বিপ্লব রহমান RSS feed

বিপ্লব রহমানের ভাবনার জগৎ

আরও পড়ুন...
সাম্প্রতিক লেখালিখি RSS feed
  • চম
    চমসিরিয়ে লিওন - ২০১৬, ১ ডিসেম্বর************...
  • সম্পর্ক
    চিরকালই আমার মনে হয়েছে মৃত্যু কোন সীমারেখা, ভেদাভেদের পরোয়া করেনা। আর যে মৃত তার ওপর এই পৃথিবীর কোন লেনদেন, সম্পর্ক,লিঙ্গ,ধর্ম, সমাজ সংস্কৃতির কোন নিয়ম খাটে না। কারণ সে আর কোথাও নেই। আঙুলের ফাঁকে গলে পড়া জল যেমন, শুধু স্মৃতির আর্দ্রতা অনুভব করা যায়। এমন ...
  • অমৃতকুম্ভের সন্ধানে'
    অমৃতকুম্ভের সন্ধানে' ঝুমা সমাদ্দার ১"বিরিয়ানি ? সেটা কি বস্তু হে দেবরাজ ?" "আরে, 'পলান্ন' রে, 'পলান্ন', পুরনো বোতলে নতুন মদ ।"ইন্দ্রের রাজসভায় মেনকার প্রশ্ন শুনে শুরুতেই এক দাবড়ানিতে থামিয়ে দিলেন দেবাদিদেব মহাদেব । অমনি ...
  • ম্যাচ পয়েন্ট
    ম্যাচ পয়েন্টসরিৎ চট্টোপাধ্যায় / অণুগল্প: খবরদার, টাচ করবে না তুমি আমাকে!ওপাশ ফিরে শুয়ে আছে তুতুল। সুন্দর মুখটা রাগে অভিমানে কাশ্মিরি আপেলের মতো লাল হয়ে আছে। পলাশ কিছুক্ষণ নিজের মনেই হাসল। তারপর জোর করে তুতলকে নিজের দিকে ঘুরিয়ে নিয়ে বলল, রাগটা কি আমার ওপর, ...
  • সুরের ভুবনে
    সুরের ভুবনেসরিৎ চট্টোপাধ্যায় / অণুগল্পদশইঞ্চির স্কার্টটা হাঁটুর চার আঙুল ওপরেই শেষ হয়ে গেছে। লজ্জায় মুখ লাল হয়ে যাচ্ছিল পরমার। কোনরকমে হাঁটুতে হাঁটু চেপে মেক-আপ রুমে দাঁড়িয়েছিল সে। দীপ্তি ওকে বোঝাচ্ছিল।: দ্যাখ, আমাদের কাছে এই একটাই মূলধন, আমাদের গান। এই ...
  • আমেরিকা, আমি এসে গেছি
    আমেরিকা, আমি এসে গেছিআসলে কী --------------অ্যাকচ...
  • আতঙ্কিত ভীমরতি
    আতঙ্কিত ভীমরতিঝুমা সমাদ্দারপরিস্কার দেখতে পাচ্ছি দু' দু'খানা ইন্ডিয়া। দেশের ভিতর দেশ ।একখানা দেশ শপিংমলে গিয়ে খুঁজে খুঁজে ঢেঁকিছাঁটা চাল ( না হে , দিশী নাম নয় , নাম তার ‘ব্রাউন রাইস’), কিউয়ি-স্ট্রবেরীর মতো সাত-বাসী বিদেশী ফল(গাছ-পাকা পেয়ারা-কামরাঙায় ...
  • হালাল বইমেলায় হঠাৎ~
    অফিস থেকে দুঘণ্টা আগে ছাড়া পেয়েই ছুট। ঠিক দুবছর পর একুশের বইমেলায়। বলবেন, কেন? সে এক মেলা উত্তর, না হয় এইবেলা থাক। আপাত কারণ একটাই, অভিজিৎ নাই!ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গেলেই মধুর কেন্টিনের কথা মনে পড়ে। অরুনের চায়ের কাপে চুমুক দিতে ইচ্ছে করে। কিন্তু সেখানে ...
  • নিলামওয়ালা ছ'আনা
    নিলামওয়ালা ছ'আনাসরিৎ চট্টোপাধ্যায় / ছোটগল্পপাঁচতারা হোটেলটাকে হাঁ করে তাকিয়ে দেখছিল সুদর্শন ছিপছিপে লম্বা ছেলেটা। আইপিএল-এর অকশান হবে এই হোটেলেই দুদিন পর। তারকাদের পাশাপাশিই সেদিন ভাগ্যনির্ণয় হবে ওর মতো কয়েকজন প্রায় নাম না জানা খেলোয়াড়ের। পাঁচতারায় ঢোকার ...
  • এক যে ছিল
    ১অমাবস্যা-পূর্ণিমা নয়, বছরের এপ্রিল-মে মাস এলেই জয়েন্টের ব্যথায় কাবু হয়ে পড়ে হরেরাম। গত তিন বছর ধরে এটি হচ্ছে। ক্রনিক রোগ বাঁধলো নাকি! হরেরামের চিন্তা হয়। অথচ চিকিৎসার তো কোনো ত্রুটি নেই। ...

জড়ো জীবন~

Biplob Rahman

["মোরে সান্তাল বানাইছে ভগমান গো/ মোরে মানুষ বানায়নি ভগমান"...]

গত জুনে গিয়েছিলাম রংপুর-দিনাজপুর। দুটি আদিবাসী সান্তাল গ্রামে মানবাধিকার লংঘনের সরেজমিন সংবাদ করতে। রংপুরে আকাশমনিতে বন সৃজন করবে বলে বন বিভাগ উচ্ছেদ নোটিশ দিয়েছে ভূমিহীন শত সান্তাল পরিবারকে। আর দিনাজপুরে ভূমি দখল করতে সন্ত্রাসীরা দিনে-দুপুরে চারজন সান্তাল কৃষককে গাছের সঙ্গে ঝুলিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে প্রায় পঙ্গু করে দিয়েছে। ...

খুব কাছ থেকে অনেকদিন পর দেখলাম অভাবের প্রকৃত করাল গ্রাস। ঘরে ঘরে ক্ষুধা। প্রতিটি সান্তাল পরিবারে দুবেলা, বড়োজোর একবেলা ভাত জোটে। তিন বেলা অন্ন সংস্থান হয়, এমন পরিবার খুজেঁ পাওয়া মুস্কিল।

স্কুল পড়ুয়া ছাত্রছাত্রীরা জানিয়েছে, এমন অনেক দিন হয়েছে, সকালে এক গ্লাস পানি খেয়ে তারা ক্লাসে গেছে। দুপুরে বাড়ি ফিরেও দেখে ভাত নেই। বাবা-মা সারাদিন ক্ষেতমুজুরি করার পর শুধু রাতে হয়তো সবাই পেট পুরে খেয়েছে। আবার স্কুল থেকে ফিরে ক্ষুধার্থ অবস্থাতেই জমিতে ক্ষেতমুজুরি করতে হয়েছে, এমন ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যাও কম নয়। ...

খর রোদের ভেতর মাটির ভগ্ন ঝুপড়ি ঘরগুলোর সামান্য ছায়ায় দাঁড়িয়ে কথা বলি নানা বয়সী আদিবাসী মানুষের সঙ্গে। কসাইয়ের নির্লিপ্ততায় দ্রুত হাতে টুকে নিতে থাকি নিউজ-নোট। কারো কারো ছবি তুলি মোবাইল ফোনে। গদলঘর্ম হতে হতে কল চিপে পানি খাই। ...

সে সময় নাম বিস্তৃত একজন মাঝ বয়সী কিষাণী আমাকে বলেছেন, প্রায় ২০ বছর আগে বিয়ে হয়েছে তার। বিয়ের পরদিন থেকেই তিনি স্বামী, শশুড়-শাশুড়ির সঙ্গে ক্ষেতে গেছেন মজুরি দিতে।...সেই থেকে শ্রম দাসত্ব চলছেই। অভাব, উচ্ছেদ আতংক কোনোটিরই যেনো শেষ নেই।...

ফেরার পথে বগুড়ার ধনকুণ্ডীর মোড়ে আমরা সাংবাদিক-মানবাধিকার দল ক্ষণিকের যাত্রা বিরতি করি। সেখানেই হঠাৎ চোখে পড়ে এক ভিনটেজ কার-- ফক্সওয়াগন গাড়ির খোলটিকে। এটি এখন শো-পিস, নগর নিসর্গ।

একসময় উত্তরবঙ্গের সান্তাল, ওঁরাও, মুণ্ডা, কোলসহ ২৭টি বিপন্ন আদিবাসী জনগোষ্ঠিদেরও আক্ষরিক অর্থে বিলুপ্তির পর হয়তো আমরা এমনি করে মমি বানিয়ে স্মৃতিচিহ্ন হিসেবে সড়ক মোড়ে সাজিয়ে বাড়াবো যন্ত্র-জীবনের শোভা! কে জানে?

ভাবতে ভাবতে, বিষম ঘোর লাগে এই চিন্তনে যে, এরাই নাকি দুর্ধর্ষ শিকারী জাতির উত্তোরাধীকার! এরাই তো নাচোলে ইলা মিত্রের নেতৃত্বে কাঁপিয়ে দিয়েছিলো জমিদারী। আরো আগে সান্তাল হুলে, দন্ত-দখরে ভোঁতা করে দিয়েছিল ব্রিটিশ রাজসিংহের।...আর ১৯৭১ এ সান্তাল-ওঁরাও-মুণ্ডা দল বেঁধে যোগ দিয়েছিলো মুক্তিযুদ্ধে। বাঙালি মুক্তিযোদ্ধার থ্রি নট থ্রি- রাইফেলের পাশাপাশি অসীম সাহসে নিজস্ব তীর-ধনুকে এরাই তো ঘেরাও করেছিল পাকিস্তানী সামরিক ঘাঁটি রংপুর সেনা নিবাস! সম্মুখ যুদ্ধে এরাও ঢেলেছে বুকের তাজা রক্ত!...

হায়! আজ সিঁধু নাই, কানহু নাই, বিরসা মুণ্ডাও তো নাই! আছে শুধু গুটি কয় দাতাগোষ্ঠির অর্থপুষ্ট ভেড়ার ছালওয়ালা এনজিও, আর মিশনারী গির্জা। অপরপ্রান্তে হাড্ডিসার, প্রায় ভগ্ন মেরুদণ্ডী কালো কালো মানুষজন!

__

[নিউজ লিংক: http://www.kalerkantho.com/print-edition/news/2014/06/17/97066]
__
মূল লেখাটি এখানে: http://biplobcht.blogspot.com/2014/09/blog-post_29.html
বিভাগ: আদিবাসী অধিকার, ব্লগাড্ডা, মুক্তমনা, বাংলাদেশ


Avatar: aranya

Re: জড়ো জীবন~

পড়লাম। আর কি লিখব জানি না। বস্তুত, কিছুই লেখার নেই। একই শোষণ, অত্যাচারের ইতিহাস চলে আসছে কতদিন ধরে ..
Avatar: Biplob Rahman

Re: জড়ো জীবন~

একটু দেরীতে বলছি, আপনার বিনীত পাঠ ও প্রতিক্রিয়ার জন্য ধন্যবাদ। চলুক।


আপনার মতামত দেবার জন্য নিচের যেকোনো একটি লিংকে ক্লিক করুন