Sumana Sanyal RSS feed

Sumana Sanyalএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • ভাঙ্গর ও বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যবস্থা প্রসঙ্গে
    এই লেখাটা ভাঙ্গর, পরিবেশ ও বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যবস্থা প্রসঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে নানা স্ট্যাটাস, টুকরো লেখায়, অনলাইন আলোচনায় যে কথাগুলো বলেছি, বলে চলেছি সেইগুলো এক জায়গায় লেখার একটা অগোছালো প্রয়াস। এখানে দুটো আলাদা আলাদা বিষয় আছে। সেই বিষয় দুটোয় বিজ্ঞানের সাথে ...
  • বিদ্যালয় নিয়ে ...
    “তবে যেহেতু এটি একটি ইস্কুল,জোরে কথা বলা নিষেধ। - কর্তৃপক্ষ” (বিলাস সরকার-এর ‘ইস্কুল’ পুস্তক থেকে।)আমার ইস্কুল। হেয়ার স্কুল। গর্বের জায়গা। কত স্মৃতি মিশে আছে। আনন্দ দুঃখ রাগ অভিমান, ক্ষোভ তৃপ্তি আশা হতাশা, সাফল্য ব্যার্থতা, এক-চোখ ঘুগনিওয়ালা, গামছা কাঁধে ...
  • সমর্থনের অন্ধত্বরোগ ও তৎপরবর্তী স্থবিরতা
    একটা ধারণা গড়ে ওঠার সময় অনেক বাধা পায়। প্রশ্ন ওঠে। সঙ্গত বা অসঙ্গত প্রশ্ন। ধারণাটি তার মুখোমুখি দাঁড়ায়, কখনও জেতে, কখনও একটু পিছিয়ে যায়, নিজেকে আরও প্রস্তুত করে ফের প্রশ্নের মুখোমুখি হয়। তার এই দমটা থাকলে তবে সে পরবর্তী কালে কখনও একসময়ে মানুষের গ্রহণযোগ্য ...
  • ভি এস নইপাল : অভিবাসী জীবনের শক্তিশালী বিতর্কিত কথাকার
    ভারতীয় বংশদ্ভূত নোবেল বিজয়ী এই লেখকের জন্ম ও বড় হয়ে ওঠা ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জের ত্রিনিদাদে, ১৯৩২ সালের ১৭ অগস্ট। পরে পড়াশোনার জন্য আসেন লন্ডনে এবং পাকাপাকিভাবে সেতাই হয়ে ওঠে তাঁর আবাসভূমি। এর মাঝে অবশ্য তিনি ঘুরেছেন থেকেছেন আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ, ভারত সহ ...
  • আবার ধনঞ্জয়
    আজ থেকে চোদ্দ বছর আগে আজকের দিনে রাষ্ট্রের হাতে খুন হয়েছিলেন মেদিনীপুরের যুবক ধনঞ্জয় চট্টোপাধ্যায়। এই "খুন" কথাটা খুব ভেবেচিন্তেই লিখলাম, অনেকেই আপত্তি করবেন জেনেও। আপত্তির দুটি কারণ - প্রথমতঃ এটি একটি বাংলায় যাকে বলে পলিটিকালি ইনকারেক্ট বক্তব্য, আর ...
  • সীতাকুণ্ডের পাহাড়ে এখনো শ্রমদাস!
    "সেই ব্রিটিশ আমল থেকে আমরা অন্যের জমিতে প্রতিদিন বাধ্যতামূলকভাবে মজুরি (শ্রম) দিয়ে আসছি। কেউ মজুরি দিতে না পারলে তার বদলে গ্রামের অন্য কোনো নারী-পুরুষকে মজুরি দিতে হয়। নইলে জরিমানা বা শাস্তির ভয় আছে। তবে সবচেয়ে বেশি ভয় যেকোনো সময় জমি থেকে উচ্ছেদ ...
  • অনুপ্রদান
    শিক্ষাক্ষেত্রে তোলাবাজিতে অনিয়ম নিয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করলেন শিক্ষামন্ত্রী। প্রসঙ্গত গত কিছুদিনে কলেজে ভর্তি নিয়ে তোলাবাজি তথা অনুদান নিয়ে অভিযোগের সামনে নানা মহল থেকেই কড়া সমালোচনার মুখে পরে রাজ্য সরকার।শিক্ষামন্ত্রী এদিন ...
  • গুজবের সংসার
    গুজব নিয়ে সেই মজা নেওয়া শুরু হয়ে গেছে। কিন্তু চারটা লাশ আর চারজন ধর্ষণের গুজব কি গুজব ছিল না? এত বড় একটা মিথ্যাচার, যার কারনে কত কি হয়ে যেতে পারত, এই জনপথের ইতিহাস পরিবর্তন হয়ে যেতে পারত অথচ রসিকতার ছলে এই মিথ্যাচার কে হালকা করে দেওয়া হল। ছাত্রলীগ যে ...
  • মহামূর্খের দল
    মূল গল্প : আইজ্যাক আসিমভরাইগেল গ্রহের যে দীর্ঘজীবী প্রজাতির হাতে এই গ্যালাক্সির নথিপত্র রক্ষণাবেক্ষণের ভার, সে পরম্পরায় নারন হল গিয়ে চতুর্থজন ।দুটো খাতা আছে ওনার কাছে । একটা হচ্ছে প্রকাণ্ড জাবদা খাতা, আর অন্যটা তার চেয়ে অনেকটা ছোট । গ্যালাক্সির সমস্ত ...
  • মানুষ মানুষের জন্য?
    স্মৃতির পটে জীবনের ছবি যে আঁকে সে শুধু রঙ তুলি বুলিয়ে ছবিই আঁকে, অবিকল নকল করা তার কাজ নয়। আগেরটা পরে, পরেরটা পরে সাজাতে তার একটুও বাঁধেনা। আরো অনেক সত্যের মধ্যে রবীন্দ্রনাথ তাঁর জীবনস্মৃতির আরম্ভেই এই ধ্রুব সত্য মনে করিয়ে দিয়েছেন। কথাটা মনে রেখেই ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

মন ভালো নেই

Sumana Sanyal

ভালোবাসায় আদর আসে,সোহাগ আসে,মন ভেঙে যাওয়া আসে, যন্ত্রণা আসে, বিরহ জেগে থাকে মধুরাতে, অপেক্ষা আসে, যা কখনো আসেনা, তার নাম 'জেহাদ'। ভালোবাসায় কোনো 'জেহাদ' নেই। ধর্ম নেই অধর্ম নেই। প্রতিশোধ নেই। এই মধ্যবয়সে এসে আজ রাতে আমার সেই হারিয়ে যাওয়া বাংলা কে মনে পড়ছে। আজ প্রখ্যাত ডাক্তার ভিন্নধর্মের বিবাহ আর প্রেম কে যখন 'লাভ জিহাদ' বলে লেবেল সেঁটে দেন, তখন পূর্ব বর্ধমানের সমস্ত 'বামপন্থী' 'স্যেকুলার' তকমা আঁটা মানুষ চুপ করে থাকেন। ডাক্তার কে চটিয়ে দেবার ক্ষমতা কারোর নেই। ভাবি, আজ যদি কোনো শিক্ষক বলেন মুসলমান ছাত্র পড়াবো না? ডাক্তার যদি বলেন যে হিন্দু মেয়েটি মুসলমান ছেলেটিকে বিয়ে করে মা হবার জন্যে এসেছে তার প্রসব করাবো না, কারণ সেটা 'লাভ জিহাদ'! তখন কোথায় যাবো? আমার তো এই বাংলা ছাড়া অন্য কোথাও যাবার জায়গা নেই, ইচ্ছেও নেই। আমার পিতামহ, মাতামহ সবাই দেশভাগের ক্ষতচিহ্ন বহন করে এপারে এসেছিলেন, এপারের লোকের ভাষায় আমরা 'লোটা'। কিছুকাল আগে এক মান্য অধ্যাপক আমাকে রীতিমতো হুমকি দিয়েই লিখেছিলেন ওপার বাংলা থেকে আসা সবাইকে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। সবাইকে কাগজপত্র দেখিয়ে প্রমাণ করতে হবে তাঁর সঙ্গে বাংলাদেশের 'জেহাদি' যোগ কতোটা। অধ্যাপক আমাকে বলেছিলেন আমার বাবার মাধ্যমিক এর অ্যাডমিট কার্ড, বার্থ সার্টিফিকেট, চাকরীর কাগজপত্র সব দেখাতে হবে। আর তারপরেই অসমে বাঙালী খেদাও যজ্ঞের প্রথম আহূতিটি দিলেন আমার প্রিয় লেখক, প্রিয় অধ্যাপক তপোধীর ভট্টাচার্য। আচ্ছা, এখানেও কি একটা Schindler's list বেরোবে? কারণ বিজেপির কাছে 'বাংলাদেশ' মানেই জঙ্গী, জেহাদ। হয়তো আমাদের নামও খেদানোর তালিকাভুক্ত হবে।
আমি যে বাংলায় জন্মেছি, শৈশব পার করে পূর্বাচল থেকে অস্তাচলের পাড়ে এসে দাঁড়িয়েছি, সেই বাংলায় 'সরস্বতীপুজো' নিয়ে কোনো যুক্তিবাদী সমিতি কে খড়্গহস্ত সবজান্তার ভূমিকায় দেখিনি, অথচ সেইসব দিনগুলোতে কি বিজ্ঞান ছিলোনা? যুক্তি ছিলোনা? ছিলো তো! কিন্তু তখন সরস্বতীপুজো যে কেবলমাত্র হিন্দুদের এই চিন্তাটাই কারোর মাথায় আসেনি। আমার স্কুলের যে বন্ধু সবথেকে ভালো আলপনা দিতো, তার নাম ছিলো যেসমিন বেগম। নবীদিবস পালনের জন্যে স্কুল বন্ধ করে অশান্তি, এসব তো ছিলোনা আমার সেই বাংলায়? ২০১১ সালের পরে, আর কেন্দ্রে বিজেপি আসার পরেই কেনো 'লাভ জিহাদ' শব্দটা শুনলাম আমি?
ছাদের পাইপ বেয়ে উঠে বিপদজনকভাবে এক স্কুলবালিকার প্রেমমুগ্ধ এক অপরূপ কিশোর ঝুলে থাকতো রোমিওর মতোনই। পড়ে গেলে মরেও যেতে পারতো আশি র দশকের সেইসব ভালোবাসার বোকা বোকা রাতে। সে মুসলমান ছিলো। তারা ছিলো আমার প্রাণের দোসর। তাদের কথা মনে পড়ে। তারা কালের নিয়মেই বিচ্ছিন্ন হয়েছে। কিন্তু 'জেহাদ' শব্দটাই তারা জানতো না।
কেউই বোধহয় তার ভালোবাসায় ফিরতে পারেনা। যেমন তসলিমা পারলেন না বাসায় ফিরতে। আজ তিনি শিবপুজোর ছবি পোস্ট করেন। কিন্তু মুসলিম দরদী মমতা হিন্দু দরদী মোদী কেউ তাঁকে ফেরালেন না। এইসব দেখি। আর দেখি সাইকেল চালিয়ে প্রচণ্ড গ্রীষ্মদুপুরে অপেক্ষারত সেই মুসলিম অপরূপ কিশোরকে, তার চুলেও এখন রূপোলী ছাপ। আমরা দেখা হলেই বলি "সব কেমন বদলে গেলো, তাই না রে?"
তীব্র অনভিজাত, অশিক্ষিত, বোধহীন আমাদের এত যুক্তি এত রাজনীতি ছিলোনা, কিন্তু একটা মায়াময় বাংলা ছিলো। সেই বাংলায় আমরা দোল পূর্ণিমায় একসঙ্গে পাড়ার সোনামণিদিদিদের বাড়িতে চৈতন্য মহাপ্রভুর প্রেমকীর্তন শুনতাম। আমরা রাস্তার পাশে ভীড় করে মহরমের জমজমাট তাজিয়া দেখতাম। চিরকেলে বোকা আমি বাড়িতে বায়না করতাম আমার ঈদপুজোর জামা চাই। কাকেই বা আর চীৎকার করে বলবো
" আমাকে তুই আনলি কেনো? ফিরিয়ে নে"
আমি চিরকাল অযুক্তির সঙ্গেই কথা বলেছি। এই আমার নিয়তি। অযুক্তির সঙ্গেই কথা বলতে বলতে একদিন চলে যাবো। আমার আর ভালো লাগছেনা।

শেয়ার করুন


Avatar: Du

Re: মন ভালো নেই

এইমাত্র ইশকজাদে সিনেমাটা দেখে উঠলাম। শেষে দেখালো শুধুমাত্র ভিন্ন ধর্মে ভালোবাসার জন্য প্রতিবছর হাজারের ওপর ছেলেমেয়েকে মরে যেতে হয় এই ভারতবর্ষে !
Avatar: সুতপা

Re: মন ভালো নেই

বিজ্ঞান যখন এগোচ্ছে, রাষ্ট্রযন্ত্রের মাথায় থাকা ধর্মগুরুরা বরং হীরকরাজার মতো আদেশ দিন না, এমন জেনেটিক প্রোগ্রামিং করতে হবে যাতে ধর্ম, জাত সব মিললে তবেই মানুষ প্রেমে পড়ে! না হলে তো এ বিপদে উদ্ধার পাওয়া মুস্কিল! মানুষের চেয়ে যখন মানুষ সৃষ্ট জাত ও ধর্ম বড় হয়ে ওঠে, তখন সভ্যতা সংস্কৃতির অস্তাচলে যাওয়ার সময় হয়েছে অনুমান স্বতঃসিদ্ধ নয় কি?
Avatar: aranya

Re: মন ভালো নেই

কী আর বলব, লিখব.. সময় পাল্টাবে, মানুষ আবার মানুষ হবে, এই আশাটা ছাড়তে ইচ্ছে করে না

Avatar: h

Re: মন ভালো নেই

এট এত কষ্টের একটা লেখা , কিন্তু মানতে পারছি না যে যুক্তি র অভাবে পরম সুখ। ইন ফ্যাক্ট এখন যুক্তির অভাব কে গ্ল্যামারাইজ না করাই ভালো, মন খারাপ হলেও। বাজার তা গা জোয়ারির ফেক নিউজ এর এবং ঢপবাজ সরকারদের।
Avatar: Ankit

Re: মন ভালো নেই



আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন