথা*****মোটরবাইক ঃ ইহা একটি দ্বিচক্রী স্থলযান। পেট্রল ডিজেল জাতীয় জীবাশ্ম জ্বালানির সাহায্যে চলে। বিভিন্ন আকারের ও বিভিন্ন ক্ষমতাসম্পন্ন মোটরবাইক আমরা দেখিতে পাই। কোন কোন বাইকের পাশে ক্যারিয়ার থাকে। শোলে বাইক আজকাল সেরকম দেখিতে পাওয়া যায়না। ...
  • সরকারী পরিষেবার উন্নতি না গরীবকে মেডিক্লেম বানিয়ে দেওয়া? কোনটা পথ?
    এন আর এস এর ঘটনাটি যে এতটা স্পর্শকাতর ইস্যু হয়ে উঠতে পারল এবং দেখিয়ে দিল হাসপাতালগুলির তথা স্বাস্থ্য পরিষেবার হতশ্রী দশা, নির্দিষ্ট ঘটনাটির পোস্টমর্টেম পেরিয়ে এবার সে নিয়ে নাগরিক সমাজে আলোচনা দরকার।কিন্তু এই আলোচনা কতটা হবে তাই নিয়ে সংশয় আছে। কারণ ...
  • জুনিয়র ডাক্তারদের ধর্মঘট ও সরকারের ভূমিকা
    হিংসার ঘটনা এই তো প্রথম নয়। ২০১৭ ফেব্রুয়ারীতে টাউনহল খাপ পঞ্চায়েত বসিয়ে বেসরকারি হাসপাতালের ম্যানেজমেন্ট কে তুলোধোনা করার পর রাজ্যে ১ নতুন ক্লিনিক্যাল এস্তব্লিশমেন্ট অ্যাক্ট চালু হয়েছিল। বলা হয়েছিল বেসরকারি হাসপাতাল গুলি র রোগী শোষণ বন্ধ করার জন্য, ...
  • ব্রুনাই দেশের গল্প
    আশেপাশের ভূতেরা – ব্রুনাই --------------------...
  • 'বখাটে'
    তেনারা বলতেই পারেন - কেন, মাও সে তুঙ যখন ঘোষণা করেছিল, শিক্ষিত লোকজনের দরকার নেই, লুম্পেন লোকজন দিয়েই বিপ্লব হবে, তখন দোষ ছিল না, আর 'বখাটে' ছেলেদের নিয়ে 'দলের কাজে' চাকরি দেওয়ার কথা উঠলে দোষ!... কিন্তু, সমস্যা হল লুম্পেনের ভরসায় 'বিপ্লব' সম্পন্ন করার পর ...
  • ডাক্তার...
    সবচেয়ে যে ভাল ছাত্র তাকেই অভিভাবকরা ডাক্তার বানাতে চায়। ছেলে বা মেয়ে মেধাবী বাবা মা স্বপ্ন দেখে বসে থাকল ডাক্তার বানানোর। ছেলে হয়ত প্রবল আগ্রহ নিয়ে বসে আছে ইঞ্জিনিয়ারিঙের কিন্তু বাবা মা জোর করে ডাক্তার বানিয়েছে এমন উদাহরণ খুঁজতে আমাকে বেশি দূর যেতে হবে ...
  • বাতাসে আবারও রেকর্ড সংখ্যক কার্বন-ডাই-অক্সাইড, কোন পথে এগোচ্ছে পৃথিবী?
    সাম্প্রতিক একটি প্রতিবেদন বলছে বায়ুতে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ আবারও বেড়ে গেছে। এই নিয়ে প্রতিবছর মে মাসে পরপর কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বৃদ্ধি পেতে পেতে বর্তমানে বায়ুতে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ রেকর্ড সংখ্যক। গত মাসে (মে-তে) কার্বন ডাই অক্সাইডের ...
  • ফেসবুক রোগী
    অবাক হয়ে আমার সামনে বসা ছেলেটার কান্ড দেখছি। এই সময়ে তার আমার পাশে বসে আমার ঘোমটা তোলার কথা। তার বদলে সে ল্যাপটপের সামনে গিয়ে বসেছে।লজ্জা ভেঙ্গে বলেই ফেললাম, আপনি কি করছেন?সে উৎকণ্ঠার সাথে জবাব দিলো, দাঁড়াও দাঁড়াও! 'ম্যারিড' স্টাটাস‌ই তো এখনো দেইনি। ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনঃ আদার ব্যাপারির জাহাজের খবর নেওয়া...

Muhammad Sadequzzaman Sharif

ভারতের নির্বাচনে কে জিতল তা নিয়ে আমরা বাংলাদেশিরা খুব একটা মাথা না ঘামালেও পারি। আমাদের তেমন কিসছু আসে যায় না আসলে। মোদি সরকারের সাথে বাংলাদেশ সরকারের সম্পর্ক বেশ উষ্ণ, অন্য দিকে কংগ্রেস বহু পুরানা বন্ধু আমাদের। কাজেই আমাদের অত চিন্তা না করলেও সমস্যা নেই খুব একটা। তবে যেহেতু প্রতিবেশী রাষ্ট্রের নির্বাচন, তিন দিক দিয়ে পরিবেষ্টিত আমরা যে দেশ দিয়ে তার নির্বাচন নিয়ে কেউ যদি একটু মাথা ঘামায়ও খুব একটা দোষ দেওয়া যাবে না মনে হয়।

এবার আমি একটু মাথা ঘামাই। বিজেপিকে সমর্থন দেওয়া কোন সুস্থ মানুষের পক্ষে সম্ভব কী? এমন কী উন্নয়নের পাহাড় করে ফেললেও? উন্নয়ন দিয়ে উপকৃত হবে হয়ত ভারতের জনগণ কিন্তু আমরা যারা একটু দূর থেকে দেখছি তারা উন্নয়নের সাথে বিজেপির অন্য যে চেহারা দেখছি তা নিঃসন্দেহে ভীতিকর। ধর্মীয় উন্মাদনা গত পাঁচ বছরে ভারতের অবস্থা কোথায় গিয়ে পৌঁছেছে তা অকল্পনীয়। মানুষকে গরুর মাংস খাওয়ার জন্য মেরে ফেলা হয়েছে এই বিংশশতাব্দীতে, ভাবা যায় কোথায় দাঁড়িয়ে সমাজ? ধর্মীয় উন্মাদনা জিয়ায়ে রাখা, অল্প আঁচে গরম করে রাখা পরিস্থিতি, এই সব অবস্থা কোনদিনই ভাল কিছু, শুভ কিছু বয়ে আনবে না। আজকে পশ্চিমবঙ্গবাসী যে বিজেপিকে জায়গা করে দিল, এর মূল্য কী দিয়ে চুকাতে হয় তাই দেখার বিষয়। নির্বাচনের সময় শুধু বিদ্যাসাগর মাটিতে গড়াগড়ি খেয়েছে, তৈরি থাকা দরকার পশ্চিমবঙ্গবাসীর আর কে কে গড়াগড়ি খায় সামনে তা দেখার জন্য। বিজেপি এমন একটা দল, পুরো মেয়াদ সুস্থ স্বাভাবিক থাকলেও মানুষকে ‘কখন জানি কী হয়’ এই চাপ নিয়ে চলতে হবে! মোটামুটি ডিনামাইটের ওপরে ঘর সংসার করার মত পরিস্থিতি। উগ্রবাদীদের কারনে যারা প্রাণ হারিয়েছে তারা যে কবরের মাঝেও শিউড়ে উঠবে না তা কে বলতে পারছে? এই মেয়াদের আরও কতজনের রক্ত ঝরবে শুধু মাত্র ধর্মীয় উন্মাদনায় তার কোন হিসেব থাকবে কী? রক্তের গঙ্গা বইয়ে দেওয়াওর ইতিহাস তো এই দলের আছেই। ম্যাজিক মোদীর হাতই কতটুকু পরিষ্কার? ইতিহাস তো কথা কয়!

আপাত বাংলাদেশের মূল আশঙ্কার জায়গা হচ্ছে আসামের জনগণনা। মোদি সরকার এবার কোন পথে হাঁটে তা গভীর ভাবে দেখার আছে আমাদের। ৪০ লাখ মানুষকে হুট করে ঠিকানা বিহীন করে দেওয়ার পরবর্তী পদক্ষেপ আমাদের জন্য শঙ্কট তৈরি করতে পারে। খুব ভাল সম্পর্ক দিয়ে পানি খাব না আমরা যদি পুশ ব্যাক করতে চায় বিজেপির উগ্রবাদীরা। বাংলাদেশের জন্য মহা দুশ্চিন্তার কারন হতে পারে সামনের বিজেপির মেয়াদ শুধু মাত্র এই ইস্যুতে।

লাভের লাভ হতে পারে তিস্তা পানি চুক্তির বিষয়ে আমরা এবার হয়ত ভাল কিছু আশা করতে পারব।মোদি সরকার গত মেয়াদে যে ভাবে ছিটমহল সমস্যার সমাধানে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছিল তাতে আমরা আশা করতেই পারি এবারও ভাল কিছু থাকবে আমাদের জন্য। তিস্তা পানি চুক্তি, সীমান্তে প্রাণঘাতী অস্ত্র ব্যবহার না করা, অন্যান্য যে পানি চুক্তি গুলো আছে তার সঠিক বাস্তবায়ন, রোহিঙ্গা সমস্যায় আমাদের পাসে থাকাসহ অন্য সব নানা বিষয়ে আমাদের প্রত্যাশা থাকবে মোদি সরকার আমাদের পাসে থাকবে।

ভারতবাসীদের জন্য শুভ কামনা। ভোট দিয়ে এমন দলকে ক্ষমতায় এনেছেন আপনারা যে এবার আর যাই হোক বিজ্ঞানের অগ্র যাত্রা আর কেউ রুখতে পারবে না। ভারতের বিজ্ঞান চর্চা আর বিজ্ঞানের শৈন শৈন উন্নতি দেখতে পাচ্ছি দিব্য দৃষ্টিতে। গোমাতার জয় জয়কার অবশ্যম্ভাবী হলেও মাতার সন্তানের বেলায় কিছুই পাকা বলা যাচ্ছে না…

185 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন



আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন