সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • মানবিক
    এনআরএস-এর ঘটনা কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। এরকম ঘটনা বারেবারেই ঘটে চলেছে এবং ভবিষ্যতে ঘটতে চলেছে আরও। ঘটনাটি সমর্থনযোগ্য নয় অথবা ঘৃণ্য অথবা পাশবিক (আয়রনি); এই জাতীয় কোনো মন্তব্য করার জন্য এই লেখাটা লিখছি না। বরং অন্য কতগুলো কথা বলতে চাই। আমার মনে হয় এই ঘটনার ...
  • ডিগ্রি সংস্কৃতি
    মমতার সবৈতনিক শিক্ষানবিস শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগের ঘোষণায় চারপাশে প্রবল হইচই দেখছি। বিশেষ গাদা গাদা স্কুলে হাজার হাজার শিক্ষক পদ শূন্য, সেখানে শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগ সংক্রান্ত ব্যাপারে কিছুই না করে এই ঘোষণাকে সস্তায় কাজ করিয়ে নেওয়ার তাল মনে হইয়া খুবই ...
  • বাংলাদেশের শিক্ষিত নারী
    দেশে কিছু মানুষ রয়েছে যারা নারী কে সব সময় বিবেচনা করে নারীর বিয়ে দিয়ে। মানে তাদের কাছে বিয়ে হচ্ছে একটা বাটখারা যা দিয়ে নারী কে সহজে পরিমাপ করে তারা। নারীর গায়ের রং কালো, বিয়ে দিতে সমস্যা হবে। নারী ক্লাস নাইন টেনে পড়ে? বিয়ের বয়স হয়ে গেছে। উচ্চ মাধ্যমিকে ...
  • #মারখা_মেমারিজ (পর্ব ৫)
    স্কিউ – মারখা (০৫.০৯.২০১৮)--------...
  • গন্ডোলার গান
    সে অনেককাল আগের কথা। আমার তখন ছাত্রাবস্থা। রিসার্চ অ্যাসিস্ট্যান্টশিপের টাকার ভরসায় ইটালি বেড়াতে গেছি। যেতে চেয়েছিলাম অস্ট্রিয়া, সুইৎজারল্যান্ড, স্ট্রাসবুর্গ। কারণ তখন সবে ওয়েস্টার্ন ক্লাসিকাল শুনতে শুরু করেছি। মোৎজার্টে বুঁদ হয়ে আছি। কিন্তু রিসার্চ ...
  • শেকড় সংবাদ : চিম্বুকের পাহাড়ে কঠিন ম্রো জীবন
    বাংলাদেশের পার্বত্য জেলা বান্দরবানের চিম্বুক পাহাড়ে নিরাপত্তা বাহিনীর ভূমি অধিগ্রহণের ফলে উচ্ছেদ হওয়া প্রায় ৭৫০টি ম্রো আদিবাসী পাহাড়ি পরিবার হারিয়েছে অরণ্যঘেরা স্বাধীন জনপদ। ছবির মতো অনিন্দ্যসুন্দর পাহাড়ি গ্রাম, জুম চাষের (পাহাড়ের ঢালে বিশেষ চাষাবাদ) জমি, ...
  • নরেন হাঁসদার স্কুল।
    ছাটের বেড়ার ওপারে প্রশস্ত প্রাঙ্গণ। সেমুখো হতেই এক শ্যামাঙ্গী বুকের ওপর দু হাতের আঙুল ছোঁয়ায় --জোহার। মানে সাঁওতালিতে নমস্কার বা অভ্যর্থনা। তার পিছনে বারো থেকে চার বছরের ল্যান্ডাবাচ্চা। বসতে না বসতেই চাপাকলের শব্দ। কাচের গ্লাসে জল নিয়ে এক শিশু, --দিদি... ...
  • কীটদষ্ট
    কীটদষ্টএকটু একটু করে বিয়ারের মাথা ভাঙা বোতল টা আমি সুনয়নার যোনীর ভিতরে ঢুকিয়ে দিচ্ছিলাম আর ওর চোখ বিস্ফারিত হয়ে ফেটে পড়তে চাইছিলো। মুখে ওরই ছেঁড়া প্যাডেড ডিজাইনার ব্রা'টা ঢোকানো তাই চিৎকার করতে পারছে না। কাটা মুরগীর মত ছটফট করছে, কিন্তু হাত পা কষে বাঁধা। ...
  • Ahmed Shafi Strikes Again!
    কয়দিন আগে শেখ হাসিনা কে কাওমি জননী উপাধি দিলেন শফি হুজুর। দাওরায় হাদিস কে মাস্টার্সের সমমর্যাদা দেওয়ায় এই উপাধি দেন হুজুর। আজকে হুজুর উল্টা সুরে গান ধরেছেন। মেয়েদের ক্লাস ফোর ফাইভের ওপরে পড়তে দেওয়া যাবে না বলে আবদার করেছেন তিনি। তাহলে যে কাওমি মাদ্রাসা ...
  • আলতামিরা
    ঝরনার ধারে ঘর আবছা স্বয়ম্বর ফেলেই এখানে আসা। বিষাদের যতো পাখিচোর কুঠুরিতে রাখিছিঁড়ে ফেলে দিই ভাষা৷ অরণ্যে আছে সাপ গিলে খায় সংলাপ হাওয়াতে ছড়ায় ধুলো। কুটিরে রেখেছি বই এবার তো পড়বোই আলোর কবিতাগুলো।শুঁড়িপথ ধরে হাঁটিফার্নে ঢেকেছে মাটিকুহকী লতার জাল ফিরে আসে ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

অশোকাষ্টমী

Shakti kar bhowmik

আজকে কেন জানিনা ঊনকোটি পাহাড়ের কথা খুব মনে পড়ছে। নিজেদের পুরোনো জীবনের কথাও। ১৯৬৯ কি ৭০সাল। সদ্য শিক্ষকতায় ঢুকেছি। কোথায় আমার বাড়ী কোথায় ভদ্রার বাড়ী। ছোট্ট শহর কৈলাশহর। সংস্কৃতিমনষ্ক রক্ষণশীল সমাজ। আমাদের বয়স তখন কম, দেখায় আরো কম। সহকর্মীরা ভালবাসেন, হেডমিস্ট্রেসের আমরা প্রিয়পাত্রী ছিলাম। স্কুলের সব কটি ক্লাসের মেয়েরা পিকনিকে আমাদের নিয়ে যেতে চায় আমরাও সাগ্রহে যাই। ঊনকোটিতে নিরামিষ খাওয়াই প্রথা; আমরা একদিন সর্ষেবাটা দিয়ে রান্না করা ডিম নিয়ে গেছিলাম, কেউ বাধা দেয়নি। তখন পাহাড়ে কেউ থাকতোও না; কিছু দিন পর একটি দরিদ্র পরিবার কুঁড়েঘর বেঁধে থাকতে শুরু করে, আরো পরে পান্ডার ভূমিকা নেয়। আমি আর ভদ্রা সবার সঙ্গে যাই, কখনো দেখি অন্য পিকনিক পার্টি আছে, কখনো দেখি তীর্থকামী মানুষেরা স্নান করে স্রোত জলে একটু দুর্বা দুটো সাদা ফুল কি জবাফুল ভাসিয়ে দেয়। আমি আর ভদ্রা মাঝে মাঝে একটু হালুয়া কি ঘুগনী নিয়ে একাও যাই। ভয় করে না, কোনদিন ভয়ের কারণও হয়নি কিছু। খবরের কাগজে তখন এখনকার মতো এতো খারাপ খবর উঠতো না, টিভি তো ছিলোই না। আমরাও পৃথিবীর অন্ধকার নিয়ে অবহিত ছিলাম না।
অনেকটা পথ জীপ থেকে নেমে পাহাড়ে উঠতাম। সবুজ পাহাড় ঘিরে স্বচ্ছ জলধারা, কখনো প্রপাত কখনো ঝর্ণা কখনো ছলছলে নদীনীর। সবুজে সাদা জল বিন্দুর নকশা। আঁকা বাঁকা শুঁড়িপথ, প্রাগৈতিহাসিক কিছু সিঁড়ি। তখনও রেলিং এর বাঁধন ছিলো না। একদম আদিম সৌন্দর্য। এখানে ওখানে ছাড়ানো সম্পূর্ন অসম্পূর্ণ আর ভাঙ্গা কিছু প্রস্তর মূর্তি। লোকে বলে এক কোটির একটা কম তাই ঊনকোটি। এতো ছিলো না মনে হয়। গল্প আছে কালু কামার নামের এক ভাষ্কর এক রাত্রি র মধ্যে কোটি মূর্তি নির্মাণে আদিষ্ট হয়েছিলেন। কিন্তু কাকের ডাকে ভোর হয়ে গেছে ভেবে একটি নির্মাণে অসমর্থ হয়েছিলেন। পাথুরে প্রমাণ নেই। ইতিহাস মিথ নির্ভর। কেউ বলেন শৈব তীর্থ, কেউ বলেন বৌদ্ধ যুগে আত্মগোপনকারী হিন্দুশিল্পীদের সৃষ্টি, কেউ আবার বলেন হিন্দু ধর্মের পুনরুত্থানে আত্মগোপনকারী বৌদ্ধদের তীর্থ। আবার প্রধান মূর্তি কটিতে দুর্গা গণেশের আদল ক্ষয়িষ্ণু পাথরে চোখে পড়ে মনে হয়।

সে যাই হোক ,জলের মঞ্জিরে ঝিনিঝিনি বাজনা, সবুজ শাখা প্রশাখার ফাঁকে চুঁইয়ে পড়ে সূর্য্যের আলো। বনের পথে আঁধার আলোয় আলিম্পন। পাথর জল ছুঁয়ে থাকে সবুজ পাতা জলে ভেসে যায়। চাঁপার সুগন্ধ বাতাসে। বনের তীর্থ বন সাজে বর্ণিল, বনফুলে সুবাসিত।
দোকান পাট পূজামন্ত্র কিছু নেই। সেই ত্রিপুরায় দুর্গা পূজা ছাড়া সমারোহপূর্ণ পূজা ক্লাবে বা ব্যাক্তিগত উদ্যোগে হয় না বললেই চলে। লক্ষ্মী পুজো বিপদনাশিনী সত্যনারায়ণ, গড়িয়া দেবতার পুজো হয় প্রসাদ হয়। গ্রামের পথে দেখা যায় এক ঠাকুর - অর্ধেক নীল অর্ধেক শাদা অর্ধেক নারী অর্ধেক পুরুষ, নাম তাঁর পরমেশ্বর। প্রসাদটি ভারী স্বাদু, চালের গুঁড়ো আর কি মিশিয়ে তৈরী একটি নাড়ু। আর আছেন সুবচনী ঠাকরুন - বইনপুত কোলে লইয়া লোকের বাড়ী একটু তেল মেগে বেড়ান। লোকের বেশি টাকাও নেই বাজনা বাদ্যির ধুম ও নেই। পাঁচালি আছে গান আছে নাচও।
এখন বাসন্তী পুজো। উদয়পুরে জগন্নাথ দীঘির পাড়ে কবেকার প্রাচীন মন্দিরে কবেকার পুরোনো কাঠের প্রতিমা, নিরিবিলিতে পূজিত হচ্ছেন। আগরতলা দুর্গা বাড়ীতে সুদর্শন রাজপুরোহিত আশোক পাতা আহুতি দিচ্ছেন হোমের আগুনে, আজ না অশোকাষ্টমী!
কেন মনে পড়লো এতো কথা? কালকে যে চিরশ্রী কৈলাশহর থেকে ফিরতে শুনেছে অনেক বাজনা, অনেকে প্রতিমা নিয়ে যাচ্ছেন। ওই কথায় আমারও মনে হোল ঊনকোটির জলে এখনো কি জলের নূপুর বেজে চলেছে রুনু রুনু রুনু?

151 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: kumu

Re: অশোকাষ্টমী

খুউব সুন্দর,মায়াময় ছবি।
আরও লিখুন।
Avatar: শঙ্খ

Re: অশোকাষ্টমী

বাহ। ভারি ভালো লাগলো
Avatar: মনোজ ভট্টাচার্য

Re: অশোকাষ্টমী

শক্তি,

পুজোর গন্ধ পেলে যেমন পুরুত ঠাকুরের দেখা মেলে - তেমনি আমারও একটু আশা হয়েছিল - বোধয় উনকটি পাহাড়ের গল্পটা বলবেন ! - সেটা একটু বললে ভালো লাগবে !

মনোজ
Avatar: Lama

Re: অশোকাষ্টমী

মনোজদা, এইটা দেখতে পারেন

https://en.wikipedia.org/wiki/Unakoti
Avatar: sujata ganguly

Re: অশোকাষ্টমী

বাহ ! খুব ভালো লাগলো !
Avatar: Du

Re: অশোকাষ্টমী

খুব সুন্দর । ঊনকোটি সেরকমই থাকুক আশা করি।
Avatar: কল্লোল

Re: অশোকাষ্টমী

না না উইকি না। আপনার শোনা ঊণকোটির গল্প শুনতে চাই। আপনি ওখানে ছিলেন, নিশ্চই শুনেছেন। সে গল্প শোনান।



আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন