Sumana Sanyal RSS feed

Sumana Sanyalএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • এখন সন্ধ্যা নামছে
    মৌসুমী বিলকিসমেয়েরা হাসছে। মেয়েরা কলকল করে কথা বলছে। মেয়েরা গায়ে গা ঘেঁষটে বসে আছে। তাদের গায়ে লেপ্টে আছে নিজস্ব শিশুরা, মেয়ে ও ছেলে শিশুরা। ওরা সবার কথা গিলছে, বুঝে বা না বুঝে। অপেক্ষাকৃত বড় শিশুরা কথা বলছে মাঝে মাঝে। ওদের এখন কাজ শেষ। ওদের এখন আড্ডা ...
  • ছবিমুড়া যাবেন?
    অপরাজিতা রায়ের ছড়া -ত্রিপুরায় চড়িলাম/ ক্রিয়া নয় শুধু নাম। ত্রিপুরায় স্থাননামে মুড়া থাকলে বুঝে নেবেন ওটি পাহাড়। বড়মুড়া, আঠারোমুড়া; সোনামুড়ার সংস্কৃত অনুবাদ আমি তো করেছি হিরণ্যপর্বত। আঠারোমুড়া রেঞ্জের একটি অংশ দেবতামুড়া, সেখানেই ছবিমুড়া মানে চিত্রলপাহাড়। ...
  • বসন্তের রেশমপথ
    https://s19.postimg....
  • ভারতীয় প্রযুক্তিবিদ্যা ও লিঙ্গ অসাম্য
    ভারতের সেরা প্রযুক্তি শিক্ষার প্রতিষ্ঠান কোনগুলি জিজ্ঞেস করলেই নিঃসন্দেহে উত্তর চলে আসবে আইআইটি। কিন্তু দেশের সেরা ইনস্টিটিউট হওয়া সত্ত্বেও আইআইটি গুলিতে একটা সমস্যা প্রায় জন্মলগ্ন থেকেই রয়েছে। সেটা হল ছাত্র-ছাত্রী সংখ্যার মধ্যে তীব্ররকমের লিঙ্গ অসাম্য। ...
  • যে কথা ব্যাদে নাই
    যে কথা ব্যাদে নাইআমগো সব আছিল। খ্যাতের মাছ, পুকুরের দুধ, গরুর গোবর, ঘোড়ার ডিম..সব। আমগো ইন্টারনেট আছিল, জিও ফুন আছিল, এরোপ্লেন, পারমানবিক অস্তর ইত্যাদি ইত্যাদি সব আছিল। আর আছিল মাথা নষ্ট অপারেশন। শুরু শুরুতে মাথায় গোলমাল হইলেই মাথা কাইট্যা ফালাইয়া নুতন ...
  • কাল্পনিক কথোপকথন
    কাল্পনিক কথোপকথনরাম: আজ ডালে নুন কম হয়েছে। একটু নুনের পাত্রটা এগিয়ে দাও তো।রামের মা: গতকাল যখন ডালে নুন কম হয়েছিল, তখন তো কিছু বলিস নি? কেন তখন ডাল তোর বউ রেঁধেছেন বলে? বাবা: শুধু ডাল নিয়েই কেন কথা হচ্ছে? পরশু তো মাছেও নুন কম হয়েছিল। তার বেলা? ...
  • ছদ্ম নিরপেক্ষতা
    আমেরিকায় গত কয়েক বছর ধরে একটা আন্দোলন হয়েছিল, "ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার" বলে। একটু খোঁজখবর রাখা লোকমাত্রেই জানবেন আমেরিকায় বর্ণবিদ্বেষ এখনো বেশ ভালই রয়েছে। বিশেষত পুলিশের হাতে কৃষ্ণাঙ্গদের হেনস্থা হবার ঘটনা আকছার হয়। সামান্য ট্রাফিক ভায়োলেশন যেখানে ...
  • শুভ নববর্ষ
    ২৫ বছর আগে যখন বাংলা নববর্ষ ১৪০০ শতাব্দীতে পা দেয় তখন একটা শতাব্দী পার হওয়ার অনুপাতে যে শিহরণ হওয়ার কথা আমার তা হয়নি। বয়স অল্প ছিল, ঠিক বুঝতে পারিনি কি হচ্ছে। আমি আর আমার খালত ভাই সম্রাট ভাই দুইজনে কয়েকটা পটকা ফুটায়া ঘুম দিছিলাম। আর জেনেছিলাম রবীন্দ্রনাথ ...
  • আসিফার রাজনৈতিক মৃত্যু নিয়ে কিছু রাজনৈতিক কথা
    শহিদদের লম্বা মিছিলে নতুন নাম কাশ্মীরের কাঠুয়া জেলার আট বছরের ছোট্ট মেয়ে আসিফা। এক সপ্তাহ ধরে স্থানীয় মন্দিরে হাত-পা বেঁধে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অজ্ঞান করে তাকে ধর্ষণ করা হল একাধিক বার, শ্বাসরোধ করে খুন করা হল মন্দিরের উপাসনালয়ে। এবং এই ধর্ষণ একটি প্রত্যক্ষ ...
  • হউল মাছের মজা
    এইবার আমি যেই গল্পটি বলব আপনাকে তা কিন্তু আমার জীবনের না সরাসরি, তবে একেবারে আমার জীবনের না তাও বলা যায় না, বরং একরকম জীবনের সাথে সংযুক্ত বলা যায়; কিন্তু একেবারে নিজের গল্প যেমন, যেমন আমার ছেলেবেলার গল্প, আলোর ইস্কুলে যাবার গল্প, কিংবা কিংবা দূর দীঘির জলে ...

বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

স্বভাবজ

Sumana Sanyal

অমিতাভ মালিকের মৃত্যুর পরবর্তী সময়টুকু যেন স্টার জলসা আর জি বাংলার যৌথ প্রযোজনার সিরিয়াল। জমে ক্ষীর। বিউটি মালিকের আছড়ে পড়া কান্নার লাইভ দেখাচ্ছে চ্যানেলগুলো। সেইসঙ্গে স্যোশাল মিডিয়ায় তাদের যৌথ ছবি সাঁটিয়ে আমাদের বহু লোকের অশ্রুপাত। এর মধ্যে আবার দু' এক টুকরো চাট মশলার মতো টিপ্পনী : "ওর আর কী! গেলো তো মায়ের। ও তো দু'দিন পরেই..."
আমাদের সম্মিলিত ছিছিক্কার, রাগ আছড়ে পড়লো সরকারের ওপর। আমরা সবাই তখন ব্যোমকেশ, সব্বাই ফেলুদা। চুলচেরা বিশ্লেষণে আমরা এক্সপার্ট কমেন্ট দিচ্ছি। কেনো বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট ছাড়া পাঠালো, কেনো অমিতাভর মতো অনভিজ্ঞ অফিসার কে পাঠালো, এইসব চললো বেশ কিছুদিন। এরপরে সিরিয়ালের দ্বিতীয় পর্ব।
মহাপর্ব। বিউটি মালিক চাকরী পেলেন। সৌমেন মালিকেরও চাকরী পাবার কথা ছিলো, অমিতাভর বাবার। বয়েস বেশী হয়ে যাওয়াতে মালিক পরিবার চাইলেন অমিতাভর ভাই চাকরীতে ঢুকুক। অনেকদিন চাকরী করতে পারবে। ব্যস। এবার এতদিনের সহানুভূতির সুরগুলো বাঁকা পথ নিলো স্যোশাল মিডিয়ায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর সুলভ চাকরী প্রকল্প, মানে কেউ মারা গেলেই চাকরী দেওয়া নিয়ে আলোচনা শুরু হোলো। সঙ্গে এলো সেই অনিবার্য তুলনা। সীমান্তে জান লড়িয়ে দেওয়া বাংলার সৈনিকদের মৃত্যু হোলে কেনো এত ফুটেজ দেওয়া হয়না, কেনো তার পরিবারের কাউকে চাকরী দেওয়া হয়না, লেগে গেলো তৃণ- সিপিএম- বিজেপি- আরএসএস এর চেনা ক্যাচাল।
হ্যাঁ, মেগাসিরিয়ালের শর্ত মেনেই আবার পিকচারে এলেন বিউটি মালিক। মন্তব্য উড়ে এলো
" চাকরী পেয়ে গেলো, এবার দেখবেন ছেলে ধরতে বেরিয়েছে।" গতকালের সহানুভূতির শীর্ষে থাকা বিউটি মালিক সেই এক মুহূর্তে "ছেলেধরা" হয়ে গেলেন। এরপর যোগ হোলো আরও হরেক কিসিমের খবর। বিউটি চাকরী পেয়ে "নাকি" শ্বশুরবাড়ি তে জানাননি, বিউটি "নাকি" বাপের বাড়ি চলে গেছেন...সবটাই "নাকি"! এক এক সময় এক এক রকম খবর। টিআরপি এই উঠছে, এই পড়ছে। চরম উত্তেজনা। যৌন উত্তেজনা কোথায় লাগে! আমাদের প্রত্যেকের মধ্যে ঘাপটি মেরে থাকা সেই খাপ পঞ্চায়েত, সেই মেগার চিত্রনাট্যকার মাথা তুললো কমেন্ট বক্সে।
"শ্বশুরবাড়ি তে আর যাবে কেনো? এখন অন্য শ্বশুরবাড়ি যাবে" সেই চিরাচরিত তীব্র সিটি, যা নাকি অর্থবহ ছিলো ষাট সত্তর, আশি র সিনেমায়, সেই সিটিও শোনা গেলো এইসব কমেন্টে। বিউটি মালিক কে ক্যামেরা কি সর্বদা ফলো করে? বিউটি কোন পোষাকে চাকরীতে জয়েন করলেন,হাতে অমিতাভর নাম লেখা ট্যাটু কতো বড়ো এই সবকিছু লোকজনের মুখস্থ হয়ে গেলো। বিউটি মালিকের জীবন "পাবলিক প্রপার্টি" হয়ে গেলো। ব্যক্তিগত শব্দটাই আর রইলোনা। এও তো মৃত্যু! বিভিন্ন নিউজ থ্রেডে কারা এসব লেখেন, কী তাদের ভাষাজ্ঞান, তাদের বোধ আমি জানিনা। বিউটি মালিক জ্যাকেট চুরি করতে গিয়ে গলা চড়িয়েছেন এটাও খবর। এরপর ওঁর সঙ্গে রাস্তার অটো ড্রাইভারের বচসা হোলেও এভাবেই লেখা হবে "বিউটি মালিক কি বদলে গেছেন?" এ শুধু নিরুত্তাপ নির্দোষ একটা প্রশ্ন নয়। একটা তীব্র উস্কানি, আমাদের ভেতরের সেই খাপ পঞ্চায়েতটাকে প্ররোচনা দেওয়া। যে পঞ্চায়েত অনায়াসে "বেশ্যা, ছেলেধরা" তকমা এঁটে দেয়।
বিদ্যেসাগরমশাই মরে বেঁচেছেন। বিধবা বিবাহ এখনো কী পরিমাণ গাত্রদাহ সৃষ্টি করে, এ দেখলে তিনিও হয়তো বলতেন "ধন্য আশা কুহকিনী"।
আপনারা কী চাইছেন? একটা একুশ বছরের মেয়ে সারাজীবন থান পরে হবিষ্যি খাবে? আর চাকরী তো ইনি একা পাননি। সরকারী কর্মী কর্মরত অবস্থায় মারা গেলে অদ্যাবধি কি তাঁর পরিবারের কেউ চাকরী পায়নি এ রাজ্যে? এখন যখন অমিতাভর ভাই ও চাকরী তে ঢুকলো তখন শুরু হোলো নবতর দীর্ঘশ্বাসের পালা। ইশশ! দু উ উ জ ন চাকরী গেঁড়িয়ে নিলো? এই বাজারে?
বিমল গুরুং ইস্যু ঠাণ্ডা আপাতত। অমিতাভ মালিকও বিস্মৃতপ্রায়। এখন বাজারে বিউটি মালিকের সিরিয়াল চলছে। এ সপ্তাহে জ্যাকেট পর্বে তাঁর টিআরপি বাড়লো।
খাপখোলা পঞ্চায়েত চলছে, চলবে।

শেয়ার করুন



আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন