Sarit Chatterjee RSS feed

Sarit Chatterjeeএর খেরোর খাতা।

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • হাল্কা নারীবাদ, সমানাধিকার, বিয়ে, বিতর্ক ইত্যাদি
    কদিন আগে একটা ব্যাপার মাথায় এল, শহুরে শিক্ষিত মধ্যবিত্ত মেয়েদের মধ্যে একটা নরমসরম নারীবাদী ভাবনা বেশ কমন। অনেকটা ঐ সুচিত্রা ভট্টাচার্যর লেখার প্লটের মত। একটা মেয়ে সংসারের জন্য আত্মত্যাগ করে চাকরী ছেড়ে দেয়, রান্না করে, বাসন মাজে হতভাগা পুরুষগুলো এসব বোঝে ...
  • ক্যানভাস(ছোট গল্প)
    #ক্যানভাস১ সন্ধ্যে ছটা বেজে গেলেই আর অফিসে থাকতে পারে না হিয়া।অফিসের ওর এনক্লেভটা যেন মনে হয় ছটা বাজলেই ওকে গিলে খেতে আসছে।যত তাড়াতাড়ি পারে কাজ গুছিয়ে বেরোতে পারলে যেন হাঁপ ছেড়ে বাঁচে।এই জন্য সাড়ে পাঁচটা থেকেই কাজ গোছাতে শুরু করে।ছটা বাজলেই ওর ডেক্সের ...
  • অবৈধ মাইনিং, রেড্ডি ভাইয়েরা ও এক লড়াইখ্যাপার গল্প
    এ লেখা পাঁচ বছর আগের। আরো বাহু লেখার মত আর ঠিকঠাক না করে, ঠিকমত শেষ না করে ফেলেই রেখেছিলাম। আসলে যাঁর কাজ নিয়ে লেখা, হায়ারমাথ, তিনি সেদিনই এসেছিলেন, আমাদের হপকিন্স এইড ইণ্ডিয়ার ডাকে। ইনফরমাল সেটিং এ বক্তৃতা, তারপর বেশ খানিক সময়ের আলাপ আলোচনার পর পুরো ...
  • স্বাধীন চলচ্চিত্র সংসদ বিষয়ক কিছু চিন্তা
    জোট থাকলে জটও থাকবে। জটগুলো খুলতে খুলতে যেতে হবে। জটের ভয়ে অনেকে জোটে আসতে চায় না। তবে আমি চিরকালই জোট বাঁধার পক্ষের লোক। আগেও সময়ে সময়ে বিভিন্নরকম জোটে ছিলাম । এতবড় জোটে অবশ্য প্রথমবার। তবে জোটটা বড় বলেই এখানে জটগুলোও জটিলতর হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। কেউ ...
  • 'শীতকাল': বীতশোকের একটি কবিতার পাঠ প্রতিক্রিয়া
    বীতশোকের প্রথম দিকের কবিতা বাংলা কবিতা-কে এক অন্য স্বর শুনিয়েছিলো, তাঁর কণ্ঠস্বরে ছিলো নাগরিক সপ্রতিভতা, কিন্তু এইসব কবিতার মধ্যে আলগোছে লুকোনো থাকতো লোকজীবনের টুকরো ইঙ্গিত। ১৯৭৩ বা ৭৪ সালের পুরনো ‘গল্পকবিতা’-র (কৃষ্ণগোপাল মল্লিক সম্পাদিত) কোনো সংখ্যায় ...
  • তারাবী পালানোর দিন গুলি...
    বর্ণিল রোজা করতাম ছোটবেলায় এই কথা এখন বলাই যায়। শীতের দিনে রোজা ছিল। কাঁপতে কাঁপতে সেহেরি খাওয়ার কথা আজকে গরমে হাঁসফাঁস করতে করতে অলীক বলে মনে হল। ছোট দিন ছিল, রোজা এক চুটকিতে নাই হয়ে যেত। সেই রোজাও কত কষ্ট করে রাখছি। বেঁচে থাকলে আবার শীতে রোজা দেখতে পারব ...
  • দি গ্ল্যামার অফ বিজনেস ট্রাভেল,কোপেনহেগেনে বিড়ি
    এই ঘটনাটি আমার নিজের অভিজ্ঞতা নয়। শোনা ঘটনা আমার দুই সিনিয়রের জীবনের।দি গ্ল্যামার অফ বিজনেস ট্রাভেলকোপেনহেগেনে বিডি***********পুরোট...
  • অদ্ভুত
    -কি দাদা, কেমন আছেন?-আপনি কে? এখানে কেন? ঘরে ঢুকলেন কিভাবে?-দাঁড়ান দাঁড়ান , প্রশ্নের কালবৈশাখী ছুটিয়ে দিলেন তো, এত টেনশন নেবেন না-মানেটা কি আমার বাড়ি, দরজা বন্ধ, আপনি সোফায় বসে ঠ্যাঙ দোলাচ্ছেন, আর টেনশন নেব না? আচ্ছা আপনি কি চুরি করবেন বলে ঢুকেছেন? যদি ...
  • তারার আলোর আগুন
    তারার আলো নাকি স্নিগ্ধ হয়, কাল তাহলে কেন জ্বলে মরল বারো, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে আরো সত্তর জন! তবু মৃত্যু মিছিল অব্যাহত। আজও রাস্তায় পড়ে এক স্বাস্থ্যবান শ্যামলা যুবক, শেষবারের মতো ডানহাতটা একটু নড়ল। কিছু বলতে চাইল কি ? চারপাশ ঘিরে দাঁড়িয়ে থাকা সশস্ত্র ...
  • 'হারানো সজারু'
    ১এক বৃষ্টির দিনে উল্কাপটাশ বাড়ির পাশের নালা দিয়ে একটি সজারুছানাকে ধেইধেই করে সাঁতার কেটে যেতে দেখেছিল। দেখামাত্রই তার মনে স্বজাতিপ্রীতি ও সৌভ্রাতৃত্ববোধ দারুণভাবে জেগে উঠল এবং সে ছানাটিকে খপ করে তুলে টপ করে নিজের ইস্কুল ব্যাগের মধ্যে পুরে ফেলল। এটিকে সে ...


বইমেলা হোক বা নাহোক চটপট নামিয়ে নিন রঙচঙে হাতে গরম গুরুর গাইড ।

সুরের ভুবনে

Sarit Chatterjee

সুরের ভুবনে
সরিৎ চট্টোপাধ্যায় / অণুগল্প

দশইঞ্চির স্কার্টটা হাঁটুর চার আঙুল ওপরেই শেষ হয়ে গেছে। লজ্জায় মুখ লাল হয়ে যাচ্ছিল পরমার। কোনরকমে হাঁটুতে হাঁটু চেপে মেক-আপ রুমে দাঁড়িয়েছিল সে।
দীপ্তি ওকে বোঝাচ্ছিল।
: দ্যাখ, আমাদের কাছে এই একটাই মূলধন, আমাদের গান। এই গ্ল্যামার জিনিসটাই তোকে প্লে ব্যাকের দুনিয়ায় টপে নিয়ে যেতে পারে।
: তা'বলে এভাবে? আমাকে জোর করে আমার জঁরের বাইরের গান গাওয়াবার প্রয়োজনটা কী? ওরা জানতো না যে আমি আজ গুরুজির সামনে গাইব?
: প্লে-ব্যাক গাইতে হলে সব রকম গানই গাইতে হবে। পাব্লিক খাচ্ছে যে। 'মা পা ধা নি সা'-এর টিআরপি জানিস কত?

পরমা মফস্বলের মেয়ে, অতশত বোঝে না। লোকসঙ্গীত শিখেছে শেষ ক'বছর সত্তরোর্ধ প্রবাদপ্রতীম বাউল রাধেশ্যাম দলুই মহাশয়ের তত্বাবধানে।

চারটে দলে ভাগ করে তিরিশজন প্রতিযোগীকে নামকরা চার শিল্পী তালিম দিচ্ছেন। পরমাদের দলের মেন্টর বিখ্যাত সঙ্গীত পরিচালক প্রিয়ম। প্লে-ব্যাক গাওয়ার সূক্ষ্ম তারতম্যগুলো রোজ শিখিয়ে দিচ্ছেন তিনি পরমাকে।

বেশ রাত অবধি সেদিন চলেছিল রেকর্ডিং। প্রায় রাত একটা। পরদিন সকালে স্টুডিওর মেকআপ রুমে প্রিয়মের লাশ পাওয়া গেল। মাথার বাঁপাশে গভীর ক্ষত। কোনো ভারী জিনিস দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। একটা রক্তমাখা কাঠের স্টুল বাজেয়াপ্ত করেছিল পুলিস।

পুলিস অনেককেই জেরা করেছিল। জিজ্ঞাসাবাদে প্রিয়ম সম্পর্কে কিছু কথা আসে পুলিসের কানে। সে যে অতিরিক্ত সুরাসক্ত সেটা সবাই জানত। তবে নারীঘটিত কোনো কেলেঙ্কারির কথা আগে চাউর হয়নি। কিন্তু এই ঘটনার পর দু-তিনজন মেয়ে জানায় সে কথা। রাত হলে মাঝেমধ্যে শালীনতার মাত্রা পেরিয়ে যেত প্রিয়ম। পরমা কিন্তু সেরকম কোনো ঘটনার কথা অস্বীকার করে। শুধু জানায় যে ওর চোখের সামনে একা থাকতে অস্বস্তি হতো তার।

পুলিস যা আন্দাজ করে তা হলো আততায়ী বাঁহাতি, প্রচণ্ড শক্তিশালী এবং খুনটা পূর্বপরিকল্পিত নয়। কিন্তু অত রাতে অত মানুষের ভিড়ে কে যে ঘটনাস্থলে এসেছিল তার কোনো সাক্ষসবুদ পাওয়া সম্ভব হয়নি।

ক'দিন টিভি, সংবাদপত্রে ফলাও করে আলোচনার পর সবই থিতিয়ে গেল। 'মা পা ধা নি সা'ও আবার পূর্ণোদ্দমে ফিরে এল বসার ঘরের বোকাবাক্সে। কেসটার কিন্তু আর কোনো কিনারা করা গেল না।

শেষ দিন। ফাইনাল রাউন্ডে কড়া প্রতিযোগিতার পর পরমাই জিতল। ট্রফি, শংসাপত্র, চেক, নিজস্ব প্লে ব্যাক গাওয়ার চুক্তির কাগজ হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছিল। প্রথম সারিতে বসে ভবতোষবাবু ও পরমার মা চোখের জল ধরে রাখতে পারছিলেন না।

পরমার চোখদুটো শুধু একজনকে খুঁজছিল। না, আজ আর আসেন নি গুরুজি। সেদিনের পর আর দেখাই হয়নি।

প্রিয়মের হাতটা সেদিন তখন পরমার স্কার্টের নিচে খেলে বেড়াচ্ছিল। পরমার শরীরের ওপর ঝুঁকে পড়ে চুমু খাওয়ার চেষ্টা করছিল সে।
: তোকে আমি ... তুই শুধু দেখতে থাক কোথায় নিয়ে যাব! তুই এক নম্বর প্লে ব্যাক সিংগার হবি।
: প্লিজ স্যর! ছেড়ে দিন। আমি ওরকম মেয়ে নই। আমি পারব না।
: কেউই মায়ের পেট থেকে পড়েই ওরকম হয় না। হতে হয়। এটাই সিস্টেম!
হাঁপাচ্ছিল প্রিয়ম। মুখে বিন্দু বিন্দু ঘাম। পরমার ঠোঁটদুটোর কিছুতেই নাগাল পাচ্ছিল না ও।

হঠাৎ পরমার চোখদুটো বিস্ময়ে বড়ো হয়ে গেল। রাধেশ্যাম দলুই ডান হাত দিয়ে প্রিয়মের কলারটা ধরে অবলীলাক্রমে টেনে সোজা করে দাঁড় করালেন। যৌবনে, ঢোল বাজাতেন তিনি। দুহাতই তাঁর সমান চলে। তারপর, বাঁহাতে কাঠের স্টুলটা তুলে নিয়ে সপাটে মারলেন ওর মাথার বাঁপাশে। মাটিতে লুটিয়ে পড়ল প্রিয়ম।

আজ পরমা কাঁদছে। সবাই ভাবছে ঈপ্সিত এই আনন্দের মুহূর্তে সেটাই স্বাভাবিক।
আর প্রান্তিক এক গ্রামে টিভির সামনে বসে, অমলিন হাসি হেসে আপন মনেই বলছেন সুরসম্রাট রাধেশ্যাম দলুই, খুব ভালো গেয়েছিস মা। ভালো থাকিস!

-০-

শেয়ার করুন


Avatar: Rajashri

Re: সুরের ভুবনে

অসাধারন ভালো লেগেছে!
Avatar: দীপক বিশ্বাস।

Re: সুরের ভুবনে

খুব ভালো লাগলো।বন্ধুদের জন্য শেয়ারকরছি।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন