Muhammad Sadequzzaman Sharif RSS feed

Muhammad Sadequzzaman Sharifএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • 'চোখের সামনেই ওরা গুলি করে বাবা মা ভাই বৌদিকে'
    বায়ান্ন, একাত্তর, নব্বইসহ বাংলাদেশের প্রতিটি গণ-আন্দোলনের সূতিকাগার হিসেবে পরিচিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সদা হাস্যোজ্জ্বল, সবার প্রিয় মধুদাকে (মধুসূদন দে) পাকিস্তানি সামরিক জান্তা ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ ভোরে ছোট ছোট ছেলেমেয়ের ...
  • নায়ক
    আমার দুঃসম্পর্কের ভাগ্নেটা হঠাৎ করে নায়ক হয়ে গেছে। ওর চালচলন,হাবভাব,বেশভুষ...
  • বিয়ের মত
    কয়েকদিন আগে খেতে বসে আব্বু আম্মুকে বলছিলেন, লাবণ্যর জন্য একটা ভালো ছেলের সন্ধান পাওয়া পাওয়া গেছে। টেবিলে আরো কয়েকজন বসে ছিল। খালামনি,খালাত ভাই আর আমার ছোটবোন। সবার সামনে ভাব নিয়ে বললাম, দেখো আব্বু! খবরদার আর বিয়েটিয়ের কথা এখন তুলবা না! আমি এখনো ...
  • বিজ্ঞানের অ(নেক?)-ক্ষমতা # পর্ব-১
    ১৯৫৬ সালে প্রখ্যাত পদার্থবিজ্ঞানী রিচার্ড ফাইনম্যান (১৯১৮-৮৮) ক্যালিফর্নিয়া ইন্সটিটিউট অফ টেকনলজি-তে খ্রিস্টধর্মাবলম্বী ছাত্রদের সঙ্গে মধ্যাহ্ন ভোজনে মিলিত হয়ে একটি বক্তৃতায় বিজ্ঞানের সঙ্গে ধর্মের সম্পর্ক বিষয়ে একটি ভাষণ দিয়েছিলেন। [Feynman 1956]। ষাট বছর ...
  • শিশু নির্যাতনের ফলে হয় মস্তিষ্কে পরিবর্তন, আর তার ফলে হয় তীব্র বিষণ্ণতার সমস্যা
    বিজ্ঞানের অবদানের কারণে আমরা আজ জানি যে চাইল্ড এবিউজ বা শিশু নির্যাতন ব্যক্তির প্রাপ্তবয়স্ক জীবনেও বিভিন্ন খারাপ প্রভাব ফেলতে পারে। একটি সাম্প্রতিক গবেষণা এসম্পর্কে জানাচ্ছে আরও নতুন একটি তথ্য। এই গবেষণাটি আমাদের সামনে নিয়ে এসেছে শিশু নির্যাতনের ফলে ...
  • চিন্তাসূত্র-১
    চিন্তাসূত্র-১ ( জ্বরের আদর কোলে)---------------...
  • চিন্তাসূত্র-১
    চিন্তাসূত্র-১ ( জ্বরের আদর কোলে)---------------...
  • সরল ছেলে
    তিনবছর ধরে চোখেচোখে দেখা, ভালোলাগা, ভালোবাসার পর নতুন রিলেশন শুরু করেছি। ছেলেটা একটু কেমন জানি। আমার এটা প্রথম প্রেম। আমি সঠিক জানিনা কিভাবে প্রেম করতে হয়। জ্ঞানার্জনের জন্য প্রেম করে বিয়ে করা বান্ধবীটাকে ফোন দিলাম। বললাম, তোদের প্রেম কিভাবে হয়েছিলো,কি ...
  • টালমাটাল টিনএজ
    টালমাটাল টিনএজশুভেন্দু দেবনাথদশটি মেয়ে এবং ছ-টি ছেলে। ষোলো জন কিশোর কিশোরী জড়ো হয়েছিল ২৩ শে জুলাই এক বান্ধবীর জন্মদিনের পার্টিতে। সকলেই যে ঘনিষ্ঠ তা নয়। বেশির ভাগেরই পরিচয় স্বল্প দিনের। কেউ কেউ তো আবার অচেনাও। এদের মধ্যেই একজন আবেশ দাশগুপ্ত, যে ...
  • সম্রাট অশোকের স্তম্ভ
    সম্রাট অশোকের স্তম্ভ রাষ্ট্র-কাঠামোর প্রতীক সম্রাট অশোকের ‘স্তম্ভে’ মোট চার প্রকার সত্তার মূর্তকল্প উপস্থিতি দেখা যায়। সিংহ, বৃষ, অশ্ব ও হস্তী। এর মধ্যে সিংহ শব্দটি (মূর্তকল্পটি) ক্ষত্রিয় রাজকীয়তার প্রতীক (স্মর্তব্য: সিংহাসন, সিংহদুয়ার, বীরসিংহ, সিংহভাগ, ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

শুভ নববর্ষ

Muhammad Sadequzzaman Sharif

২৫ বছর আগে যখন বাংলা নববর্ষ ১৪০০ শতাব্দীতে পা দেয় তখন একটা শতাব্দী পার হওয়ার অনুপাতে যে শিহরণ হওয়ার কথা আমার তা হয়নি। বয়স অল্প ছিল, ঠিক বুঝতে পারিনি কি হচ্ছে। আমি আর আমার খালত ভাই সম্রাট ভাই দুইজনে কয়েকটা পটকা ফুটায়া ঘুম দিছিলাম। আর জেনেছিলাম রবীন্দ্রনাথ নজরুল এই জনের ১৪০০ সাল নিয়ে পাল্টাপাল্টি কবিতা আছে।কেন জানি নজরুলের কবিতা লেখাটা আমার কাছে খুব খ্যাত খ্যাত লাগছে। ভাবছিলাম, কি দরকার ছিল তখনই জবাব দিয়ে কবিতা লেখার!! এখন শুধু রবীন্দ্রনাথের কবিতাটা থাকলে কি দারুণ হত!! এই চিন্তার কোন ভিত্তি নেই, মনে হয়েছিল আর কি!! শতাব্দী কে বরণ করে নেয়া কি জিনিস বুঝতে পারি নাই।

পারি নাই এর আরেকটা কারন হচ্ছে তখনো নববর্ষ উৎযাপন বাংলাদেশে তেমন কোন চেহারা পায় নাই। ঢাকায় মঙ্গল শোভাযাত্রা হয়। চারুকলার ছাত্ররা ফুর্তি ফার্তা করে আর কি!! আমাদের অত মাথাব্যথা নেই এসব নিয়ে।শেরপুরে নববর্ষের বাতাস লাগতে সময় লেগেছে বহুকাল।
আস্তে আস্তে আমাদের চোখের সামনে নববর্ষ উৎযাপন ক্রমে আমাদের সংস্কৃতির অন্যতম উপাদান হয়ে গেলো। মঙ্গল শোভাযাত্রা হয়ে গেল সকল প্রকার সাম্প্রদায়িকতার প্রতি চাবুক স্বরূপ। যে শোভাযাত্রা চারুকলার ছেলেমেয়েরা করত শুধু তা এখন সার্বজনীন। প্রতিটা জেলায় এখন মঙ্গল শোভাযাত্রা হয়। ঢাকায় এই একদিনে কি পরিমাণ মানুষ শুধু কোন কারন ছাড়াই হাঁটে তার কোন হিসেব সম্ভবত নাই কোথাও। রমানা থেকে শুরু করে শাহবাগ, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, নীলক্ষেত পর্যন্ত পা ফেলার জায়গা থাকে না। মানুষের প্রবল আগ্রহই এই দিনকে সার্বজনীন করে তুলেছে। এই দিন উপলক্ষে এখন ফ্যাশন ডিজাইনাররা পোশাক তৈরি করে, মার্কেটে বিপুল পরিমাণ অর্থ লগ্নি হয়, মানুষ কেনেও পাগলের মত। এই একদিন হিন্দু মুসলিম বৌদ্ধ, খ্রিস্টান হিসেব করে না কেউ। ধনী গরিব বাছবিচার থাকে না। শাহবাগ থেকে হেঁটে হেঁটে মৎস্য ভবন যেতে কারো কোন পয়সা লাগে না। তাই স্ত্রীকে পুরাতন শাড়ি পরিয়ে, বাচ্চাকে একটা লাল হলুদ ফতুয়া কিনে দিয়ে রিক্সাওয়ালা রিক্সায় করে ফুল ফ্যামিলি নিয়ে ঘুরতে পারে। ১০ টাকা দিয়ে আচার কিনে ঘুরতে ঘুরতে খাওয়া চলে সাথে। এখন উৎসবের ব্যাপকতায় বহু কোম্পানির মানুষজন পানির বোতল নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে রাস্তায়। কাজেই ঢাকা শহরে মোটামুটি ইচ্ছা থাকলে যে কেউ অংশ নিতে পারে নববর্ষ উৎযাপনে। এখন মানে গত কয়েক বছর ধরে নববর্ষ উৎযাপন শাহবাগ এলাকা ছেড়ে পুরো শহরে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে অনেকে এবং তারা মোটামুটি সফল। উত্তরার লোকজনের এখন শাহবাগে না আসলেও চলবে। কারন উত্তরায়ই বিভিন্ন আয়োজন নিয়ে সেজে বসে থাকে। যাদের রমনা বটমূলে ছায়ানটের গান শুনতে হবে তাদের হিসেব আলাদা। অবশ্য একটু দেরি করে মানে একটু দেরি বলতে নয়টা দশটার দিকে গেলে রমনায় ঢুকতে পারবে এমন মর্দ তো আমি দেখি না!! রমনায় ঢুকার বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে লাখ মানুষ ঢুকার জন্য লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে গেছে ততক্ষণে। প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতা হচ্ছে, অনেক ফাঁকি বাজি মেরে, লাইন আইন কয়েকবার করে ভেঙ্গে ভিতরে ঢুকে আমার আর ভাল লাগে নাই। মনে হল বাহিরেই তো কত্তবড় দুনিয়া!! গান আর কতক্ষণ ভাল লাগে!!
এই উৎসব বন্ধ করতে কত চেষ্টাই না করা হয়েছে। বোম মেরে বন্ধ করতে চেয়েছে, নানা রকমের বানী দিয়ে চেষ্টা করা হয়েছে। যতবার এর উপরে আঘাত আসছে ততবার মানুষ বিপুল বিক্রমে দিগুণ থেকে তিনগুণ হয়ে হাজির হয়েছে রাস্তায়। উৎসবের রঙ আরো যেন বেরে গেছে প্রতিবার। ব্যাপ্তি হয়েছে বিশাল থেকে বিশালাকার। এই উৎসব যে ক্রমেই ঈদ পূজার পাশাপাশি অবস্থান নিবে তা কোন চিন্তা ভাবনা ছাড়াই বলে দেওয়া যায়, ছাড়িয়ে গেলেও অবাক হব না।

আশা করা ছাড়া আমরা আর কিছু করতে পারি না। প্রতিবছর আমরা নববর্ষের দিন আশা প্রকাশ করি যে এ বছর সব ভাল হবে, এ বছর একদম একটা অতুলনীয় বছর হবে। ধুয়া তুলসী পাতা হয়ে যাব আমরা সবাই। কিন্তু হয়ে উঠে না। আমরা কোথায় গিয়ে জানি খেই হারিয়ে ফেলি, আবার অতলে তলিয়ে যাই। যাক, নতুন বছরে শুরুতে নিরাশার কথা কব না আর। বরাবরের মত এবারও নতুন বছরের প্রতি আশা এবার সব অমঙ্গল দূর হবে, অশান্তি নিকেশ হবে, ভালবাসায় পরিপূরণ হবে দেশ। ভাল থাকবে জ্ঞানী ও জ্ঞানপাপী, ভাল ও মন্দ, ছেলে ও মেয়ে, নারী ও পুরুষ, যুবক ও যুবতী, শিশু, কিশোর ও কিশোরী। ভাল থাকুক যারা নববর্ষ কি যে জানে সেও, ভাল থাকুক যাকে আগামীকাল সক্কালে উঠে জীবিকার সন্ধান করতে যেতে হবে সেই মানুষটা। আগামী বছরটা ভাল কাটুক আমার নতুন পুরাতন, কাছে দূরের, দেশে বিদেশের সকল বন্ধুদের। ভাল হোক পরম শত্রুরও, ফেসবুকে ব্লক মারা আপনরাও।






170 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: স

Re: শুভ নববর্ষ

"নজরুলের কবিতা লেখাটা আমার কাছে খুব খ্যাত খ্যাত লাগছে"। ওর ছাগল, নিজেকে ছোট করলেই কি কলকে পাবি? বড় জোর পিঠ চাপড়ানি। আর নিজেকে ছোট করা থেকে বের হতে পারবি না।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন