Ritam Ghosal RSS feed

Ritam Ghosalএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • মুনির অপটিমা থেকে অভ্র: জয় বাংলা!
    শহীদ বুদ্ধিজীবী অধ্যাপক মুনীর চৌধুরী ১৯৬৫ সালে উদ্ভাবন করেন ‘মুনীর অপটিমা’ টাইপরাইটার। ছাপাখানার বাইরে সেই প্রথম প্রযুক্তির সূত্রে বাংলা পেল নতুন গতি। স্বাধীনতার পর ইলেকট্রনিক টাইপরাইটারেও যুক্ত হয় বাংলা। পরে আটের দশকে ‘বিজয়’ সফটওয়্যার ব্যবহার করে সম্ভব ...
  • সুইডেনে সুজি
    আঁতুরঘরের শিউলি সংখ্যায় প্রকাশিত এই গল্পটি রইল আজ ঃদি গ্ল্যামার অফ বিজনেস ট্রাভেল সুইডেনে সুজি#############পিও...
  • প্রাইভেট ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজঃ সর্বজয়া ভট্টাচার্য্যের অভিজ্ঞতাবিষয়ক একটি ছোট লেখা
    টেকনো ইন্ডিয়া ইউনিভারসিটির এক অধ্যাপক, সর্বজয়া ভট্টাচার্য্য একটি পোস্ট করেছিলেন। তাঁর কলেজে শিক্ষকদের প্রশ্রয়ে অবাধে গণ-টোকাটুকি, শিক্ষকদের কোনও ভয়েস না থাকা, এবং সবথেকে বড় যেটা সমস্যা, শিক্ষক ও ছাত্রদের কোনও ইউনিয়ন না থাকার সমস্যা নিয়ে। এই পর্যন্ত নতুন ...
  • চিরতরে নির্বাসিত হবার তো কথাই ছিল, প্রিয় মণিময়, শ্রী রবিশঙ্কর বল
    "মহাপৃথিবীর ইতিহাস নাকি আসলে কতগুলি মেটাফরের ইতিহাস"। এসব আজকাল অচল হয়ে হয়ে গেছে, তবু মনে পড়ে, সে কতযুগ আগে বাক্যটি পড়ি প্রথমবার। কলেজে থাকতে। পত্রিকার নাম, বোধহয় রক্তকরবী। লেখার নাম ছিল মণিময় ও মেটাফর। মনে আছে, আমি পড়ে সিনহাকে পড়াই। আমরা দুজনেই তারপর ...
  • বাংলা ব্লগের অপশব্দসমূহ ~
    *সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ: বাংলা ব্লগে অনেক সময়ই আমরা যে সব সাংকেতিক ভাষা ব্যবহার করি, তা কখনো কখনো কিম্ভুদ হয়ে দাঁড়ায়। নতুন ব্লগার বা সাধারণের কাছে এসব অপশব্দ পরিচিত নয়। এই চিন্তা থেকে এই নোটে বাংলা ব্লগের কিছু অপশব্দ তর্জমাসহ উপস্থাপন করা হচ্ছে। বলা ভালো, ...
  • অ্যাপ্রেজাল
    বছরের সেই সময়টা এসে গেল – যখন বসের সাথে বসে ফর্মালি ভাঁটাতে হবে সারা বছর কি ছড়িয়েছি এবং কি মণিমুক্ত কুড়িয়েছি। এ আলোচনা আমার চিরপরিচিত, আমি মোটামুটি চিরকাল বঞ্চিতদেরই দলে। তবে মার্ক্সীস ভাবধারার অধীনে দীর্ঘকাল সম্পৃক্ত থাকার জন্য বঞ্চনার ইতিহাসের সাথে আমি ...
  • মিসেস গুপ্তা ও আকবর বাদশা
    এক পার্সি মেয়ে বিয়ে করলো হিন্দু ছেলেকে। গুলরুখ গুপ্তা তার নাম।লভ জিহাদ? হবেও বা। লভ তো চিরকালই জিহাদ।সে যাই হোক,নারীর ওপর অবদমনে কোন ধর্মই তো কম যায় না, তাই পার্সিদেরও এক অদ্ভুত নিয়ম আছে। ঘরের মেয়ে পরকে বিয়ে করলে সে স্বসম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশ ...
  • সমবেত কুরুক্ষেত্রে
    "হে কৃষ্ণ, সখা,আমি কীভাবে আমারই স্বজনদের ওপরে অস্ত্র প্রয়োগ করবো? আমি কিছুতেই পারবো না।" গাণ্ডীব ফেলে দু'হাতে মুখ ঢেকে রথেই বসে পড়েছেন অর্জুন আর তখনই সেই অমোঘ উক্তিসমূহ...রণক্ষেত্...
  • আলফা গো জিরোঃ মানুষ কি সত্যিই অবশেষে দ্বিতীয়?
    আরও একবার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি আমাদের এই চিরন্তন প্রশ্নটার সামনে এনে দাঁড় করিয়েছে -- আমরা কিভাবে শিখি, কিভাবে চিন্তা করি। আলফা গো জিরো সেই দিক থেকে টেকনোক্র্যাট দের বহুদিনের স্বপ্ন পূরণ।দাবার শুধু নিয়মগুলো বলে দেওয়ার পর মাত্র ৪ ঘণ্টায় শুধু নিজেই নিজের সাথে ...
  • ছড়া
    তুষ্টু গতকাল রাতে বলছিলো - দিদিভাই,তোমার লেখা আমি পড়ি কিন্তু বুঝিনা। কোন লেখা? ঐ যে - আলাপ সালাপ -। ও, তাই বলো। ছড়া তো লিখি, তা ছড়ার কথা যে যার মতো বুঝে নেয়। কে কবে লিখেছে লোকে ভুলে যায়, ছড়াটি বয়ে চলে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে। মা মেয়েকে শেখান, ...

গুরুচণ্ডা৯র খবরাখবর নিয়মিত ই-মেলে চান? লগিন করুন গুগল অথবা ফেসবুক আইডি দিয়ে।

মানব সন্ততি

Ritam Ghosal

সালটা ২০২৭। দ্রিয়োপিথেক, অস্ত্রালোপিথেক থেকে শুরু করে মেসোপটেমিয়া, গ্রীক-রোমান সভ্যতা,ইউরোপের রেনেসাঁ, শিল্প বিপ্লব, হিরোশিমা নাগাসাকি, অর্থনীতির বিশ্বায়ন দেখা মানস সভ্যতা আজ ধ্বংসের মুখে। কারণ, গত আঠারো বছরে একটিও মানব শিশু জন্মায়নি।পুরুষ নারী উভয়েই বন্ধ্যা।পৃথিবীর কনিষ্ঠতম মানুষটির বয়স সাড়ে আঠারো।ঠিক দুই ঘন্টা ফ্যান দের উদ্দেশ্যে হাত নাড়তে গিয়ে সে খুন হয়েছে এক পাগল ভক্তের হাতে। পারমাণবিক যুদ্ধ, মনসান্টো জাতীয় কর্পোরেশনের দৌলতে পৃথিবীর অধিকাংশ দেশেই দুর্ভিক্ষ, অরাজকতা, গৃহযুদ্ধ নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা।এর মধ্যে ব্রিটেনের অবস্থা একটু পদের। মিলিটারি শাসন দিয়ে কোনরকমে বন্যার জলের মতো উদ্বাস্তুদের আটকানোর চেষ্টা করছে সরকার।দু একটা উদ্বাস্তু মরছে বটে, কিন্তু দেশ চালাতে গেলে এরকম একটু হয়েই থাকে। ছোট্ট ঘটনা।শরণার্থীদের সাথে বাক্যালাপ করা, চাকরি/ আশ্রয় দেওয়া আইনত পাপ। রেল স্টেশনে খাঁচা ভর্তি দেখে, আর বন্ধ রেল বাসের জানলার ওদিকে পুলিশের শরণার্থী পেটানো দেখে মানুষ আজকাল ভড়কায় না।এসব নিয়ে অবশ্য থীও-র সেরকম মাথাব্যাথা ছিল না। সরকারের উঁচু পদের চাকরি, কফি, সপ্তাহান্তে একটু গঞ্জিকা আর জন্মের এক বছরের মধ্যেই মরে যাওয়া ছেলে আর ছেড়ে যাওয়া বউ জুলিয়ানের কথা ভেবে দু এক পাত্র বেশি মদ খেয়েই দিন চলে যাচ্ছিল। সরকার মাইনে তো ভালই দিচ্ছে।তাহলে অত ভাববে কেন?নেহাত প্রাক্তন বউটা একটা অতিবিপ্লবী দলের মাথা হয়েছে, শুনতে পায়। পুলিশের পোস্টার-ও পড়েছে।তারা নাকি চায় উদ্বাস্তুদের-ও সমান অধিকার থাকুক। দুসসালা, হয় নাকি? বিপ্লব টিপ্লব যে আসবে থীও-ও ছাত্র বয়সে স্বপ্ন দেখতো।ইনফ্যাক্ট সেখান থেকেই জুলি-র সাথে আলাপ।কিন্তু তারপরেই মোটা মাইনের সরকারী চাকর বলে গেলো।ব্যারিকেডের উল্টোদিক থেকে ওসব ভাল্লাগতো না।তার মধ্যে বাচ্চাটাও চলে গেলো ভাইরাল ফিভারে।নাহ, বেশি ভাবলে থীও-র মাথা ধরে।আর ভাববে না।
এমন অবস্থায় একদিন জুলিয়ান দলবল নিয়ে এসে থীও-কে অনুরোধ করে একটা উদ্বাস্তু মেয়েকে সীমান্ত পেরিয়ে সেফ প্যাসেজ দিতে।থীওর দাদা ক্যাবিনেট মন্ত্রী।মিথ্যে বলে তার থেকে ট্রানজিট পেপার জোগাড় করতে সেরকম অসুবধে হওয়ার কথা নয়। পুরনো দল আর ছেড়ে যাওয়া স্ত্রীর মুখ চেয়ে যদি থীও এটুকু করে দেয়। বিপ্লবী দল যখন টাকা পয়সা-ও অফার করছে থীও আর না করলো না। তাছাড়া হাসলে জুলি কে আজও খুব সুন্দর লাগে।ট্রানজিটের কাগজ পত্র জোগাড় হয়ে গেলে পরে একদিন থীও,উদ্বাস্তু মেয়ে কী ,জুলিয়ান, জুলিয়ানের দলের আরেক নেতা লিউক রওনা দেয় উপকূলের দিকে।রাস্তায় একদল ভবঘুরে ছিনতাইবাজের হাতে খুন হয় জুলিয়ান, লিউক দুজন পুলিশ কে গুলি করে,গোটা দল টার পিছনে পুলিশ লাগে, কী-র আয়া মারা যায়, আর এসবের পরে থীও জানতে পারে কী পৃথিবীর একমাত্র গর্ভবতী।শুধু এটুকুতেই শেষ নয়, জুলিয়ান মারা যাওয়ার পেছনে যে আসলে তার-ই দলের লোকের হাত আছে,সেটাও আড়ি পেতে জানতে পারে থীও।জুলিয়ান নাকি বুঝতে পেরেছিলো দল থেকেই তাকে সরানোর তোড়জোড় চলছে, কী কে বলে গেছিল একমাত্র থীও কে বিশ্বাস করতে, আর থীও-র সাহায্যে একমাত্র স্বাধীন দেশ আযোরেসে বন্ধ্যাত্ব দুরীকরণ ল্যাবরেটরিতে পৌঁছতে।কিছু বিজ্ঞানী সেখানে বন্ধ্যাত্ব দুরীকরণ নিয়ে গবেষণা করছেন। কী-কে নিয়ে থীও পালায়।পুলিশ আর বিপ্লবী দলের ফিশের বিদ্রোহী সদস্য -দুদলের হাত থেকে বাঁচতে থীও-র বন্ধু জ্যাস্পারের খামার বাড়িতে আশ্রয় নেয় দুজনে। কিন্তু ফিশ বাহিনী সেখানেও পৌঁছে যায়। বাধ্য হয়ে আউসউইতজের ঢঙে বানানো বেক্সহিল উদ্বাস্তু ক্যাম্পে আশ্রয় নেয় থীও, কী আর নবজাতক। এদিকে ক্যাম্পেও অভ্যুত্থান শুরু হয়। এরই মধ্যে এক আশ্রয় থেকে অন্য আশ্রয়, তিন অসমবয়সী মানুষ পালাতে থাকে। পেছনে বুলেটের আওয়াজ, বোমারু বিমান ফেলে রেখে। সামনে আযোরেস আর সবুজ ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখে।
পিডি জেমসের উপন্যাস থেকে আফোন্সো কুয়ারোনের সিনেমা "চিলড্রেন অফ মেন" -এর শেষটা অবশ্য ডিস্টোপিক।মন্ত্রীর বাড়ীর ডাইনিং রুমে পিকাসোর গুয়েরনিকা টাঙ্গানো থাকে। শিল্প টিল্প-র প্রয়োজন শেষ মানুষের কাছে। মাইকেলেঞ্জেলো-র ডেভিডের এক পা ভেঙ্গে যাওয়ার লোহার রড দিয়ে ঠেকনা দেওয়া হয় সরকারী টাকায়। এদিকে লন্ডনের রাজপথে উদ্বাস্তু রিকশাচালককে পিটিয়ে মারে পুলিশ।মিলিটারি অফিসার বলে ঘুষ-টুষ চায় না, শুধু সেফ প্যাসেজ দেওয়ার বদলে কী কে একটু তার সাথে "ছেড়ে দিতে"। লেখিকা জেমসের ভাষায় " in a world with no future where the very words 'justice,' 'compassion,' 'society,’ 'struggle,' 'evil,' would be unheard echoes on an empty air" । পরিচালক আফোন্সো কুয়ারোন মানুষের উর্বরতাকে বেছে নেন আশাবাদের প্রতীক হিসেবে।তাই ছবিটির শেষ দৃশ্যের পরে কি হয় , সেটা দর্শকের একান্ত নিজস্ব। cliffhanger । এই সময়ের শ্রেষ্ঠ সিনেমাতোগ্রাফার ইমানুয়েল লুবিজস্কি-র ক্যামেরা মুভমেন্ট এই ছবির সম্পদ হয়ে ওঠে।টানা দৃশ্য, জিরো এডিটিং-এর জন্য মাঝে মাঝে সন্দেহ জাগে- কোন খবরের চ্যানেল দেখছি না তো?ডকু ফিচারের আদলে এই সিনেমাতোগ্রাফি-র জন্যেই সিনেমাটা একাধিকবার দেখা যায়।
যদি পাঠক/পাঠিকা সিনেমাটি দেখেন অতি অবশ্যই গাড়ির দৃশ্যটি একাধিক বার দেখবেন, যার ইউটিউব লিংক --
https://www.youtube.com/watch?v=QfBSncUspBk&t=40s
----------------------------------------`
সিনেমা- Children of Men
পরিচালক- Alfonso Cuaron

শেয়ার করুন


Avatar: দ

Re: মানব সন্ততি

ইন্টারেস্টিং!! নোট করলাম।

লেখাটা কি খুব তাড়াতাড়ি একটানে লেখা? দুই এক জায়গায় কেমন যেন অসুবিধে হচ্ছে পড়তে। আর প্লীজ যদি একটু মাঝে মাঝে প্যারা ব্রেক করে দেন।
Avatar: Ritam Ghosal

Re: মানব সন্ততি

হ্যাঁ একটু তাড়াহুড়ো করে লেখা। একেবারেই তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানানোর জন্য। মূল উদ্দেশ্য ছিল সিনেমাটার কথা সবাইকে জানানো


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন