Sudipto Nag RSS feed

Sudipto Nagএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • ট্রেড ওয়ার ও ট্রাম্প শুল্ক নিয়ে কিছু সাধারণ আলোচনা
    বর্তমানে আলোচনায় আসা সব খবরের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চীনের বিলিয়ন ডলার মূল্যের উপর কঠিন শুল্ক বসিয়ে দিয়েছে, যাদের মধ্যে ডিশ ওয়াশার থেকে শুরু করে এয়ারক্রাফট টায়ার সবই আছে। চায়না অনেক দিন ধরেই এই হুমকির মুখে ...
  • নারীবাদ নিয়ে ইমরান খানের বক্তব্য ও নারীবাদে মাতৃত্ব নিয়ে বিতর্ক
    সম্প্রতি একটা খবর পড়লাম। পাকিস্তান তেহরিক ই ইনসাফ এর নেতা ও পাকিস্তান দলের সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খান বলেছেন, তিনি পশ্চিমাদের থেকে আমদানি করা নারীবাদ সমর্থন করেন না। তার নারীবাদকে সমর্থন না করবার কারণও তিনি জানান, তার মতে নারীবাদ মাতৃত্বের মর্যাদাকে ছোট ...
  • রেনবো জেলি: যেমন লাগলো দেখে.....
    ইপ্সিতা বলল, রিভিউ লেখ। আমি বললাম, আমি কি সিনেমা বুঝি নাকি? ইপ্সিতা বলল, যা দেখে ভাল লাগল তাই লেখ। আমি বললাম, তবে তাই হোক।সিনেমা র নাম, রেনবো জেলি। ইউটিউবে ট্রেলার দেখেই বড্ড ভাল লাগল। তাই রিলিজ করার পরের দিনই আমার চারবছুরের কন্যে সহ আমি হলমুখী।টাইটেল ...
  • বর্ষা ও খিচুড়ি
    বর্ষাকাল। তিনদিন ধরে ঝমঝম করে বৃষ্টি হয়েই চলেছে। আমাদেরও ইস্কুল টিস্কুল বন্ধ। রাস্তায় এক হাঁটু জল। মায়েরও আজ অফিস যাওয়ার উপায় নেই। কি মজা। যদিও পুরোনো বাড়ির ছাদ চুঁইয়ে জল পড়ছে, ঘরের মেঝেতে ড্যাম্প, জামাকাপড় না শুকিয়ে স্যাঁতস্যাঁত করছে, কিন্তু তাতে আমাদের ...
  • বিজ্ঞাপনের কল
    তত্কালে লোকে বিজ্ঞাপন বলিতে বুঝাইতো সংবাদপত্রের ভেতরের পাতায় শ্রেণীবদ্ধ সংক্ষিপ্ত বিজ্ঞাপন, এক কলাম এক ইঞ্চি, সাদা-কালো খোপে ৫০ শব্দে লিখিত-- পাত্র-পাত্রী, বাড়িভাড়া, ক্রয়-বিক্রয়, নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, চলিতেছে (ঢাকাই ছবি), আসিতেছে (ঢাকাই ছবি), থিয়েটার (মঞ্চ ...
  • বিশ্বাস, পরিবর্তন ও আয়ার্ল্যান্ড
    সম্প্রতি আয়ার্ল্যান্ডে আইনসিদ্ধ হল গর্ভপাত । যদিও এ সিদ্ধান্তকে এখনও অপেক্ষা করতে হবে রাষ্ট্রপতির আনুষ্ঠানিক অনুমোদনের জন্য, তবু সকলেই নিশ্চিত যে, সে কেবল সময়ের অপেক্ষা । এ সিদ্ধান্ত সমর্থিত হয়েছে ৬৬.৪ শতাংশ ভোটে । গত ২৫ মে (২০১৮) এ ব্যাপারে আইরিশ সংসদের ...
  • মব জাস্টিস-মব লিঞ্চিং এর সংস্কৃতি ও কিছু সমাজ-মনোবৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা
    (আজকে এখানে "জুনেদ-এর চিঠিঃ ঈদের নতুন পোশাকে" আর্টিকেলটি পড়তে গিয়ে একটা নতুন টার্মের সাথে পরিচিত হলাম - "মব লিঞ্চিং এর সংস্কৃতি"। এটা কেবল একটা নতুন টার্মই নয়, একটি নতুন কনসার্নও, তাই এটা নিয়ে লেখা...)মব লিঞ্চিং এর ব্যাপারটা এখন আমরা প্রায়ই শুনি। ...
  • বিশ্ব যখন নিদ্রামগন
    প্রত্যেকটি মানুষের জীবন বদলে দেওয়া কিছু দিন থাকে, থাকে রাত, যার পর আর কিছুতেই নিজের পূর্বসত্বার কাছে ফিরতে পারা যায় না, ওটাই বোধহয় নিজঅস্ত্বিত্বের 'রেস্টোর পয়েন্ট' হয়ে দাঁড়ায় সর্বশক্তিমান প্রোগ্রামারের মর্জিমাফিক।25শে সেপ্টেম্বর, 1992 রাত আনুমানিক পৌনে ...
  • শিক্ষায় সমস্যা এবং মানবসম্পদ উন্নয়ন
    (সম্প্রতি গুরুচণ্ডালির ফেইসবুক গ্রুপে Gour Adhikary বাবুর শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে একটি অসাধারণ লেখা পড়লাম। বেশ কিছু প্রশ্নের জবাব চেয়েছেন তিনি সেখানে। এরমধ্যে কয়েকটি প্রশ্নকে সাজিয়ে লিখলে এরকম হয়, "যারা ফেইল করে, তারা কেন সামান্য পাশ মার্ক জোগাড় করতে পারে ...
  • পরবাসে পরিযায়ী
    আজকে ভারতে চাঁদরাত। অনেকটা দূরে বসে আমি ভাবছি কি হচ্ছে আমার বাড়িতে, আমার পাড়াতে। প্রতিবারের মতো এবারেও নিশ্চয়ই সুন্দর করে সাজিয়েছে পুরো শহরটা। আমাদের বাড়ির সামনের ক্লাবে সার সার দিয়ে বসে আলুকাবলি, আচার, ফুচকা, আইসক্রীম এবং আরো কতকি খাবারের স্টল! আমি ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

সিনেমার ডায়লগ নিয়ে দু চার কথা

Sudipto Nag



সাইলেন্ট সিনেমার যুগে বাস্টার কিটন বা চার্লি চ্যাপ্লিনের ম্যানারিজমের একটা বিশেষ আকর্ষন ছিল যেটা আমরা অস্বীকার করতে পারিনা। চোখে মুখের অভিব্যক্তি সংলাপের অনুপস্থিতি পূরণ করার চেষ্টা করত। আর্লি সিনেমাতে ডায়লগ ছিল কমিক স্ট্রীপের মত। ইন্টারটাইটেল হিসাবে ডায়লগ আসত। তাই ডায়লগ আমাদের মনে সেইভাবে প্রভাব বিস্তার করতে পারতনা। টকি চালু হওয়ার পর ডায়লগের গুরুত্ব বাড়তে থাকে। ঠিক নাটকে যেমন ডায়লগ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তেমনি সিনেমার ক্ষেত্রেও খুব প্রয়োজনীয় হয়ে ওঠে। আজ একটি ছবি হিট করানোর পেছনে শুধু স্টার পাওয়ার বা গল্প নয়, গল্পের ভতরে ক্যারেক্টারদের ডায়লগ একটা বিশাল রোল প্লে করে। এই ফ্যাক্টারটা কিন্তু আজ তৈরি হয়নি। হয়েছে বহুকাল আগে। মনে করে দেখা যাক সেই সময়টা যখন চার্লি সাইলেন্ট ছবি বানিয়ে যাচ্ছে আর অন্যদিকে টকি এসে গেছে। চার্লি টকি বানাতে নারাজ কিন্তু সে বুঝেছিল ‘দ্য গ্রেট ডিক্টেটর ছবিতে সে ট্র্যাম্পকে কথা বলাতে পারে। কারণ ওই শেষের শান্তি স্থাপনের স্পিচটা ন্যারেশানের আকারে এলে দর্শকের মনে কোন প্রভাব বিস্তারই হতো না হয়তো। একজন সাকসেসফুল ডায়লগ রাইটারের কৃতিত্বটা ঠিক কোথায়? এই বিষয়ে তর্ক বিতর্কের জায়গা প্রচুর। তবে খতিয়ে দেখলে বেশ কিছু জিনিস চোখে পড়ে। হলিউডি ছবি কেন আমাদের টানে? খুব সহজ। উত্তরটা হল আমেরিকান ড্রিম। এই আমেরিকান ড্রিম ঘোড়ার ডিমের মতই অলীক। কিন্তু এই আমেরিকান ড্রিম তৈরি করেছেন দক্ষ ডায়লগ রাইটাররা। ‘প্রিটি ওম্যান’ ছবির শেষ দৃশ্যে একটি ভয়েসওভার এই আমেরিকান ড্রিম নিয়ে একদম অকপট বলা হয়েছে- “Welcome to Hollywood! What's your dream? Everybody comes here; this is Hollywood, land of dreams. Some dreams come true, some don't; but keep on dreamin' - this is Hollywood. Always time to dream, so keep on dreamin”
হলিউড ছবিতে ওয়েস্টার্ণ থেকে শুরু করে ফিল্ম নোয়া সব জনারাতেই ডায়লগ আমাদেরকে আচ্ছন্ন করে রেখেছে। কেন? একটা এমন কিছু আছে এইসব ডায়লগে যেগুলো আমাদেরকে উত্তজিত করছে। এগুলো আমদের মুখের সহজাত ডায়লগ নয়। তার চেয়ে একটু বেশি। সোজা কোথায় এমন কিছু ডায়লগ যেগুলো আমরা বলতে চাই কিম্বা হয়তো সেগুলো আমরা ভাবতেই পারিনা চট করে। সিনেমাতে মেলোড্রামা আমরা এনজয় করি তার একটা বড় কারণ ডায়লগ। আমাদের হিরো আর ভিলেন মারামারি করে জিনিসপত্র ভাঙ্গলে আমরা যতটা খুশি হই তারচেয়েও বেশি খুশি হই যখন তাদের মধ্যে কথার লড়াই হয়। একটা প্রবাদ আছে পেন ইজ মাইটার দ্যান দা সর্ড। পেন এর বদলে ডায়লগ কথাটাও বসানো যায়। শোলে তে পুলিশ অফিসারের ন্যায় বিধান করার হাত কেটে ফেলার আগে গব্বর যদি না বলে- মুঝে ইয়ে হাত দে দে ঠাকুর তাহলে আমাদের স্পাইনে ঐ শিরশিরে অনুভূতিটা হবেনা। তাই না? সিনেমাতে সারকাজম, ব্ল্যাক হিউমার এইসব ডায়লগ ছাড়া অনেকটাই পঙ্গু। আবার শোলেতে ফিরে যাই। ‘কিতনে আদমি থে’? এই প্রশ্ন ব্যাঙ্গাত্মক প্রশ্ন। ডাকু সর্দারের এই ব্যাঙ্গাত্মক ডায়লগ গুলি না থাকলে তিনি ডাকু সর্দারই হয়ে যেতেন। গব্বর হতেন না। সুপার হিউম্যান ক্যারেক্টার তৈরি করতে আগে চরিত্রের ভূমিকা রচনা করতে হয় ডায়লগের মাধ্যমে। এই প্রসঙ্গে ‘ব্যাটম্যান বিগিন্স’ র ব্যাটম্যানের ডায়লগ মনে পড়ে গেল- ‘It's not who I am underneath, but what I do that defines me’.
এই ডায়লগটা স্পষ্ট করে দিচ্ছে যে ব্রুস নয় তার অল্টার ইগো ব্যাটমানই নায়ক। তার মিশনকে কেন্দ্র করেই এই ছবি। অন্যদিকে জোকারও বুঝিয়ে দিচ্ছে ডায়লগের মাধ্যমে যে প্রতিদ্বন্দ্বীর সাথে টক্কর দেবার জন্যই তার অস্তিত্ব। অনেক ক্ষেত্রে এক-একটা ডায়লগ চরিত্রকে ডিফাইন করে দেয়। যেমন লেজেণ্ড অফ নাইন্টিন হাণ্ড্রেডে পিয়ানিস্ট টিম রথের পরিচয় যে সে শুধু সমুদ্রের তলাতেই বাজায়। ডায়লগ যেমন ওয়ান লাইনারের কাজ করে কিম্বা প্রবাদের আকার ধারণ করে নেয় তেমনি ডায়লগ আমাদের ফিল্মের গভিরেও নিয়ে যায়। উইম উইন্ডার্সের এর প্যারিস-টেক্সাসে স্বামী এবং স্ত্রীর গভীর দীর্ঘ কথোপকথন আমাদের উত্তজিত কিম্বা বোর করেনা। আমাদের ভাবাতে সাহায্য করে।
ডায়লগের এত গুরুত্ব থাকলেও ফিল্ম হল ভিজুয়াল মিডিয়াম। নাটকে যেমন জায়গা পরিবর্তন হয়েনা এবং সেটসের লিমিটেশান থাকে তেমন সিনেমাতে নয়। সেখানে বলার জায়গা বা পদ্ধতি অনেকরকম হতে পারে। তাই বেলা তার, কিম কি ডুক, আন্তনিওনির মত পরিচালকরা মিনিমাল ডায়লগ কে প্রশ্রয় দিয়ে অন্য দিকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। ‘কিড’ ছবিতে চার্লির হাত থেকে বাচ্চাকে ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে আর চার্লির সেই অদ্ভূত অভিব্যক্তি আমাদের বুক মুচড়ে দেয়। সেখানে কোন ডায়লগ নেই আছে মনের মধ্যে ছুঁয়ে দেওয়ার তরঙ্গ। সেই তরঙ্গ আজকাল আর সচরাচর চোখে পড়েনা। যদি ডায়লগের মোহ থেকে একটু সরে গিয়ে অন্যভাবে দেখি তাহলে হয়তো অনেক দরজা খুলতে পারে যেগুলোর জন্য আমাদের ইন্দ্রিয়কে হয়তো আরেকটু সজাগ করতে হবে।


শেয়ার করুন



আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন