Sutapa Das RSS feed

Sutapa Dasএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • হাল্কা নারীবাদ, সমানাধিকার, বিয়ে, বিতর্ক ইত্যাদি
    কদিন আগে একটা ব্যাপার মাথায় এল, শহুরে শিক্ষিত মধ্যবিত্ত মেয়েদের মধ্যে একটা নরমসরম নারীবাদী ভাবনা বেশ কমন। অনেকটা ঐ সুচিত্রা ভট্টাচার্যর লেখার প্লটের মত। একটা মেয়ে সংসারের জন্য আত্মত্যাগ করে চাকরী ছেড়ে দেয়, রান্না করে, বাসন মাজে হতভাগা পুরুষগুলো এসব বোঝে ...
  • ক্যানভাস(ছোট গল্প)
    #ক্যানভাস১ সন্ধ্যে ছটা বেজে গেলেই আর অফিসে থাকতে পারে না হিয়া।অফিসের ওর এনক্লেভটা যেন মনে হয় ছটা বাজলেই ওকে গিলে খেতে আসছে।যত তাড়াতাড়ি পারে কাজ গুছিয়ে বেরোতে পারলে যেন হাঁপ ছেড়ে বাঁচে।এই জন্য সাড়ে পাঁচটা থেকেই কাজ গোছাতে শুরু করে।ছটা বাজলেই ওর ডেক্সের ...
  • অবৈধ মাইনিং, রেড্ডি ভাইয়েরা ও এক লড়াইখ্যাপার গল্প
    এ লেখা পাঁচ বছর আগের। আরো বাহু লেখার মত আর ঠিকঠাক না করে, ঠিকমত শেষ না করে ফেলেই রেখেছিলাম। আসলে যাঁর কাজ নিয়ে লেখা, হায়ারমাথ, তিনি সেদিনই এসেছিলেন, আমাদের হপকিন্স এইড ইণ্ডিয়ার ডাকে। ইনফরমাল সেটিং এ বক্তৃতা, তারপর বেশ খানিক সময়ের আলাপ আলোচনার পর পুরো ...
  • স্বাধীন চলচ্চিত্র সংসদ বিষয়ক কিছু চিন্তা
    জোট থাকলে জটও থাকবে। জটগুলো খুলতে খুলতে যেতে হবে। জটের ভয়ে অনেকে জোটে আসতে চায় না। তবে আমি চিরকালই জোট বাঁধার পক্ষের লোক। আগেও সময়ে সময়ে বিভিন্নরকম জোটে ছিলাম । এতবড় জোটে অবশ্য প্রথমবার। তবে জোটটা বড় বলেই এখানে জটগুলোও জটিলতর হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। কেউ ...
  • 'শীতকাল': বীতশোকের একটি কবিতার পাঠ প্রতিক্রিয়া
    বীতশোকের প্রথম দিকের কবিতা বাংলা কবিতা-কে এক অন্য স্বর শুনিয়েছিলো, তাঁর কণ্ঠস্বরে ছিলো নাগরিক সপ্রতিভতা, কিন্তু এইসব কবিতার মধ্যে আলগোছে লুকোনো থাকতো লোকজীবনের টুকরো ইঙ্গিত। ১৯৭৩ বা ৭৪ সালের পুরনো ‘গল্পকবিতা’-র (কৃষ্ণগোপাল মল্লিক সম্পাদিত) কোনো সংখ্যায় ...
  • তারাবী পালানোর দিন গুলি...
    বর্ণিল রোজা করতাম ছোটবেলায় এই কথা এখন বলাই যায়। শীতের দিনে রোজা ছিল। কাঁপতে কাঁপতে সেহেরি খাওয়ার কথা আজকে গরমে হাঁসফাঁস করতে করতে অলীক বলে মনে হল। ছোট দিন ছিল, রোজা এক চুটকিতে নাই হয়ে যেত। সেই রোজাও কত কষ্ট করে রাখছি। বেঁচে থাকলে আবার শীতে রোজা দেখতে পারব ...
  • দি গ্ল্যামার অফ বিজনেস ট্রাভেল,কোপেনহেগেনে বিড়ি
    এই ঘটনাটি আমার নিজের অভিজ্ঞতা নয়। শোনা ঘটনা আমার দুই সিনিয়রের জীবনের।দি গ্ল্যামার অফ বিজনেস ট্রাভেলকোপেনহেগেনে বিডি***********পুরোট...
  • অদ্ভুত
    -কি দাদা, কেমন আছেন?-আপনি কে? এখানে কেন? ঘরে ঢুকলেন কিভাবে?-দাঁড়ান দাঁড়ান , প্রশ্নের কালবৈশাখী ছুটিয়ে দিলেন তো, এত টেনশন নেবেন না-মানেটা কি আমার বাড়ি, দরজা বন্ধ, আপনি সোফায় বসে ঠ্যাঙ দোলাচ্ছেন, আর টেনশন নেব না? আচ্ছা আপনি কি চুরি করবেন বলে ঢুকেছেন? যদি ...
  • তারার আলোর আগুন
    তারার আলো নাকি স্নিগ্ধ হয়, কাল তাহলে কেন জ্বলে মরল বারো, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে আরো সত্তর জন! তবু মৃত্যু মিছিল অব্যাহত। আজও রাস্তায় পড়ে এক স্বাস্থ্যবান শ্যামলা যুবক, শেষবারের মতো ডানহাতটা একটু নড়ল। কিছু বলতে চাইল কি ? চারপাশ ঘিরে দাঁড়িয়ে থাকা সশস্ত্র ...
  • 'হারানো সজারু'
    ১এক বৃষ্টির দিনে উল্কাপটাশ বাড়ির পাশের নালা দিয়ে একটি সজারুছানাকে ধেইধেই করে সাঁতার কেটে যেতে দেখেছিল। দেখামাত্রই তার মনে স্বজাতিপ্রীতি ও সৌভ্রাতৃত্ববোধ দারুণভাবে জেগে উঠল এবং সে ছানাটিকে খপ করে তুলে টপ করে নিজের ইস্কুল ব্যাগের মধ্যে পুরে ফেলল। এটিকে সে ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

ইচ্ছাপত্র

Sutapa Das

আমার ডায়াবেটিস নেই। শত্তুরের মুখে ছাই দিয়ে (যদি কখনো ধরা পড়েও বা, আমি আর প্যাথোলজিস্ট ছাড়া কাকপক্ষীতেও টের পাবে না বাওয়া হুঁ হুঁ! ) হ', ওজন কিঞ্চিত বেশী বটেক, ডাক্তারে বকা দিলে দুয়েক কেজি কমাইও বটে, কিঞ্চিত সম্মান না করলে চিকিচ্ছে করবে কেন!! (তারপর যে কে সেই)

তবে কিনা আনন্দের কথা, 2009 সালের থেকে সেই যে এবেলা-ওবেলা হাই প্রেসারের ওষুধ আর কখনো সখনো ডাক্তারবাবুর লিখে দেয়া ওয়াটার পিল (ডাইইউরেটিক) , সে পাপচক্রব্যূহকে, এ যুগের অভিমন্যু আমি, ভেঙ্গেছি।

গত জুলাই মাসে, শরীর চলে না, দাঁড়ালে সব অন্ধকার, মিঁউমিঁউয়ের বেশী কথা কইলে হাঁফ ধরে, এমন হালে, ক্রমপতনশীল রক্তচাপ দেখে, ভ্রুতে সেকেন্ড ব্র্যাকেট টেনে ডাক্তারবাবু দিলেন প্রথমে রাতের অ্যামলোভাস ছেঁটে। সে দফা অরুন মিত্রের মত উঠে দাঁড়ালেম শয্যা ছেড়ে। বেশ দিন যায়।

নভেম্বরের শেষে , রক্ত দিয়ে এনু ডেঙ্গুতে ভোগা এক অচেনা বালক কে কলকেতায়, তো দুদিন কিছু বুঝিনি, দিব্য আছিলাম। ও মা, আবার দেখি এতবড় শরীরটা বিছানা থেকে নামতে চায় না, দুবলা মানুষের মত তার মাথায় ঘনচক্কর, মেয়েদের সাথে তিনবেলা বচসা নেই, ইস্কুলে চেয়ারে বসে মরা ভেটকিমাছের মত চোখের কোনে সব দেখি, কিছু কইতে পারি না দম পাইনা! কেলো! বাড়ী থেকে পাঁচমিনিটের রাস্তা, ভয়ে দুদিন রিক্সায় গেনু, চলতে চলতে 'পতন ও মূর্ছা' গেলে 'এ দেহ খানি তুলে ধর'তে কেউ আউগ্যাইবে না ভেবে!

নিজেই বুঝি না মেশিনে হইলো টা কি তাই ফের গচ্ছা ! ( কোন লজ্জা নাই স্বীকার করতে, নিজের এই প্রায় পৌনে এক কুইন্ট্যাল শরীরখানার পিছনে খাদ্য ,বস্ত্র এবং সাবান তেলবাবদ খরচা ছাড়া আমার সঅঅব খর্চা গচ্চাই মনে হয়!, এ ব্যাপারে পড়াশুনা বিশেষ উন্নত করতে পারে নাই আমার মগজকে) এবার আবারও পতনশীল চাপকে স্হিতাবস্হা দিতে ডাক্তারবাবুর নিদান, সকালের উচ্চচাপের অষুধও বন্ধ!! প্রায় কঁকিয়ে উঠে নিবেদন করি, আমি কিনা সদ্য নেটমেডসের সাইটে তিনপাতা ঐ ওষুধখানি অর্ডার দিছি ,মেয়েদের দুবছর ধরে লাগাতার চলতে থাকা PCOS য়ের ওষুধের সাথেই, তার কি হবে! করুণাবশত অথবা অবজ্ঞায় বিধান নির্দিষ্ট হলো অর্ধেক করে চলবে তবে সেখানি!
সদ্য তার আগের বছর , সিস্টাইটিসের লাগাতার সংক্রমনের সময় ডাক্তারভাইটি তার নিয়মমতো ছুটির বিধান দিতে বেশ বচসাই হয়েছিলো। কারন তার একহপ্তা আগেই অখদ্যে ভাইরাল ফিভার আর ব্রঙ্কিয়াল সমস্যায় এক হপ্তা বিছানাবাসী ছিলাম গাঁইগুঁই করেও, আর সেইদিন মেডিক্যাল সার্টিফিকেট চাওয়ায় তিনি মেডিক্যালি ফিট লিখবেনই না। সেবছর কলহপ্রিয়ার যুক্তিজাল ভাইটির সম্ভবত স্মরনে ছিলো, তাই তিনি ছুটি লিখলেন না। আমি তো ফাঁপরে! শরীর চলে না তার স্কুলমুখো হবো কি ? ইদিকে ডাক্তারে না আদেশ দিলে বিছানায়ই বা থাকি কি করে!
চেম্বার থেকে বেরিয়ে এসে মেয়েকে বলায়, সে আবার ঢুকলো, বললো ডাক্তারবাবুকে। দৃশ্যত খুশী সে ভাইটি আনন্দে একহপ্তা 'রেস্ট ' নিতে কইলেন, কাগজে কলমে।

এমন অম্লমধুর সম্পর্কের বিবরন ছেড়ে আসল কথায় আসি। আমি, 48 বছরের অর্ধশিক্ষিত জ্ঞানপাপী মহিলা, প্রায়শই আঠাশ বছর বয়সের মত মিষ্টি খেয়ে ফেলি (তারপরের অপরাধবোধটুকু চিরকাল লোকচক্ষুর আড়ালে হলেও, বুকের ভেতর চুপকে থাকে) । আজও ঢাকেশ্বরীর পুরোনো চেহারা ও স্বাদের মিষ্টি আনা হয়েছে দেখে কিছু অনাচার চলবে ওজন ভুলে।

কিন্তু... কিন্তু.. অমনধারা অসৈরণ করে করে যখন ডাক্তারের হাতের বাইরে যাবে সব, তখন যাতে পরিবারের কেউ ডাক্তারকে কোন প্রকার অসম্মান না করতে পারে তার একটা আইনী উপায় ভাবতে হবে মিষ্টত্ব মনেমগজে থাকতে থাকতেই। যেমন কিনা স্হাবর অস্হাবর সম্পত্তির উইল হয় , তেমন একখানি ইচ্ছাপত্র মুমূর্ষু রোগীকে দিয়ে স্বাক্ষর করানো যায় না প্রাক-গঙ্গাযাত্রাপর্বে!?বয়ানটির খসড়া এমন হোক, আর প্রাজ্ঞজনের পরামর্শে দু এক বাক্য সংযোজন-বিয়োজন হতেই পারে, মূলভাবটি অক্ষুন্ন রেখেই।

'আমি , নিম্নস্বাক্ষরকারিনী, সারাজীবন ডাক্তারের সুপরামর্শ দাবড়াইয়া অগ্রাহ্য করিয়া আপন শর্তে জীবন কাটাইয়া আসিয়াছি (আমার প্রায় জন্মগত অ্যান্ট্রাল গ্যাসট্রাইটিস, ডায়াগনোসিসকারী গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজিস্ট, কফি, বাঁধাকপি ও নারকেল না খাইবার পরামর্শ দেওয়ায় সেই বিশিষ্ট সুচিকিতসকের পুনরায় মুখদর্শন করি নাই) , নিজ বিবেচনায় শরীরের যত্ন লইতে চেষ্টা করিয়াছি আজীবন, এই মর্মে মুচলেকা দিতেছি যে, যদি আমার অবহেলাজনিত কোন শারীরিক পরিস্হিতির চিকিতসা করিতে চিকিতসক অপারগ হন ও আমার প্রাণ বিয়োগ ঘটে তবে আমার আত্মজন সে বাবদ চিকিতসককে দোষী ঠাউরাইবে না বা কোনরূপ অসম্মান করিবে না। আমার এই আদেশপত্র অন্যথাকারীকে আমার শেষকাজের তথা পরিত্যক্ত দোআনি চারআনির অধিকার হইতে বিযুক্ত করা হইবেক' ।

স্বাক্ষর: শ্রীমত্যা সুতপা দাসী
(সাকিন ও তাংঃ অদ্যাবধি নির্দিষ্ট নহে)

শেয়ার করুন


Avatar: Munia

Re: ইচ্ছাপত্র

হা হা হা!
দারুণ! 🤣
Avatar: Du

Re: ইচ্ছাপত্র

হা হা!
Avatar: aranya

Re: ইচ্ছাপত্র

গ্রেট :-)

আমি ডায়াবেটিক, তাও মিষ্টি খেয়ে ফেলি ও অপরাধবোধে ভুগি, কিছুতেই কোন রকম নিয়ম মানতে মন চায় না
Avatar: সুতপা

Re: ইচ্ছাপত্র

অনন্যা, কোন অপরাধবোধে ভুগবেন না, মিষ্টি খেলেই অনেকটা হেঁটে বা স্পট জগিং করে নেবেন,কর্তার পকেট ফাঁকা করে যদি না জমিয়ে খরচ তরে ফেলা যায়, তবে ধরে কোন পুলিশের সাধ্যি! চিনির হিসেবও, খরচ করলে, রক্তে রেকর্ড থাকবে না ভাই! :)
Avatar: সুতপা

Re: ইচ্ছাপত্র

অনন্যা, কোন অপরাধবোধে ভুগবেন না, মিষ্টি খেলেই অনেকটা হেঁটে বা স্পট জগিং করে নেবেন,কর্তার পকেট ফাঁকা করে যদি না জমিয়ে খরচ তরে ফেলা যায়, তবে ধরে কোন পুলিশের সাধ্যি! চিনির হিসেবও, খরচ করলে, রক্তে রেকর্ড থাকবে না ভাই! :)
Avatar: দ

Re: ইচ্ছাপত্র

এহ :)))))
Avatar: বিপ্লব রহমান

Re: ইচ্ছাপত্র

বাপ্রে! এ যে অসুখের ডিপো! লেখাটি সেরাম! 👌
Avatar: aranya

Re: ইচ্ছাপত্র

ধন্যবাদ সুতপা, আপুনি বড় ভাল লেখেন :-)
আলসেমি কাটিয়ে হাঁটতে হবেক


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন