Sumit Roy RSS feed

Sumit Royএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • সাম্মানিক
    বেশ কিছুদিন এই :লেখালিখি'র কচকচানিতে নিজেকে ঝালিয়ে নেওয়া হয়নি। নেওয়া হয়নি বলতে ইচ্ছে ছিল ষোল'র জায়গায় আঠারো আনা, এমনকি, যখন আমাদের জুমলাবাবু 'কচি' হতে হতে তেল-পয়সা সবাইকেই ডুগডুগি বাজিয়ে বুলেট ট্রেনে ওঠাচ্ছেন তখনও আমি 'ঝালিয়ে নেওয়া'র সুযোগকে কাঁচকলা ...
  • তোত্তো-চান - তেৎসুকো কুররোয়ানাগি
    তোত্তো-চানের নামের অর্থ ছোট্ট খুকু। তোত্তো-চানের অত্যাচারে তাকে স্কুল থেকে বের করে দিয়েছে। যদিও সেই সম্পর্কে তোত্তো-চানের বিন্দু মাত্র ধারনা নেই। মায়ের সঙ্গে নতুন স্কুলে ভর্তি হওয়ার জন্য সে চলছে। নানা বিষয়ে নানা প্রশ্ন, নানান আগ্রহ তার। স্টেশনের টিকেট ...
  • চলো এগিয়ে চলি
    #চলো এগিয়ে চলি#সুমন গাঙ্গুলী ভট্টাচার্য প্রথম ভাগের উৎসব শেষ। এরপরে দীপাবলি। আলোর উৎসব।তার সাথে শব্দবাজি। আমরা যারা লিভিং উইথ অটিজমতাদের ক্ষেত্রে সব সময় এই উৎসব সুখের নাও হতে পারে। অটিস্টিক মানুষের ক্ষেত্রে অনেক সময় আওয়াজ,চিৎকার, কর্কশ শব্দশারীরিক ...
  • সিনেমা দেখার টাটকা অভিজ্ঞতা - মনোজদের অদ্ভুত বাড়ি
    চট করে আজকাল সিনেমা দেখতে যাই না। বাংলা সিনেমা তো নয়ই। যদিও, টেলিভিশনের কল্যাণে আপটুডেট থাকা হয়ে যায়।এইভাবেই জানা যায়, এক ধাঁচের সমান্তরাল বাংলা ছবির হয়ে ওঠার গল্প। মধ্যমেধার এই রমরমার বাজারে, সিনেমার দুনিয়া আলাদা হবে, এমন দুরাশার কারণ দেখিনা। কিন্তু, এই ...
  • কিংবদন্তীর প্রস্থান স্মরণে...
    প্রথমে ফিতার ক্যাসেট দিয়ে শুরু তারপর সম্ভবত টিভিতে দুই একটা গান শোনা তারপর আস্তে আস্তে সিডিতে, মেমরি কার্ডে সমস্ত গান নিয়ে চলা। এলআরবি বা আইয়ুব বাচ্চু দিনের পর দিন মুগ্ধ করে গেছে আমাদের।তখনকার সময় মুরুব্বিদের খুব অপছন্দ ছিল বাচ্চুকে। কী গান গায় এগুলা বলে ...
  • অনন্ত দশমী
    "After the torchlight red on sweaty facesAfter the frosty silence in the gardens..After the agony in stony placesThe shouting and the crying...Prison and palace and reverberationOf thunder of spring over distant mountains...He who was living is now deadWe ...
  • ঘরে ফেরা
    [এ গল্পটি কয়েক বছর আগে ‘কলকাতা আকাশবাণী’-র ‘অন্বেষা’ অনুষ্ঠানে দুই পর্বে সম্প্রচারিত হয়েছিল, পরে ছাপাও হয় ‘নেহাই’ পত্রিকাতে । তবে, আমার অন্তর্জাল-বন্ধুরা সম্ভবত এটির কথা জানেন না ।] …………আঃ, বড্ড খাটুনি গেছে আজ । বাড়ি ফিরে বিছানায় ঝাঁপ দেবার আগে একমুঠো ...
  • নবদুর্গা
    গতকাল ফেসবুকে এই লেখাটা লিখেছিলাম বেশ বিরক্ত হয়েই। এখানে অবিকৃত ভাবেই দিলাম। শুধু ফেসবুকেই একজন একটা জিনিস শুধরে দিয়েছিলেন, দশ মহাবিদ্যার অষ্টম জনের নাম আমি বগলামুখী লিখেছিলাম, ওখানেই একজন লিখলেন সেইটা সম্ভবত বগলা হবে। ------------- ধর্মবিশ্বাসী মানুষে ...
  • চলো এগিয়ে চলি
    #চলো এগিয়ে চলি #সুমন গাঙ্গুলী ভট্টাচার্যমন ভালো রাখতে কবিতা পড়ুন,গান শুনুন,নিজে বাগান করুন আমরা সবাই শুনে থাকি তাই না।কিন্তু আমরা যারা স্পেশাল মা তাঁদেরবোধহয় না থাকে মনখারাপ ভাবার সময় না তার থেকে মুক্তি। আমরা, স্পেশাল বাচ্চার মা তাঁদের জীবন টা একটু ...
  • দক্ষিণের কড়চা
    দক্ষিণের কড়চা▶️অন্তরীক্ষে এই ঊষাকালে অতসী পুষ্পদলের রঙ ফুটি ফুটি করিতেছে। অংশুসকল ঘুমঘোরে স্থিত মেঘমালায় মাখামাখি হইয়া প্রভাতের জন্মমুহূর্তে বিহ্বল শিশুর ন্যায় আধোমুখর। নদীতীরবর্তী কাশপুষ্পগুচ্ছে লবণপৃক্ত বাতাস রহিয়া রহিয়া জড়াইতে চাহে যেন, বালবিধবার ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

কিলার বি কেলেঙ্কারি

Sumit Roy


http://cdn.iflscience.com/images/83be9bab-a2f4-5631-b93f-7440e7db35b4/
extra_large-1528453494-cover-image.jpg


পঞ্চাশের দশকে এক ব্রাজিলিয়ান এন্টমোলজিস্ট (পোকামাকড় নিয়ে গবেষণা করে যারা তাদেরকে এন্টমোলজিস্ট বলে) একটা কেলেঙ্কারি ঘটিয়ে বসেন। তিনি ভাবছিলেন, কিভাবে হানি বি বা মৌমাছিদের তৈরি মধুর স্বাদ আরও বেশি বাড়ানো যায়। নরমাল টেস্টে মন ভরছিল না আরকি... তাই তিনি একটা কাজ করে বসলেন। তিনি ইউরোপিয়ান হানি বি এর এর বিভিন্ন প্রজাতির সাথে আফ্রিকান হানি বি এর ক্রস করে হাইব্রিড জাত তৈরি করেন। কিন্তু এর রেজাল্ট যা হল তা ছিল ভয়ানক। এই ক্রসিং এর ফলে যে মৌমাছি তৈরি হয় তারা ছিল অবিশ্বাস্য রকমের আক্রমণাত্মক ও বদরাগী। এদের নাম দেয়া হয় আফ্রিকানাইজড হানি বি। তবে সাধারণ মানুষ এদের আরেক নামে চেন... কিলার বি...

যাই হোক, এই কিলার বি-দেরকে বন্দী করেই রাখা হয়েছিল, কিন্তু ১৯৫৭ সালে এরা পালিয়ে যায়। পালিয়ে যাওয়া কিলার বি এর সংখ্যা একটা দুটো ছিল না, পুরো ২৬টা ঝাক! এরপর এরা বংশবিস্তার করে, উত্তর-দক্ষিণ উভয় আমেরিকাতেই ছড়িয়ে পরে, আর এভাবেই ১৯৮৫ সালে এরা চলে আসে যুক্তরাষ্ট্রে।

এই কিলার বি সম্পর্কে কিছু কথা বলা যায়। এদের আকার ইউরোপিয়ান হানি বি এর চেয়ে ছোট, আর এদের বিষও কম প্রাণঘাতী। কিন্তু তাতে নিশ্চিন্ত হবার কিছু নেই, এদের হিংস্রতা, তাদের রাগী মেজাজই তাদেরকে "কিলার বি"-তে পরিণত করেছে। এরা মানুষকে ৪০০ মিটার অবধি তাড়া করতে পারে, আর সাধারণ মৌমাছিদের চেয়েও এরা ১০ গুণ বেশি হুল ফোটায়। এপর্যন্ত কিলার বি এর "কামড়ে" প্রায় এক হাজার মানুষ মারা গেছে, সেই সাথে ঘোড়া বা অন্যান্য প্রাণী তো আছেই...

কিন্তু কেন এরা এত বেশি এগ্রেসিভ? সেই ব্রাজিলের সাও পাওলো বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরাই এটা বের করার দায়িত্ব নিয়েছেন। গবেষণা করে তারা কি পেলেন সেটা পড়েই আজকে এটা নিয়ে লেখার আগ্রহ তৈরি হল আরকি... গবেষকগণ কিলার বি এর মৌচাকের পাশে একটা চামড়ার বল ছুড়ে দেয়, এরপর কিলার বিরা ক্ষেপে গিয়ে সেই বলে হুল ফোটায়। সেখান থেকে গবেষকগণ কয়েকটা কিলার বি তুলে নিয়ে লিকুইড নাইট্রোজেনে জমিয়ে ফেলেন।

এরপর এই গবেষকগণ এদের মস্তিষ্কের প্রোটিনগুলোর দিকে নজর দেন, যাদেরকে নিউরোপেপটাইড বলা হয়। এটা তারা করেন মাস স্পেকটাল ইমেজিং নামে একটি পদ্ধতিতে। আর দেখেন এই নিউরোপেপটাইড এর দুটো গ্রুপের দৈর্ঘ্যে পার্থক্য রয়েছে।

প্রথম গ্রুপটির নাম হচ্ছে এলাটোস্টেটিনস এ। এই প্রোটিনটি এদের শিক্ষা, স্মৃতি, সাধারণ বিকাশ এর সাথে সম্পর্কিত। আর দ্বিতীয় প্রকরণের প্রটিনকে বলা হয় টাকিকিনিন-রিলেটেড পেপটাইড। এই টাইপের প্রোটিনটি একটু রহস্যময়। কিন্তু সবাই জানেন, এই প্রোটিনটির সাথে সেন্সরি স্টিমুলি এর সম্পর্ক আছে, মানে যেকোন ধরণের সেন্স এর সাথে সম্পর্কিত উদ্দীপনার সাথে এর সম্পর্ক। গবেষকগণ আবিষ্কার করলেন কিলার বি-দের ক্ষেত্রে এই দুরকম প্রোটিন এর দৈর্ঘ্যই নরমাল মৌমাছিদের বেলায় এর যে দৈর্ঘ্য থাকে তার চেয়ে কম। এটা ছাড়াও অবশ্য তারা এদের ব্রেইন ক্লাস্টার বা নিউরোপিলসেও সামান্য পার্থক্য পেয়েছেন।

যাই হোক, এইটুকু পেলেই তো হবে না, আরও দূরে যেতে হবে। গবেষকরা বুঝলেন যে এই প্রোটিনগুলো কিলার বিদের বেলায় খাটো তাই এরা এত রাগী, কিন্তু এর প্রত্যক্ষ প্রমাণ পেতে এই জ্ঞানের প্রয়োগ ঘটানো চাই, নাকি? তারা এবারে কিছু শান্ত শিষ্ট হানি বি-কে ধরে এনে, এদেরকে অজ্ঞান করে দিয়ে এদের মধ্যে ঐ খাটো ভারশনের প্রোটিনগুলোকে ইনজেক্ট করে দিল। ব্যাস, দেখা গেল, ঘুম থেকে ওঠার পর এই শান্ত শিষ্ট মৌমাছিগুলোও কিলার বি-দের মত সাংঘাতিক রকমের আক্রমণাত্মক হয়ে গেছে। এই বছরের ১৮ই মে-তে জার্নাল অফ প্রটিওম রিসার্চ নামক জার্নালে এই গবেষণাটি প্রকাশিত হয়।

কী অসাধারণ আবিষ্কার... আগে কিলার বি বানাতে কষ্ট করে বিভিন্ন প্রজাতির হানি বি ধরে এনে ক্রসিং করতে হত, এখন সেটারও দরকার নেই, এই প্রোটিনগুলোর ইনজেকশন দিলেই চলবে... ইউরেকা!! তবে এখনও পরিষ্কার নয় যে খাটো ভারশনের প্রোটিনগুলোই কেন মৌমাছিদের আচরণে এতটা প্রভাব ফেলছে। এটা জানতে আরও গবেষণা দরকার। যদি জানা যায়, তাহলে শুধু মৌমাছি নয়, আরও অনেক কীটপতঙ্গের আচরণ, তাদের মস্তিষ্কের প্রকৃতি বিষয়ক অন্তর্দৃষ্টি পাওয়া যাবে, তখন এদেরকে নিয়ন্ত্রণ করার, এদেরকে ইতিবাচক কাজে ব্যবহার করার আরও অনেক নতুন উপায়ও হয়তো আবিষ্কার হবে। দেখা যাক, কিলার বি কেলেঙ্কারি থেকে আরও ভাল কিছু পাওয়া যায় কিনা...


তথ্যসূত্র:

১। কিলার বি এর উদ্ভব: http://www.badbeekeeping.com/kerr.htm
২। প্রায় এক হাজার মানুষ হত্যা: http://www.badbeekeeping.com/kerr.htm
৩। জার্নাল অফ প্রটিওম রিসার্চ-এ প্রকাশিত পেপারটি: https://pubs.acs.org/doi/10.1021/acs.jproteome.8b00098

27 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: Atoz

Re: কিলার বি কেলেঙ্কারি

২৬ ঝাঁক খুনে-মৌমাছি পালালো কী করে????? নাকি ওগুলোকে ছেড়ে দিল?
Avatar: pi

Re: কিলার বি কেলেঙ্কারি

ইন্টারেস্টিং কাজ। এরকম ঝরঝরে ভাষায় বিজ্ঞান নিয়ে লিখলে পড়তেও ভাল লাগে। এতে অনেক কৌতূহলের নিরসন হবে, আরো আরো না জানার বন্ধ দরজাও এই লাইন ধরে পরের আবিষ্কারেরা খুলবে নিশ্চয়, কিন্তু অন্য একটা ছোট কৌতূহল। এর বাস্তব প্রয়োগ কিছু আছে? অদূর না হোক সুদূর ভবিষ্যতে?
Avatar: Sumit Roy

Re: কিলার বি কেলেঙ্কারি

কিভাবে পালালো সেটা জানিনা। বাস্তব প্রয়োগ বলতে, কিভাবে এই নিউরোপেপটাইডের প্রোটিন ছোট বড় হবার সাথে মৌমাছির আচরণ কিভাবে নির্ভর করে, এটা জানা গেলে, অনেক পতঙ্গকেই নিয়ন্ত্রণ করার উপায় আবিষ্কৃত হতে পারে...
Avatar: শঙ্খ

Re: কিলার বি কেলেঙ্কারি

আমিও এরম একটা ইন্জেকশান নিতে চাই। কোথায় পাই?
Avatar: দ

Re: কিলার বি কেলেঙ্কারি

বাঃ বাঃ খাসা লাগল পড়তে।
এভাবেই ফ্র্যাঙ্কেনস্টাইন হয় আর কি।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন