Ritam Ghosal RSS feed

Ritam Ghosalএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • তারার আলোর আগুন
    তারার আলো নাকি স্নিগ্ধ হয়, কাল তাহলে কেন জ্বলে মরল বারো, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে আরো সত্তর জন! তবু মৃত্যু মিছিল অব্যাহত। আজও রাস্তায় পড়ে এক স্বাস্থ্যবান শ্যামলা যুবক, শেষবারের মতো ডানহাতটা একটু নড়ল। কিছু বলতে চাইল কি ? চারপাশ ঘিরে দাঁড়িয়ে থাকা সশস্ত্র ...
  • 'হারানো সজারু'
    ১এক বৃষ্টির দিনে উল্কাপটাশ বাড়ির পাশের নালা দিয়ে একটি সজারুছানাকে ধেইধেই করে সাঁতার কেটে যেতে দেখেছিল। দেখামাত্রই তার মনে স্বজাতিপ্রীতি ও সৌভ্রাতৃত্ববোধ দারুণভাবে জেগে উঠল এবং সে ছানাটিকে খপ করে তুলে টপ করে নিজের ইস্কুল ব্যাগের মধ্যে পুরে ফেলল। এটিকে সে ...
  • সেটা কোনো কথা নয় - দ্বিতীয় পর্ব - ত্রয়োদশ তথা অন্তিম ভাগ
    অবশেষে আমরা দ্বিতীয় পর্বের অন্তিমভাগে এসে উপস্থিত হয়েছি। অন্তিমভাগ, কারণ এরপর আমাদের তৃতীয় পর্বে চলে যেতে হবে। লেখা কখনও শেষ হয় না। লেখা জোর করেই শেষ করতে হয়; সেসব আমরা আগেই আলোচনা করেছি।তবে গল্পগুলো শেষ করে যাওয়া প্রয়োজন কারণ এই পর্বের কিছু গল্প পরবর্তী ...
  • প্রাণের মানুষ আছে প্রাণে..
    'তারা' আসেন, বিলক্ষণ!ক্লাস নাইনযষ্ঠীর সন্ধ্যে। দুদিন আগে থেকে বাড়াবাড়ি জ্বর, ওষুধে একটু নেমেই আবার উর্ধপারা।সাথে তীব্র গলাব্যাথা, স্ট্রেপথ্রোট। আমি জ্বরে ঝিমিয়ে, মা পাশেই রান্নাঘরে গুড় জ্বাল দিচ্ছেন, দশমীর আপ্যায়ন-প্রস্তুতি, চিন্তিত বাবা বাইরের ...
  • জীবনপাত্র উচ্ছলিয়া মাধুরী, করেছো দান
    Coelho র সেই বিখ্যাত উপন্যাস আমাদের উজ্জীবিত করবার জন্যে এক চিরসত্য আশ্বাসবাণী ছেড়ে গেছে একটিমাত্র বাক্যে, “…when you want something, all the universe conspires in helping you to achieve it.”এক এন জি ও'র বিশিষ্ট কর্তাব্যক্তির কাছে কাতর ও উদভ্রান্ত আবেদন ...
  • 'দাগ আচ্ছে হ্যায়!'
    'দাগ আচ্ছে হ্যায়!'ঝুমা সমাদ্দার।ভারতবর্ষের দেওয়ালে দেওয়ালে গান্ধীজির চশমা গোল গোল চোখে আমাদের মুখের দিকে চেয়ে থাকে 'স্বচ্ছ ভারত'- এর 'স্ব-ভার' নিয়ে। 'চ্ছ' এবং 'ত' গুটখা জনিত লালের স্প্রে মেখে আবছা। পড়া যায় না।চশমা মনে মনে গালি দিতে থাকে, "এই চশমায় লেখার ...
  • পাছে কবিতা না হয়...
    এক বিশ্ববন্দিত কবি , কবিতার চরিত্রব্যাখ্যায় বলেছিলেন, '... Spontaneous overflow of powerful feeling,it takes its origin from emotion recollected in tranquility'আমি কবি নই, আমি সুললিত গদ্য লিখিয়েও নই, শব্দ আর মনের ভাব প্রকাশ সর্বদা কলহরত দম্পতি রুপেই ...
  • মনীন্দ্র গুপ্তর মালবেরি ও বোকা পাঠক
    আমি বোকা পাঠক। অনেক পরে অক্ষয় মালবেরি পড়লাম। আমার একটি উপন্যাস চির প্রবাস পড়ে দেবারতি মিত্রর খুব ভাল লাগে। উনিই বললেন, তুমি ওনার অক্ষয় মালবেরি পড় নি? আজি নিয়ে যাও, তোমার পড়া বিশেষ প্রয়োজন। আমি সম্মানিত বধ করলাম। তাছাড়া মনীন্দ্র গুপ্ত আমার প্রিয় কবি প্রিয় ...
  • আপনি কি আদর্শ তৃণমূলী বুদ্ধিজীবি হতে চান?
    মনে রাখবেন, বুদ্ধিজীবি মানে কিন্তু সিরিয়াস বুদ্ধিজীবি। কথাটার ওজন রয়েছে। এই বাংলাতে দেব অথবা দেবশ্রী রায়কে যতজন চেনেন, তার দুশো ভাগের এক ভাগও দীপেশ চক্রবর্তীর নাম শোনেননি। কিন্তু দীপেশ বুদ্ধিজীবি। কবির সুমন বুদ্ধিজীবি। তো, বুদ্ধিজীবি হতে গেলে নিচের ...
  • উন্নয়নের তলায় শহিদদের সমঝোতা
    আশা হয়, অনিতা দেবনাথরা বিরল বা ব্যতিক্রমী নন। কোচবিহার গ্রামপঞ্চায়েতের এই তৃণমূল প্রার্থী তাঁর দলের বেআব্রু ভোট-লুঠ আর অগণতন্ত্র দেখে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, এই তামাশায় তাঁর তরফে কোনও উপস্থিতি থাকবে না। ভোট লড়লে অনিতা বখেরা পেতেন, সেলামি পেতেন, না-লড়ার জন্য ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

মানব সন্ততি

Ritam Ghosal

সালটা ২০২৭। দ্রিয়োপিথেক, অস্ত্রালোপিথেক থেকে শুরু করে মেসোপটেমিয়া, গ্রীক-রোমান সভ্যতা,ইউরোপের রেনেসাঁ, শিল্প বিপ্লব, হিরোশিমা নাগাসাকি, অর্থনীতির বিশ্বায়ন দেখা মানস সভ্যতা আজ ধ্বংসের মুখে। কারণ, গত আঠারো বছরে একটিও মানব শিশু জন্মায়নি।পুরুষ নারী উভয়েই বন্ধ্যা।পৃথিবীর কনিষ্ঠতম মানুষটির বয়স সাড়ে আঠারো।ঠিক দুই ঘন্টা ফ্যান দের উদ্দেশ্যে হাত নাড়তে গিয়ে সে খুন হয়েছে এক পাগল ভক্তের হাতে। পারমাণবিক যুদ্ধ, মনসান্টো জাতীয় কর্পোরেশনের দৌলতে পৃথিবীর অধিকাংশ দেশেই দুর্ভিক্ষ, অরাজকতা, গৃহযুদ্ধ নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা।এর মধ্যে ব্রিটেনের অবস্থা একটু পদের। মিলিটারি শাসন দিয়ে কোনরকমে বন্যার জলের মতো উদ্বাস্তুদের আটকানোর চেষ্টা করছে সরকার।দু একটা উদ্বাস্তু মরছে বটে, কিন্তু দেশ চালাতে গেলে এরকম একটু হয়েই থাকে। ছোট্ট ঘটনা।শরণার্থীদের সাথে বাক্যালাপ করা, চাকরি/ আশ্রয় দেওয়া আইনত পাপ। রেল স্টেশনে খাঁচা ভর্তি দেখে, আর বন্ধ রেল বাসের জানলার ওদিকে পুলিশের শরণার্থী পেটানো দেখে মানুষ আজকাল ভড়কায় না।এসব নিয়ে অবশ্য থীও-র সেরকম মাথাব্যাথা ছিল না। সরকারের উঁচু পদের চাকরি, কফি, সপ্তাহান্তে একটু গঞ্জিকা আর জন্মের এক বছরের মধ্যেই মরে যাওয়া ছেলে আর ছেড়ে যাওয়া বউ জুলিয়ানের কথা ভেবে দু এক পাত্র বেশি মদ খেয়েই দিন চলে যাচ্ছিল। সরকার মাইনে তো ভালই দিচ্ছে।তাহলে অত ভাববে কেন?নেহাত প্রাক্তন বউটা একটা অতিবিপ্লবী দলের মাথা হয়েছে, শুনতে পায়। পুলিশের পোস্টার-ও পড়েছে।তারা নাকি চায় উদ্বাস্তুদের-ও সমান অধিকার থাকুক। দুসসালা, হয় নাকি? বিপ্লব টিপ্লব যে আসবে থীও-ও ছাত্র বয়সে স্বপ্ন দেখতো।ইনফ্যাক্ট সেখান থেকেই জুলি-র সাথে আলাপ।কিন্তু তারপরেই মোটা মাইনের সরকারী চাকর বলে গেলো।ব্যারিকেডের উল্টোদিক থেকে ওসব ভাল্লাগতো না।তার মধ্যে বাচ্চাটাও চলে গেলো ভাইরাল ফিভারে।নাহ, বেশি ভাবলে থীও-র মাথা ধরে।আর ভাববে না।
এমন অবস্থায় একদিন জুলিয়ান দলবল নিয়ে এসে থীও-কে অনুরোধ করে একটা উদ্বাস্তু মেয়েকে সীমান্ত পেরিয়ে সেফ প্যাসেজ দিতে।থীওর দাদা ক্যাবিনেট মন্ত্রী।মিথ্যে বলে তার থেকে ট্রানজিট পেপার জোগাড় করতে সেরকম অসুবধে হওয়ার কথা নয়। পুরনো দল আর ছেড়ে যাওয়া স্ত্রীর মুখ চেয়ে যদি থীও এটুকু করে দেয়। বিপ্লবী দল যখন টাকা পয়সা-ও অফার করছে থীও আর না করলো না। তাছাড়া হাসলে জুলি কে আজও খুব সুন্দর লাগে।ট্রানজিটের কাগজ পত্র জোগাড় হয়ে গেলে পরে একদিন থীও,উদ্বাস্তু মেয়ে কী ,জুলিয়ান, জুলিয়ানের দলের আরেক নেতা লিউক রওনা দেয় উপকূলের দিকে।রাস্তায় একদল ভবঘুরে ছিনতাইবাজের হাতে খুন হয় জুলিয়ান, লিউক দুজন পুলিশ কে গুলি করে,গোটা দল টার পিছনে পুলিশ লাগে, কী-র আয়া মারা যায়, আর এসবের পরে থীও জানতে পারে কী পৃথিবীর একমাত্র গর্ভবতী।শুধু এটুকুতেই শেষ নয়, জুলিয়ান মারা যাওয়ার পেছনে যে আসলে তার-ই দলের লোকের হাত আছে,সেটাও আড়ি পেতে জানতে পারে থীও।জুলিয়ান নাকি বুঝতে পেরেছিলো দল থেকেই তাকে সরানোর তোড়জোড় চলছে, কী কে বলে গেছিল একমাত্র থীও কে বিশ্বাস করতে, আর থীও-র সাহায্যে একমাত্র স্বাধীন দেশ আযোরেসে বন্ধ্যাত্ব দুরীকরণ ল্যাবরেটরিতে পৌঁছতে।কিছু বিজ্ঞানী সেখানে বন্ধ্যাত্ব দুরীকরণ নিয়ে গবেষণা করছেন। কী-কে নিয়ে থীও পালায়।পুলিশ আর বিপ্লবী দলের ফিশের বিদ্রোহী সদস্য -দুদলের হাত থেকে বাঁচতে থীও-র বন্ধু জ্যাস্পারের খামার বাড়িতে আশ্রয় নেয় দুজনে। কিন্তু ফিশ বাহিনী সেখানেও পৌঁছে যায়। বাধ্য হয়ে আউসউইতজের ঢঙে বানানো বেক্সহিল উদ্বাস্তু ক্যাম্পে আশ্রয় নেয় থীও, কী আর নবজাতক। এদিকে ক্যাম্পেও অভ্যুত্থান শুরু হয়। এরই মধ্যে এক আশ্রয় থেকে অন্য আশ্রয়, তিন অসমবয়সী মানুষ পালাতে থাকে। পেছনে বুলেটের আওয়াজ, বোমারু বিমান ফেলে রেখে। সামনে আযোরেস আর সবুজ ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখে।
পিডি জেমসের উপন্যাস থেকে আফোন্সো কুয়ারোনের সিনেমা "চিলড্রেন অফ মেন" -এর শেষটা অবশ্য ডিস্টোপিক।মন্ত্রীর বাড়ীর ডাইনিং রুমে পিকাসোর গুয়েরনিকা টাঙ্গানো থাকে। শিল্প টিল্প-র প্রয়োজন শেষ মানুষের কাছে। মাইকেলেঞ্জেলো-র ডেভিডের এক পা ভেঙ্গে যাওয়ার লোহার রড দিয়ে ঠেকনা দেওয়া হয় সরকারী টাকায়। এদিকে লন্ডনের রাজপথে উদ্বাস্তু রিকশাচালককে পিটিয়ে মারে পুলিশ।মিলিটারি অফিসার বলে ঘুষ-টুষ চায় না, শুধু সেফ প্যাসেজ দেওয়ার বদলে কী কে একটু তার সাথে "ছেড়ে দিতে"। লেখিকা জেমসের ভাষায় " in a world with no future where the very words 'justice,' 'compassion,' 'society,’ 'struggle,' 'evil,' would be unheard echoes on an empty air" । পরিচালক আফোন্সো কুয়ারোন মানুষের উর্বরতাকে বেছে নেন আশাবাদের প্রতীক হিসেবে।তাই ছবিটির শেষ দৃশ্যের পরে কি হয় , সেটা দর্শকের একান্ত নিজস্ব। cliffhanger । এই সময়ের শ্রেষ্ঠ সিনেমাতোগ্রাফার ইমানুয়েল লুবিজস্কি-র ক্যামেরা মুভমেন্ট এই ছবির সম্পদ হয়ে ওঠে।টানা দৃশ্য, জিরো এডিটিং-এর জন্য মাঝে মাঝে সন্দেহ জাগে- কোন খবরের চ্যানেল দেখছি না তো?ডকু ফিচারের আদলে এই সিনেমাতোগ্রাফি-র জন্যেই সিনেমাটা একাধিকবার দেখা যায়।
যদি পাঠক/পাঠিকা সিনেমাটি দেখেন অতি অবশ্যই গাড়ির দৃশ্যটি একাধিক বার দেখবেন, যার ইউটিউব লিংক --
https://www.youtube.com/watch?v=QfBSncUspBk&t=40s
----------------------------------------`
সিনেমা- Children of Men
পরিচালক- Alfonso Cuaron

শেয়ার করুন


Avatar: দ

Re: মানব সন্ততি

ইন্টারেস্টিং!! নোট করলাম।

লেখাটা কি খুব তাড়াতাড়ি একটানে লেখা? দুই এক জায়গায় কেমন যেন অসুবিধে হচ্ছে পড়তে। আর প্লীজ যদি একটু মাঝে মাঝে প্যারা ব্রেক করে দেন।
Avatar: Ritam Ghosal

Re: মানব সন্ততি

হ্যাঁ একটু তাড়াহুড়ো করে লেখা। একেবারেই তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানানোর জন্য। মূল উদ্দেশ্য ছিল সিনেমাটার কথা সবাইকে জানানো


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন