Muhammad Sadequzzaman Sharif RSS feed

Muhammad Sadequzzaman Sharifএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • মানবিক
    এনআরএস-এর ঘটনা কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। এরকম ঘটনা বারেবারেই ঘটে চলেছে এবং ভবিষ্যতে ঘটতে চলেছে আরও। ঘটনাটি সমর্থনযোগ্য নয় অথবা ঘৃণ্য অথবা পাশবিক (আয়রনি); এই জাতীয় কোনো মন্তব্য করার জন্য এই লেখাটা লিখছি না। বরং অন্য কতগুলো কথা বলতে চাই। আমার মনে হয় এই ঘটনার ...
  • ডিগ্রি সংস্কৃতি
    মমতার সবৈতনিক শিক্ষানবিস শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগের ঘোষণায় চারপাশে প্রবল হইচই দেখছি। বিশেষ গাদা গাদা স্কুলে হাজার হাজার শিক্ষক পদ শূন্য, সেখানে শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগ সংক্রান্ত ব্যাপারে কিছুই না করে এই ঘোষণাকে সস্তায় কাজ করিয়ে নেওয়ার তাল মনে হইয়া খুবই ...
  • বাংলাদেশের শিক্ষিত নারী
    দেশে কিছু মানুষ রয়েছে যারা নারী কে সব সময় বিবেচনা করে নারীর বিয়ে দিয়ে। মানে তাদের কাছে বিয়ে হচ্ছে একটা বাটখারা যা দিয়ে নারী কে সহজে পরিমাপ করে তারা। নারীর গায়ের রং কালো, বিয়ে দিতে সমস্যা হবে। নারী ক্লাস নাইন টেনে পড়ে? বিয়ের বয়স হয়ে গেছে। উচ্চ মাধ্যমিকে ...
  • #মারখা_মেমারিজ (পর্ব ৫)
    স্কিউ – মারখা (০৫.০৯.২০১৮)--------...
  • গন্ডোলার গান
    সে অনেককাল আগের কথা। আমার তখন ছাত্রাবস্থা। রিসার্চ অ্যাসিস্ট্যান্টশিপের টাকার ভরসায় ইটালি বেড়াতে গেছি। যেতে চেয়েছিলাম অস্ট্রিয়া, সুইৎজারল্যান্ড, স্ট্রাসবুর্গ। কারণ তখন সবে ওয়েস্টার্ন ক্লাসিকাল শুনতে শুরু করেছি। মোৎজার্টে বুঁদ হয়ে আছি। কিন্তু রিসার্চ ...
  • শেকড় সংবাদ : চিম্বুকের পাহাড়ে কঠিন ম্রো জীবন
    বাংলাদেশের পার্বত্য জেলা বান্দরবানের চিম্বুক পাহাড়ে নিরাপত্তা বাহিনীর ভূমি অধিগ্রহণের ফলে উচ্ছেদ হওয়া প্রায় ৭৫০টি ম্রো আদিবাসী পাহাড়ি পরিবার হারিয়েছে অরণ্যঘেরা স্বাধীন জনপদ। ছবির মতো অনিন্দ্যসুন্দর পাহাড়ি গ্রাম, জুম চাষের (পাহাড়ের ঢালে বিশেষ চাষাবাদ) জমি, ...
  • নরেন হাঁসদার স্কুল।
    ছাটের বেড়ার ওপারে প্রশস্ত প্রাঙ্গণ। সেমুখো হতেই এক শ্যামাঙ্গী বুকের ওপর দু হাতের আঙুল ছোঁয়ায় --জোহার। মানে সাঁওতালিতে নমস্কার বা অভ্যর্থনা। তার পিছনে বারো থেকে চার বছরের ল্যান্ডাবাচ্চা। বসতে না বসতেই চাপাকলের শব্দ। কাচের গ্লাসে জল নিয়ে এক শিশু, --দিদি... ...
  • কীটদষ্ট
    কীটদষ্টএকটু একটু করে বিয়ারের মাথা ভাঙা বোতল টা আমি সুনয়নার যোনীর ভিতরে ঢুকিয়ে দিচ্ছিলাম আর ওর চোখ বিস্ফারিত হয়ে ফেটে পড়তে চাইছিলো। মুখে ওরই ছেঁড়া প্যাডেড ডিজাইনার ব্রা'টা ঢোকানো তাই চিৎকার করতে পারছে না। কাটা মুরগীর মত ছটফট করছে, কিন্তু হাত পা কষে বাঁধা। ...
  • Ahmed Shafi Strikes Again!
    কয়দিন আগে শেখ হাসিনা কে কাওমি জননী উপাধি দিলেন শফি হুজুর। দাওরায় হাদিস কে মাস্টার্সের সমমর্যাদা দেওয়ায় এই উপাধি দেন হুজুর। আজকে হুজুর উল্টা সুরে গান ধরেছেন। মেয়েদের ক্লাস ফোর ফাইভের ওপরে পড়তে দেওয়া যাবে না বলে আবদার করেছেন তিনি। তাহলে যে কাওমি মাদ্রাসা ...
  • আলতামিরা
    ঝরনার ধারে ঘর আবছা স্বয়ম্বর ফেলেই এখানে আসা। বিষাদের যতো পাখিচোর কুঠুরিতে রাখিছিঁড়ে ফেলে দিই ভাষা৷ অরণ্যে আছে সাপ গিলে খায় সংলাপ হাওয়াতে ছড়ায় ধুলো। কুটিরে রেখেছি বই এবার তো পড়বোই আলোর কবিতাগুলো।শুঁড়িপথ ধরে হাঁটিফার্নে ঢেকেছে মাটিকুহকী লতার জাল ফিরে আসে ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

Green Book - just a masterpiece

Muhammad Sadequzzaman Sharif

Tony Lip Vallelonga একজন নাইট ক্লাবের বাউন্সার।তিনি একজন অল্পশিক্ষিত ইটালিয়ান আমেরিকান।তার চরিত্রের মধ্যে অন্যতম বৈশিষ্ট্য হচ্ছে তিনি এক রোখা, এগুয়ে, জেদি, দুনিয়ায় চলার তার সম্পূর্ণ নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গি আছে, প্রচুর খেতে পারেন, সমস্যা সমাধানের অদ্ভুত দক্ষতা আছে, বাস্তববাদী, কালোদের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গি ভাল না এবং নীতি ঠিক রেখে টাকার জন্য সব কিছুই করতে রাজি। নাইট ক্লাব সাময়িক ভাবে বন্ধের জন্য চাকরি খুঁজছেন তিনি। লোভনীয় অফার সহ চাকরি পেলেন D. Don Shirley নামের একজন পিয়ানিস্টের গাড়ি চালক এবং দেহরক্ষীর কাজ। পিয়ানিস্ট আমেরিকার দক্ষিণ দিক ঘুরে ঘুরে কনসার্ট করবেন আর টনি লিপের দায়িত্ব হচ্ছে তাকে সমস্ত জায়গায় নিরাপদে সময়মত পৌঁছে দেওয়া। সমস্যা হচ্ছে Don Shirley একজন নিগ্রো, আফ্রিকান আমেরিকান, কিন্তু যেহেতু টাকা ভাল দিবে আর টনি টাকার জন্য নীতি ঠিক রেখে সব করতে পারে তাই সে কালদের পছন্দ না করলেও রাজি হয়ে যায় এই চাকরির জন্য। নির্ধারিত দিনে যাত্রা শুরু করার সময় টনির হাতে ধরিয়ে দেওয়া হয় এক অদ্ভুত বই, Green Book, যাতে দেওয়া আছে কালোদের জন্য নিরাপদ হোটেল গুলার নাম, কোথায় কোথায় কোন প্রকার বাধা ছাড়া থাকতে পারবে তার পরিচয়। গ্রিন বুক সাথে নিয়ে শুরু হয় তাদের যাত্রা। সময়টা হচ্ছে ১৯৬২ সাল।

Don Shirley কে শুধু পিয়ানিস্ট বললে কম বলা হয়। তিনি সেই সময়ের খুব বিখ্যাত পিয়ানিস্টদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন। তিনি জানতেন কালো বলে তাকে এই পুরো সফরে নানা ঝামেলা পোহাতে হবে কিন্তু তবুও তিনি এই পথেই যেতে চেয়েছেন। সফল মানুষ হওয়ার পরেও নিজের কালো পরিচয় নিয়ে তিনি অবলীলায় রাজি ছিলেন কালোদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ এই সব এলাকায় কনসার্ট করতে। দুই মাসের এই সফর উনার নিজের জায়গা থেকে বর্ণবাদের বিরুদ্ধে একটা প্রতিবাদ বলা যেতে পারে।

গ্রিন বুক নিয়ে একটু বলা প্রয়োজন এখানে। ১৯৩৬ সালে Victor Hugo Green নামের একজন এই ভ্রমণ গাইড প্রকাশ করে যা মূলত কালোদের জন্য। গ্রিন বুকের মূল নাম হচ্ছে The Negro Motorist Green Book, যেখানে নিজেদের গাড়ি নিয়ে যারা ঘুরতে বের হয় তাদের জন্য নিরাপদে কোথায় রাত কাটাতে পারবে তার নাম পরিচয় সব দেওয়া আছে। তিনি কালোদের প্রতিনিয়ত রাস্তা ঘাটে বিপদে পড়তে দেখে এই বই প্রকাশের সিদ্ধান্ত নেন। ১৯৩৬ থেকে প্রকাশ হয়ে এই বই ১৯৬৬ সাল পর্যন্ত প্রকাশ হয়েছে। তথাকথিত সভ্য সাদারা কী দারুণ সভ্যই না ছিল সে সময়!

এই রকম অদ্ভুত সুন্দর কিন্তু সত্য গল্প নিয়ে তৈরি Green Book সিনেমাটি। সিনেমার সংলাপ থেকে শুরু করে অভিনয়, সিনেমাটোগ্রাফি আর সঙ্গিত এক কথায় দুর্দান্ত। গল্পের প্রাণ হচ্ছে দুই প্রধান চরিত্র। দুইজন একে অপরের বিপরীত মেরুর হয়েও আস্তে আস্তে তাদের মাঝে বন্ধুতা তৈরি হওয়া এক কথায় অসাধারণ। তবে সব কিছু ছাপিয়ে আসলে গল্পটা গ্রিন বুকের। যেখানে কালোদের পদে পদে অপমানের, কষ্টের কথা ফুটে উঠে এসেছে। D. Don Shirley কোন একটা কনসার্টে প্রবেশ করার আগে তাকে দেওয়া হয় উষ্ণ সম্বর্ধনা, ফুলেল শুভেচ্ছা অথচ কনসার্ট চলাকালীন সময়েই তিনি যখন অল্প বিরতি নিয়ে বাথরুমে যেতে চাইলেন তখন তাকে দেখিয়ে দেওয়া হল বাড়ির বাহিরে, কালোদের জন্য আলাদা করে বানানো টয়লেট। তার পিয়ানো শুনবে অথচ তাকে হোটেলের নিজস্ব রেস্টুরেন্টে খেতে দিচ্ছে না, খাওয়ার অনুমতি নাই। কেউ কেউ বিশ্বাসই করছে না কালো একজন মানুষ সাদা গাড়ি চালক নিয়ে ঘুরছে, কোন কারন ছাড়াই তাই পুলিশ দিচ্ছে নানা রকমের ঝামেলা। বর্ণবৈষম্য নিয়ে এমন ডার্ক কমেডি স্টাইলে আর কোন সিনেমা তৈরি হয়েছে কিনা আমার জানা নেই।

গ্রিন বুকের আগে পরিচালক Peter Farrelly তৈরি করেছিলেন কমেডি ছবি Dumb and Dumber, কিন্তু এবার তিনি নিজেকে নিয়ে গেছেন অন্য উচ্চতায়। গ্রিন বুক ইতিমধ্যে গোল্ডেন গ্লোব জিতে নিয়েছেন। এবার চোখ অস্কারে। ছবির দুই প্রধান চরিত্র D. Don Shirley ও Tony Lip চরিত্রে যথাক্রমে দুর্দান্ত অভিনয় করেছেন মাহারশালা আলী ও ভিগো মর্টেনসন। দুই জনই অস্কার মনোনয়ন প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেছেন। মাহারশালা আলী অনবদ্য ছিলেন পুরো সিনেমা জুড়ে। পিয়ানো বাজানর সময় তিনি এত দুর্দান্ত ছিলেন যে বোঝা মুশকিল ছিল যে তিনি অভিনয় করছেন, মনে হচ্ছিল আসলেই তিনি মাস্টার কোন পিয়ানো বাদক। অন্য দিকে ভিগো মর্টেনসন টনি চরিত্র করতে গিয়ে পুরোপুরি হারিয়ে গেছেন টনির মাঝে। এত চমৎকার অভিনয় করেছেন বিশেষ করে খাওয়ার দৃশ্য গুলাতে তিনি জাস্ট অসাধারণ ছিলেন।

আইএমডিবি রেটিং এ ৮.৩/১০ পাওয়া এই ছবিটা সিনেমা প্রেমীদের জন্য পরম পাওয়া একটা সিনেমা, না দেখাটা রীতিমত অন্যায় হবে।কিছু সিনেমা থাকে যা দেখার পর তৃপ্তিতে মন ভরে উঠে, গ্রিন বুক তেমনই একটা সিনেমা।




199 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: Kihobejene

Re: Green Book - just a masterpiece

Thanks for the review. Dekha hoi ni ekhono cinema ta.

Roma dekhlen? Kemon laaglo?
Avatar: Muhammad Sadequzzaman Sharif

Re: Green Book - just a masterpiece

রোমা ভাল লেগেছে। বিদেশি ভাষা বিভাগে সেরা ছবির পুরস্কার প্রায় নিশ্চিত।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন