রৌহিন RSS feed

রৌহিন এর খেরোর খাতা। হাবিজাবি লেখালিখি৷ জাতে ওঠা যায় কি না দেখি৷

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • মন্দিরে মিলায় ধর্ম
    ১নির্ধারিত সময়ে ক্লাবঘরে পৌঁছে দেখি প্রায় জনা দশেক গুছিয়ে বসে আছে। এটা সচরাচর দেখতাম না ইদানীং। যে সময়ে মিটিং ডাকা হ’ত সেই সময়ে মিটিঙের আহ্বাহক পৌঁছে কাছের লোকেদের ফোন ও বাকিদের জন্য হোয়া (হোয়াটস্যাপ গ্রুপ, অনেকবার এর কথা আসবে তাই এখন থেকে হোয়া) গ্রুপে ...
  • আমাদের দুর্গা পূজা
    ছোটবেলায় হঠাৎ মাথায় প্রশ্ন আসছি্ল সব প্রতিমার মুখ দক্ষিন মুখি হয় কেন? সমবয়সী যাকে জিজ্ঞাস করেছিলাম সে উত্তর দিয়েছিল এটা নিয়ম, তোদের যেমন নামাজ পড়তে হয় পশ্চিম মুখি হয়ে এটাও তেমন। ওর জ্ঞান বিতরন শেষ হলো না, বলল খ্রিস্টানরা প্রার্থনা করে পুব মুখি হয়ে আর ...
  • দেশভাগঃ ফিরে দেখা
    রাত বারোটা পেরিয়ে যাওয়ার পর সোনালী পিং করল। "আধুনিক ভারতবর্ষের কোন পাঁচটা ঘটনা তোর ওপর সবচেয়ে বেশী ইমপ্যাক্ট ফেলেছে? "সোনালী কি সাংবাদিকতা ধরল? আমার ওপর সাক্ষাৎকার মক্সো করে হাত পাকাচ্ছে?আমি তানানা করি। এড়িয়ে যেতে চাই। তারপর মনে হয়, এটা একটা ছোট্ট খেলা। ...
  • সুর অ-সুর
    এখন কত কূটকচালি ! একদিকে এক ধর্মের লোক অন্যদের জন্য বিধিনিষেধ বাধাবিপত্তি আরোপ করে চলেছে তো অন্যদিকে একদিকে ধর্মের নামে ফতোয়া তো অন্যদিকে ধর্ম ছাঁটার নিদান। দুর্গাপুজোয় এগরোল খাওয়া চলবে কি চলবে না , পুজোয় মাতামাতি করা ভাল না খারাপ ,পুজোর মত ...
  • মানুষের গল্প
    এটা একটা গল্প। একটাই গল্প। একেবারে বানানো নয় - কাহিনীটি একটু অন্যরকম। কারো একান্ত সুগোপন ব্যক্তিগত দুঃখকে সকলের কাছে অনাবৃত করা কতদূর সমীচীন হচ্ছে জানি না, কতটুকু প্রকাশ করব তা নিজেই ঠিক করতে পারছি না। জন্মগত প্রকৃতিচিহ্নের বিপরীতমুখী মানুষদের অসহায় ...
  • পুজোর এচাল বেচাল
    পুজোর আর দশদিন বাকি, আজ শনিবার আর কাল বিশ্বকর্মা পুজো; ত্রহস্পর্শ যোগে রাস্তায় হাত মোছার ভারী সুবিধেজনক পরিস্থিতি। হাত মোছা মানে এই মিষ্টি খেয়ে রসটা বা আলুরচপ খেয়ে তেলটা মোছার কথা বলছি। শপিং মল গুলোতে মাইকে অনবরত ঘোষনা হয়ে চলেছে, 'এই অফার মিস করা মানে তা ...
  • ঘুম
    আগে খুব ঘুম পেয়ে যেতো। পড়তে বসলে তো কথাই নেই। ঢুলতে ঢুলতে লাল চোখ। কি পড়ছিস? সামনে ভূগোল বই, পড়ছি মোগল সাম্রাজ্যের পতনের কারণ। মা তো রেগে আগুন। ঘুম ছাড়া জীবনের কোন লক্ষ্য নেই মেয়ের। কি আক্ষেপ কি আক্ষেপ মায়ের। মা-রা ছিলেন আট বোন দুই ভাই, সর্বদাই কেউ না ...
  • 'এই ধ্বংসের দায়ভাগে': ভাবাদীঘি এবং আরও কিছু
    এই একবিংশ শতাব্দীতে পৌঁছে ক্রমে বুঝতে পারা যাচ্ছে যে সংকটের এক নতুন রুপরেখা তৈরি হচ্ছে। যে প্রগতিমুখর বেঁচে থাকায় আমরা অভ্যস্ত হয়ে উঠছি প্রতিনিয়ত, তাকে প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হচ্ছে, "কোথায় লুকোবে ধু ধু করে মরুভূমি?"। এমন হতাশার উচ্চারণ যে আদৌ অমূলক নয়, তার ...
  • সেইসব দিনগুলি…
    সেইসব দিনগুলি…ঝুমা সমাদ্দার…...তারপর তো 'গল্পদাদুর আসর'ও ফুরিয়ে গেল। "দাঁড়ি কমা সহ 'এসেছে শরৎ' লেখা" শেষ হতে না হতেই মা জোর করে সামনে বসিয়ে টেনে টেনে চুলে বেড়াবিনুনী বেঁধে দিতে লাগলেন । মা'র শাড়িতে কেমন একটা হলুদ-তেল-বসন্তমালতী'...
  • হরিপদ কেরানিরর বিদেশযাত্রা
    অনেকদিন আগে , প্রায় সাড়ে তিন বছর আগে এই গেঁয়ো মহারাজ , তখন তিনি আরোই ক্যাবলা , আনস্মার্ট , ছড়ু ছিলেন , মানে এখনও কম না , যাই হোক সেই সময় দেশের বাইরে যাবার সুযোগ ঘটেছিলো নেহাত আর কেউ যেতে চায়নি বলেই । না হলে খামোখা আমার নামে একটা আস্ত ভিসা হবার চান্স নেই এ ...

প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

রৌহিন

গত তিনদিন ধরে ফেসবুকের আকাশে বাতাসে ঘুরে বেড়াচ্ছে সেই অমোঘ বানী – অমর্ত্য সেন বলেছেন তালাকের ফলে মাত্র ১.৩% মুসলিম মহিলা বিচ্ছিন্না এবং ক্ষতিগ্রস্ত, অতএব তিন তালাক কোন সমস্যাই নয়। অমর্ত্য বামপন্থী (পড়ুন বামৈস্লামিক) বুদ্ধিজীবি বলেই এমন অসংবেদী কথা বলতে পারেন। এতেই প্রমাণ হল বামেরা কেবল মুসলিম তোষণকেই ধর্মনিরপেক্ষতা বোঝেন। তারা সিউডো সেকুলার। ইত্যাদি, প্রভৃতি।
প্রথমে একটু বিষয়টা বোঝা প্রয়োজন। কতটা সত্যি, কতটা জল, ইত্যাদি। ঘটনা হল প্রাতীচী ট্রাস্টের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে এই স্টাডি লিঙ্কটি নেই। সেটা সম্ভবত: প্রাতীচীরই গাফিলতি – ওএবসাইটটি আপডেটেড নয়। অতএব আমাদের ভরসা এ বিষয়ে টাইমস অফ ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত একটি রিপোর্ট। http://m.timesofindia.com/city/kolkata/Death-not-talaq-does-them-part-
in-Bengal/articleshow/55934400.cms

এই রিপোর্ট ফার্স্ট হ্যান্ড নয় কিন্তু কয়েকটা ব্যপার এখান থেকে বোঝাই যায়। প্রথমত: প্রাতীচী ট্রাস্ট শুধু তার অবজার্ভেশনটুকু প্রকাশ করেছেন – নিরীক্ষার ফলাফল। এটা সমস্যা কি না এ নিয়ে বক্তব্য রাখেননি। রেখে থাকলে সেটা এমনিতেও পদ্ধতিগত ভুল ধরা হত কারণ এই ধরণের সমীক্ষা থেকে কোন সিদ্ধান্তে আসা সম্ভব নয় – তা করাও হয় না। দ্বিতীয়ত:, অমর্ত্য এ বিষয়ে আদৌ কিছু বলেনি, তার সংস্থা একটা সমীক্ষা প্রকাশ করেছে মাত্র। এটাকে অমর্ত্যর বক্তব্য বলে প্রচার করলে এরপর থেকে দিলীপ ঘোষের কথাও মোদীর বক্তব্য হিসাবে প্রচার পেতে পারে। তৃতীয়ত:, ১.৩% র হিসাব কোন ডেটা সেটে সেটা পরিষ্কার জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।
এই সমীক্ষার বাইরেও একটা বিরাট বড় সমাজ আছে। তাতে মুসলমান বলে একটা সম্প্রদায় আছে। গরীব বলেও একটা সম্প্রদায় আছে। তাদের নিয়ে শহুরে বাবুদের, শাইনিং পরহিতাকাঙখী মধ্যবিত্তদের, হিন্দুত্ববাদী সংখ্যাগুরু সমাজের বিপুল পরিমাণ মাথাব্যথাও আছে। তিন তালাকের ফলে গরীব মুসলমান নারী কত কষ্টে আছে সে কথা ভেবে কয়েক পুকুর জল এদের চোখ দিয়ে গড়িয়েও গেছে। তা সেই সমাজকে আমরা কে কে দেখেছি কাছ থেকে? আমার নিজের দেখা খুব কম – আমি সমাজসেবক কোনদিন ছিলাম না – বিপ্লবী হবার শৌখিন মজদুরির শখও বহুদিন হল ঘুঁচেছে। তবে আমাদের পৈতৃক বাড়ি, যা এককালে গন্ডগ্রামই ছিল এখন কালের চাকায় চড়ে মফস্বলের দোরগোড়ায় উপনীত, সেখানে আমাদের বাড়ির পরেই শুরু হয় মুসলমান পাড়া। চেনা খুব সহজ। পাকা রাস্তা এবং ইলেক্ট্রিকের পোল, এখনো, আমাদের বাড়িতে এসেই শেষ হয়ে যায়। আগে মুসলমান পল্লী। গরীব মুসলমান পরিবার সব। আর কাজের সূত্রে কিছু গ্রামে গঞ্জে ঘুরে ফিরে দেখা কিছু পরিবার। তাদের দুয়েকজনের ঘরে পাত পেড়ে খেতেও হয়েছে কখনো সখনো বাধ্য হয়ে। আমার ভদরলোকি উঁচু নাক সিঁটকে রেখে। তা এটুকুই চেনা জানা। তালাকপ্রাপ্তা কারোর সাথে আলাপ হয়নি। নির্যাতিতা অসহায় নারী অনেক দেখেছি। এগুলো তথ্য হিসাবে অকিঞ্চিৎকর।
গুণীজনেরা বলবেন এত সারকাজম লেখার মান নষ্ট করে – এতটার প্রয়োজন ছিল না। আমার মতে ছিল। ছিল কারণ শাইনিং মধ্যবিত্ত এবং হিন্দুত্ববাদীদের এই হঠাৎ করে তালাক দরদী হয়ে ওঠায় আমি নির্যাতিতার পাশে দাঁড়ানোর সদিচ্ছা আদৌ দেখতে পাচ্ছি না। এটা নেহাৎই একটা রাজনৈতিক বক্তব্য, কারণ তাদের নিজেদের মহিলাদের জন্য এভাবে তাদের প্রাণ কাঁদে না। তাদের ঘরে এখনো “পরম্পরা”র নামে, “ভারতীয় সংস্কৃতি”র নামে নারী নির্যাতনের চাষ। এবং এই অছিলায় তিন তালাকের বিরোধিতা করার নামে একই সাথে একটু ইসলামকে গালিও দেওয়া গেল আবার অভিন্ন দেওয়ানী আইনের হয়ে একটু দালালীও করে নেওয়া গেল। চালনি বলে ছুঁচকে ---
বামপন্থীদের এই প্রসঙ্গে কী অবস্থান, এটা এই মুহুর্তে বেশ জটিল প্রশ্ন। কারণ বামপন্থী কারা, বামপন্থাই বা সঠিক কোনটা, এ নিয়ে দ্বন্দ্ব ও ধন্ধ অব্যাহত। আমি আমার মত করে বামপন্থার সংজ্ঞা স্থির করেছি এবং সেই সংজ্ঞা অনুযায়ী আমি নিজেকে বাম বলে মনে করি। অতএব এ বিষয়ে আমার ব্যক্তিগত অবস্থানটুকু বলব যা আমার ধারণানুযায়ী বামপন্থার বক্তব্য। এই বক্তব্যের দায় অন্য কোন বামপন্থী নাই নিতে পারেন।
১। তিন তালাক প্রথা সমর্থন করিনা। কারণ তা বর্তমান রূপে লিঙ্গ নিরপেক্ষ নয়, নারীবিরোধী। এই প্রথার পরিবর্তন চাই। যে মুসলিম মহিলারা এবং তাঁদের যেসব সহযোগীরা এজন্য মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড এবং ভারতীয় আইন ব্যবস্থার বিরুদ্ধে লড়ছেন তাঁদের সমর্থন করি।
২। অভিন্ন দেওয়ানি আইন সমর্থন করিনা। কারন ভারতীয় আইন বর্তমান রূপে প্রচুর অসঙ্গতিপূর্ণ এবং নিজেই লিঙ্গ নিরপেক্ষ নয়। এই আইনের আমূল সংস্কার না হওয়া অবধি অভিন্ন দেওয়ানী আইন আসলে হিন্দু আইনই। তা সমদর্শী নয়।
৩। মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড, হিন্দু আনডিভাইডেড ফ্যামিলি এক্ট, ম্যারেড উওম্যান এক্ট – এগুলির বিলুপ্তি চাই। পরিবর্তে এগুলির নতুন বিকল্প চাই যারা আধুনিক আইন ব্যবস্থা ও জীবনধারার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ হবে।
৪। আদিবাসীদের নিজস্ব বিচার ব্যবস্থা বা সালিশী সভার বিলুপ্তি চাইনা। কিন্তু সেই সভায় কোন বহিরাগতের কোনরকম প্রভাব থাকা চলবে না। কৌমের বাইরের কারো বিচার সালিশী সভায় চলবে না।
৫। সমাজের সমস্ত স্তরে সব রকম লিঙ্গভিত্তিক নির্যাতনের অন্ত চাই। শুধু নারীর ওপর নির্যাতন নয়, সমকামী, রূপান্তরকামী, রূপান্তরিত, উভকামী, হিজড়া, ইত্যাদিদের প্রতি সহমর্মী এবং সমতাপূর্ণ আইন চাই।
এগুলো আমার চাওয়া – আমার মতে বামপন্থী হিসাবে। অবস্থান। সংখ্যাগুরুর আগ্রাসনের বিরুদ্ধে। শাইনিং ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে। রাষ্ট্রক্ষমতার দম্ভের বিরুদ্ধে। আমার দেশের মানুষের পক্ষে।


মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3] [4] [5] [6] [7] [8] [9] [10]   এই পাতায় আছে 21 -- 40
Avatar: ranjan roy

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

আদিবাসী প্রশ্নে সামান্য দ্বিমত।

আমরা আদিবাসীদের নিজস্বতা ( কৌম সংস্কৃতি ইত্যাদি) নিয়ে একটু উলুত-পুলুত হয়ে থাকি। ওদের আইডেনটিটির সংরক্ষণ নিয়ে চিন্তিত থাকি। কিন্তু ওরা ঠিক টাইগার প্রজেক্টের বাঘের মত মানুষদের থেকে আলাদা কোন ইউনিক এনটিটি নয়। বিবর্তনের ধারায় ভৌগলিক-সামাজিক-আর্থিক কারণে পিছিয়ে পড়া কিছু জনগোষ্ঠী মাত্র।
অবশ্যই ওদের মধ্যে কিছু এমন সংস্কার ও মূল্যবোধ ( প্রকৃতির সঙ্গে সম্পর্ক, টোটেম পূজো, কিছু সামাজিক সংস্কার ইত্যাদি) টিঁকে আছে যা আমাদের চোখে ঈর্ষণীয়। কিন্তু ওরাও আজকে আগের জায়গায় দাঁড়িয়ে নেই।
আজকে ওরা মূলতঃ কৃষক সমাজ, সাবসিস্টেন্স লেভেলের কৃষিকর্মের ওপর নির্ভরশীল একটি জনগোষ্ঠী মাত্র।
সব সিস্টেমেই ভালমন্দ মিলে মিশে আছে। অবিচ্ছিন্ন ভাল কোন কিছুতেই নেই। সোশ্যালিস্ট কম্যান্ড ইকনমিতেও নয়।
অনেকে মুসলিম সমাজের বিবাহ প্রথাকে উন্নত মনে করেন কারণ তাতে সম্পর্কটি প্রজাপতির নির্বন্ধের ওপর নয়, সামাজিক কন্ট্র্যাক্টের উপর দাঁড়িয়ে, রীতিমত সাক্ষীর সইসাবুদ নিয়ে। তাই বরকে দেনমোহরও দিতে হয়।
অথচ তিনতালাকের মত বর্বরতা কে মেনে নেওয়া যায় না। সুখের বিষয় বাইশটি মুসলিম দেশে এই প্রথা ধর্মীয় মানা হয় নি, পরিত্যক্ত হয়েছে।
তাই আদিবাসী কৌমীসমাজের কিছু প্রথা ভাল হলেও ওদের কৌমী পঞ্চায়েতকে মান্যতা দিলে খপ কে বারণ করার আধার থাকবে না।
যারা বলছেন আদিবাসী কৌমী আদালত মহিলা বিরোধী নয় তারা কি বীরভূমে গাওতা সমাজের মুখিয়াদের নির্দেশে একাটি মহিলাকে শাস্তি দিতে গণধর্ষণের নিদান দেওয়ার কথাটা ভুলে গেছেন? কান পাতলেই শুনতে পাবেন-- অন্য সমাজে বিয়ে করার অপরাধে মৃত্যুদন্ড, চুল কেটে দেয়া ইত্যাদি।
আর চোর ধরতে , ব্যভিচারের দোষ এর তদন্তে গুণীন/বৈগা/জানগুরুদের অসীম ক্ষমতা ও অমানবিক বিধানের কথা। ডাইনি বলে মেরে ফেলা সেদিনও বঙ্গে ঘটেছে।
ডাইন অপরাধে কেন কোন পুরুষকে দোষী বলা হয় না?
এগুলো আফ্রিকা/ সাঁওতাল পরগণা/ বস্তার সর্বত্র সমান ভাবে সত্যি।

Avatar: মাধব

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

বুঝলাম না খাপ কেনো রিগ্রেসিভ আর আদিবাসীরা কেনো না। ভারতের নানান প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা নানান আদিবাসী গোষ্ঠিতে পনপ্রথা, বাল্যবিবাহর মতো প্রথা আছে। অনেক পরিমানে পিত্রীতান্ত্রিকোতাও আছে। টারা কেনো রিগ্রেসিভ না? তার থেকেও বেসিক প্রোস্নো, আমরা কি কোরে বলছি খাপ রিগ্রেসিভ আর আদিবাশীরা রিগ্রেসিভ না? আমরা কেনো আমাদের ভালো মন্দ বিচার খাপ আর আদিবাশিদের ওপোর চাপিয়ে দিচ্চি?
Avatar: মাধব

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

"গোমাতা পূজা বা সহমরণ সমর্থন করা হিন্দুরা আদিবাসীদের মতন নিজেদের মূল সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন মনে করেন না - তেমন যাপনেও তাদের আগ্রহ নেই" কে নিজেদের সমাজবিচ্চিন্ন মনে করেন আর কে মনে করেন না প্রশ্ন তো তা নয়। প্রশ্ন যে আমরা আমাদের ভালো মন্দ বিচার অন্যদের ওপর চাপাতে পারি কিনা। তাহলে কেন আবার বলা যে একদলের ওপর চাপাতে পারি আর অন্যদলের ওপর পারিনা? আদিবাসীদের সালিশীর সুবিধে দিতে পারলে খাপের সালিশী মেনে নিতে অসুবিধে কোথায়?
Avatar: মাধব

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

খাপের নিজস্ব বিচার ব্যবস্থা বা সালিশী সভার বিলুপ্তি চাইনা। কিন্তু সেই সভায় কোন বহিরাগতের কোনরকম প্রভাব থাকা চলবে না। গ্রামের বাইরের কারো বিচার সালিশী সভায় চলবে না।

এটা ঠিক আছে তো?
Avatar: রৌহিন

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

ঠিক কোথায় থাকলো - শব্দগুলো পালটে গেল তো মাধব বাবু। "আদিবাসীদের নিজস্ব বিচার ব্যবস্থা বা সালিশী সভার বিলুপ্তি চাইনা। কিন্তু সেই সভায় কোন বহিরাগতের কোনরকম প্রভাব থাকা চলবে না। কৌমের বাইরের কারো বিচার সালিশী সভায় চলবে না।" - এটা লিখেছিলাম। "আদিবাসী"টা "খাপ" হয়ে গেল - "কৌম"টা "গ্রাম" হয়ে গেল - তাতে মানেটা বেশ সুবিধাজনকভাবে পালটে যায় যে। ইচ্ছাকৃত?
আমাদের বিচার ওন্যদের ওপর চাপাতে পারিনা - সেটাই তো বলছি। "একদলের ওপর চাপাতে পারি"টা কখন বলা হল? বরং সেই দলই চাপিয়ে দিতে চাইছে এটাই বলছি।
রঞ্জনদা অনেকটাই একমত - আদিবাসী সমাজ মানেই তা বিশাল ভালো কিছু, বা সর্বত্র মাতৃতান্ত্রিক এমন নয়। কিন্তু বক্তব্যটা হল তা শোধরাতে হলে তা তাদের ভিতর থেকেই আসবে - সেই বিপ্লবের ভ্যানগার্ড আমরা হতে পারি না। যতই শুভচিন্তক হই না কেন। এবং তা একটি কন্টিনিউয়াস প্রসেস। আমার প্রশ্ন হল পরিবর্তে আমাদের হাতে যে বিকল্প আইন রয়েছে (মূলধারার আইন, দেশের আইন) তাতে যখন অজস্র গলদ, তখন অন্যের গলদ ধরতে যাওয়ার অহং কেন?
Avatar: cm

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

বরপণ ভাল নয় কন্যাপণ ভালো! অবশ্য হতেও পারে, অবুঝের মত সব কিছু সিমেট্রাইজ করলে হাতে পড়ে থাকে অবয়বহীন এক পিন্ড।
Avatar: somen basu

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

রঞ্জনবাবু... ডাইনের অপবাদ পুরুষদের ওপরেও চাপে... :-)
Avatar: pi

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

সোমেনবাবু , ঈপ্সিতা জিগেশ করার পর প্রতীচির দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন , প্রতীচী ইন্সটিটিউট এই সার্ভে এবং রিপোর্ট লেখার সময় সহযোগী ভূমিকা পালন করেছিল, যেমন আরো অনেকেই করেছিলেন। রিপোর্ট টার আনুষ্ঠানিক প্রকাশ উদ্বোধন অমর্ত্য সেন করেছিলেন ঠিকই, কিন্তু 'এটিকে প্রতীচীর রিপোর্ট বলা ঠিক নয়। এই রিপোর্ট প্রতীচীর সম্পত্তি নয়, ওয়েবসাইটে প্রকাশ করার অধিকারও প্রতীচীর নেই। Association SNAP এবং আরো একটি সংস্থা এই সার্ভের ব্যয়ভার বহন করেছিলেন। সেই অর্থের অন্তত কিছুটা তোলার জন্য তাঁরা এই রিপোর্টটি কেবল হার্ড কপিতেই বিক্রি করছেন আপাতত। এই বিষয়ে আরো বিশদ জানতে চাইলে, অথবা রিপোর্টটি সংগ্রহ করতে আগ্রহী হলে Sabir Ahamed এর সঙ্গে যোগাযোগ করা যেতে পারে।'
Avatar: somen basu

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

হ্যাঁ, এই তথ্যগুলো আমি পেয়েছি। এই লেখায় প্রথম কমেন্টটায় বলেওছি। অনেক ধন্যবাদ পাই। সাবির আহমেদের রেফারেন্সটা দেওয়ার জন্য...
Avatar: অর্নব

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

৪ নং বক্তব্যটার সমস্যা হচ্ছে, বিভিন্ন আইনের আমূল সংস্কার হওয়ার পরেও অভিন্ন আইন আনা সম্ভব নয় যদি আদিবাসীদের বাইরে রাখা হয়, কারণ তাহলে অভিন্ন হচ্ছেনা। আর জোর করে আদিবাসীদের বাইরে রাখা হলে, প্রত্যেকটি ধর্মীয় "কৌম" সেই দাবিটা রাখবে। এবং তাদের না বলার কোন কারণ থাকবেনা।
Avatar: রৌহিন

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

না জোর করে আদিবাসীদের বাইরে রাখা হবে একথা বলিনি। জোর করে তাদের ইনক্লুড করাটা সমস্যা বলেছি। কেউ চাইলে অবশ্যই আইনের ধারায় আসবেন। বর্তমান আইনের। সেই আইন যথেষ্ট ভালো বিকল্প নয়, সেটা জেনে রাখাটা আমাদের প্রয়োজন। আমূল সংস্কার হলে, বৈষম্য দূর করা গেলে আদিবাসীদের তার বাইরে রাখার দাবীও উঠবে না - কারণ তখন তা তাদের স্বার্থকেও দেখবে। তখন আইনের "অভিন্ন" হয়ে উঠতে বাঁধা নেই। কিন্তু সেদিন খুব কাছে নয় জানেন সেটা মনে মিত্র বাবুমশাই :D
Avatar: paka chele

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

একটি আদিবাসী গ্রামের কিছু লোক পঞ্চায়েতের বদলে দেশের আইন পছন্দ করতে পারেন, এবং অন্যরা তাদের পঞ্চায়েতের অধীনে থাকতে চাইতে পারেন। এখন এই দুই গোষ্ঠীর মধ্যে বিয়ে শাদী হলে কোন আইনে তাদের বিবাদের মীমাংসা হবে? এমনকি একই লোক ভিন্ন ভিন্ন সময়ে ভিন্ন ভিন্ন আইনের আশ্রয় নিতে চাইলে কি হবে?

একজন আদিবাসী যদি একজন অনাদিবাসীকে বিয়ে করেন (হিন্দু/মুসলমান/খ্রীষ্টান/বৌদ্ধ ইত্যাদি) তাহলে এই দম্পতি কোন আইনের অন্তর্ভুক্ত হবেন?
Avatar: মাধব

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

আইনের থেকে বেশি সমস্যা তো হচ্ছে দৃষ্টিভঙ্গী নিয়ে। বর্তমান আইন ভলো বিকল্প কিনা, তার কিরকম সংস্কার দরকার, সেসব তো অন্য তর্ক। ভারতের একটা গরিষ্ঠ অংশ যদি বর্তমান আইনের আওতায় আসতে পারে তাহলে আদিবাসীদের কেন তার বাইরে রাখার কথা হচ্ছে? আর আদিবাসীদের যদি বর্তমান আইনের থেকে ছাড় মিলতে পারে তাহলে খাপ সভা কেন ছাড় পাবেনা? অন্যান্য নানান জনগোষ্ঠীই বা কেন ছাড় পাবে না?
Avatar: ছোটোলোক

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

আদিবাসিরা আলাদাভাবে প্রোটেক্টেড। কিসব নিয়ম টিয়ম আছে। ওদের ক্ষ্যাপানো হয় না।
Avatar: ছোটোলোক

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

ওরা আর্থিকভাবে অনগ্রসর। ওদের তেমন দেখভাল করে না সরকার। ওরা রেগে গেলে খুব ঝামেলা পাকাবে। আবার ওরা না থাকলেও আদিবাসি কালচার থাকে না। বৈচিত্র টৈচিত্র, আদিবাসি আর্ট, আদিবাসি মদ, ফ্রি সেক্স, টুরিস্ট অ্যাট্রাক্শান, নাচ গান বাজনা, মাদল, সরলতা, তির ধনুক, টাঙ্গি, ওরা। ওরা ওরা। আমরা আমরা। ওদের একরম আইন, আমাদের আরেকরকম।
Avatar: BMMA

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

১। "এই আইনের আমূল সংস্কার না হওয়া অবধি অভিন্ন দেওয়ানী আইন আসলে হিন্দু আইনই।" - আইনের সংস্কার তো অবশ্যই জরুরি, লিঙ্গ নিরপেক্ষ করাও জরুরি । শুধু তো মুসলিম মহিলাদের তিন তালাক প্রথা বন্ধ নয়, মুসলিম মেয়েরা উত্তরাধিকারসূত্রে ছেলেদের মতোই সমানভাগে সম্পত্তি পাবে কিনা ,মুসলিম সমাজে বহুবিবাহ আইনসিদ্ধ থাকবে কিনা সেটা কিন্তু আইন কে লিঙ্গ নিরপেক্ষ করার পক্ষে খুব দরকারি,দাবি গুলো কিন্তু চাড্ডি নয় মুসলিম মহিলা সংগঠন গুলোই বলছে। BMMA ,মুসলিম পার্সোনেল উইমেন্স ল বোর্ড এটাও বলছে যে এই দাবিগুলো কোরান বিরোধী নয় ,এবং অনেক মুসলিম দেশেই এই পুরুষতান্ত্রিক প্রথা গুলোকে আইন করে বন্ধ করা হয়েছে । মুসলিম মেয়েদের সম্পত্তির উত্তরাধিকার,পুরুষের বহুবিবাহ এব্যাপারে লেখকের বক্তব্য কি ? ।
২। অভিন্ন দেওয়ানি আইন হিন্দু দেওয়ানি আইন নয় কারণ এর আওতায় অন্য মাইনরিটি সম্প্রদায় যেমন খ্রিশ্চান,শিখ, বুদ্ধিস্ট,জৈন,পারসী সম্প্রদায় ও আছে। অন্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের কোনো ওপর যখন রাষ্ট্রের অভিন্ন দেওয়ানি বিধি বলবৎ ,শুধু মুসলিম দের পার্সোনাল ল বজায় রাখা কি অন্য সংখ্যালঘু ভাইবোন দের প্রতি অবিচার নয় ?
৩। আদিবাসী সালিসি ব্যবস্থায় লেখকের উদ্বাহু সমর্থন দেখে জানতে ইচ্ছে করে ডাইনি হত্যা ও প্রণয়ঘটিত কারণে অন্য সম্প্রদায়ে ( কোনো ক্ষেত্রে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ে ) আদিবাসী কন্যার বিবাহ পরবর্তী সালিশি ও ক্যাঙ্গারু কোর্ট শাস্তিপ্রদান নিয়ে লেখকের মত কি ?
Avatar: ranjan roy

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

@সিএম,
"বরপণ ভাল নয় কন্যাপণ ভালো!"--এটা এই আলোচনায় কে বলেছেন?
@,সোমেনবাবু,
ডাইনের অপবাদ পুরুষের ওপর?
কোটিকে গোটিক। আমি ৩৪ বছর আদিবাসী এলাকায় থেকেও একটা কেস দেখিনি।
আপনি নিশ্চয়ই দেখেছেন। তবে দেখুন, নিশ্চয় এক্সেপশন হবে।
Avatar: ranjan roy

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

@BMMA,
আপনি বলছেন "মুসলিম সমাজে বহুবিবাহ আইনসিদ্ধ থাকবে কিনা সেটা কিন্তু আইন কে লিঙ্গ নিরপেক্ষ করার পক্ষে খুব দরকারি,দাবি গুলো কিন্তু চাড্ডি নয় মুসলিম মহিলা সংগঠন গুলোই বলছে। আ ,মুসলিম পার্সোনেল উইমেন্স ল বোর্ড এটাও বলছে যে এই দাবিগুলো কোরান বিরোধী নয় ,এবং অনেক মুসলিম দেশেই এই পুরুষতান্ত্রিক প্রথা গুলোকে আইন করে বন্ধ করা হয়েছে । "
---ঠিক কথা। এ'খানেই রৌহিন যা বলচেন সেটা ওজন পাচ্ছে। অর্থাৎ, এই যুক্তিযুক্ত দাবিগুলো মুসলিম সমাজের মেয়েদের কন্ঠস্বর হিসেবে উঠে আসছে। দরকার --তাদের পাশে দাঁড়ানো।
বাইরের থেকে এই কথাগুলো বললে সমাজের কর্তাব্যক্তিরা সহজেই--আমাদের ধর্মীয় প্রথার ওপর বিধর্মীদের আঘাত বলে লোক জড়ো করে ইস্যুটাকে সাইড ট্র্যাক করতে পারতেন।
একইভাবে হিন্দু কোড বিলেরও সংস্কার প্রয়োজন। এখনও সম্পত্তি নিয়ে মেয়েদের সব ব্যাপারে সমান অধিকার নেই।বিয়েতে মেয়েদের দান করাটা বন্ধ হোক। মেয়েরা কি সম্পত্তি নাকি!
Avatar: Atoz

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

সমানভাবে সম্পত্তি ভাগ করে বিয়ের সময়েই দিয়ে দেওয়া হোক। একেবারে শোধবোধ। তাহলে আর পরে মাসে মাসে টাকা চাওয়ার বাহানা থাকবে না।
Avatar: cm

Re: প্রসঙ্গ তিন তালাক: প্রতীচী ট্রাস্ট: অমর্ত্য সেন: এবং চাড্ডিত্ব

রঞ্জনদার জন্য, “ সাঁওতালদের মধ্যে নারীদের সম্মান প্রবলভাবে স্বীকৃত। এখনও সেখানে প্রতীকী কন্যাপণ চালু দেখেছি। ” সম্মানের এক আশ্চর্য মাপকাঠি সম্পর্কে জানা গেল বটে।

মন্তব্যের পাতাগুলিঃ [1] [2] [3] [4] [5] [6] [7] [8] [9] [10]   এই পাতায় আছে 21 -- 40


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন