Debasis Bhattacharya RSS feed

Debasis Bhattacharyaএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • এতো ঘৃণা কোথা থেকে আসে?
    কাল উমর খালিদের ঘটনার পর টুইটারে ঢুকেছিলাম, বোধকরি অন্য কিছু কাজে ... টাইমলাইনে কারুর একটা টুইট চোখে পড়লো, সাদামাটা বক্তব্য, "ভয় পেয়ো না, আমরা তোমার পাশে আছি" - গোছের, সেটা খুললাম আর চোখে পড়লো তলায় শয়ে শয়ে কমেন্ট, না সমবেদনা নয়, আশ্বাস নয়, বরং উৎকট, ...
  • সারে জঁহা সে আচ্ছা
    আচ্ছা স্যার, আপনি মালয়েশিয়া বা বোর্ণিওর জঙ্গল দেখেছেন? অথবা অ্যামাজনের জঙ্গল? নিজের চোখে না দেখলেও , নিদেনপক্ষে ন্যাশনাল জিওগ্রাফিকের পাতায়? একজন বনগাঁর লোকের হাতে যখন সে ম্যাগাজিন পৌঁছে যেত, তখন আপনি তো স্যার কলকাতার ছেলে - হাত বাড়ালেই পেয়ে যেতেন ...
  • ট্রেন লেট্ আছে!
    আমরা প্রচন্ড বুদ্ধিমান। গত কয়েকদিনে আমরা বুঝে গেছি যে ভারতবর্ষ দেশটা আসলে একটা ট্রেনের মতো, যে ট্রেনে একবার উদ্বাস্তুগুলোকে সিটে বসতে দিলে শেষমেশ নিজেদেরই সিট জুটবে না। নিচে নেমে বসতে হবে তারপর। কারণ সিট শেষ পর্যন্ত হাতেগোনা ! দেশ ব্যাপারটা এতটাই সোজা। ...
  • একটা নতুন গান
    আসমানী জহরত (The 0ne Rupee Film Project)-এর কাজ যখন চলছে দেবদীপ-এর মোমবাতি গানটা তখন অলরেডি রেকর্ড হয়ে গেছে বেশ কিছুদিন আগেই। গানটা প্রথম শুনেছিলাম ২০১১-র লিটিল ম্যাগাজিন মেলায় সম্ভবত। সামনাসামনি। তো, সেই গানের একটা আনপ্লাগড লাইভ ভার্শন আমরা পার্টি ...
  • ভাঙ্গর ও বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যবস্থা প্রসঙ্গে
    এই লেখাটা ভাঙ্গর, পরিবেশ ও বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যবস্থা প্রসঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে নানা স্ট্যাটাস, টুকরো লেখায়, অনলাইন আলোচনায় যে কথাগুলো বলেছি, বলে চলেছি সেইগুলো এক জায়গায় লেখার একটা অগোছালো প্রয়াস। এখানে দুটো আলাদা আলাদা বিষয় আছে। সেই বিষয় দুটোয় বিজ্ঞানের সাথে ...
  • বিদ্যালয় নিয়ে ...
    “তবে যেহেতু এটি একটি ইস্কুল,জোরে কথা বলা নিষেধ। - কর্তৃপক্ষ” (বিলাস সরকার-এর ‘ইস্কুল’ পুস্তক থেকে।)আমার ইস্কুল। হেয়ার স্কুল। গর্বের জায়গা। কত স্মৃতি মিশে আছে। আনন্দ দুঃখ রাগ অভিমান, ক্ষোভ তৃপ্তি আশা হতাশা, সাফল্য ব্যার্থতা, এক-চোখ ঘুগনিওয়ালা, গামছা কাঁধে ...
  • সমর্থনের অন্ধত্বরোগ ও তৎপরবর্তী স্থবিরতা
    একটা ধারণা গড়ে ওঠার সময় অনেক বাধা পায়। প্রশ্ন ওঠে। সঙ্গত বা অসঙ্গত প্রশ্ন। ধারণাটি তার মুখোমুখি দাঁড়ায়, কখনও জেতে, কখনও একটু পিছিয়ে যায়, নিজেকে আরও প্রস্তুত করে ফের প্রশ্নের মুখোমুখি হয়। তার এই দমটা থাকলে তবে সে পরবর্তী কালে কখনও একসময়ে মানুষের গ্রহণযোগ্য ...
  • ভি এস নইপাল : অভিবাসী জীবনের শক্তিশালী বিতর্কিত কথাকার
    ভারতীয় বংশদ্ভূত নোবেল বিজয়ী এই লেখকের জন্ম ও বড় হয়ে ওঠা ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জের ত্রিনিদাদে, ১৯৩২ সালের ১৭ অগস্ট। পরে পড়াশোনার জন্য আসেন লন্ডনে এবং পাকাপাকিভাবে সেতাই হয়ে ওঠে তাঁর আবাসভূমি। এর মাঝে অবশ্য তিনি ঘুরেছেন থেকেছেন আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ, ভারত সহ ...
  • আবার ধনঞ্জয়
    আজ থেকে চোদ্দ বছর আগে আজকের দিনে রাষ্ট্রের হাতে খুন হয়েছিলেন মেদিনীপুরের যুবক ধনঞ্জয় চট্টোপাধ্যায়। এই "খুন" কথাটা খুব ভেবেচিন্তেই লিখলাম, অনেকেই আপত্তি করবেন জেনেও। আপত্তির দুটি কারণ - প্রথমতঃ এটি একটি বাংলায় যাকে বলে পলিটিকালি ইনকারেক্ট বক্তব্য, আর ...
  • সীতাকুণ্ডের পাহাড়ে এখনো শ্রমদাস!
    "সেই ব্রিটিশ আমল থেকে আমরা অন্যের জমিতে প্রতিদিন বাধ্যতামূলকভাবে মজুরি (শ্রম) দিয়ে আসছি। কেউ মজুরি দিতে না পারলে তার বদলে গ্রামের অন্য কোনো নারী-পুরুষকে মজুরি দিতে হয়। নইলে জরিমানা বা শাস্তির ভয় আছে। তবে সবচেয়ে বেশি ভয় যেকোনো সময় জমি থেকে উচ্ছেদ ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

মহামূর্খের দল

Debasis Bhattacharya

মূল গল্প : আইজ্যাক আসিমভ

রাইগেল গ্রহের যে দীর্ঘজীবী প্রজাতির হাতে এই গ্যালাক্সির নথিপত্র রক্ষণাবেক্ষণের ভার, সে পরম্পরায় নারন হল গিয়ে চতুর্থজন ।

দুটো খাতা আছে ওনার কাছে । একটা হচ্ছে প্রকাণ্ড জাবদা খাতা, আর অন্যটা তার চেয়ে অনেকটা ছোট । গ্যালাক্সির সমস্ত বুদ্ধিমান প্রাণিদের নাম ওঠে ওই বড় খাতাটায় । আর ছোট খাতায় স্থান পায় শুধু সেই সমস্ত প্রজাতিরা যাদের সভ্যতা খানিকটা পরিণত হয়েছে, এবং সেই সুবাদে যারা গ্যালাক্টিক ফেডারেশনে স্থান পাবার যোগ্য হয়ে উঠেছে । বড় খাতায় উঠে যাওয়া কিছু প্রাণির নাম কখনও কখনও আবার কাটাও পড়ে । মানে, কোনও না কোনও কারণে যারা শেষপর্যন্ত ব্যর্থ হয়েছে, সেইসব প্রজাতির নাম । হয়ত কোনও দুর্ঘটনায় ধ্বংস হয়ে গেছে, বা তাদের শরীরে হয়ত কোনও ভৌত বা রাসায়নিক ঘাটতি ছিল, বা তারা হয়ত মিলেজুলে শান্তিতে থাকবার মত কোনও সুস্থির সমাজ বানিয়ে উঠতে পারেনি, এই রকম সব আর কি । অবশ্য, ছোট খাতায় একবার কোনও প্রজাতির নাম উঠে গেলে সে নাম আর কাটা পড়ে না । অন্তত, আজ পর্যন্ত তেমনটা দরকার পড়েনি ।

দৈত্যাকার শরীর আর অকল্পনীয় বয়স নিয়ে বসে থাকা নারন মুখ তুলে তাকাল । সংবাদ-বাহক হাজির, নতুন সংবাদ আছে নিশ্চয়ই ।

“প্রণাম নেবেন, মহান সত্তা !” সৌজন্য-সম্ভাষণ করল সংবাদ-বাহক ।

“আরে, অত ভদ্রতা করতে হবে না । বল হে, কী খবর ?”

“আরও এক প্রজাতি পরিণতি অর্জন করেছে ।”

“দারুণ খবর হে, দারুণ খবর । বেশ দ্রুতই তো পরিণত হয়ে উঠছে সব দেখছি । প্রতি বছরই একটা না একটা এই রকম খবর আসবেই । তা, এরা কারা ?”

সংবাদ-বাহক গ্যালাক্সির কোড নম্বরটা দিল, আর সেই গ্যালাক্সিতে এদের অবস্থানের স্থানাঙ্কটাও বলে দিল ।

“আরে, হ্যাঁ, জানি তো এ গ্রহটার কথা ।” বলতে বলতে নারন প্রথম খাতায় ওদের নাম যেখানে আছে সে জায়গাটা বার করে ফেললেন, এবং সেখান থেকে সে নাম তুলে দিলেন ছোট খাতায় । গ্রহের নামটা তোলবার সময় ওই প্রাণিদের জনসংখ্যার সবচেয়ে বড় অংশ গ্রহটিকে যে নামে চেনে সেটাই লিখতে হয়, চালু রীতি এই রকমই । নারন সুন্দর টানা হাতের লেখায় লিখলেন : “পৃথিবী” । তারপর বললেন, “এই নতুন প্রাণিরা এক নজির সৃষ্টি করল । এর আগে আর কোনও প্রজাতিই বুদ্ধিমত্তার স্তর থেকে পরিণতির স্তরে এত দ্রুত পৌঁছতে পারেনি । আশা করি এ ব্যাপারে আমাদের কোনও ভুল হচ্ছে না ।”

“সত্যিই তাই মহাশয়, আর কেউই পারেনি।” সায় দিল সংবাদ-বাহক ।

“ওরা তো পরমাণু-শক্তির ব্যবহার শিখে ফেলেছে, তাই না ?”

“আজ্ঞে মহাশয়, তা শিখেছে ।”

“হুম, ওটাই তো মাপকাঠি ।” মুচকি হাসলেন নারন । “তবে তো শিগগিরই ওদের মহাকাশযান এসে ফেডারেশনের সাথে যোগাযোগ করবে, দেরি নেই আর ।”

“আসলে, মহান সত্তা”, কিঞ্চিৎ অস্বস্তির সাথে জানাল সংবাদ-বাহক, “পর্যবেক্ষকেরা জানিয়েছে, ওরা এখনও মহাকাশে যেতে পারেনি।”

বিস্মিত হলেন নারন, “একেবারেই পারেনি কি ? একটা স্পেস-স্টেশনও বানাতে পারেনি বলছ ?”

“না মহাশয়, এখনও পারেনি ।”

“কিন্তু, পরমাণু-শক্তির ব্যবহার তো শিখে গেছে বলছ । বোমা ফাটিয়ে পরীক্ষা-টরীক্ষাগুলো তবে কোথায় করে ওরা ?”

“নিজেদের গ্রহেই করে, মহাশয় ।”

“অ্যাঁ, নিজেদের গ্রহেই, বলছ কী তুমি !” ফেটে পড়ল নারনের বিস্মিত বজ্রকণ্ঠ, উত্তেজনায় তাঁর বিশফুট লম্বা দেহটি আসন ছেড়ে টান টান হয়ে দাঁড়িয়ে পড়ল ।

“আজ্ঞে হ্যাঁ মহাশয়, তাইই ।”

তাঁর কলমটি টেনে নিলেন নারন, তারপর ছোট খাতায় একটু আগেই তুলে নেওয়া সর্বশেষ সংযোজনটি ধীরেসুস্থে কেটে দিলেন । এও নজিরবিহীন, এমন কাজ তাঁকে এর আগে কখনও করতে হয়নি । কিন্তু, নারন হলেন গিয়ে মহাপ্রজ্ঞাবান । ওদের যে শেষপর্যন্ত কী দশা হবে, সেটা তাঁর চেয়ে পরিষ্কার করে আর কে-ই বা বুঝবে গোটা গ্যালাক্সিতে ?

“মহামূর্খের দল !” আপনমনে বিড়বিড় করে বললেন নারন ।

[অনুবাদ : দেবাশিস্‌ ভট্টাচার্য]


শেয়ার করুন


Avatar: b

Re: মহামূর্খের দল

বাঃ।
Avatar: Debs

Re: মহামূর্খের দল

Silly Asses, ehh? Golpota besh bhalo lage.. Probably, one of the shortest of Asimov and very charming.. anubad ta o chomotkar hoyche..
Avatar: Debasis Bhattacharya

Re: মহামূর্খের দল

ঠিক তাই, 'সিলি অ্যাসেস' । মতামতের জন্য ধন্যবাদ, ভাল লেগেছে জেনে ভরসা পেলাম । আরও দুয়েকটি সাই-ফাই অনুবাদের ইচ্ছে রইল ।
Avatar: dc

Re: মহামূর্খের দল

রাইজেল গ্রহ না, জাতি হবে। আর এই গ্যালাক্সি না, গ্যালাক্সিগুলোর হবে। (শুধু এই গ্যালাক্সি হলে গ্যালাক্সির কোড নং দরকার হয়না)। অনুবাদ ভালো লাগলো।
Avatar: Debs

Re: মহামূর্খের দল

This is just a suggestion, but I really like " Does a bee care?" by the same author.. It's got a certain flavour.. Maybe you could do that next?.. Again, just a suggestion..
Avatar: ani

Re: মহামূর্খের দল

দারুন গল্প এবং অনুবাদ!
Avatar: Debasis Bhattacharya

Re: মহামূর্খের দল

dc, আপনি ঠিকই বলছেন, আমার ভুল হয়েছে । দুঃখিত । সংশোধন করতে পারলেই ভাল হত, কিন্তু এখানে তো সে উপায় নেই । যাই হোক, আপনাকে ধন্যবাদ ।
Avatar: Debasis Bhattacharya

Re: মহামূর্খের দল

Debs, আমি "Does a bee care?" পড়িনি । গল্পটি আকারে ছোট না হলে এই মুহূর্তে অনুবাদের সময় পাব না । পড়ে দেখার আগ্রহ হচ্ছে । কোনও লিঙ্ক দিতে পারেন ?
Avatar: Debasis Bhattacharya

Re: মহামূর্খের দল

ani, ভরসা দেবার জন্য ধন্যবাদ ।
Avatar: Atoz

Re: মহামূর্খের দল

নারায়ণ নারায়ণ। ঃ-)
চমৎকার হয়েছে।
Avatar: Atoz

Re: মহামূর্খের দল

এই গল্পের আরেকটা অনুবাদ কিছুকাল আগে পড়েছি সচলে। এই যে লিংক। ঃ-)
http://www.sachalayatan.com/guest_writer/57039
Avatar: Deb

Re: মহামূর্খের দল

বাহ্। আরো হোক।
Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: মহামূর্খের দল

সাই ফাই সাইসাই করে উড়ুক। #ব্রেভো! 🌷
Avatar: Debasis Bhattacharya

Re: মহামূর্খের দল

লিঙ্ক-এর জন্য ধন্যবাদ, Atoz । ভাল অনুবাদ, বাংলাদেশী বাংলা ভারি মিষ্টি । তবে, নারন-এর মুখে যৌনগন্ধী গালি মোটেই ভাল লাগেনি, যতই সে বিরক্ত হয়ে থাকুক --- বিশেষত যখন ওটাই শিরোনাম । এই লিঙ্ক-টি আগে দেখিনি, তবে এপার বাংলাতেই কোনও এক ছোটোমোটো গল্প সংকলনে এটি দেখেছি বলে আবছা মনে পড়ছে ।
Avatar: সলিল

Re: মহামূর্খের দল

চমৎকার অনুবাদ। এরকম ছোট আরো অনুবাদ করো। ছোট বললাম তোমার সময়াভাবে রং কথা মনে রেখে।
Avatar: সলিল

Re: মহামূর্খের দল

সময়াভাবের
Avatar: শঙ্খ

Re: মহামূর্খের দল

বাহ
Avatar: Debasis Bhattacharya

Re: মহামূর্খের দল

ধন্যবাদ সলিলদা । ঠিকই বলেছেন, ছোট ছাড়া বড় অনুবাদের কাজ ধরা এখন খুব মুশকিল আমার পক্ষে ।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন