Sarit Chatterjee RSS feed

Sarit Chatterjeeএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • ভুখা বাংলাঃ '৪৩-এর মন্বন্তর
    পর্ব ১-------( লালগড় সম্প্রতি ফের খবরের শিরোনামে। শবর সম্প্রদায়ের সাতজন মানুষ সেখানে মারা গেছেন। মৃত্যু অনাহারে না রোগে, অপুষ্টিতে না মদের নেশায়, সেসব নিয়ে চাপান-উতোর অব্যাহত। কিন্তু একটি বিষয় নিয়ে বোধ হয় বিতর্কের অবকাশ নেই, প্রান্তিকেরও প্রান্তিক এইসব ...
  • 'কিছু মানুষ কিছু বই'
    পূর্ণেন্দু পত্রীর বিপুল-বিচিত্র সৃষ্টির ভেতর থেকে গুটিকয়েক কবিতার বই পর্যন্তই আমার দৌড়। তাঁর একটা প্রবন্ধের বই পড়ে দারুণ লাগলো। নিজের ভালোলাগাটুকু জানান দিতেই এ লেখা। বইয়ের নাম 'কিছু মানুষ কিছু বই'।বেশ বই। সুখপাঠ্য গদ্যের টানে পড়া কেমন তরতরিয়ে এগিয়ে যায়। ...
  • গানের মাস্টার
    আমাকে অংক করাতেন মনীশবাবু। গল্পটা ওনার কাছে শোনা। সত্যিমিথ্যে জানিনা, তবে মনীশবাবু মনে হয়না মিছে কথা বলার মানুষ। ওনার বয়ানেই বলি।তখনও আমরা কলেজ স্ট্রীটে থাকি। নকশাল মুভমেন্ট শেষ। বাংলাদেশ যুদ্ধও শেষ হয়ে গেছে। শহর আবার আস্তে আস্তে স্বভাবিক হচ্ছে। লোকজন ...
  • বিজ্ঞানে বিশ্বাস, চিকিৎসা বিজ্ঞানে বিশ্বাস বনাম প্রশ্নের অভ্যাস
    এই লেখাটি চার নম্বর প্ল্যাটফর্ম ওয়েবম্যাগে প্রকাশিত। এইখানে আবারও দিলাম। যাঁরা পড়েন নি, পড়ে দেখতে পারেন। বিজ্ঞানে বিশ্বাস, চিকিৎসাবিজ্ঞানে বিশ্বাস বনাম প্রশ্নের অভ্যেসবিষাণ বসু“সোমপ্রকাশ। - স্বয়ং হার্বাট স্পেন্সার একথা বলেছেন। আপনি হার্বাট স্পেন্সারকে ...
  • অতীশ দীপংকরের পৃথিবী : সন্মাত্রনন্দের নাস্তিক পণ্ডিতের ভিটা
    একাদশ শতকের প্রথমদিকে অতীশ দীপঙ্কর বৌদ্ধধর্ম ও সংশ্লিষ্ট জ্ঞানভাণ্ডার নিয়ে বাংলা থেকে তিব্বতে গিয়েছিলেন সেখানকার রাজার বিশেষ অনুরোধে। অতীশ তিব্বত এবং সুমাত্রা (বর্তমান ইন্দোনেশিয়া) সহ পূর্ব ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বিস্তৃর্ণ ভূভাগে বৌদ্ধ ধর্ম ও দর্শনের ...
  • the accidental prime minister রিভিউ
    ২০০৫ সালের মে মাসে ইউপিএ সরকারের প্রথম বর্ষপূর্তিতে হঠাৎ একটা খবর উঠতে শুরু করল যে প্রধাণমন্ত্রী সব ক্যাবিনেট মিনিস্টারের একটা রিপোর্ট কার্ড তৈরি করবেন।মনমোহন সিং যখন মস্কোতে, এনডিটিভি একটা স্টোরি করল যে নটবর সিং এর পারফর্মেন্স খুব বাজে এবং রিপোর্ট কার্ডে ...
  • উল্টোরথ, প্রসাদ ও কলিন পাল
    ছোটবেলা থেকেই মামাবাড়ির 'পুরোনো ঘর' ব'লে একটি পরিত্যক্ত কক্ষে ঝিমধরা দুপুরগুলি অতিবাহিত হতো। ঘরটি চুন সুরকির, একটি অতিকায় খাটের নীচে ডাই হয়ে জমে থাকত জমির থেকে তুলে আনা আলু, পচা গন্ধ বেরুত।দেওয়ালের এক কোণে ছিল বিচিত্র এক ক্ষুদ্র নিরীহ প্রজাতির মৌমাছির ...
  • নির্বাচন তামসা...
    বাংলাদেশে জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হয়ে গেছে। এবার হচ্ছে একাদশ তম জাতীয় নির্বাচন। আমি ভোট দিচ্ছি নবম জাতীয় নির্বাচন থেকে। জাতীয় নির্বাচন ছাড়া স্থানীয় সরকার নির্বাচন দেখার সুযোগ পেয়েছি বেশ কয়েকবার। আমার দেখা নির্বাচন গুলোর মাঝে সবচেয়ে মজার নির্বাচন ...
  • মসলা মুড়ি
    #বাইক_উৎসব_এক্সরে_নো...
  • কাঁচঘর ও ক্লাশ ফোর
    ক্লাস ফোরে যখন পড়ছি তখনও ফেলুদার সঙ্গে পরিচয় হয়নি, পড়িনি হেমেন্দ্রকুমার। কিন্তু, যথাক্রমে, দুটি প্ররোচনামূলক বই পড়ে ফেলেছি। একটির নাম 'শয়তানের ঘাঁটি' ও অপরটি 'চম্বলের দস্যুসর্দার'। উক্ত দুটি বইয়ের লেখকের নাম আজ প্রতারক স্মৃতির অতলে। যতদূর মনে পড়ে, এই ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

ম্যাচ পয়েন্ট

Sarit Chatterjee

ম্যাচ পয়েন্ট
সরিৎ চট্টোপাধ্যায় / অণুগল্প

: খবরদার, টাচ করবে না তুমি আমাকে!
ওপাশ ফিরে শুয়ে আছে তুতুল। সুন্দর মুখটা রাগে অভিমানে কাশ্মিরি আপেলের মতো লাল হয়ে আছে।
পলাশ কিছুক্ষণ নিজের মনেই হাসল। তারপর জোর করে তুতলকে নিজের দিকে ঘুরিয়ে নিয়ে বলল, রাগটা কি আমার ওপর, না নিজের ওপর?
: তোমার ওপর!
: কেন? আমি বাজি জিতে গেলাম বলে?
: তুমি চিটিং করে জিতেছ। কাল হোস্টেলে সবাই কী বলবে বলোতো!
: কিসের চিটিং? অল ইজ ফেয়ার ইন লভ অ্যান্ড ওয়ার।
: মোটেই না। তুমি সিচুয়েশনের আনডিউ অ্যাডভান্টেজ নিয়েছ।
: সে তো যখন টেন-এ ছিলে তখন থেকেই নিচ্ছি।
: হুঁ! ওটাকে চাইল্ড অ্যাবিউজ বলে!
: তাই নাকি? মোড়ার ভেতর আমার চটি লুকিয়েছিল কে? অমলেটের ওপর একগাদা নুন ছড়িয়ে কে এনেছিল?

পলাশ তখন সবে জয়েন্ট পেয়েছে। মা একদিন হঠাৎ বলল, শোন, পুরীর কৃষ্ণাদির মেয়েটাকে একটু পড়িয়ে দিতে পারবি? ক'দিন ধরেই সাধাসাধি করছেন।
: পুরীর কৃষ্ণাদিটা আবার কে?
: ওমা! তোর মনে নেই? সেবার পুরীতে গিয়ে আলাপ হলো। ওই তো, কাঁটাকলের দিকে বাড়ি।
: আমার মনে নেই।
: সেই, তুই তো তখন মাত্র সিক্সে ছিলিস। যাকগে, পড়াবি কিনা বল?
: কোন ক্লাস?
: টেন।
: দুর! টেনেতে আবার টিউশন।
: শুধু সাইন্স আর অঙ্ক। অনেক করে বলেছে, দেখ না একটু।

তুতুল উঠে বসে বালিশটা ছুঁড়ে মারল।
: বেশ করেছিলাম! তুমি হাঁদা গঙ্গারামের মতো আমার দিকে তাকিয়ে থাকতে কেন?
: আরে, তাকানোর মতো জিনিস হলে তাকাবো না! তা বলে মাস্টারমশাইয়ের সাথে ফাজলামি মারবে?
: উঁঃ, কী আমার মাস্টার রে! ছাত্রীকে ভুলভাল বানানে প্রেমপত্র লেখে!
: বানানটা গৌণ, উদ্দেশ্যটা কিন্তু সৎ ছিল।
: চুমু খাওয়া।
: ইয়েস! তাই তো লিখেছিলাম, 'অয়ি প্রিয়া, চুম্বন মাগিব যবে, ঈষৎ হাসিয়া, বাঁকায়ো না গ্রীবাখানি, ফিরায়ো না মুখ'।
: ওটা রবিঠাকুরের লেখা। আর ঈষৎ বানানটা ভুল ছিল।
: ওটা পার্সোনাল টাচ ছিল। এবার কাছে এস।
: কক্ষণো না।
: বাজি হেরে গেছ ডিয়ার। বলেছিলে হোস্টেলে ঢুকতে পারব না। নাও আই অ্যাম হিয়ার, অ্যান্ড ইটস্ পে টাইম!
দুহাতে কাছে টেনে নেয় তুতুলকে পলাশ। ঠোঁটে ঠোঁট ডুবিয়ে দেয়। হাতটা সাহসী হয়ে ওঠে।
: ছি! এটা হোস্টেল। কোন সাহসে তুমি আমার রুমে এসেছ?
: লিখিত ছাড়পত্র আছে ম্যাডাম, তোমার বাপির সই করা। এই দেখ!
: আগে বলো, কী করে এটা পেলে! বাপি ... বাপির মতো দুঁদে উকিল সত্যিই এ কথা লিখে দিল?
: ইয়েস।
: কী করে?
: এই তো দেখ না, উনি ওনার লেটারহেডে লিখেছেন - দি বিয়ারার ইজ দি পার্সোনাল টিউটার অফ মাই ডটার। হি মে বি অ্যালাউড অ্যাকসেস টু হার রুম। আই উইল বিয়ার ফুল রেস্পন্সিবিলিটি ফর দ সেম। সাইনড্, শ্রীতপন সেনগুপ্ত, সিনিয়র অ্যাডভোকেট।
: বাপির মতো কড়া লোককে তুমি এখানে এসে পড়াবার কথা বলতে পারলে? চিঠিটা জাল নয় তো?
: তোমাদের হোস্টেল সুপারও তাই ভেবেছিলেন, তাই তোমার বাপিকে ফোন করে সন্তুষ্ট হয়ে, চিঠির কপি রেখে তবে আমায় আসতে দিয়েছেন। আসলে তোমার বাপির স্থির বিশ্বাস যে তাঁর মেয়ে ডাক্তারিতে নির্ঘাত ফেল করবে, যদি এই শর্মা সহায় না হয়। সুতরাং ... এবার কাছে এস। তিনবছরে তো চুমুর বেশি এগোতে দাওনি, আজ আর ছাড়ছি না।
: ইস্! অসভ্য! জীবনে তোমার সাথে আর কোনোদিন যদি বাজি লড়েছি!

ওদের শরীরের ওম মিশে যাচ্ছিল বসন্তের বাতাসে। ওদিকে কাঁটাকলের বাড়ির দোতলার বারান্দায় বসে ফাল্গুনের সন্ধ্যেটা উপভোগ করছিলেন তপনবাবু।
কফির কাপটা নামিয়ে রেখে হাভানা চুরুটটায় অগ্নিসংযোগ করে স্ত্রী কৃষ্ণার দিকে তাকিয়ে তিনি মৃদু হেসে বললেন, বুঝলে, এতক্ষণে মনে হয় যা হওয়ার হয়ে গেছে। নাহলে বুঝতে হবে এরা নেহাতই ছেলেমানুষ আছে এখনো।
কৃষ্ণা আর থাকতে না পেরে বলেই ফেলল, কীরকম বাবা গো তুমি! নিজের মুখে পারলে এসব বলতে?
উকিলবাবু একমুখ ধোঁয়া ছেড়ে হাসতে হাসতে বললেন, তাই বুঝি? আর নিজে যে তিনবছর ধরে বলে চলেছ আহা! হীরের টুকরো ছেলে! তার বেলা? আমি বাবা হয়ে ওদের একটু সাহায্য করলেই দোষ?

_০_

57 বার পঠিত (সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে)

শেয়ার করুন


Avatar: .

Re: ম্যাচ পয়েন্ট

ধ্যার একঘেয়ে বেকার নষ্ট টাইপ গল্প ।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন