Dibyendu Singha Roy RSS feed

Dibyendu Singha Royএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • শকওয়েভ
    “এই কি তবে মানুষ? দ্যাখো, পরমাণু বোমা কেমন বদলে দিয়েছে ওকে সব পুরুষ ও মহিলা একই আকারে এখন গায়ের মাংস ফেঁপে উঠেছে ভয়াল ক্ষত-বিক্ষত, পুড়ে যাওয়া কালো মুখের ফুলে ওঠা ঠোঁট দিয়ে ঝরে পরা স্বর ফিসফাস করে ওঠে যেন -আমাকে দয়া করে সাহায্য কর! এই, এই তো এক মানুষ এই ...
  • ফেকু পাঁড়ের দুঃখনামা
    নমন মিত্রোঁ – অনেকদিন পর আবার আপনাদের কাছে ফিরে এলাম। আসলে আপনারা তো জানেন যে আমাকে দেশের কাজে বেশীরভাগ সময়েই দেশের বাইরে থাকতে হয় – তাছাড়া আসামের বাঙালি এই ইয়ে মানে থুড়ি – বিদেশী অবৈধ ডি-ভোটার খেদানো, সাত মাসের কাশ্মিরী বাচ্চাগুলোর চোখে পেলেট ঠোসা – কত ...
  • একটি পুরুষের পুরুষ হয়ে ওঠার গল্প
    পুরুষ আর পুরুষতন্ত্র আমরা হামেশাই গুলিয়ে ফেলি । নারীবাদী আন্দোলন পুরুষতন্ত্রের বিরুদ্ধে, ব্যক্তি পুরুষের বিরুদ্ধে নয় । অনেক পুরুষ আছে যারা নারীবাদ বলতে বোঝেন পুরুষের বিরুদ্ধাচরণ । অনেক নারী আছেন যারা নারীবাদের দোহাই পেড়ে ব্যক্তিপুরুষকে আক্রমন করে বসেন । ...
  • বসন্তকাল
    (ছোটদের জন্য, বড়রাও পড়তে পারেন) 'Nay!' answered the child; 'but these are the wounds of Love' একটা দানো, হিংসুটে খুব, স্বার্থপরও:তার বাগানের তিন সীমানায় ক'রলো জড়ো,ইঁট, বালি, আর, গাঁথলো পাঁচিল,ঢাকলো আকাশ,সেই থেকে তার বাগান থেকে উধাও সবুজ, সবটুকু নীল।রঙ ...
  • ভুখা বাংলাঃ '৪৩-এর মন্বন্তর (পর্ব ৫)
    (সতর্কীকরণঃ এই পর্বে দুর্ভিক্ষের বীভৎসতার গ্রাফিক বিবরণ রয়েছে।)----------১৯৪...
  • শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস
    ১৩ ডিসেম্বর শহিদুল্লাহ কায়সার সবার সাথে আলোচনা করে ঠিক করে বাড়ি থেকে সরে পড়া উচিত। সোভিয়েত সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের প্রধান নবিকভ শহিদুল্লাহ কায়সারের খুব ভাল বন্ধু ছিলেন।তিনি সোভিয়েত দূতাবাসে আশ্রয় নেওয়ার জন্য বলেছিলেন। আল বদর রাজাকাররা যে গুপ্তহত্যা শুরু করে ...
  • কালচক্রের ছবি
    বৃষ্টিটা নামছি নামছি করছিল অনেকক্ষন ধরে। শেষমেশ নেমেই পড়ল ঝাঁপিয়ে। ক্লাশের শেষ ঘন্টা। পি এল টি ওয়ানের বিশালাকৃতির জানলার বাইরে ধোঁয়াটে সব কিছু। মেন বিল্ডিং এর মাথার ওপরের ঘড়িটা আবছা হয়ে গেছে। সব্যসাচী কনুই দিয়ে ঠেলা মারল। মুখে উদবেগ। আমারও যে চিন্তা ...
  • এয়ারপোর্টে
    ১।আর একটু পর উড়ে যাবভয় করেকথা ছিল কফি খাবফেরার গল্প নিয়েকত সহজেই না-ফিরেফুল হয়ে থাকা যায়যারা ফেরে নি উড়ার শেষেতাদের পাশ দিয়ে যাইভয় আসেকথা আছে কফি নেব দুজন টেবিলে ফেরার পর ২।সময় কাটানো যায়শুধু তাকিয়ে থেকেতোমার না বলা কথাওরা বলে দেয়তোমার না ছুঁতে পারাওরা ...
  • ভগবতী
    একদিন কিঞ্চিৎ সকাল-সকাল আপিস হইতে বাড়ি ফিরিতেছি, দেখিলাম রাস্তার মোড়ের মিষ্টান্নর দোকানের সম্মুখে একটি জটলা। পাড়ার মাতব্বর দু-চারজনকে দেখিয়া আগাইয়া যাইলাম। বাইশ-চব্বিশের একটি যুবক মিষ্টির দোকানের সামনের চাতালে বসিয়া মা-মা বলিয়া হাপুস নয়নে কাঁদিতেছে আর ...
  • শীতের কবিতাগুচ্ছ
    ফাটাও বিষ্টুএবার ফাটাও বিষ্টু, সামনে ট্রেকার,পেছনে হাঁ হাঁ করে তেড়ে আসছে দিঘাগামী সুপার ডিলাক্স।আমাদের গন্তব্য অন্য কোথাও,নন্দকুমারে গিয়ে এক কাপ চা,বিড়িতে দুটান দিয়ে অসমাপ্ত গল্প শোনাব সেই মেয়েটার, সেই যারজয়া প্রদার মত ফেস কাটিং, রাখীর মত চোখ।বাঁয়ে রাখো, ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

লেখক, বই ও বইয়ের বিপণন

Dibyendu Singha Roy

কিছুদিন আগে বইয়ের বিপণন পন্থা ও নতুন লেখকদের নিয়ে একটা পোস্ট করেছিলাম। তারপর ফেসবুকে জনৈক ভদ্রলোকের একই বিষয় নিয়ে প্রায় ভাইরাল হওয়া একটা লেখা শেয়ার করেছিলাম। এই নিয়ে পক্ষে ও বিপক্ষে বেশ কিছু মতামত পেয়েছি এবং কয়েকজন মেম্বার বেক্তিগত আক্রমণ করে আমায় মিন স্পিরিটেড বা আপনার এত ফাটছে কেন বলতে দ্বিধা করেননি।
নিজের লেখা ও পরে ভদ্রলোকের শেয়ার করা লেখা পড়ে মনে হয়েছে যারা পক্ষে , বিপক্ষে ও বেক্তি আক্রমণ করেছেন তাদের অনেককেই ব্যাপারটা আরেকটু ভালো ভাবে বোঝানো দরকার।
আসলে অল্প বইপত্র পড়ি ও বিভিন্ন ফেসবুক গ্রূপে যা দেখি ও সে নিয়ে আমার প্রতিক্রিয়া জানাতে ও আপনাদের মতামত জানাতে এই পোস্ট।
মাস খানেক আগে একটা বইয়ের গ্রূপে একদিন দেখি এক লেখক একজন অনলাইনে বই বিক্রেতাকে রীতিমতো চার্জ করছিলেন কেন তার বই ওই বিক্রেতা বিক্রি করেননা। বিক্রেতার বক্তব্য ছিল যে সময়ের মধ্যে ক্রেতা বই ডেলিভারি চেয়েছিলেন সে সময়ের মধ্যে ওই লেখকের বই সরবরাহ করা যেত না। এর পর কেন যেতোনা , প্রকাশকের কি স্টক কম , আসলে আপনি ইচ্ছা করে দিতে চাননি এসব দোষারোপ চলতে থাকে।
ব্যাপারটা দেখে ব্যথিত হয়েছিলাম একজন লেখক মহামানব নন তবু মনে হয় তারা অনেক উদার হন (ব্যক্তিগত ধারণা )
এইভাবে একজন বিক্রেতার সাথে তাকে ঝগড়া করতে দেখে খারাপ লেগেছিলো।
উক্ত লেখককে এর আগে এরকম বেশ কিছু ঝামেলায় জড়াতে দেখেছি বিশেষ করে তার বিপক্ষ গ্রূপের লেখক ও তার দলবলের সাথে। দু পক্ষই কেও কারোর থেকে কম জাননা কদর্য ভাষা ও কাদা ছোঁড়াছুড়িতে।
দু পক্ষের লেখা পড়েছি এবং এদের কারোর লেখায় উঁচু মানের মনে হয়নি (ব্যক্তিগত মতামত)
যদিও খুব বড় প্রকাশনী এদের লেখা প্রকাশ করে তবু আজ অবধি যারা একটু সিরিয়াস লেখা পড়েন ও আলোচনা করেন তাদের কোনোদিন এদের নিয়ে আলোচনা করতে দেখিনি।
এধরণের অনেক লেখক লেখিকার বই বেরোনো মাত্র তাদের ফ্যান ফলোয়ার রা রিভিউ দেন। রিভিউতে বইটার শুধু গুণকীর্তন দেখতে পায় কেউ সমালোচনা করলেই ফ্যানেরা রে রে করে তেড়ে আসেন।
বই বিপণন করতে অনেক লেখক ও প্রকাশক এখন প্রিবুকিং এর সাহায্য নেন। প্রি বুকিং নিয়ে সমস্যার কিছু নেই। কিন্তু যে ভাবে বিজ্ঞাপন করা হয় তা অনেক সময় লাক্স সাবান অথবা গার্নিয়ার মেন্স ফেসওয়াসের মতো যা বার বারবার বলে অর্থ ও প্রচারই শেষ কথা। বইয়ের ক্ষেত্রে এটা মানতে কষ্ট হয় (ব্যক্তিগত মত)
এক লেখক কিছুদিন আগে বিখ্যাত গোয়েন্দা নিয়ে নিজের বইয়ের প্রচার করছিলেন ঠিক এইভাবে "প্রিবুকিং করলে আকর্ষণীয় ডিসকাউন্ট , প্রথম ৫০ জন ক্রেতার জন্য সারপ্রাইজ গিফট ও আমার সই "
কয়েকজন যারা ওনার লেখা পড়েছেন তাদের মুখে শুনেছি বেশিরভাগ লেখাই উইকিপেডিয়া থেকে টোকা।
নিজে পড়তে পারিনি কারণ বইয়ের অসম্ভব দাম।
রবিনসন স্ট্রিটের কঙ্কাল কাণ্ডের কথা মনে আছে ? আনন্দবাজারে কঙ্কাল উদ্ধারের পরদিনই শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় লিখেছিলেন "ডালমে কুছ কালা হে " । গোটা বাংলার লোক পার্থ দে নামের অসুস্থ লোকটাকে বিকৃত যৌনাচারী প্রতিপন্ন করে নিজের দিদির সাথে শুইয়ে দিয়েছিলো। শীর্ষেন্দু বাবু তদন্তের আগেই এক প্রকার মতামত দিয়েই দিয়েছিলেন নিশ্চই কিছু গড়বড় আছে।
একজন লেখক আরেকটু ভাববেন না ? আরেকটু দায়িত্ব নেবেন না ? হঠাৎ একটা মন্তব্য করে বসবেন!
শীর্ষেন্দু বাবুর নাম নিতে ভয় পাইনা। আমার লেখায় তার কিছুই যায় আসেনা কিন্তু নতুন লেখকদের যখন এরকম ভাবে প্রতিক্রিয়া দিতে দেখি চিন্তিত হয় কিন্তু নাম উদ্ধৃত করে তাদের বলতে পারিনা দাদা আরেকটু সময় নিন , ভাবুন, বিশ্লেষণ করুন (প্রশ্ন উঠতে পারে আমি বলার কে ? আমার প্রশ্ন কে বলবে ?) ।
ফেসবুকে এক লেখিকা বেশ কিছু গল্প লিখে প্রচুর মানুষের লাইক ও শেয়ার পেয়েছিলেন। থ্রিলার লেখেন আর বই স্টলে আসলেই হট কেকের মতো বিক্রি। আমি ওনার লেখা পড়েছি, ভালোলাগেনি। একদিন আমার পরিচিত বই বিক্রেতা বললো অরে এই বইটা নিয়ে যাও নতুন এসেছে। আমি বললাম লেখিকার লেখা খুব একটা ভালো লাগেনা কিন্তু সেকি আপনার কাছে এতগুলো অথচ সবাই বলছে আউট অফ প্রিন্ট!
ভদ্রলোক বই নি বলে মাঝে বেশ খাতির করেন অনেক কথা জানতে পারি। রাখ ঢাক না করেই বললেন এসব হলো মার্কেটিং স্ট্রাটেজি। দেজ একসময় শঙ্করের বই নিয়ে এরকম করতো। ২৫ কপি ছাপিয়ে , আউট অফ প্রিন্ট তারপর বাজারে এক্স ডিওড্রেন্টের মতো প্রচার করে দ্বিতীয় সংস্করণ তৃতীয় সংস্করণ একটার পর একটা।
এসব লেখক লেখিকাদের মোসাহেব পরিবৃত হয়ে নানা কেচ্ছা মূলক পোস্ট ও মন্তব্য করতে দেখলেও কোনোদিন কোনো ভালো বিষয় নিয়ে আলোচনায় অংশ নিতে দেখিনি। প্রকাশকদের বিজ্ঞাপন কৌশলের কাছে একজন উঠতি লেখকের বা খুব ছোট প্রকাশনার সত্যিকারে ভালো লেখাকে মার্ খেতে দেখেছি।
বইমেলা লিটিল ম্যাগাজিনের প্যাভিলিয়ন থেকে এরকম কিছু অজানা লেখক লেখিকার গল্প কবিতা প্রবন্ধের বই কিনে এনে দেখেছি কি ভরপুর ভাবনার খোরাক আর প্রথা বহির্ভুত দর্শনের উদাহরণ রয়েছে।

আমার মতামত বা বিশ্লেষণ এখানেই শেষ। এইখানে বলে রাখি আমি নিজের মতামত দিয়েছি আর এর দায় সম্পূর্ণ আমার। কোনটা ভালো ও কোনটা খারাপ , কোনটা সিরিয়াস কোনটা জাস্ট বোগাস সেটা বিচার করার আমি কেউ নয় কিন্তু আমার নিজের কিছু জিনিস ভালো লাগতে বা খারাপ লাগতেই পারে। আর আমার যা ভালো লাগে বা খারাপ লাগে তা যে আমার একারই লাগে এমন মনে করিনা। বিশ্বাস করি অনেকেই আমার সাথে সহমত হবেন। অনেকে মানতে পারবেন না।
আসুন আলোচনা করি। ভাবি ও জানি আপনি ঠিক কি ভাবছেন ?

126 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: রুকু

Re: লেখক, বই ও বইয়ের বিপণন

সমসাময়িক সমস্যা নিয়ে আলোচনা।
ব্যক্তিগত বানানটা ঠিক করে নেবেন।
ভালো লাগলো।
Avatar: :P

Re: লেখক, বই ও বইয়ের বিপণন

এক লেখক এক লেখিকা আবার কিরম ভাষা? কৌশিক, দেবারতি এমনি করে লিখতে হয়।
Avatar: anag

Re: লেখক, বই ও বইয়ের বিপণন

এই দুটো আম্মো বুঝ্লাম, কিন্তু প্রথমটা পারি নি ।

হায় - হোমসনামা আমার বাড়িতেও কেনা হয়েছে।
Avatar: pi

Re: লেখক, বই ও বইয়ের বিপণন

শঙ্করের বই নিয়ে এরকম হত ! আমার ধারণা ছিল, শঙ্কর প্রচুর বিক্রি হত !
Avatar: Dibyendu Singha Roy

Re: লেখক, বই ও বইয়ের বিপণন

শঙ্করের বই প্রচুর বিক্রি হতো আজও হয় কিন্তু এই স্ট্রেটেজিও ছিল ।
Avatar: দ

Re: লেখক, বই ও বইয়ের বিপণন

আমিই বোধহয় একমাত্র যে এই ব্লগটার আগাপাস্তলা কিচ্ছু বোঝে নি।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন