Manash Nath RSS feed

Manash Nathএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • নীলতিমি
    সিলেবাসডোবায় বেশ একখানা কাঁটাসর্বস্ব পদ্ম ফুটত পরীক্ষার নামে, ফি বছর। সুখ অবশ্যি বেশি গিজগিজ করলে, গুপ্ত বিষফোঁড়ার মত 'মিনি'পরীক্ষা কখনো সখনো কপালে টোকা মেরে যেত, বছরের বাকি সময়েও। কোয়ার্টারলি, হাফ ইয়ার্লি। কখনো বা 'সারপ্রাইজ' অ্যাবস্ট্র‍্যাক্ট নাউন, ...
  • পারফিউম
    এত প্রশ্ন আমাকে আগে কেউ করেছে কিনা আমার ঠিক মনে পড়ল না। সেই প্রশ্ন কর্তাদের লিষ্টে অন্তর্ভুক্ত আছেঃ১। অ্যালাপ্যাথি ডাক্তার।হোমিওপ্যাথি ডাক্তার নয় কিন্তু – তাদের আবার বিরাট রেঞ্জের প্রশ্ন ক্ষেপণের স্বভাব আছে। আমাদের নিমো বাস স্ট্যান্ডের নারাণ ডাক্তার আমার ...
  • বল ও শক্তি: ধারণার রূপান্তর বিভ্রান্তি থেকে বিজ্ঞানে#2
    [৩] যাদুবিদ্যা ও ধর্মপৃথিবীর সমস্ত প্রাতিষ্ঠানিক ধর্মই প্রথম যুগে এই ম্যাজিক সংস্কৃতির বিরোধিতা করেছিল। কিন্তু কেন? আসুন, এবার আমরা সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজে দেখি। সমাজ বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধানে দেখা যাবে, ধর্মের উদ্ভবের সময়কালের সাথে এই যাদুবিদ্যার আর্থসামাজিক ...
  • আমার বাবার বাড়ি
    আমাদের যাদের বয়েস স্বাধীনতার বয়েসের পাশাপাশি তারা ছোটবেলায় প্রায়ই একটা অদ্ভুত প্রশ্নের মুখোমুখি হতাম, দেশ কই? উত্তরে যে দেশের নাম বলার রীতি ছিলো যেমন ঢাকা, কুমিল্লা, সিলেট, নোয়াখালী সব ছিলো ভারতের ম্যাপের বাইরে সবুজ এলাকায়। আবার সদ্যস্বাধীন দেশে আমরা খুব ...
  • পরীবালার দিনকাল
    ১--এ: যত তাড়াতাড়িই কর না কেন, সেই সন্ধ্যে হয়ে এলো ----- খুব বিরক্ত হয়ে ছবির মা আকাশের দিকে একবার তাকাল, যদি মেঘ করে বেলা ছোট লেগে থাকে৷ কিন্তু না: আকাশ তকতকে নীল, সন্ধ্যেই হয়ে আসছে৷ এখনও লালবাড়ির বাসনমাজা আর মুনি দের বাড়ি বাসন মাজা, বারান্দামোছা ...
  • বল ও শক্তি: ধারণার রূপান্তর বিভ্রান্তি থেকে বিজ্ঞানে#1
    আধুনিক বিজ্ঞানে বস্তুর গতির রহস্য বুঝতে গেলেই বলের প্রসঙ্গ এসে পড়ে। আর দু এক ধাপ এগোলে আবার শক্তির কথাও উঠে যায়। সেই আলোচনা আজকালকার ছাত্ররা স্কুল পর্যায়েই এত সহজে শিখে ফেলে যে তাদের কখনও একবারও মনেই হয় না, এর মধ্যে কোনো রকম জটিলতা আছে বা এক কালে ছিল। ...
  • আমার বাবা আজিজ মেহের
    আমার বাবা আজিজ মেহের (৮৬) সেদিন সকালে ঘুমের ভেতর হৃদরোগে মারা গেলেন।সকাল সাড়ে আটটার দিকে (১০ আগস্ট) যখন টেলিফোনে খবরটি পাই, তখন আমি পাতলা আটার রুটি দিয়ে আলু-বরবটি ভাজির নাস্তা খাচ্ছিলাম। মানে রুটি-ভাজি খাওয়া শেষ, রং চায়ে আয়েশ করে চুমুক দিয়ে বাবার কথাই ...
  • উপনিষদ মহারাজ
    একটা সিরিজ বানাবার ইচ্ছে হয়েছিলো মাঝে। কেউ পড়েন ভালোমন্দ দুটো সদুপদেশ দিলে ভালো লাগবে । আর হ্যা খুব খুব বেশী বাজে লেখা হয়ে যাচ্ছে মনে হলে জানাবেন কেমন :)******************...
  • চুনো-পুঁটি বনাম রাঘব-বোয়াল
    চুনো-পুঁটি’দের দিন গুলো দুরকম। একদিন, যেদিন আপনি বাজারে গিয়ে দেখেন, পটল ৪০ টাকা/কেজি, শসা ৬০ টাকা, আর টোম্যাটো ৮০ টাকা, যেদিন আপনি পাঁচ-দশ টাকার জন্যও দর কষাকষি করেন; সেদিনটা, ‘খারাপ দিন’। আরেক দিন, যেদিন আপনি দেখেন, পটল ৫০ টাকা/কেজি, শসা ৭০ টাকা, আর ...
  • আগরতলা নাকি বানভাসি
    আগরতলা বানভাসি। দামী ক্যামেরায় তোলা দক্ষ হাতের ফটোগ্রাফ বন্যায় ভাসিয়ে দিচ্ছে ফেসবুকের ওয়াল। দেখছি অসহায়ের মতো সকাল, দুপুর বিকেল, রাত হোল এখন। চিন্তা হচ্ছে যাঁরা নীচু এলাকায় থাকেন তাঁদের জন্য। আমাদের ছোটবেলায় ঝমঝমিয়ে বৃষ্টি হোত হাওড়া নদীর বুক ভরে উঠতো ...

গুজবের পিছনে

Manash Nath

সবাই বলছে গুজবে কান দেবেন না, কিন্তু মানুষের ধর্মই হল গুজবে কান দেওয়া।আপনি একটা ভাল খবর দিন.. সেটা বন্ধুদের মধ্যেই থাকবে কিন্তু খারাপ খবর মূহুর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়বে। আপনি ফেসবুকে দেখতে পেলেন আপনার এক বন্ধু লিখেছে দেগঙ্গাতে কি কিছু হচ্ছে? আপনি সেখানে গিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে জিজ্ঞাসা করলেন, আরো অনেকে করলো। একজন বলল হ্যাঁ হ্যাঁ, আমিও শুনেছি!! কি ব্যাপার কে জানে! আরো একজন প্রোফাইল এসে বলল আমার বাড়ি থেকে দশ কিলোমিটার, দাঙ্গার খবর আসছে!! আপনি মোটামুটি নিশ্চিন্ত হলেন যে খবরটার ভিত্তি আছে। উত্তেজনায় আর নিরাপত্তাহীনতায় দু চার জায়গায় ফোন করে খবরটা ছড়ালেন!

আপনি কি জানেন পরিকল্পিত ভাবে শুধু বাঙালি হিসেবে পঞ্চাশ হাজার ফেক প্রোফাইল তৈরি করা হয়েছে। বাংলাদেশের একটি হিন্দু ছেলে আপনাকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাল। বাংলাদেশ আপনার আবেগের জায়গা, দেখলেন ছেলেটির পরিবার বন্ধুবান্ধব এর ছবি আছে। স্কুল কলেজের নাম আছে। তারপর সে আপনার কবিতায় কমেন্ট করল... আপনার পুরী যাবার ছবিতে লাইক দিল... আপনিও তার লেখা কবিতায় লাইক দিলেন... ঠিকই তো আছে! একদিন সে শেয়ার করল আমাদের পাড়ার মন্দির মুসলমানেরা ভেঙ্গে দিয়েছে! আপনি কোন কাগজে টিভি চ্যানেলে এমন কোন খবর দেখেননি... কিন্তু আপনি তাকে বিশ্বাস করলেন!আর অজান্তেই একটা চক্রান্তে জড়িয়ে গেলেন!

হিন্দু প্রোফাইল থেকে মুসলমানকে গালাগালি করা হচ্ছে... মুসলমান প্রোফাইল দিয়ে হিন্দুকে গালাগাল করা হচ্ছে আমি আপনি দর্শক। এবার কতদিন এড়িয়ে যেতে পারবেন? আপনিও ঢুকে পড়লেন খেলাটায়.... আর দর্শক যখন খেলায় ঢুকে পড়ে তখনই এই খেলাটা সার্থক হয়ে ওঠে। আমাদের সামাজিক অবস্থান, শিক্ষাদীক্ষা, রুচি সব ভুলে আমরাও এই গালাগালি ঘেন্নাতে মেতে উঠি।নিজেদের অজান্তেই আমরা হয়ে উঠতে থাকি একজন গোঁড়া একজন মৌলবাদী। একজন চাড্ডি, মাকু, ছাগু।

ভারতীয় মিডিয়া খুব যথাযথ ভাবেই দাঙ্গা বা ধর্মীয় উত্তেজনার খবর পরিহার করে। দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা তাকে এর থেকে বিরত থাকা শিখিয়েছে। নতুন গজানো এই সোশাল মিডিয়া তাই মৌলবাদীদের কাছে এমন গুজব আর তিলকে তাল করার জন্য শ্রেষ্ঠ মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আমি এদেশের একজন সাধারণ মানুষ। কোন রাজনৈতিক দলের সদস্য নই কোনদিন ছিলাম ও না।আমি কোন ইজমের দাস নই। মনে করি এখনো পর্যন্ত গনতন্ত্রের কোন বিকল্প নেই। যখন যাকে সর্বাধিক উপযুক্ত মনে করি তাকে ভোট দিই। মনে না হলে দি না। শাসক দলের সমালোচনা করার পূর্ণ অধিকার আমার আছে। সোশাল মিডিয়া একটা সামাজিক প্ল্যাটফর্ম, সব রাজনৈতিক দলই এখানে প্রোপাগান্ডা করার চেষ্টা করে। কংগ্রেস, সিপিএম, তৃণমূল সবারই সাইবার সেল আছে কমবেশি।কিন্তু এই খেলায় বিজেপি সবাইকে টেক্কা দিয়েছে।নির্বাচন বিশেষজ্ঞ প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শে এবং নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে বিজেপি প্রায় একশো কোটি টাকা সাইবার সেলের পিছনে ইনভেস্ট করে। দেশ জুড়ে অসংখ্য ফেক প্রফাইল আর ওয়েবসাইট বানানো হয় যারা দিনরাত প্রোপাগান্ডা ছড়াতে থাকবে। দরকার মত বিভিন্ন ফেক নিউজ, ভিডিও তৈরি করবে। পোস্টার মিম বানাবে সেগুলো ফেক প্রোফাইল দিয়ে ফেসবুকে আর সেখান থেকে হোয়াটস এ্যাপে ছড়াবে। এখানে একটা লিংক দিচ্ছি একটু দেখতে পারেন।
http://amp.indiatimes.com/news/india/bjp-leader-s-kin-alleged-it-cell-
member-among-11-arrested-for-running-isi-spy-ring-in-madhya-pradesh-27
1308.html

এটাও দেখুন
http://www.india.com/news/india/bjp-it-cell-chief-social-media-attacks
-against-narendra-modi-critics-not-directed-by-us-528105/amp/


আমার অনেক বন্ধু মনে করেন পথই হল আসল পথ। রাস্তায় নেমেই মৌলবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে, প্রতিবাদ করতে হবে। আমি তাদের বলবো সাইবার স্পেসের এই লড়াইটাকে হেলাফেলা করবেন না বন্ধু।সস্তা মোবাইল আর ফ্রি ইন্টারনেটের দৌলতে দেশের কোনায় কোনায় এক মুহুর্তে একটা খবর পৌছে যাচ্ছে। পেড নিউজ, ফেক ভিডিও কি তা কিন্তু অধিকাংশ মানুষ জানে না...মোবাইলে ভেসে আসা ছবি খবরকে তারা বেদবাক্য হিসেবে ধরে নিচ্ছেন।
এই প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়েই আইকন গড়ে তোলা হচ্ছে।নরেন্দ্র মোদির ইমেজ এই সোশাল মিডিয়াতেই গড়ে তোলা হয়েছে।

আজ আমার আপনার ফ্রেন্ডলিস্ট গাদা গাদা ফেক প্রোফাইলে ভরে গেছে। স্বাস্থ্য নিয়ে, শিক্ষা নিয়ে, অর্থনীতি নিয়ে প্রশ্ন তুললেই ধর্মীয় আইডেন্টিটি নিয়ে কূট তর্ক জুড়ে দেওয়া হচ্ছে। যেন ধর্ম ছাড়া আর কোন সমস্যা দেশে নেই। গোলপোস্ট সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। হিন্দু সংহতি হিন্দু নিরাপত্তাহীনতা নিয়ে নানান খবরে উদ্বিগ্ন বন্ধুটি হয়ত এই প্ররোচনায় পা দিয়ে ফেলেছে। বামফ্রন্টের ব্যর্থতা আর তৃণমূলের অপদার্থতা হয়ত তাকে বিজেপির দিকে ঝুঁকিয়েছিল কিন্তু সোশাল মিডিয়া তাকে মৌলবাদী বানিয়ে দিল!! তার রাগ হতাশা ঘৃণাকে অন্য একটি সম্প্রদায়ের দিকে ঘুরিয়ে দিয়ে দাঙ্গা করতে প্ররোচনা দিলো। এখানে একটা ভিডিও শেয়ার করলাম একটু দেখলে বুঝতে পারবেন বিজেপির সাইবার সেল কি ভাবে কাজ করে। কিভাবে ফেক নিউজ ছড়ায়।
https://youtu.be/sqr3aQ4XcDI


Avatar: pi

Re: গুজবের পিছনে

একেবারেই তাই।
Avatar: dc

Re: গুজবের পিছনে

এইজন্যই আমি ফেবু ব্যাবহার করিনা। আমার ফেবু প্রোফাইলে একটাও বন্ধু নেই। একবার গুরুর ফেবুর মেম্বার হয়েছিলাম, সেখান থেকেও কদিন পর পালিয়েছি।
Avatar: i

Re: গুজবের পিছনে

সে তো আমিও ফেবু তে নাই। কিন্তু ওয়াট্স অ্যাপে তো এই সব মেসেজ আসতেই থাকে গ্রুপে। শিক্ষিত মানুষজন সেই সব নাগাড়ে শেয়ার করেন বিন্দুমাত্র চিন্তাভাবনা না করে। গ্রুপ ছেড়ে দেওয়া কোনো কাজের কথা নয় এখন। আগে হলে ছেড়ে দিতাম। এখন এরকম মেসেজ চোখে পড়লেই যিনি শেয়ার করছেন তাঁকে জিগ্যেস কোরি-তিনি কি ভেবে এটি শেয়ার করলেন? যা লেখা আছে তা তিনি বিশ্বাস করেন? করলে কেন? তিনি আদৌ মেসেজটি পড়েছেন? ইত্যাদি।
কাজ হচ্ছে এখনও অবধি।
Avatar: dc

Re: গুজবের পিছনে

হোয়াটসঅ্যাপেও আমি খুব কম কয়েকটা গ্রুপের মেম্বার, একেবারে চেনা বন্ধুবান্ধব বা আত্মীয়দের গ্রুপ ইত্যাদি। হ্যাঁ, এরকম গ্রুপেও মাঝে মাঝে উদ্ভট মেসেজ চলে আসে, তখন আমিও সেটা নিয়ে রিপ্লাই দি। তবে সবরকম সোশ্যাল মিডিয়ায় ইন্টারয়াকশান যতোটা সম্ভব সীমিত রাখি।
Avatar: কল্লোল

Re: গুজবের পিছনে

কেউ ব্যক্তিগতভাবে ফেবু পছন্দ নাই করতে পারেন। কিন্তু তাতে বিপদ কমে না।
এই ধরনের কিছু চোখে পড়লে তার প্রতিবাদ করুন। অন্তত এটুকু করুন।

Avatar: pi

Re: গুজবের পিছনে

ডিসি, দ্বার বন্ধ করে ভ্রমটারে রুখি, সত্য বলে আমি তবে ইত্যাদি ঃ)
Avatar: dc

Re: গুজবের পিছনে

:d
Avatar: SS

Re: গুজবের পিছনে

গুজব বা ফেক নিউজ কি করতে পারে এইবারের ইউএস ইলেকশনের অ্যানালিসিস করলেই বোঝা যাবে। যাই হোক, গুগল একটা ফ্যাক্ট চেকিং টুল ইনকর্পোরেট করছে সার্চ রেজাল্টের সাথে। আশা করছি ফেসবুকও খুব তাড়াতাড়ি এইরকম কিছু একটা করবে।
https://www.theguardian.com/technology/2017/apr/07/google-to-display-f
act-checking-labels-to-show-if-news-is-true-or-false



আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন