Prativa Sarker RSS feed

Prativa Sarkerএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • 'চোখের সামনেই ওরা গুলি করে বাবা মা ভাই বৌদিকে'
    বায়ান্ন, একাত্তর, নব্বইসহ বাংলাদেশের প্রতিটি গণ-আন্দোলনের সূতিকাগার হিসেবে পরিচিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সদা হাস্যোজ্জ্বল, সবার প্রিয় মধুদাকে (মধুসূদন দে) পাকিস্তানি সামরিক জান্তা ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ ভোরে ছোট ছোট ছেলেমেয়ের ...
  • নায়ক
    আমার দুঃসম্পর্কের ভাগ্নেটা হঠাৎ করে নায়ক হয়ে গেছে। ওর চালচলন,হাবভাব,বেশভুষ...
  • বিয়ের মত
    কয়েকদিন আগে খেতে বসে আব্বু আম্মুকে বলছিলেন, লাবণ্যর জন্য একটা ভালো ছেলের সন্ধান পাওয়া পাওয়া গেছে। টেবিলে আরো কয়েকজন বসে ছিল। খালামনি,খালাত ভাই আর আমার ছোটবোন। সবার সামনে ভাব নিয়ে বললাম, দেখো আব্বু! খবরদার আর বিয়েটিয়ের কথা এখন তুলবা না! আমি এখনো ...
  • বিজ্ঞানের অ(নেক?)-ক্ষমতা # পর্ব-১
    ১৯৫৬ সালে প্রখ্যাত পদার্থবিজ্ঞানী রিচার্ড ফাইনম্যান (১৯১৮-৮৮) ক্যালিফর্নিয়া ইন্সটিটিউট অফ টেকনলজি-তে খ্রিস্টধর্মাবলম্বী ছাত্রদের সঙ্গে মধ্যাহ্ন ভোজনে মিলিত হয়ে একটি বক্তৃতায় বিজ্ঞানের সঙ্গে ধর্মের সম্পর্ক বিষয়ে একটি ভাষণ দিয়েছিলেন। [Feynman 1956]। ষাট বছর ...
  • শিশু নির্যাতনের ফলে হয় মস্তিষ্কে পরিবর্তন, আর তার ফলে হয় তীব্র বিষণ্ণতার সমস্যা
    বিজ্ঞানের অবদানের কারণে আমরা আজ জানি যে চাইল্ড এবিউজ বা শিশু নির্যাতন ব্যক্তির প্রাপ্তবয়স্ক জীবনেও বিভিন্ন খারাপ প্রভাব ফেলতে পারে। একটি সাম্প্রতিক গবেষণা এসম্পর্কে জানাচ্ছে আরও নতুন একটি তথ্য। এই গবেষণাটি আমাদের সামনে নিয়ে এসেছে শিশু নির্যাতনের ফলে ...
  • চিন্তাসূত্র-১
    চিন্তাসূত্র-১ ( জ্বরের আদর কোলে)---------------...
  • চিন্তাসূত্র-১
    চিন্তাসূত্র-১ ( জ্বরের আদর কোলে)---------------...
  • সরল ছেলে
    তিনবছর ধরে চোখেচোখে দেখা, ভালোলাগা, ভালোবাসার পর নতুন রিলেশন শুরু করেছি। ছেলেটা একটু কেমন জানি। আমার এটা প্রথম প্রেম। আমি সঠিক জানিনা কিভাবে প্রেম করতে হয়। জ্ঞানার্জনের জন্য প্রেম করে বিয়ে করা বান্ধবীটাকে ফোন দিলাম। বললাম, তোদের প্রেম কিভাবে হয়েছিলো,কি ...
  • টালমাটাল টিনএজ
    টালমাটাল টিনএজশুভেন্দু দেবনাথদশটি মেয়ে এবং ছ-টি ছেলে। ষোলো জন কিশোর কিশোরী জড়ো হয়েছিল ২৩ শে জুলাই এক বান্ধবীর জন্মদিনের পার্টিতে। সকলেই যে ঘনিষ্ঠ তা নয়। বেশির ভাগেরই পরিচয় স্বল্প দিনের। কেউ কেউ তো আবার অচেনাও। এদের মধ্যেই একজন আবেশ দাশগুপ্ত, যে ...
  • সম্রাট অশোকের স্তম্ভ
    সম্রাট অশোকের স্তম্ভ রাষ্ট্র-কাঠামোর প্রতীক সম্রাট অশোকের ‘স্তম্ভে’ মোট চার প্রকার সত্তার মূর্তকল্প উপস্থিতি দেখা যায়। সিংহ, বৃষ, অশ্ব ও হস্তী। এর মধ্যে সিংহ শব্দটি (মূর্তকল্পটি) ক্ষত্রিয় রাজকীয়তার প্রতীক (স্মর্তব্য: সিংহাসন, সিংহদুয়ার, বীরসিংহ, সিংহভাগ, ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

আন্তর্জাতিক শ্রমজীবী নারী দিবস ও পোস্তুবালা।

Prativa Sarker

নাটক নভেলে পুরুলিয়ার নাচনীকে জানা এক কথা, আর নারী দিবসের ঠিক আগে তাদের এক আইকনকে বুকে জড়িয়ে ধরে তার কেশের নারিকেল তেলের সুবাস নেওয়া, তার জীবনের নানা তোলপাড়ে ভেসে যাওয়া, আর এক।

আমার বাহুবন্ধনে পোস্তুবালা দেবী কর্মকার। নিজে নাচনী , আবার নির্যাতিত নাচনী সম্প্রদায়ের লড়াকু নেত্রী, পোস্তদানার মতোই মহার্ঘ এই নারী। দুর্বার মহিলা সমণ্বয় সমিতি এবং নাচনী সম্প্রদায়ের যৌথ উদ্যোগে সরকারী পৃষ্ঠপোষকতায় তিন দিন ব্যাপী অনুষ্ঠানের অন্যতম প্রাণনারী পোস্তুবালার সংগে নাচনীদের সাজঘরে বসে অনেক কথা হল।

নাচনী-রসিক প্রথা মানভূমে বহু পুরোন হলেও নাচনীদের মানুষ হিসেবে প্রাপ্য সম্মান দেবার চেষ্টা শুরু হয়েছে এই কিছুদিন আগে দুর্বারের নেতৃত্বে। তার আগে যে অমানবিকতার শিকার হত এই নারীরা তা কল্পনাকেও ছাপিয়ে যেত। মূলত নৃত্যগীত শিল্পী এই মহিলারা গুরু তথা রসিকের রক্ষিতার চেয়ে বেশি সম্মান কখনওই পায়নি। অথচ রসিকই তার সব, গুরু, পালক, পৃষ্ঠপোষক, এবং প্রেমিকও বটে।
কিন্তু রসিক আবার বিবাহিত পুরুষ এবং সন্তানের পিতা। ফলে নাচনীকে নিয়ে তার পরিবারে ভয়ানক কোন্দল। নাচনীকে মাটিতে শালপাতায় খাবার দেওয়া হত, সে জায়গা গোবর দিয়ে নিকিয়ে না দিলে শুদ্ধ হত না। সারাজীবন রসিকের সংসারের একপ্রান্তে পড়ে থাকা এই নারীর শরীর মৃত্যুর পড়েও ছিল সমান অচ্ছুত। কাঁধ দেওয়া তো দূরের কথা, তার মৃতদেহের পায়ে দড়ি বেঁধে টানতে টানতে ভাগাড়ে ফেলা হত, যাতে শেয়াল, কুকুর, শকুনের খাদ্য হয় ওই পাপীয়সী। রসিক কিন্তু দিব্যি সব সামাজিক আচার আচরণের অধিকারী থাকতেন আমৃত্যু।
পোস্তুবালার মা- নাচনী যখন দলের বাজনদার রসিকের হাত ধরে দল ছাড়ে তখন সে জানতো না পেটে দুমাসের পোস্তুবালাকে ফেলে তার রসিক জন্মের মতো চোখ বুজবে। ফলে পোস্তুর ছোটবেলা কেটেছে চরম কষ্টে। মা ছেড়ে চলে গেলে সে ভিক্ষা করেছে, ঝি গিরি, গরুর বাগালি কিছুই বাদ ছিলনা।
সেই মা ফিরে এসে পোস্তুর বিয়ের ব্যবস্থা করে তার ঠাকুর্দার বয়সী এক অসুস্থ মানুষের সঙ্গে। তখন তার বয়স দশ কি বার। আগের স্ত্রী রুষ্ট হবে তাই অই কচি মেয়েকে মানবাজারে নিয়ে গিয়ে জরায়ু খালাস করিয়ে আসা, যাতে বাচ্চাকাচ্চার ব্যাপারে কোন হ্যাপা না থাকে।
'সম্পত্তি ভাগ কইত্তে হত যে !' পস্তুবালা মৃদু হাসে, 'রইতে রইতে নিজেই ঠিক কল্লাম নাচনী হব।' রসিক হয়ে এলেন বিজয় কর্মকার। তারও বৌ ছেলে আছে নাচনী হবার পর জানতে পারে পোস্তু।

আমি শুধোই, তোমায় মিথ্যে বলেছিল তার মানে !
প্রৌঢ় মুখ নরম হয়, প্রেমের ছটায়। পোস্তু প্রতিবাদ করে, 'না উয়ার মাসি মিছা বইলেছিল।'
বাড়ির সবাই একবাক্যে বলেছিল, 'কি কইরবি উয়াক নিয়া ? লাদে কি মারুনি দিব ?'
রসিক পাত্তা দেয়নি। তাকে নিয়ে ঘুরেছে গুরুর কাছে, নাচগানের আখড়ায়। আর পোস্তুর ছিল একাগ্র শিল্পী সত্ত্বা--'লইক্ষ করতাম গুরুজনদের ছাতি, কমর, হাতের কাজ। শিখে লিলাম অল্প দিনে। '

পোস্তুবালার খ্যাতি আজ সারা মানভূমে শুধু অনন্য শিল্পী হিসেবে নয়, স্বাধিকার অর্জনের লড়াকু নেত্রী হিসেবেও। ভোটার কার্ডেও তার স্বামীর নামের জায়গায় বিজয়ের নাম। দুর্বারের অকুন্ঠ সহযোগিতায় গোটা মানভূমের নাচনীদের কাছে রক্ষাকারী দেবীর নাম পোস্তুবালা দেবী কর্মকার। কর্মের দেবী , শিল্পের দেবী।

যারা নারী দিবসকে ছুতোনাতায় 'আনসেলিব্রেট' করার ডাক দেয় আলোচনার মধ্যমণি হবার কারণে, যাতে ব্যবসা পয়মন্ত হয়, তারা জেনে রাখুক এই সব লড়াকু মেয়েরাই সমাজের অলংকার। এরা থাকতে নারী দিবসের তাৎপর্য অক্ষুণ্ণ থাকবে চিরকাল।

99 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন



আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন