Muhammad Sadequzzaman Sharif RSS feed

Muhammad Sadequzzaman Sharifএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • দুই বাংলায় এক সাথে নববর্ষ পালন করা প্রসঙ্গে তসলিমা নাসরিনের ফেসবুক স্ট্যাটাসের প্রতিক্রিয়া :
    গত ১৪ এপ্রিল তসলিমা নাসরিন তার ফেসবুক পেজে নববর্ষ পালন নিয়ে একটা পোস্ট লিখেছেন। উনার দেশের বাইরে থাকা নিয়ে আহাজারি আছে, থাকাটা খুব স্বাভাবিক। দেশে আসতে না পারার তীব্র বেদনা অনুভব করা যায় উনার প্রায় লেখাই। উনার এই কষ্ট নিয়ে কিছু বলার নাই। আশাবাদ করতে পারি ...
  • জোড়াসাঁকো জংশন ও জেনএক্স রকেটপ্যাড-৫
    বিংশ শতকের শুরুতে সম্ভ্রান্ত বাঙালির অন্দরমহলে আরো অনেক কিছুর সঙ্গে রবীন্দ্রসঙ্গীতকে কেন্দ্র করে একটা অন্য ধরনের সামাজিক মন্থনও শুরু হয়েছিলো । অমলা দাশ ছিলেন বিখ্যাত দুর্গামোহন দাশের ভাই ভুবনমোহন দাশের কন্যা ও দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জনের ভগ্নী। এছাড়া তিনি ...
  • নোতরদাম ক্যাথিড্রালে অগ্নিকাণ্ড, সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি, এর স্থাপত্য ও সংস্কারের কিছু ইতিহাস এবং একটি দার্শনিক প্রশ্ন
    https://cdn.iflscien...
  • ফেক আইডি
    ‍ছয়মাস ফেসবুকে প্রেম করার পর আজ প্রথম দেখা করতে এসেছি। রেস্টুরেন্টে বসে বসে পানি খাচ্ছি আর পাশের মেয়েটার দিকে আড়চোখে তাকাচ্ছি। আমার মতো সেও কারোর জন্য অপেক্ষা করছে। আমার নীল ড্রেস পরে আসার কথা ছিল। আমি একটা নীল রঙের কামিজ পরে এসেছি। ছেলেটার সাদা শার্ট ...
  • মৃত্যুঞ্জয়ের মৃত্যু
    মৃত্যুঞ্জয় চক্রবর্ত্তী সারা জীবনভর একদণ্ড সুস্থির ছিল না - কেবলই খুরপি কিনিতেছে! তাহার বদ্ধমূল বিশ্বাস ছিল তাহার পিতামহ, প্রপিতামহ, তস্য পিতা, তস্য পিতা, তস্য পিতা কেহ না কেহ তাহার ভিটামাটির কোন এক স্থানে বহু-বহু বৎসর পূর্বে অনেকটা গুপ্তধন পুঁতিয়া রাখিয়া ...
  • ছাতুমাখা, সাদা টেপজামা আর একলা বৈশাখ
    চৈত্র সংক্রান্তি মানেই যেমন ছাতুমাখা ছিল, তেমনি পয়লা বৈশাখ মানেই ছিল সাদা নতুন টেপজামা, সুতো দিয়ে পাখি, ফুল, দুই একটা পাতা বা ঘাস সেলাই করা। চড়কতলায় মেলা বসত চৈত্র সংক্রান্তির দিন থেকে, কিন্তু একে তো সে বাড়ী থেকে অনেক দূর, চৈত্র বৈশাখের গরমে অতদূরে কে ...
  • নববর্ষের এলোমেলো লেখা আর আগরতলার গল্প
    খুব গরম। দুপুরের ঘুম ডাকাতে নিয়ে গেছে। মনে পড়লো গতকাল অর্থাত্ হারবিষুর দিনে তেতো খাওয়া। আগের দিন বিকেলে আমার বিশালাক্ষী, চোপায় খোপায় সমান ঠাকুরমা আমাকে ভীষ্ম আর হারুকে নিয়ে সরজমিন তদন্তে নেমেছেন,--- গাঙ্গের তলে (চৈত্রের গরমে জল নেমে যাওয়া নদীর ...
  • পয়লা বৈশাখ : একটি অনার্য অডিসি
    প্রশ্নটা উঠতে দেখেছিলুম যখন বাংলা ১৪০০ সন এসে দুয়ারে কড়া নাড়ছিল। সিকি শতাব্দী আগে। তখন আমরা মত্ত ছিলুম কুসুমচয়নে। নব নব অনুষ্ঠান চারিদিকে। সঙ্গীত-সাহিত্য-ইতিহা...
  • শঙ্খ নদী: একটি সংক্ষিপ্ত পর্যালোচনা...
    এক.পাহাড়, অরণ্য, ঝর্ণা ধারায় নয়নাভিরাম, পার্বত্য চট্টগ্রামের আয়তন ৫,০৯৩ বর্গমাইল। বাংলাদেশের এক কোনে দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান– এই তিন জেলা নিয়ে গড়ে ওঠা পার্বত্যঞ্চালে পাহাড়ি-বাঙালি মিলিয়ে আনুমানিক প্রায় ১৫ লাখ লোক বাস ...
  • করবেটের ইন্ডিয়া
    ছেলেবেলার কোন ইচ্ছে বড়বেলায় পূর্ণ হলে অনেক সময়েই তার স্বাদ খুব মুখরোচক হয়না। ছেলেবেলা থেকে ক্যাভিয়ারের নাম শুনে বড়বেলায় বেড়ালের ভাগ্যে শিকে ছিঁড়ে যখন খেতে পেলাম, তখন মনে হল, "এ বাবা, এই ক্যাভিয়ার!" সবারই বোধহয় এরকম কোন-না-কোন অভিজ্ঞতা আছে। আকাঙ্খা আর ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

গুজবের সংসার

Muhammad Sadequzzaman Sharif

গুজব নিয়ে সেই মজা নেওয়া শুরু হয়ে গেছে। কিন্তু চারটা লাশ আর চারজন ধর্ষণের গুজব কি গুজব ছিল না? এত বড় একটা মিথ্যাচার, যার কারনে কত কি হয়ে যেতে পারত, এই জনপথের ইতিহাস পরিবর্তন হয়ে যেতে পারত অথচ রসিকতার ছলে এই মিথ্যাচার কে হালকা করে দেওয়া হল। ছাত্রলীগ যে তাণ্ডব চালিয়েছে তা অস্বীকার করার কোন রাস্তা আছে বা সরকার যে তরীকায় অগ্রসর হল শেষের দিকে তা কোন মতেই কাম্য নয় কারো কাছে। কিন্তু লাশের গুজব ভিন্ন জিনিস। যখন লাশের সাথে তুলনা হবে লাঠির বাড়ি তাহলে তখন লাঠি পেটা অনেক সহনীয় মনে হবে। না চাইতেও একটা স্বস্তির নিঃশ্বাস বের হবে যে, যাক কেউ মারা যায়নি অন্তত!
এই আন্দোলনের শুরুতেও কিন্তু একটা গুজব ছড়ান হচ্ছিল। কিন্তু ঠিক হালে পানি পায়নি বলে ডাল পালা মেলতে পারেনি গুজবটা। সেটা হচ্ছে দুর্ঘটনায় মারা গেছে দুই জন না সাত জন!! অনেক অনেকবার করে এইটা খাওয়ানোর চেষ্টা করা হয়েছে। ওই পাঁচ জনের পরিবার যেমন এখন পর্যন্ত দাবি করেনি যে তাদের সন্তান মারা গেছে তেমনই জিগাতলার ঘটনার পরেও এখন পর্যন্ত কোন পরিবার এমন দাবি করেনি। বরং আমার যেটা হয়েছে আন্দোলনের নেশায় তাদের সহপাঠীরা তাদের আহত সঙ্গীদের কথা ভুলেই গেছিল হয়ত। যার কারনে তারা কেমন আছে, কি অবস্থা তার আর কোন খোঁজ পাওয়া যায় নি। অথচ তাদের দাবির ভিতরে এটা এক নাম্বারে রেখে তাদের চিকিৎসা সুব্যবস্থা তারা করতে পারত। যে জাফর ইকবাল কে নিয়ে সেই মজা নিলো মহামান্যরা, সম্ভবত একমাত্র তাকেই দেখলাম আহতদের খোঁজ নিতে, তাদের চিকিৎসার ব্যাপারে উদ্বেগ প্রকাশ করতে। অন্যরা ব্যস্ত ছিলেন আন্দোলন থেকে কে কি হাতিয়ে নিতে পারে তা নিয়ে।

এই আন্দোলনের সক্রিয়, প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সমর্থক সকলের একটা সোজা অভিযোগ ছিল সরকার মিডিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করেছে। মিডিয়া ব্ল্যাক আউট করে রাখার ফলে অনেক খবর প্রকাশ পায়নি। আবার এরাই বিপুল বিক্রমে প্রথম আলোকে ধন্যবাদ জানিয়েছে যে তারা সাহস করে সঠিক সংবাদ প্রকাশ করেছে। সরকার যদি চায় তাহলে প্রথম আলোর ঘাড়ে কয় মাথা যে তারা সংবাদ প্রকাশ করে? অন্য মিডিয়া ভয়ে হোক বা তেলের জন্য হোক যে কারনেই হোক যদি সংবাদ প্রকাশ না করে( আমি ইন্ডিপেন্ডেন্ট কেও দেখছি যা সত্য তা প্রকাশ করতে, জিগাতলায় সাংবাদিকদের ক্যামেরা ভেঙ্গে দিয়েছিল, ছাত্রলীগের বাধার কারনে তারা লাইভ প্রচার করতে পারেনি এমন কথাও সরাসরি টিভিতে বলেছে) তাতে সরকার সংবাদ মাধ্যম নিয়ন্ত্রণ করছে এমন প্রমাণ হয় কি?

গুজব আওয়ামীলীগ কে খায় বেশি। ছাত্রলীগ পুলিশের তাণ্ডবের জন্যই হোক বা আওয়ামীলীগের দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকার ফলে তাদের প্রতি বিতৃষ্ণা থেকেই হোক চারটা লাশ আর চারজন মেয়ের ধর্ষণের গুজব থেকে সম্ভবত আর রেহাই মিলবে না। যেমন আজো দেশের আনাচে কানাচে অগুনতি মানুষ বিশ্বাস করে সেইদিন রাতে শাপলা চত্বরে হাজার হাজার হেফাজত কর্মী মেরে ফেলেছিল সরকার!! বলাই বাহুল্য এই সব যারা বিশ্বাস করে তারা কোন দিন তা যুক্তি দিয়ে বিশ্বাস করে না, তারা জাস্ট ইমান আনে, তারপর বাকি সব ভুলে যায়।

173 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: গুজবের সংসার

তুমি গুজব, আমি গুজব, সব গুজব; ছাত্র পেটানো চার পুলিশ কর্মকর্তার পদোন্নতি, ইহা কিন্তু সত্যি!

https://www.thedailystar.net/news/country/4-top-police-officials-promo
ted-supernumerary-grade-1-posts-1616911?amp&__twitter_impression=true


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন